হোঁচট খেল রিয়াল মাদ্রিদ

আরিফুল ইসলাম

হোঁচট খেল রিয়াল মাদ্রিদ

চ্যাম্পিয়ন্স লিগে হোঁচট খেলো রিয়াল মাদ্রিদ। বি গ্রুপের ম্যাচে গ্যালাক্টিকোদের ৩-২ গোলে হারিয়েছে শাখতার দোনেৎস্ক। তবে উড়ন্ত সূচনা চ্যাম্পিয়ন বায়ার্ন মিউনিখের।

এদিকে এ গ্রুপের ম্যাচে জার্মান জায়ান্টদের কাছে ৪-০ গোলে ধরাশায়ী হয় আরেক স্প্যানিশ ক্লাব অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদ।
এ যেন আত্মসমর্পণ রিয়াল মাদ্রিদের।

এবারের ট্রান্সফার উন্ডোতে কোন ট্রান্সফার করেনি, যা কিনা রিয়ালের ৪০ বছরের ইতিহাসে ট্রান্সফার ছাড়া উইন্ডো পাড় করা। আর এমন আলোচনা উঠে যায় মাঠের হতাশাজনক পারফরম্যান্সে।
চ্যাম্পিয়ন্স লিগের বি গ্রুপের ম্যাচ।

কাপ্তান সার্জিও রামোসের অনুপস্থিতিতে স্পষ্ট হয় ডিফেন্সের দুর্বলতা। ছন্নছাড়া মিডফিল্ড আর অ্যাটাকিং লাইনআপ। ফাস্টহাফে তিনটা গোল হজর করে রিয়াল মাদ্রিদ।

২৯ মিনিটে তেতে, চার মিনিট মিনিট পর ভারানের আত্মঘাতী আর ৪২ মিনিটে মিডফিল্ডার সলোমন স্কোরবোর্ডে নাম লেখালে ৩-০’তে এগিয়ে যায় শাখতার দোনেৎস্ক। 

কোনঠাসা রিয়ালের ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা সেকেন্ডহাফে। ৫৪ মিনিটে মড্রিচের, আর ৫৯ মিনিটে ব্যবধান কমান ভিনিসিউস জুনিয়র।
দুইদলের দুটা গোল কাঁটা পড়ে ভিএআরে। যেখানে কষ্টটা বেশি রিয়ালের। যোগ করা সময়ে সমতা এনেও ৩-২ গোলের হার নিয়ে থাকতে হয় নিজেদের মাঠে।

এদিকে দুই মাস আগে লিসবনে ফাইনালের নায়ক কিংসলে কোমান এবার করলেন জোড়া গোল। জালের দেখা পেলেন লেয়ন গোরেটস্কা ও কোরোঁতাঁ তোলিসোও।

দাপুটে পারফরম্যান্সে আতলেতিকো মাদ্রিদকে ৪-০ গোলে উড়িয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শিরোপা ধরে রাখার অভিযান শুরু করল বায়ার্ন মিউনিখ।
এদিকে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে জয় পেয়েছে দুই ইংলিশ ক্লাব ম্যানচেস্টার সিটি ও লিভারপুল। পিছিয়ে পড়েও পোর্তোকে ৩-১ গোলে হারিয়েছে ম্যানসিটি। তবে আয়াক্সের বিপক্ষে কষ্টার্জিত জয় লিভারপুলের।

ইউরোপিয়ান প্রতিযোগিতায় পোর্তোর বিপক্ষে এনিয়ে তৃতীয় দেখা ম্যানচেস্টার সিটির। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সি গ্রুপের লড়াই। ঘরের মাঠের সিটিজেনদের আক্রমণাত্মক শুরুর পরেও লিড পোর্তোর। ম্যাচের ১৪ মিনিটে নজর কাড়া এক গোল দিয়াসের। 
তবে সফরকারীদের সে সুখ ক্ষণিকের। ডিবক্সে রাহিম স্টার্লিংকে ফাউল করে বসেন পেপে। আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকার আগুয়েরো স্পট কিকে সমতায় ফিরে ম্যানসিটি।


আরও পড়ুন: ২১৭ দিন পর ‘পূর্ণিমাকে নিয়ে’ ফিরলেন ফেরদৌস


ম্যাচের ২২ মিনিটে এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ হারায় পোর্তো। স্বাগতিকরা পিছিয়ে পড়তে পারতো ৪২ মিনিটেও। দলের রক্ষা কাইল ওয়াকারে। ১-১’এ বিরতি।

৬৫ মিনিটে লিড নেয় ম্যানসিটি। দারুণ এক ফ্রি-কিকে বল জালে জড়িয়ে দেন গিনদোয়ান।

বিচ্ছিন্ন কিছু সুযোগ পেলেও কাজে লাগাতে ব্যর্থ পোর্তো। ৭৩ মিনিটে ফিল ফোডেনের পাস থেকে সিটির পক্ষে তৃতীয় গোলটা করেন বদলি হিসেবে নামা ফেররান তরেস।

শেষ পর্যন্ত ৩-১ গোলের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে পেপ গুয়ার্দিওলার দল।
এদিকে লিভারপুল-আয়াক্স ম্যাচে ফলাফল নির্ধারণ হয়েছে আত্মঘাতি গোলে। ৫৪ বছর পর চ্যাম্পিয়ন্স লিগে একে অপরের মুখোমুখি হয়েছিল দুই দল। যদিও ডি গ্রুপের এই ম্যাচে আগ্রাসী হতে দেখা যায়নি কাউকেই।

৩৫ মিনিটে নিকোলাস তাগলিয়াফিকোর আত্মঘাতী গোলে এগিয়ে যায় লিভারপুল। যেটা করে পুঁজি করে শেষ হাসি অলরেডদের।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য