সিলেটে বেপরোয়া ছাত্রলীগ, একের পর এক তাণ্ডবে অতিষ্ঠ মানুষ
সিলেটে বেপরোয়া ছাত্রলীগ, একের পর এক তাণ্ডবে অতিষ্ঠ মানুষ

সিলেটে বেপরোয়া ছাত্রলীগ, একের পর এক তাণ্ডবে অতিষ্ঠ মানুষ

সৈয়দ রাসেল, সিলেট

শত বর্ষের ঐতিহ্য সিলেট এমসি কলেজে ছাত্রাবাসে আগুন, কলেজ ছাত্রীকে কুপিয়ে জখম, আর সব শেষ গণধর্ষণ। ঘুরে ফিরে অভিযুক্তদের পরিচয় একই।  

সুশিল সমাজের প্রতিনিধিরা বলছেন, বিচারহীনতার সংস্কৃতিই এর জন্য দায়ী। বেপরোয়া ছাত্রলীগের জন্য কেউ কেউ অবশ্য রাজনৈতিক দুর্বৃত্তায়নকেউ দায়ী করছেন।

 

ছাত্রলীগের আধিপত্যের লড়াইয়ে কথা স্বীকার করে এসব বিষয় সুযোগ মতো প্রধানমন্ত্রীকে জানানোর প্রতিশ্রুতি দিলেন সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।

বিশ্ব ঐতিহ্যের অংশ হিসেবে স্বীকৃতি পাওয়া সিলেট এমসি কলেজের ছাত্রাবাস দাও দাও করে জ্বলছে।   ২০১২ সালে এই শতবর্ষী ছাত্রাবাস পোড়ানো দিয়ে শুরু হয় ছাত্রলীগের তাণ্ডব। সেই সময় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ হয় ছাত্রলীগ ও ছাত্র শিবির। পুড়ে ছাই হয় ছাত্রাবাসটির ৪২টি কক্ষ।  

news24bd.tv

ওই ঘটনায় ঘঠিত বিচার বিভাগীয় তিদন্ত কমিটি ছাত্র লীগের ১০ জন এবং ছাত্র শিবিরের ১৯ জনকে দায়ি করে প্রতিবেদন দেয়। ছাত্রাবাসে আগুনের ঘটনায় একাধিক মামলা হলেও শাস্তির আওতায় আসেনি কোনো অপরাধী।

২০১৬ সালে এমসি কলেজে পরীক্ষা দিতে এসে রক্তাক্ত হন সরকারি মহিলা কলেজের শিক্ষার্থী খাদিজা। শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ নেতা বদরুল প্রকাশ্যে তাকে কুপিয়ে যখম করে। সেই ঘটনায় তোলপাড় সৃষ্টি হয় সারা দেশে। ঐতিহ্যবাহী এই এমসি কলেজ ক্যাম্পাসে সব শেষ অপরাধ স্বামীকে বেঁধে রেখে  স্ত্রীকে গণ ধর্ষণ। এবারও আলোচনায় ছাত্রলীগ।   

গডফাদারদের প্রশ্রয় এবং বিচারহীনতার সংস্কৃতির কারণেই এই এ ঘটনাগুলো বারবার ঘটছে বলে মনে করছেন সিলেটের সুশাসনের জন্য নাগরিকের সভাপতি ফারুক মাহমুদ চৌধুরী।
   
আর ছাত্র সংগঠনগুলোর এমন কর্মকাণ্ডের পিছনে রাজনৈতিক দুর্বৃত্তায়নকেই দায়ী করছেন অনেকেই। জেলা বারের সাবেক সভাপতি ই.ইউ এমাদ উল্লাহ শহিদুল ইসলাম জাননা, যতদিন রাজনৈতিকভাবে এসব নিমূল করা না যাবে ততদিন এমন কর্মকাণ্ড চলতেই থাকবে।


আরও পড়ুন: সৌদি যেতে পারবে সবাই, ইকামার মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে


ছাত্রলীগের নানা অপকর্মের পাশাপাশি তাদের জবরদখলের কথা স্বীকার করলেন সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মাসুক উদ্দিন আহমদ। প্রধানমন্ত্রীর সাথে দেখা হলে এসব বিষয় তুলে ধরারও প্রতিশ্রুতি দেন তিনি।  

আগের ঘটনাগুলোর মতো এবারের ঘটনাও ধামাচাপা দেয়ার চেষ্ট হলে ভবিষ্যতে আরো বড় ঘটনা ঘটতে পারে বলে মনে করেন এই বিশিষ্টজনেররা। তাই দায়ীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি স্থানীয়দের।

news24bd.tv সুরুজ আহমেদ