বুধবার, ৩ জুন, ২০২০ | আপডেট ০১ ঘণ্টা ০১ মিনিট আগে

মালদ্বীপে অর্ধলাখ অবৈধ বাংলাদেশী অভিবাসীরা তীব্র খাদ্য সংকটে

লাকমিনা জেসমিন সোমা

মালদ্বীপের প্রায় অর্ধলাখ অবৈধ বাংলাদেশী অভিবাসীরা তীব্র খাদ্য সংকট আর স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে দিন কাটছে। করোনার প্রভাবে দেশটিতে এরইমধ্যে অর্থনৈতিক ধ্বস নামায় এসব অবৈধ কর্মীকে ফিরিয়ে নিতে বাংলাদেশকে বারবার চাপ দিচ্ছে মালদ্বীপ সরকার। তাদের ফিরিয়ে আনতে না পারলেও পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে ১শ টন খাবারের এক জাহাজ পাঠিয়েছে বাংলাদেশ। আর পুরো ঘটনাপ্রবাহের উপর নজর রাখছে স্থানীয় বাংলাদেশ দুতাবাস।

মালদ্বীপের রাজধানী মালে শহরের ব্যস্ততম এক সড়ক 'মাজেধি মাগু'। এই রাস্তার নামি-দামি শপিং মল আর অট্টালিকার পাশেই ছোট্ট এক খুপড়ি ঘরে আশ্রয় নিয়েছেন কিছু বাংলাদেশী অভিবাসী। কবুতরের খোপের মতো শ্বাসরুদ্ধকর এক পরিবেশে বন্দি এই মানুষগুলো। 

যাদের বেশিরভাগেরই চাকরী নেই; নেই জমানো টাকা কিংবা পযার্প্ত খাবার সংস্থান। ভিডিও কলে নিউজ টোয়ন্টিফোরের কাছে এমন মানবেতর জীবন-যাপনের চিত্র তুলে ধরেন ভুক্তভুগিরা। মালদ্বীপে এমন আরও কিছু বাংলাদেশীর সাথে কথা হয়, যাদের মুখেও একই ভাষ্য।

দক্ষিণ এশিয়ার ১১৫ বর্গমাইলের পযর্টন নির্ভর ছোট্ট দেশ মালদ্বীপ। মাত্র ৫ লাখ জনসংখ্যার দেশটিতে বাংলাদেশীই আছে প্রায় ১ লাখ। এরমধ্যে মালদ্বীপ সরকারের হিসাব অনুযায়ী অবৈধ বাংলাদেশী কর্মী প্রায় ৪০ হাজার। বেসরকারি হিসাবে তা অর্ধলাখেরও বেশি। 

করোনার প্রভাবে বর্তমানে দেশটি একেবারেই পর্যটক শূন্য হয়ে পড়ায়, ব্যাপক চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছে এর অর্থনীতি। এমন পরিস্থিতিতে অন্য দেশের নাগরিকদের মতোই প্রায় অর্ধলাখ অবৈধ বাংলাদেশী কর্মীকে ফিরিয়ে নিতে বাংলাদেশকে বারবার চাপ দিচ্ছে দেশটি।

স্থানীয় দূতাবাস থেকে কয়েকশ বাংলাদেশীর খাবার যোগানের ব্যবস্থা করলেও সংকটে আছে হাজার হাজার মানুষ। এমন পরিস্থিতিতে বাংলাদেশীদের ফিরিয়ে আনতে না পারলেও অনেকটা চাপের মুখেই কিছুটা মন গলাতে গেল বুধবার মালদ্বীপ সরকারকে ১০০ টন খাবার ও মেডিকেল সরঞ্জাম উপহার পাঠায় বাংলাদেশ।

 

নিউজ টোয়েন্টিফোর/কামরুল

মন্তব্য