রবিবার, ৭ জুন, ২০২০ | আপডেট ০৪ ঘণ্টা ৩১ মিনিট আগে

৫৭ বছরে ১৫৮ নদীর মৃত্যু

অনলাইন ডেস্ক

৫৭ বছরে ১৫৮ নদীর মৃত্যু

আজ ১৪ মার্চ আন্তর্জাতিক নদী কৃত্য দিবস। এ দিনটি সামনে রেখে আজ ঢাকার একটি বহুল প্রচারিত পত্রিকায় প্রকাশিত রিপোর্ট বলেছে- বাংলাদেশে গত ৫৭ বছরে ১৫৮ নদী মরে গেছে। ভারতের সাথে যৌথ নদী কমিশন, নদী রক্ষা কমিটি গঠন এবং পরিবেশবাদীদের আন্দোলন কোনো কিছুই নদীকে রক্ষা করতে পারছে না।

ভারত থেকে প্রবাহিত প্রধান প্রধান নদী থেকে একতরফা পানি প্রত্যাহার, বাঁধ  নির্মাণ এবং দেশের ভেতরে অপরিকল্পিত রাস্তা-কালভার্ট নির্মাণের ফলে পানি প্রবাহ বন্ধ হয়ে নদীগুলো ধীরে ধীরে মরে যাবার সংকটের কথা জানিয়েছেন পরিবেশ বিজ্ঞানীরা।

একদা প্রধান যাতায়াত ও পণ্য পরিবহণের মাধ্যম নদীপথ এখন মৃত। নৌপথ সংকুচিত হওয়ার পাশাপাশি বাড়ছে পানি শুষ্কতার ঝুঁকি। একই সঙ্গে পরিবেশ-প্রতিবেশ ও কৃষিভিত্তিক অর্থনীতি হুমকিতে পড়ার আশঙ্কা করছেন পরিবেশবিদেরা।

ওদিকে, দেশের  দক্ষিণ-পশিমাঞ্চলের অনেক নদীতে এখন শুধু জোয়ারের সময় লঞ্চ-ট্রলার চলাচল করতে পারলেও ভাটার সময় এসব নৌরুট অচল হয়ে যাচ্ছে। গত কয়েক বছরে চর বা ডুবোচরের সৃষ্টি হয়েছে গোটা নদীপথ জুড়ে। এসব নদীতে অনেক স্থানে ফেরি চলাচলও ব্যাহত হচ্ছে।

সবচেয়ে হতাশার বিষয় হচ্ছে- 'ভাগের মা গঙ্গা পায় না'- এমন অবস্থায় পড়ে নদী তাঁর জীবন রক্ষা করতে পারছে না। বাংলাদেশে নদীপথে চলাচলের বিষয়টি দেখ-ভাল করছে আভ্যান্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (আইডব্লিউটিএ); নদীর তীর রক্ষা এবং খননের কাজ করছে পানি উন্নয়ন বোর্ড; নদীর জমির  মালিক হিসেবে তা ইজারা দেবার ক্ষমতা দেয়া হয়েছে ভূমি মন্ত্রণালয়কে; নদীর পানির ব্যবহার উপযোগিতা নিশ্চিত করার দায়িত্ব পরিবেশ অধিদপ্তরের; নদীতে যে মাছ আছে তার মালিক ফিসারিজ বিভাগ; আর ডলফিন, কুমিরের মত বিলুপ্তপ্রায় প্রাণি রক্ষা করছে বন মন্ত্রণালয়।

ফলে দেখা যাচ্ছে সরকারের একাধিক কর্তৃপক্ষ একা এক নদীকে নিয়ে কর্তৃত্ব করছে গিয়ে খোদ নদীটির হয়েছে মরণ দশা।

নদীর বিপন্ন দশা প্রসঙ্গে 'পরিবেশ বাঁচাও আন্দলনের' (পবা) চেয়ারম্যান আবু নাসের খান বলেন, পরিবেশ, অর্থনীতি, কৃষি ও রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা রক্ষার জন্যই নদীর নাব্যতা ফিরিয়ে দিতে হবে;  দূষণ ও দখল থেকে মুক্ত করতে হবে।

এ প্রসঙ্গে ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক বিশিষ্ট পরিবেশবিজ্ঞানী আইনুন নিশাত বলেছেন, বাংলাদেশের ভূখণ্ডের ৮০ শতাংশ গঠিত হয়েছে নদীবাহিত পলি দ্বারা। জালের মত বিস্তৃত নদীবেষ্টিত বাংলাদেশে কোনো একটি নদী শুকিয়ে গেলে এর সাথে সরাসরি সংযুক্ত অপরাপর নদীও পানি না পেয়ে মারা  যাবে। এর ফলে সংকটে পড়বে দেশের অর্থনীতি ও পরিবেশ-প্রতিবেশ।

(নিউজ টোয়েন্টিফোর/তৌহিদ)

মন্তব্য