ফ্রান্সের মানুষরা কেন অভিযোগ প্রিয়?

অনলাইন ডেস্ক

ফ্রান্সের মানুষরা কেন অভিযোগ প্রিয়?

ফরাসিরা নানা বিষয়, নানান ইস্যুতে অভিযোগ করতে বেশ পছন্দ ও স্বাচ্ছন্দবোধ করে। তাদের কাছে অভিযোগ করা মানে নতুন সম্পর্কের সূচনা। অভিযোগ মানে কোনো বিষয়কে আরও সুন্দর ও নান্দনিকভাবে উপস্থাপন করা। অন্যান্য দেশে যেখানে অভিযোগ করার অর্থ কথার সমাপ্তি বা দ্বন্দ্বের আভাস, সেখানে ফ্রান্সে কথা শুরু হয় অভিযোগ দিয়ে। 

ইউরোপের এই দেশটিতে একে অন্যের মধ্যে কথোপকথনে সকাল শুরু হয় খানিকটা এভাবে: মন্দ আবহাওয়া ,আঙুর বা আপেলের ফলন খারাপ, রাজনীতিবিদরা ব্যর্থ ও অযোগ্য এ ধরনের অভিযোগের সুরে। সেখানেও প্রায় এ রকমই গল্প। এমনকি অচেনা কেউ হলেও তাদের সঙ্গে কথা শুরু হয় কিছুটা অভিযোগ মিশিয়ে। অন্য দেশে এ রকম বিষয় নেতিবাচতভাবে দেখা হলেও ফ্রান্সে অভিযোগের সুরে কথা বলা খুব ইতিবাচক এবং স্বাভাবিক  বিষয়।

কেউ হয়তো একটি রেস্টুরেন্টে খাবার খেতে গেছেন সেখানে বসেই খাবারের দুর্বল বিষয়গুলো এবং কর্তৃপক্ষের সীমাবদ্ধতা নিয়ে কথা বলা শুরু করে দিল অথবা কারও নতুন বাসার জানালাগুলো হয়তো পশ্চিমমুখী, তখন তাকে মনে করিয়ে দেওয়া হলো নতুন পর্দাগুলো বেশ পুরনো। এ রকম ছোট ছোট বিষয় নিয়ে ফরাসিদের অভিযোগের অন্ত নেই। 

মার্কিনিদের কাছে নেগেটিভ কোনো কথা বলেন এর অর্থ হচ্ছে আপনি আর কথা বলতে চাচ্ছেন না। বা কোনো দ্বন্দ্বে জড়াতে চাচ্ছেন। আর ফ্রান্সে এমন হওয়ার মানে আপনি অন্য ব্যক্তিকে কথার পৃষ্ঠে কথা বলার জন্য অনুমতি দিচ্ছেন বা তার প্রতি আরো কৌতুহলী হচ্ছেন।

ফরাসিরা যেমনভাবে অভিযোগ বিষয়টির সঙ্গে অভ্যস্ত, পৃথিবীর অন্যান্য দেশের মানুষ তেমন নয়। তারা আসলে রগচটা। বেশির ভাগ সময়েই কিছুটা গণ্ডগোল, সংঘাত ভালবাসে। কথার শুরুতে যেটিকে দ্বন্দ্ব বা অভিযোগ বলে মনে হয়, সেটি আসলে সহজভাবে বলা কোনো কথা নয়। সাধারণত অন্য দেশের মানুষ এভাবে কথা অভ্যস্ত নয়। মূলত অভিযোগের সুরে কথা বলাটা ফরাসিদের চিন্তা প্রকাশের ধরণ বা কথা কৌশল বলা যায়। 

তবে ফরাসি জাতির  অভিযোগের অভ্যাসের শুরু ফরাসি বিপ্লবের সময় থেকেই। যখন থেকে দেশটিতে খাবার সংকট দেখা দেয়, বাড়তে থাকে ট্যাক্স, সামন্ততান্ত্রিক কিছু সামাজিক সংগঠন সোচ্চার দাবিতে রাস্তায় নামে মূলত তখন থেকেই শুরু হয় ফরাসিদের একে অপরের প্রতি নানান বিষয়ে অভিযোগ করা।

