নোয়াখালীতে হত্যা মামলা নিয়ে বাড়িতে হামলা-ভাঙচুর-অগ্নিসংযোগ

নোয়াখালী প্রতিনিধি

নোয়াখালীতে হত্যা মামলা নিয়ে বাড়িতে হামলা-ভাঙচুর-অগ্নিসংযোগ

নোয়াখালীর সুধারামের আন্ডারচর ইউপি মেম্বার হোরন হত্যা মামলার ঘটনা নিয়ে আসামি হারুন মোল্লার বাড়িসহ ৫টি বাড়িতে হামলা ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করেছে মৃত হোরন মেম্বারের ছেলে রিয়াদ ইউছুফ গং। এ ঘটনায় পুলিশ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করেছে। এলাকায় আতঙ্ক বিরাজ করছে।

এ ঘটনায় ৫০/৬০ জনকে আসামি করে বৃহস্পতিবার সুধারাম থানায় দুইটি মামলা হয়েছে। সুধারাম থানার পুলিশ হোরণ মেম্বারের ছেলে রিয়াদ, বকুল মাঝি, হাকিম, শরিফ, শাহিনসহ ৫ জন গ্রেপ্তার করে বৃহস্পতিবার দুপুরে আদালতে সোপর্দ করে পুলিশ। এ ঘটনা ঘটেছে বুধবার রাতে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানান, গত ২৬ জুন ২০২০ হোরন মেম্বার স্থানীয় বাজার থেকে মোটরসাইকেলে বাড়ি যাওয়ার পথে দুর্বৃত্তরা মোটরসাইকেল থামিয়ে হোরন মেম্বারকে ছুরি দিয়ে আঘাত করে ও পরে গুলি করে হত্যা করে। এ ঘটনায় সুধারাম থানায় আন্ডারচর ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক হারুন মোল্লাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এ হত্যা মামলা নিয়ে মৃত হোরন মেম্বারের ছেলে রিয়াদ, নাসির, সাহাব উদ্দিন, ইউছুফ, ফরাদ, আবদুল হাকিম, বকুল মাঝিসহ ২৫/৩০ জন অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী ও জোরদারেরা হত্যা মামলার আসামি হারুন মোল্লাসহ ৬/৭টি বাড়িতে বুধবার রাতে হামলা ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করা হয়।

এ ঘটনায় এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। ভয়ে নারী পুরুষ পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় পুলিশ দুইটি মামলা নিয়েছে। এলাকায় মামলা হামলা আতঙ্কে জনশূণ্য হয়ে পড়েছে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় বৃহস্পতিবার থেকে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

সুধারাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নবীর হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, হত্যা মামলার ঘটনায় কারো বাড়ি ঘরে হামলা ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করতে পারে না। যারা অগ্নিসংযোগ ও হামলা করেছে আমরা তাদের বিরুদ্ধে দুইটি মামলা নিয়েছি এবং হোরন মেম্বারের ছেলেসহ ৫ জন গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

(নিউজ টোয়োন্টিফোর/তৌহিদ)

মন্তব্য