জম্মু-কাশ্মীরের শিক্ষার্থীদের বৃত্তি ১০ গুণ বাড়িয়েছে ভারত সরকার

অনলাইন ডেস্ক

জম্মু-কাশ্মীরের শিক্ষার্থীদের বৃত্তি ১০ গুণ বাড়িয়েছে ভারত সরকার

জম্মু ও কাশ্মীরের শিক্ষার্থীদের জন্য 'প্রগতি ও সক্ষম বৃত্তি প্রকল্পের' অধীনে বৃত্তির পরিমাণ ১০ গুণ বাড়িয়ে বার্ষিক ৫ হাজার রুপি থেকে ৫০ হাজার রুপিতে উন্নীত করেছে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার।

সংশ্লিষ্ট এক কর্মকর্তা জানান, কেন্দ্রের মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রণালয় অল ইন্ডিয়া কাউন্সিল ফর টেকনিক্যাল এডুকেশন (এআইসিটিই) এর মাধ্যমে কারিগরি শিক্ষায় পড়াশোনা করা মেয়েদের আর্থিক সহায়তা দেওয়ার পাশাপাশি বিশেষ বিশেষ দক্ষতা সম্পন্ন শিক্ষার্থীদের সহায়তা দেওয়ার জন্য প্রকল্পটি চালু করে।

আরও পড়ুন:


ভারত বিশ্বের বৃহত্তর ভ্যাকসিন প্রস্তুতকারক দেশ: মোদি


ওই কর্মকর্তা বলেন, একটি উল্লেখযোগ্য পদক্ষেপের মাধ্যমে কেন্দ্রীয় সরকার প্রগতি ও সক্ষম বৃত্তি প্রকল্পের অধীনে জম্মু ও কাশ্মীরের শিক্ষার্থীদের জন্য বর্তমান ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষ থেকে বৃত্তির পরিমাণ বাড়িয়ে বার্ষিক ৫০ হাজার রুপি করেছে। এটি আগে ছিল ৫ হাজার রুপি।

প্রগতি প্রকল্পের আওতায়, জম্মু ও কাশ্মীরের বার্ষিক ৮ লাখ রুপির কম আয়ভুক্ত পরিবারের যেসব মেয়ে এআইসিটিই অনুমোদিত সংস্থাগুলোতে ২০২০-২১ সেশনের জন্য ভর্তি হবে, তারা এ বৃত্তি পাওয়ার যোগ্য হবে।

সক্ষম প্রকল্পের আওতায়, ডিগ্রি বা ডিপ্লোমা পর্যায়ে কারিগরি শিক্ষায় বিশেষ দক্ষতা সম্পন্ন প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী, যাদের পরিবারের আয় বছরে ৮ লাখ রুপির কম, তারাও এ বৃত্তি পাওয়ার জন্য উপযুক্ত।

এ দু’টি প্রকল্পের উদ্দেশ্য জম্মু ও কাশ্মীরের মধ্যে পড়াশোনা করা শিক্ষার্থীদের বৃত্তি দেওয়া। এ বৃত্তি পাওয়ার আবেদনের জন্য বছরে একবার ভারত সরকারের জাতীয় ই-স্কলারশিপ পোর্টালের (এনএসপি) মাধ্যমে রেজিস্ট্রেশনের আহ্বান জানানো হবে।

কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলটিতে সব ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউটের প্রিন্সিপালদের এনএসপি পোর্টালে মেয়ে শিক্ষার্থী ও বিশেষ দক্ষতা সম্পন্ন প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের কারিগরি শিক্ষা নিতে রেজিস্টার করতে বলা হয়েছে।

সূত্র : আল আরাবিয়া পোস্ট।

news24bd.tv কামরুল

মন্তব্য