বৃহস্পতিবার, ৪ জুন, ২০২০ | আপডেট ০৮ মিনিট আগে

তথ্য গোপন করার খেসারত দিচ্ছে নোয়াখালীর ২ পরিবার

নোয়াখালী প্রতিনিধি

তথ্য গোপন করার খেসারত দিচ্ছে নোয়াখালীর ২ পরিবার

করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) সন্দেহে নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী উপজেলার দুটি পরিবারের ছয় সদস্যকে আইসোলেসনে রাখা হয়েছে।

এরা হলেন- আড়াই বছর বয়সী ও আট মাস বয়সী দুই শিশু, ১৩ বছর বয়সী এক শিশু, ৩৯ বছর বয়সী একজন পুরুষ, ২৩ বছর বয়সী এক নারী ও ৫০ বছর বয়সী এক নারী।

উপজেলা প্রসাশন থেকে আইসোলেসনে থাকা রোগীদের বাড়ি দুটি লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে।

বুধবার সকালে সোনাইমুড়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা টিনা পাল বাড়ি দুটি লকডাউন ঘোষণা দেন।

এরআগে মঙ্গলবার রাতে সর্দি ও জ্বর নিয়ে শিশুসহ ৬জন রোগীর উপসর্গগুলো দেখে তাদের সোনাইমুড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আইসোলেসন ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়।

সোনাইমুড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মাইনুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, মঙ্গলবার রাতে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে সরকারি এ্যাম্বুলেন্স পাঠিয়ে ৬জন রোগীকে হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। তাদের সবার সর্দি ও জ্বর ছিল। বর্তমানে শিশুরা ছাড়া বাকিদের অবস্থা ভালো।

তিনি আরও জানান, কয়েকদিন আগে অসুস্থরা এক দুবাই প্রবাসী আত্মীয়ের সংস্পর্শে এসেছিলেন। এরপর থেকে জ্বরে ভুগলেও তারা তথ্য গোপন করে সুস্থ হওয়ার চেষ্টা করেছিলেন। সবার শরীর থেকে নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য বিকেলে চট্টগ্রামে পাঠানো হবে।

সোনাইমুড়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা টিনা পাল জানান, অসুস্থদের বাড়ি দুটি লকডাউন ঘোষণা করে প্রশাসনের নজরদারীতে রাখা হয়েছে। একই সাথে এলাকায় সর্তকর্তামূলক মাইকিং করা হয়েছে।

(নিউজ টোয়েন্টিফোর/তৌহিদ)

মন্তব্য