সংঘবদ্ধ ধর্ষণের পর শিশু চাঁদনীকে হত্যা দিয়ে

অনলাইন ডেস্ক

সংঘবদ্ধ ধর্ষণের পর শিশু চাঁদনীকে হত্যা দিয়ে

টঙ্গীতে ময়লার স্তূপ থেকে সাত বছরের শিশুর লাশ উদ্ধারের ঘটনার রহস্য উদ্ঘাটন করেছে র‌্যাব-১। চাঁদনী নামের শিশুটিকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়। 

গত ১৬ মে টঙ্গী পূর্ব থানার মধুমিতা রেলগেট এলাকার ময়লার স্তূপ থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। 

র‌্যাব-১-এর গাজীপুর কম্পানি কমান্ডার আব্দুল্লাহ আল মামুন গতকাল সোমবার জানান, গত রোববার রাতে আটক কিশোরের (১৫) কাছ থেকে ঘটনার বিবরণ পাওয়া গেছে। সে টঙ্গীর বেলতলা মসজিদ রোডের কাউছার মিয়ার বাড়ির এক ভাড়াটিয়ার ছেলে। সে চুরি-ছিনতাইয়ে জড়িত। 

রোববার রাত আড়াইটার দিকে টঙ্গী পূর্ব থানার রেলস্টেশন এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে কিশোর জানায়, ঘটনার দিন চাঁদনী মাঠে খেলতে এলে সেসহ তার সহযোগী চকোলেট কিনে দেওয়ার কথা বলে মধুমিতা রেলগেট এলাকায় সজীবের ইটের স্তূপের আড়ালে নিয়ে যায়। সেখানে তারা শিশুটিকে ধর্ষণ করে। শিশুটি কান্নাকাটি করে অজ্ঞান হয়ে পড়ে। বাড়িতে গিয়ে সব কিছু বলে দিতে পারে—এ আশঙ্কা থেকে তারা গলাটিপে তাকে হত্যা করে।

 

নিউজ টোয়েন্টিফোর/কামরুল 

মন্তব্য