১৭ বছর পর গ্রেপ্তার, তবে...

অনলাইন ডেস্ক

১৭ বছর পর গ্রেপ্তার, তবে...

রংপুরে এজাহারুল নামে জোড়া খুনের এক আসামিকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসার সময় তার মৃত্যু হয়েছে। পুলিশের দাবি, হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়।

মঙ্গলবার রাতে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা যান তিনি।

আপন দুই ভাইকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় দীর্ঘ ১৭ বছর পর গ্রেপ্তারি পরোয়ানা পায় পুলিশ।

এরপর মঙ্গলবার রাতে রংপুরের নোহালী ইউনিয়নের পূর্ব কচুয়া গ্রামে নিজ বাড়ি থেকে এজাহারুলকে গ্রেপ্তার করা হয়। তিনি পূর্ব কচুয়া গ্রামের মৃত নুর আলীর ছেলে।

মৃত এজাহারুলের শ্বশুর মোবারক আলী জানান, তার জামাই আগে থেকে হৃদরোগে ভুগছিলেন। এছাড়াও তার মেরুদণ্ড অপারেশন করা ছিল।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ২০০৩ সালের জুন মাসে বাঁশ কাটা নিয়ে বিরোধকে কেন্দ্র করে এজাহারুল তার আপন দুই ভাই হাকিনুর ও ভুট্রুকে কুপিয়ে হত্যা করে। এ ঘটনায় এজাহারুলের আরেক ভাই জানারুল ইসলাম বাদী হয়ে গঙ্গাচড়া থানায় মামলা দায়ের করেন।

এ মামলায় গত ২০ সেপ্টেম্বর এজাহারুলের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে রংপুরের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালত। 

গঙ্গাচড়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুশান্ত কুমার সরকার জানান, মঙ্গলবার রাতে এজাহারুলকে গ্রেফতারের জন্য পূর্ব কচুয়া গ্রামে তার বাড়িতে অভিযান চালায় পুলিশ। নিজ বাড়ি থেকে তাকে গ্রেফতার করে নিয়ে আসার সময় তার বুকে ব্যথা ও শ্বাসকষ্ট শুরু হয়। প্রথমে তাকে গঙ্গাচড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। অবস্থার অবনতি হলে পরে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাকে। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক এজাহারুলকে মৃত ঘোষণা করেন।

সূত্র- বিডি প্রতিদিন

news24bd.tv তৌহিদ

 

মন্তব্য