সোমবার, ২৫ মে, ২০২০ | আপডেট ০৪ ঘণ্টা ১১ মিনিট আগে

শিক্ষার্থীদের বেতন মওকুফের দাবি ছাত্র সমাজের

রেজাউল করিম মানিক, রংপুর

শিক্ষার্থীদের বেতন মওকুফের দাবি ছাত্র সমাজের

চলমান বৈশ্বিক মহামারিতে সরকারি নির্দেশনায় সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় বিপাকে পড়েছে শিক্ষার্থী সহ বেসরকারি পর্যায়ের শিক্ষকরা। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান চলাকালীন অনেক শিক্ষক এবং কলেজের শিক্ষার্থী টিউশনি করে পড়াশুনার খরচ জোগাতো। তারা টিউশনির টাকা দিয়েই কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ের বেতন সেমিস্টার ফি দিত।

কিন্তু সরকারি নির্দেশনায় সকল বিশ্ববিদ্যালয়সহ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় মানবেতন জীবন যাপন করছে তারা। কারণ শিক্ষার্থীদের অধিকাংশই নিম্ন ও মধ্যবিত্ত পরিবারের সন্তান।

মানুষ গড়ার কারিগর শিক্ষক ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কর্মচারী এবং বে-সরকারি শিক্ষক কর্মচারীদের সরকারি প্রোণদনার আওতায় আনার দাবি জানিয়েছে ছাত্র সমাজ।

সোমবার সকালে নগরীর একটি কমিউনিটি সেন্টরে জাতীয় ছাত্র সমাজ কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির
উদ্যোগে সংবাদ সম্মেলনে এসব দাবি জানান কমিটির সাধারণ সম্পাদক আল মামুন।

এই নিদারুণ বাস্তবতায় জাতীয় ছাত্র সমাজ সারাদেশের শিক্ষার্থীদের নিয়ে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন। শিক্ষার্থীদের বেতন বা সেমিস্টার ফি মওকুফ এর জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নিকট বিনয়ের সাথে দাবি জানায় তারা।

এসময় ছাত্র সমাজের সাধারণ সম্পাদক আল মামুন বলেন, করোনা ভাইরাসের এই বৈশ্বিক প্রেক্ষাপটে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ হওয়ার পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের টিউশনিও সঙ্গত কারণেই বন্ধ হয়ে গেছে। এ কারণে তারা অনেকেই নিজ নিজ স্থানে লকডাউন হয়ে আছেন। কিন্তু তাদের মাসিক বেতন তারা দিতে পারছেন না, বিশেষ করে বে-সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় গুলোতে অনেক অসহায় শিক্ষার্থী তাদের সেমিস্টার ফি দিতে ব্যর্থ হওয়ায় ঝরে পরার আশঙ্কা করছি। করোনাকালীন সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের বেতন মওকুফের দাবি জানাচ্ছি।

মানুষ গড়ার কারিগর শিক্ষক দেরকে তাদের এ দুর্দিনে সহায়তা করে শিক্ষিত জাতি গঠনে বিশেষ ভূমিকা রাখতে বিশেষভাবে দাবি জানাচ্ছি।

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশের উন্নয়ন ও অগ্রযাত্রার কিংবদন্তি রাজনীতিক, সাবেক রাষ্ট্রপতি জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের হাতে গড়া সংগঠন জাতীয় ছাত্র সমাজ সব সময় ছাত্রদের অধিকার ও মর্যাদা রক্ষায় কাজ করে যাচ্ছে।

(নিউজ টোয়েন্টিফোর/তৌহিদ)

মন্তব্য