শনিবার, ৪ এপ্রিল, ২০২০ | আপডেট ২৪ মিনিট আগে

পাপিয়ার এক হাতে কাবার ছবি, অন্য হাতে মন্দিরের

নিজস্ব প্রতিবেদক

বহিষ্কৃত যুব মহিলা লীগ নেত্রী শামীমা নূর পাপিয়ার মুখ থেকে জিজ্ঞাসাবাদে বেরিয়ে আসছে অনেক চাঞ্চল্যকর তথ্য। তদন্তে উঠে আসছে অনেক প্রভাবশালীর সঙ্গে তার বিশেষ সম্পর্ক এবং ব্যবসার বিষয়টিও।

গত শনিবার দুপুরে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে জাল টাকা বহন ও অবৈধ টাকা পাচারের অভিযোগে শামীমা নূর পাপিয়া ওরফে পিউসহ চারজনকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব।

পরদিন সকালে র‌্যাব পাপিয়ার ঢাকার বাসা, অফিস এবং নরসিংদীর বাড়ি থেকে বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ আলামত সংগ্রহ করে।

তবে এরইমধ্যে পাপিয়ার দেওয়া তথ্যে তদন্তে উঠে আসছে, অনেক প্রভাবশালীর নাম। পাপিয়াকে কারা আশ্রয়-প্রশ্রয় দিয়েছেন, এবং কারা পাপিয়ার কাছ থেকে সুবিধা নিয়েছেন এর সব তথ্য এখন আইনপ্রয়োগকারী সংস্থার হাতে।

র‌্যাব বলছে, কীভাবে পাপিয়ার উত্থান হয়েছে সে বিষয়টি নিয়েও তদন্ত চলছে।

এদিকে বহিষ্কৃত যুব মহিলা লীগ নেত্রী শামীমা নূর পাপিয়াসহ গ্রেপ্তার চারজনকে তিন মামলায় পাঁচ দিন করে ১৫ দিনের রিমান্ডে পাঠিয়েছে আদালত।

পাপিয়ার প্রত্যেকটি তথ্যকে অত্যন্ত গুরুত্বের সঙ্গে তদন্ত করা হচ্ছে। তার অবৈধ কাজের সহযোগি যেই হোক না কেন তাকে আইনের আওতায় নেওয়া হবে।

জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, ধনাঢ্য ব্যবসায়ীদের ব্ল্যাকমেইল, চাঁদাবাজি, মাদক ব্যবসা ও দেহ ব্যবসাই পাপিয়ার মূল পেশা। গ্রেফতারের পর দেখা যায়, পাপিয়ার এক হাতে কাবার ছবি, অন্য হাতে মন্দিরের ছবি আঁকা রয়েছে।

এদিকে তাকে গ্রেপ্তারের বিষয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশেই পাপিয়াকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তার অপরাধ অনুযায়ী বিচার করা হবে।

প্রসঙ্গত, শনিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) গ্রেফতারের পর ওইদিন রাতেই নরসিংদীর বাসায় এবং রোববার (২৩ ফেব্রুয়ারি) ভোরে হোটেল ওয়েস্টিনে তাদের নামে বুকিং করা বিলাসবহুল প্রেসিডেন্সিয়াল স্যুটে অভিযান চালানো হয়। এছাড়া ফার্মগেট এলাকার ২৮ নম্বর ইন্দিরা রোডে অবস্থিত রওশন’স ডমিনো রিলিভো নামক বিলাসবহুল ভবনে তাদের দুটি ফ্ল্যাটে অভিযান চালিয়ে একটি বিদেশি পিস্তল, দুটি পিস্তলের ম্যাগজিন, ২০ রাউন্ড পিস্তলের গুলি, পাঁচ বোতল বিদেশি মদ ও নগদ ৫৮ লাখ ৪১ হাজার টাকা, পাঁচটি পাসপোর্ট, তিনটি চেক, বিদেশি মুদ্রা, বিভিন্ন ব্যাংকের ১০টি ভিসা ও এটিএম কার্ড জব্দ করে র‌্যাব।

(নিউজ টোয়েন্টিফোর/তৌহিদ)

মন্তব্য