শিশুকন্যার দেওয়া তথ্যে উঠোনে পুঁতে রাখা গৃহবধূর লাশ উদ্ধার

অনলাইন ডেস্ক

শিশুকন্যার দেওয়া তথ্যে উঠোনে পুঁতে রাখা গৃহবধূর লাশ উদ্ধার

কক্সবাজারের মহেশখালীতে নিখোঁজ বলে প্রচার করা সেই গৃহবধূর মরদেহ মিলল শ্বশুরবাড়ির উঠোনে। ছয় দিন নিখোঁজ থাকার পর শনিবার রাতে মহেশখালী উপজেলার কালারমারছড়া ইউনিয়নের উত্তর নলবিলা এলাকার শ্বশুরবাড়ির উঠোনের মাটি খুঁড়ে গৃহবধূ আফরোজার লাশ পাওয়া যায়।

মহেশখালী থানার ওসি আবদুল হাই এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

নিহত আফরোজা বেগম (২৪) হোয়ানক ইউনিয়নের পুঁইছড়া এলাকার মোহাম্মদ ইসহাকের মেয়ে। তার স্বামী রাকিব হাসান বাপ্পী চকরিয়া উপজেলার বদরখালী ডিগ্রি কলেজের প্রভাষক। তিনি উত্তর নলবিলা এলাকার হাসান বশিরের ছেলে।

ওসি বলেন, গত ১২ অক্টোবর শ্বশুরবাড়ি থেকে আফরোজা বেগম ‘নিখোঁজ’ হন। এ ঘটনায় তার বাবা মোহাম্মদ ইসহাক বাদী হয়ে রাকিব হাসান বাপ্পীকে প্রধান আসামি করে চারজনের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করেন।

স্বজনদের পাশাপাশি পুলিশ বিভিন্ন স্থানে খোঁজ নিয়েও আফরোজার সন্ধান পাচ্ছিল না। মহেশখালী থানা পুলিশ শনিবার রাত ১১টায় আফরোজার লাশ উদ্ধার করে তার স্বামী রাকিব হাসান বাপ্পির বাড়ির আঙিনায় মাটির নিচে পুঁতে রাখা অবস্থায়।

আরও পড়ুন: ‌‘বলেছি, ২০১৮’র নির্বাচন মানি না, ফ্রেশ নির্বাচন দেওয়া হোক’

স্থানীয়রা জানান, এক বছর আগে বাপ্পির সঙ্গে আফরোজার বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে তাদের মধ্যে পারিবারিক কলহ চলছিল।  পারিবারিক কলহের জেরে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে মামলা পর্যন্ত গড়ায়।

বাপ্পির ১ম স্ত্রীর শিশুকন্যার তথ্যমতে, শনিবার রাত ১১টায় এএসপি মহেশখালী সার্কেল ও মহেশখালী থানার ওসি মো. আবদুল হাই ঘটনাস্থলে গিয়ে বাপ্পির উঠোনের মাটি খুঁড়ে আফরোজার লাশ উদ্ধার করেন।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য