ঘুমন্ত অবস্থায় সাপের দংশনে শিশুসহ দুইজনের মৃত্যু

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি:

ঘুমন্ত অবস্থায় সাপের দংশনে শিশুসহ দুইজনের মৃত্যু

ঝিনাইদহে ঘুমন্ত অবস্থায় সাপের দংশনে দুই দিনে দুইজনের মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। এমন ঘটনায় শৈলকূপা উপজেলাজুড়ে সাপ আতংক বিরাজ করছে। 

শৈলকূপায় সাপের কামড়ে জেরিন নামে আড়াই বছরের এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার ভোর রাতে এ ঘটনা ঘটে। ওই শিশু উপজেলার হাকিমপুর ইউনিয়নের হরিহরা গ্রামের আলামিন মন্ডলের ছোট মেয়ে। 

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, প্রতিদিনের ন্যায় শিশু জেরিন রাতে ঘরে মায়ের পাশে ঘুমিয়ে ছিল। ভোর রাতে তাদের বিছানায় বিষধর সাপ উঠে ঘুমান্ত অবস্থায় শিশুটির ডান হাতে কামড় দেয়। এ সময় শিশুটির চিৎকারে তার মা জেগে উঠে। বিছানায় সাঁপ দেখে সেও চিৎকার করে উঠে। 

এ সময়  প্রতিবেশীরা ছুটে এসে শিশুটিকে উদ্ধার করে প্রথমে শৈলকুপা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। অবস্থার অবনতি দেখে কর্তব্যরত চিকিৎসক ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে রেফার্ড করে। সেখানে নিয়ে আসলে শিশুটি মৃত্যুর কোলে ঢোলে পড়ে। শৈলকুপা থানার ওসি জাহাঙ্গীর আলম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

এদিকে গত বুধবার গভীর রাতে ঝিনাইদহের শৈলকুপায় ঘুমান্ত অবস্থায় সাপের কামড়ে আব্দুর রশিদ (২২) নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে।  ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার ফুলহরি ইউনিয়নের আসান নগর গ্রামে। 

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, আসান নগর গ্রামের জুনাব আলীর ছেলে রং মিস্ত্রি আব্দুর রশিদ নিজ ঘরে ঘুমিয়ে ছিল। গভীর রাতে বিষধর সাপ তাকে দংশন করে। প্রথমে পিঁপড়ায় কামড় দিয়েছে বলে ধারণা করে। পরে সাপটি রশিদের গলায় আবার ছোবল দেয়। 

সে সময় তার চিৎকারে পরিবারের লোক ছুটে আসলে বিছানার উপর বিষধর সাপ দেখতে পায়। পরে পরিবারের লোকজন সাপটি পিটিয়ে হত্যা করে। প্রথমে ওঁঝা-কবিরাজ এনে ঝাড়ফোক করে রশিদকে বাঁচানোর চেষ্টা করা হয়। তাতে সম্ভব হয় না। ধীরে ধীরে সে মৃত্যুর কলে ঢলে পড়ে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ফুলহরী ইউপি চেয়ারম্যান জামিনুর রহমান বিপুল। 

 

নিউজ টোয়েন্টিফোর/কামরুল

মন্তব্য