ফরাসিদের বিক্ষোভের ইতিহাস বেশ দীর্ঘ। ফ্রান্সে অভিযোগ যেকোনো বিষয় নিয়েই শুরু হতে পারে। যেকোনো পলিসি, ট্যাক্স, শিল্প সব বিষয় নিয়ে ফরাসিরা নিজেদের কন্ঠে সোচ্চার আওয়াজ তুলতে পারে। এমনকি করোনায় ইউরোপের এই দেশটিতে স্বাস্থ্যবিধি কড়াকড়ি করায় বা সরকারের দেয়া লকডাউনের বিরুদ্ধেও রয়েছে তাদের নানান অভিযোগ। অভিযোগ আর অভিযোগ।

এটাকে যদিও সহজ ভাষায় অভিযোগ বলা হয়, তবু নেতিবাচক কথার কারণে প্রতিটি বিষয়ের ভিন্ন ভিন্ন বিষয় সামনে আসে। যার সমাধান করা গেলে চমৎকার একটা ফলাফল আসতে পারে।

এখানেই শেষ নয়, এ ধরনের অভিযোগের মানসিকতা সংস্কৃতিচর্চায় উৎসাহিত হতে পারে বলে বিশ্বাস ফরাসিদের। আবার রাজনীতি, শিক্ষাসহ নানা বিষয় নিয়ে আওয়াজ তুলেও যে তার পরিবর্তন করা সম্ভব, এ বিষয় নিয়েও তারা বেশ সচেতন। বলা যায় এ বিষয়ে অনেকটা কট্টর মনোভাব ফরাসিদের। তবে অবসরপ্রাপ্ত ব্যক্তি, শিক্ষার্থী, গীতিকার, অভিবাসী, কৃষ্ণাঙ্গদের কাছ থেকে যখন অভিযোগ আসে, তখন সেগুলোকে বেশ গুরুত্বের সঙ্গে দেখা হয়। কারণ তারা জানে, অভিযোগগুলো গুরুত্ব দিলে সংশ্লিষ্ট প্রতিটি নিয়মনীতিতেই  আসবে পরিবর্তন। সূচনা হবে নতুন কিছুর।

news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

বজ্রসহ বৃষ্টিপাত বাড়ার আশঙ্কা

অনলাইন ডেস্ক

বজ্রসহ বৃষ্টিপাত বাড়ার আশঙ্কা

আবহাওয়া অধিদফতরের তথ্য অনুযায়ী আগামী তিন দিনে  বঙ্গোপসাগরে লঘুচাপ সৃষ্টি হওয়ায় সারাদেশে বজ্রসহ বৃষ্টিপাত হতে পারে।

আজ রোববার আবহাওয়া পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, ঢাকা, রাজশাহী, রংপুর, খুলনা, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের অনেক জায়গায় এবং ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের কিছু জায়গায় অস্থায়ী দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টিপাত হতে পারে।


আরও পড়ুন

ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ: মাঠে যাওয়ার সময় আম্পায়ারদের গাড়িতে হামলা

১০ বছরের জেল হতে পারে নেতানিয়াহুর: ইসরাইলি আইনজীবী

এবার ফিলিস্তিনি নারীকে গুলি করে হত্যা ইসরাইলি বাহিনীর

বিয়ের আসরে নকল গহনা, মারামারি পরে ক্ষতিপূরণ রেখে তালাক


এছাড়া আজ আবহাওয়ার সিনপটিক অবস্থা সম্পর্কে বলা হয়েছে, উত্তর পশ্চিম বঙ্গোপসাগর ও এর কাছাকাছি উপকূলীয় এলাকায় লঘুচাপ অবস্থান করছে। এর প্রভাবে উত্তর বঙ্গোপসাগর ও এর কাছাকাছি এলাকায় বায়ুচাপের তারতম্য বেশি রয়েছে।

বাংলাদেশের ওপর মৌসুমী বায়ুর প্রভাব সক্রিয়। বঙ্গোপসাগরের অন্যস্থানে সেটি প্রবল অবস্থায় রয়েছে। এর ফলে, আগামী তিনদিন সারাদেশে বজ্রসহ বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে।

news24bd.tv/এমিজান্নাত

পরবর্তী খবর

সমুদ্রবন্দরে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত ঘোষণা

অনলাইন ডেস্ক

সমুদ্রবন্দরে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত ঘোষণা

চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরকে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যাওয়ার জন্য বলেছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। আজ শনিবার (১২ জুন) এক সতর্ক বার্তায় এসব তথ্য জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

এছাড়া উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত সকল মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে পরবর্তী নির্দেশনা না দেয়া পর্যন্ত উপকূলের কাছাকাছি থেকে সাবধানে চলাচল করার জন্য বলা হয়েছে।


আরও পড়ুনঃ


আবারও সিঁথিতে সিঁদুর দিয়ে বিয়ের সাজে শ্রাবন্তী!

