সেন্টমার্টিন দ্বীপে আটকা পড়েছেন প্রায় ৫০০ পর্যটক

নিজস্ব প্রতিবেদক

সেন্টমার্টিন দ্বীপে আটকা পড়েছেন প্রায় ৫০০ পর্যটক

বঙ্গোপসাগরে গভীর নিম্নচাপ সৃষ্টির কারণে সারাদেশেই বৈরি আবহাওয়া বিরাজ করছে। এর প্রভাবে অবিরাম বৃষ্টি হচ্ছে। এর মধ্যে প্রবাল দ্বীপ সেন্ট মার্টিনে গিয়ে আটকা পড়েছেন প্রায় পাঁচশ পর্যটক।

স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা জানিয়েছেন, আবহাওয়া অফিসের হুঁশিয়ারি সংকেত দেয়ার পর বুধবার থেকে কক্সবাজার টেকনাফ সেন্টমার্টিন সমুদ্র পথে সকল ধরণের ট্রলার ও জাহাজ চলাচল বন্ধ করে দেয় প্রশাসন। এর ফলে কক্সবাজারের সাথে সেন্টমার্টিন দ্বীপের যোগাযোগ বুধবার হঠাৎ করে বন্ধ হয়ে যায়। এ কারণে বুধবার বা তার আগের দিন সেন্টমার্টিনে বেড়াতে যাওয়া প্রায় পাঁচ শতাধিক পর্যটক আটকে পড়ে যান।


আরও পড়ুন: নোয়াখালীতে ভারি বৃষ্টি, উপকূলে ৪ নম্বর হুঁশিয়ারি, নৌ-চলাচল বন্ধ


টেকনাফ বন্দর থেকেও পর্যটকবাহী কোনো জাহাজ চলাচল শুরু হয়নি। এমনকি আজ শুক্রবারও (২৩ অক্টোবর) সেন্ট মার্টিনে কোন জাহাজ যাবে না বলে জানা গেছে।

টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো সাইফুল ইসলাম বলেন, হুঁশিয়ারি সংকেত উপেক্ষা করে সেন্টমার্টিন দ্বীপে যে সব পর্যটক রয়ে গেছে তারা যাতে কোন সমস্যায় না পড়ে সে ব্যপারে সেন্টমার্টিন পুলিশ বিজিবি কোস্টগার্ড ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। আটকে পড়া পর্যটকদের সাশ্রয়ী মূল্যে থাকা এবং খাওয়ার ব্যবস্থা করার কথা বলা হয়েছে।


এদিকে, কক্সবাজারে আজও সকাল থেকে বৃষ্টিপাত অব্যাহত রয়েছে। স্থানীয় সমুদ্র বন্দরকে ৪ নম্বর স্থানীয় হুঁশিয়ারি সংকেত দেখিয়ে যেতে বলেছে আবহাওয়া অফিস।

কক্সবাজার আবহাওয়া অফিসের আবহাওয়াবিদ আব্দর রহমান জানান, গত ২৪ ঘন্টায় ১১৯ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। ৪ নম্বর স্থানীয় হুঁশিয়ারি সংকেত জারি থাকায় জেলার সকল নৌ ও সেন্টমার্টিন সমুদ্র পথে ট্রলার ও জাহাজ চলাচল বন্ধ রাখতে বলা হয়েছে। আগামীকাল ও নিম্নচাপের প্রভাবে কক্সবাজার জেলায় বৃষ্টিপাত হতে পারে বলে কক্সবাজার আবহাওয়া অফিস থেকে বলা হয়েছে।

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য