পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকতে পর্যটকদের উপচে পড়া ভিড়

নয়ন বড়ুয়া জয়

চট্টগ্রামের পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকতে পর্যটকদের উপচে পড়া ভিড়। পর্যটন শিল্পের আঁধার কেটে দেখা মিলছে আশার আলো। তবে স্বাস্থ্যবিধির নেই কোনো বালাই। প্রশাসনও নীরব।

ট্যুরিস্ট পুলিশ বলছে, পর্যটকদের বার বার স্বাস্থ্যবিধি নিয়ে তাগাদা দিলেও কেউ শোনে কেউ শোনে না। তবে পর্যটকের ভিড় বেড়ে যাওয়ায় বাড়তি নিরাপত্তা দিতে হচ্ছে তাদের।

নৈসর্গিক সৌন্দর্য্যের বেলাভূমি চট্টগ্রামের পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকত। নগরীর কোলাহল পেরিয়ে মাত্র ১৪ কিলোমিটার দূরে চোখে পড়বে উত্তাল বিশাল জলরাশির বঙ্গোপসাগর। সৈকতের চারপাশে প্রকৃতির নৈসর্গিক মনলোভা দৃশ্যের হাতছানির সঙ্গে সমুদ্রবন্দরের কর্মব্যস্ততা আর বিশাল সমুদ্রের সঙ্গে কর্ণফুলী নদীর মিলনমেলা। সাগর পাড়ের বালুকাবেলা, বাতাসের শোঁ শোঁ শব্দ মন ভরিয়ে দেয় পর্যটকদের। তাই পর্যটকরা চট্টগ্রামে আসলে পতেঙ্গা না দেখে যাওয়া হয় না কারোই!

করোনার কারণে দীর্ঘ লগডাউন কাটিয়ে মুক্তির আনন্দ পেতে তাই দূর-দূরান্ত থেকে  দল বেধে সৈকতে  ছুটে আসছেন পর্যটকরা।

আরও পড়ুন: ভূতের ভয় দেখিয়ে ২ শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টা করল কবিরাজ

মহামারি করোনা ভাইরাস নিমূর্ল না হলেও স্বাস্থ্যবিধি মানার বালাই নেই আগত পর্যটকদের মাঝে। উপচে পড়া ভিড়ে এক অন্যের গাঁয়ে, কাঁধে কাঁধ দিলিয়ে উপভোগ করছেন নৈসর্গিক সৌন্দর্য্য। 

পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকতের ঐতিহ্যবাহী খাবার কাঁকড়া ভাজির কদর বেড়েই যাচ্ছে দিন দিন। তাই সমুদ্রের পাড় ঘেষে কাঁকড়ার দোকানে ভিড় করছে দর্শনার্থীরা।

কাঁদামাটি মিশ্রিত বালুকাময় এই সৈকতকে থাইল্যান্ডের পাতায়া বিচের আদলে সাজানো গেলে পর্যটকদের ভিড় আরো বাড়বে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

news24bd.tvতৌহিদ

মন্তব্য