সোমবার, ৬ এপ্রিল, ২০২০ | আপডেট ১৪ মিনিট আগে

জলসায় নিয়ে খেলনা কিনে দিয়ে শিশুকে ধর্ষণ চেষ্টা !

অনলাইন ডেস্ক

জলসায় নিয়ে খেলনা কিনে দিয়ে শিশুকে ধর্ষণ চেষ্টা !

নওগাঁর সাপাহারে মাদ্রাসায় জলসা (ধর্মীয় সভা) শুনতে নিয়ে গিয়ে খেলনা কিনে দেওয়ার লোভ দেখিয়ে সাত বছরের শিশুকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। পরে অভিযুক্ত বৃদ্ধকে আটক করেছে পুলিশ। তার নাম আব্দুল ওয়াহেদ। এ ব্যাপারে সাপাহার থানায় একটি মামলা দায়ের হয়েছে।

আটক আব্দুল ওয়াহেদ উপজেলার দিঘীর হাট মিরা পাড়ার মৃত শেখ মোহাম্মাদ নাদুর ছেলে। নির্যাতিতা শিশু একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণির ছাত্রী।

ধর্ষণচেষ্টার অপরাধে মঙ্গলবার সন্ধ্যার দিকে পুলিশ তাকে আটক করে থানা হেফাজতে নেয়।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, গত ১১ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে শিশুকন্যার পরিবারের সাথে ওই গ্রামের আব্দুল ওয়াহেদের ভালো সম্পর্ক থাকায় তিনি ওই শিশুকন্যাকে পাশর্নিবর্তী একটি মাদ্রাসায় জলসা (ধর্মীয় সভা) শুনতে নিয়ে যাবে বলে তার মাকে বলে। শিশুকন্যাও জালসা শুনতে যাবে বলে বায়না ধরে। পরে তার মা ওই বৃদ্ধের সাথে মেয়েকে জলসা শুনতে পাঠায়। জলসাবাড়ী নিয়ে গিয়ে ওই বৃদ্ধ শিশুটিকে নানান ধরনের খেলনা কিনে দেয়। পরে বাড়ি ফেরার পথে মেয়েটিকে মাঠের মধ্যে পাশবিক নির্যাতন চালিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা চালায়। এ সময় শিশুটি কাঁদতে থাকলে ও বাসায় তার মাকে বলে দেবে বলে জানালে বৃদ্ধ তাকে ফুসলিয়ে আরো খেলনা কিনে দেওয়ার কথা বলে বিষয়টি তাৎক্ষণিক ভুলিয়ে দেয়। বাসায় ফিরে মেয়েটি কিছু না বললেও পরে শারীরিক সমস্যা দেখা দেয়। পরে তার মাকে বিষয়টি জানায়। এক সপ্তাহ পরে বাচ্চার মা ১৮ ফেব্রুয়ারি মঙ্গলবার সকালে নওগাঁ সদর হাসপাতালে বাচ্চাটিকে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যায়।

ঘটনা জানতে পেরে পুলিশ ওই দিনই বৃদ্ধ ওয়াহেদকে সন্ধ্যার দিকে আটক করে থানা হেফাজতে নেয় এবং রাতেই তার বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের করে বুধবার সকালে তাকে নওগাঁ জেলহাজতে পাঠায়।

সাপাহার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুল হাই বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আটক ওয়াহেদ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছে।

(নিউজ টোয়েন্টিফোর/তৌহিদ)

মন্তব্য