শ্বাসকষ্ট নিয়ে আইসিইউতে ভর্তি সাহিত্যিক সমরেশ মজুমদার

টঙ্গীতে বস্তিতে আগুন, শত শত ঘর পুড়ে ছাই

করোনাকালে সারাদেশে ১৫১ শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা


সতর্ক বার্তায় আরও বলা হয়েছে,উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগর এবং কাছাকাছি উপকূলীয় এলাকায় একটি লঘুচাপ সৃষ্টি হয়েছে। ফলে উত্তর বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন বাংলাদেশ উপকূলীয় এলাকায় গভীর সঞ্চারণশীল মেঘমালা সৃষ্টি হচ্ছে। সমুদ্রবন্দর, উত্তর বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকার ওপর দিয়ে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে।

news24bd.tv / নকিব

পরবর্তী খবর

বঙ্গোপসাগরে লঘুচাপে সারাদেশে বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস

অনলাইন ডেস্ক

বঙ্গোপসাগরে লঘুচাপে সারাদেশে বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস

দেশজুড়ে দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমী বায়ুর বিস্তারে বঙ্গোপসাগরে সৃষ্টি হয়েছে লঘুচাপ। এর প্রভাবে আগামী কয়েকদিন দেশের প্রায় সব এলাকায় বৃষ্টিপাতের পরিমাণ বাড়তে পারে। এছাড়া সাগরে তিন নম্বর সতর্কতা সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

জ্যেষ্ঠ আবহাওয়াবিদ ওমর ফারুক বলেন, বর্ষা সমাগত। এরই মধ্যে পুরো দেশে দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমী বায়ু (বর্ষা) সেট হয়ে গেছে। এ জন্যে বর্ষণও রয়েছে সবখানে। উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় একটি সুস্পষ্ট লঘুচাপ সৃষ্টি হয়েছে। এটি নিম্নচাপে রূপ নিতে পারে। দুয়েকদিনের মধ্যে লঘুচাপটি ঘনীভূত হয়ে স্থলভাগে পৌঁছলে তা নিম্নচাপে রূপ নেবে। এ সময় মাঝারি থেকে ভারি বৃষ্টি হবে অনেক এলাকায়। বৃষ্টি ঝরিয়ে তা ধীরে ধীরে দুর্বল হয়ে পড়বে।

আবহাওয়াবিদ মো. আব্দুর রহমান জানান, দেশে এরই মধ্যে মৌসুমী বায়ুর প্রভাবে বৃষ্টির পরিমাণ বেড়েছে। এর সঙ্গে শুক্রবার সকালের পর যোগ হয়েছে লঘুচাপ। সব মিলিয়ে আগামী তিন থেকে চার দিন বৃষ্টির পরিমাণ বাড়তে পারে। চট্টগ্রাম, কুষ্টিয়াসহ উপকূলে বৃষ্টির পরিমাণ বেশি হবে। হয়ত একটানা বৃষ্টি হবে না। তবে থেমে থেমে বৃষ্টি হতে পারে। সাগরে লঘুচাপ সৃষ্টি হওয়ায় তিন নম্বর সতর্ক সংকেত দেওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।


আরও পড়ুনঃ


আদালতে দোষী সাব্যস্ত হলেন মেক্সিকান মাদকসম্রাট গুজম্যানের স্ত্রী

২০ দিন আগে আইনজীবী পাত্রীকে দেখে পছন্দ করে রেলমন্ত্রী

অবশেষে প্রকাশ্যে আসলো নুসরাতের বেবি বাম্প, ছবি ভাইরাল

‘গোপন তথ্য ফাঁস করতে চেয়েছিলেন কারাগারে নিহত ইসরাইলি গোয়েন্দা’


আগামী ২৪ ঘণ্টায় খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায় এবং রংপুর, রাজশাহী ও ঢাকা বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে।

