বৃহস্পতিবার, ১৩ আগস্ট, ২০২০ | আপডেট ২২ মিনিট আগে

শতাধিক ছাত্রীকে ধর্ষণ ও শ্লীলতাহানি করে ২২ বছরের ছাত্র!

অনলাইন ডেস্ক

শতাধিক ছাত্রীকে ধর্ষণ ও শ্লীলতাহানি করে ২২ বছরের ছাত্র!

শতাধিক বিশ্ববিদ্যালর ছাত্রীর সঙ্গে ধর্ষণ, শ্লীলতাহানি, ব্ল্যাকমেল-সহ বিভিন্ন অপকর্মের সঙ্গে যুক্ত ২২ বছর বয়সের এক ছাত্র। এ ব্যাপারে তার বিরুদ্ধে অভিযোগ করা হয়েছে। চাঞ্চল্যকর এ ঘটনাটি ঘটে মিশরে। এ ঘটনায় ফাঁস হওয়ার পর রীতিমতো তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে।

অভিযুক্ত কায়রোর আমেরিকান বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্র বলে জানা গেছে।

অভিযোগকারীরও প্রত্যেকে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র। ঘটনার তদন্তে নেমেছে কায়রো প্রশাসন।

জানা গেছে, খুব ছোট বয়স থেকেই নারীদের উপর অত্যাচার করে চলেছে আহমেদ বাসাম জাকি নামের অভিযুক্ত ওই যুবক। দীর্ঘ ৭ বছর ধরে তার শিকার হয়েছে ১০০-এর বেশি তরুণী ও কিশোরী। প্রভাবশালী বাবার সাহায্য নিয়ে এতদিন বিষয়টি ধামাচাপা দিয়ে রেখেছিল সেই যুবক। শেষ পর্যন্ত আমেরিকান বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীরা সোশ্যাল মিডিয়ায় সরব হওয়ায় বিষয়টি প্রকাশ্যে আসে। সামনে আসে যুবকের আসল চেহারা।

এক ছাত্রী অভিযোগ করেছেন, ছোটবেলা তার ও তার বোনের শ্লীলতাহানি করে ওই যুবক। মুখ খুললে বিকৃত ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকিও দেয়। আরেক ছাত্রীও যুবকের বিরুদ্ধে হয়রানি, শ্লীলতাহানির অভিযোগ করেছেন। অন্য এক ছাত্রী জানিয়েছেন, দীর্ঘদিন ধরেই যুবকের বিরুদ্ধে নারীদের সঙ্গে অশালীন আচরণের অভিযোগ উঠছে। প্রতিবারই অভিযুক্তকে বাঁচিয়ে দিয়েছে তার প্রভাবশালী বাবা। এত কুকীর্তি সত্ত্বেও ছেলে যাতে পড়াশোনা চালিয়ে যেতে পারে, সেজন্য বারে বারে স্কুল বদল করেছে।

অভিযোগ পেয়ে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে কায়রোর আমেরিকান বিশ্ববিদ্যালয়। যদিও ২০১৮ সালেই বিশ্ববিদ্যালয় ছেড়ে দেয় অভিযুক্ত যুবক। কর্তৃপক্ষের দাবি, প্রত্যেক পড়ুয়ার সুরক্ষা ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করা বিশ্ববিদ্যালয়ের দায়িত্ব। তাই ধর্ষণ, শ্লীলতাহানির মতো ঘটনা কোনওভাবেই বরদাস্ত করা হবে না।

জানা গেছে, আমেরিকান বিশ্ববিদ্যালয় থেকে গা ঢাকা দিয়ে বার্সেলোনা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয় ওই যুবক। কিন্তু সেখানে গিয়েও রেহাই মেলেনি। অভিযোগ প্রকাশ্যে আসতেই তাকে সাসপেন্ড করে বার্সেলোনা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

পুলিশ-প্রশাসনের পাশাপাশি ঘটনার তদন্তে নেমেছে মিশরের জাতীয় মহিলা কমিশনও।

(নিউজ টোয়েন্টিফোর/তৌহিদ)

মন্তব্য