মন্দিরের জমির দখল নিয়ে বিরোধ, ১৪৪ ধারা

আব্দুল লতিফ লিটু, ঠাকুরগাঁও

মন্দিরের জমির দখল নিয়ে বিরোধ, ১৪৪ ধারা

ঠাকুরগাঁওয়ে সনাতন হিন্দু ধর্মাবলম্বী ও ইসকন সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের আশঙ্কায় শ্রীশ্রী রসিক রায় জিউ মন্দির এলাকায় এ বছরও অনির্দিষ্টকালের জন্য ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে।

বুধবার (২০ অক্টোবর) দুপুরে সদর উপজেলার আউলিয়াপুর ইউনিয়নের মাদারগঞ্জ গ্রামের এ মন্দির এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করেন ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল মামুন।

প্রশাসন ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সদর উপজেলার আউলিয়াপুর এলাকায় শ্রীশ্রী রশিক রায় জিউ মন্দিরের জমির দখল নিয়ে হিন্দুধর্মের সনাতন ও ইসকন অনুসারীদের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল।

২০০৯ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর রশিক রায় জিউ মন্দিরে দুর্গাপূজা নিয়ে ইসকনপন্থী ও সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সংঘর্ষ হয়।

এ সময় ইসকনভক্তদের হামলায় ফুলবাবু নামের একজন নিহত হন। এরপর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে উপজেলা প্রশাসন মন্দির সিলগালা করে কার্যক্রম পরিচালনার দায়িত্ব নেয়।

তারপর থেকে ওই মন্দিরে পূজার সময় সংঘর্ষের আশঙ্কায় স্থানীয় প্রশাসন ১৪৪ ধারা জারি করে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, অন্য বছরের মতো এবারও সনাতন ধর্মাবলম্বীরা মন্দিরের বাইরে দুর্গাপূজা উদযাপনের আয়োজন করে।

অন্যদিকে ইসকন মতাদর্শীরা মন্দিরের ভেতরে দুর্গাপূজা পালনের প্রস্তুতি নেয়। এতে সনাতন ও ইসকন সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়।

তিনি আরও বলেন, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতির আশঙ্কায় রসিক রায় জিউ মন্দির এলাকায় পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। পূজা শেষ হলে ১৪৪ ধারা প্রত্যাহার করে নেওয়া হবে।

আরও পড়ুন: ঘুমের ওষুধ খাইয়ে ভাই-ভাবি-ভাতিজা-ভাতিজিকে খুন করে রায়হানুল

ঠাকুরগাঁও সদর থানার ওসি তানভিরুল ইসলাম বলেন, ১৪৪ ধারা জারি করার পর থেকে সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য