পাশাপাশি সারা দেশে দিনের তাপমাত্রা কমতে পারে। পাশাপাশি রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে।

news24bd.tv / নকিব

পরবর্তী খবর

ভারী বৃষ্টি হতে পারে দেশের বিভিন্ন স্থানে, লঘুচাপের সম্ভাবনা

অনলাইন ডেস্ক

ভারী বৃষ্টি হতে পারে দেশের বিভিন্ন স্থানে, লঘুচাপের সম্ভাবনা

আগামী তিন দিনের মধ্যে বঙ্গোপসাগরে একটি লঘুচাপ সৃষ্টির সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। যার প্রভাবে আগামী কিছুদিন দেশের বিভিন্ন স্থানে ভারী বৃষ্টিপাতের প্রবণতা বাড়তে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

বৃহস্পতিবার আবহাওয়াবিদ আব্দুর রহমান খান জানান, পরবর্তী ৭২ ঘণ্টায় উত্তর বঙ্গোপসাগরে একটি লঘুচাপ সৃষ্টি হতে পারে। বৃষ্টিপাতের প্রবণতা বৃদ্ধি পেতে পারে।

বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, খুলনা, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের অনেক জায়গায় এবং রাজশাহী, রংপুর, ঢাকা, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে।

সেইসঙ্গে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারি থেকে ভারি বৃষ্টি হতে পারে।


আরও পড়ুন


নতুন প্রজাতির ৯৮ ফুট দীর্ঘ ডাইনোসরের সন্ধান অস্ট্রেলিয়ায়

কম ভাড়ায় ৪ বিভাগে পুলিশ বাস সার্ভিসের যাত্রা শুরু আজ

আগের প্রেমিকার ঘরেও ছেলে আছে যশের, জানুন নুসরাত-যশের অজানা কাহিনী

জনসম্মুখে থাপ্পড় খেয়ে যা বললেন ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ম্যাক্রোঁ


আবহাওয়া অধিদফতরের তথ্য অনুযায়ী, বুধবার সকাল ৬টা থেকে বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা পর্যন্ত সব বিভাগেই কমবেশি বৃষ্টি হয়েছে। এ সময়ে সবচেয়ে বেশি বৃষ্টি হয়েছে নেত্রকোণায়, সেখানে ৫৬ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। ঢাকায় ২৩ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে।

news24bd.tv / নকিব

পরবর্তী খবর

কোরবানির ঈদে ‘ইভ্যালি গরুর হাটে’ আলমগীর র‍্যাঞ্চের গরু

নিজস্ব প্রতিবেদক

কোরবানির ঈদে ‘ইভ্যালি গরুর হাটে’ আলমগীর র‍্যাঞ্চের গরু

আসন্ন ঈদ উল আযহা তথা কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে নিরাপদে ঘরে বসে নির্বিঘ্নে কোরবানির পশু কেনার সুযোগ থাকছে ‘ইভ্যালি গরুর হাটে’। আর দেশের অন্যতম বৃহৎ ও বিশ্বস্ত ই-কমার্স প্ল্যাটফর্ম ইভ্যালি’র এই ভার্চুয়াল হাটে থাকছে দেশের অন্যতম প্রধান গরুর ফার্ম আলমগীর র‍্যাঞ্চ লিমিটেডের গরু। দেশজুড়ে কোরবানির জন্য স্বাস্থ্যবান ও উন্নত জাতের গরু সরবরাহকারী বিশ্বস্ত ফার্ম আলমগীর র‍্যাঞ্চের গরুগুলো খুব সহজেই কেনা যাবে ইভ্যালি থেকে।

মঙ্গলবার (৮ জুন) এ লক্ষ্যে ইভ্যালি এবং আলমগীর র‍্যাঞ্চের মধ্যে এক সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। ইভ্যালির চেয়ারম্যান শামীমা নাসরিন, ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী মোহাম্মদ রাসেল এবং আলমগীর র‍্যাঞ্চ লিমিটেডের পরিচালক ও লাবিব গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান সুলতানা জাহান, লাবিব গ্রুপের চেয়ারম্যান সালাউদ্দিন আলমগীরসহ উভয় প্রতিষ্ঠানের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

আগামী ঈদ উল আযহায় কোভিড স্বাস্থ্যবিধি মেনে ক্রেতার দোরগোড়ায় সহজেই কোরবানির গরু পৌঁছে দিতে উভয় প্রতিষ্ঠানের এই যুগপত পথচলা বলে প্রতিষ্ঠান দুইটির পক্ষ থেকে জানানো হয়।

এক যৌথ সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ইভ্যালি থেকে আলমগীর র‍্যাঞ্চের গরু কিনলে গ্রাহকের নির্ধারিত স্থানে নির্দিষ্ট সময়ে তা পৌঁছে দিবে ইভ্যালি কর্তৃপক্ষ। আর ‘ইভ্যালি গরুর হাট’ থেকে এখনই গরু কিনলে, কোরবানির আগ পর্যন্ত গরুর যাবতীয় লালন পালনের দায়িত্ব আলমগীর রেঞ্চের। গরু লালন পালনের কোন খরচ গ্রাহককে বহন করতে হবে না। শুধু তাই নয়, এই সময়ের মধ্যে গরুর ওজন বেড়ে গেলেও গ্রাহককে অতিরিক্ত ওজনের জন্য বাড়তি কোন মূল্য পরিশোধ করতে হবে না। পাশাপাশি গ্রাহকের চাহিদা অনুযায়ী নিরাপদে কোরবানি ঈদের তিন থেকে চার দিন আগে সুষ্ঠুভাবে কোরবানির গরু গ্রাহকের কাছে পৌঁছে দেওয়া হবে।

এই উদ্যোগকে সময়োপযোগী উল্লেখ করে আলমগীর র‍্যাঞ্চ লিমিটেডের পরিচালক সুলতানা জাহান বলেন, ইভ্যালি’র মাধ্যমে সারা দেশের মানুষের কাছে আমরা সুস্থ ও নিরাপদ গরু পৌঁছে দিতে চাই। পবিত্র কোরবানির ঈদে সবচেয়ে ভালো গরুই যেন আমাদের দেশের মানুষ কোরবানি করতে পারেন; আমরা এবং ইভ্যালি একসাথে সেই প্রচেষ্টায় নিয়োজিত আছি।

আরও পড়ুন


এক স্বামী তুলে নিয়ে গেলেন বউকে, ফেরত পেতে অন্য স্বামীর মামলা

গাজীপুরের পোশাক কারখানায় আগুন

আল-আকসায় নামাজ আদায়ের আশা লেবাননের হিজবুল্লাহ মহাসচিবের

ফ্রান্সের প্রেসিডেন্টকে চড় মারায় গ্রেপ্তার ২, চড় মারার ভিডিও প্রকাশ্যে (ভিডিও)


এ বিষয়ে ইভ্যালির প্রধান নির্বাহী মোহাম্মদ রাসেল বলেন, আমরা খুবই আনন্দিত যে আলমগীর র‍্যাঞ্চ আমাদের সাথে চুক্তিবদ্ধ হয়েছে। এর মধ্যদিয়ে এবারের কোরবানি ঈদে আলমগীর র‍্যাঞ্চের পশুগুলো ইভ্যালি থেকে সহজে কিনতে পারবেন। আশাকরি আমরা বেস্ট কোয়ালিটি সার্ভিস দিতে পারবো।

প্রসঙ্গত, গরুর বিশ্বস্ত ফার্ম আলমগীর র‍্যাঞ্চ, দীর্ঘদিন ধরে উন্নত জাতের ও স্বাস্থ্যবান গরু, সর্বাধুনিক প্রযুক্তির সাথে সঠিক যত্ন ও পরিচর্যার মাধ্যমে তাদের ক্রেতাদের কাছে গরু সরবরাহের জন্য দেশজুড়ে ব্যাপক সুনাম অর্জন করেছে। আলমগীর র‍্যাঞ্চ তাদের গরুগুলোকে ভেজালহীন, পুষ্টিকর ও নিরাপদ খাবার খাওয়ানোর মাধ্যমে প্রাকৃতিকভাবে বড় করে থাকে। এছাড়া গরুকে সুস্থ-সবল দেখানোর জন্য সব ধরনের অনিরাপদ ঔষধ কিংবা স্টেরয়েড ব্যবহার থেকে বিরত থাকে। ২৪ ঘন্টা গরুর যত্নের জন্য তারা দক্ষ খামারি ও অভিজ্ঞ চিকিৎসকের সার্বক্ষণিক তত্বাবধানে, পরিচ্ছন্ন পরিবেশে পালিত সুস্থ-সবল গরু সরবরাহ করে যা ক্রেতা ও ভোক্তাদের জন্য হালাল ও স্বাস্থ্যকর মাংস নিশ্চিত করে।

চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মাঝে ইভ্যালির চীফ মার্কেটিং অফিসার আরিফ আর হোসেন, চীফ অপারেটিং অফিসার তরিকুল কামরুল এবং হেড অব কমার্শিয়াল সাজ্জাদ আলম উপস্থিত ছিলেন।

news24bd.tv আহমেদ

পরবর্তী খবর