বাবা-মাকে মেরে হাসপাতালে পাঠানো সেই মেয়ে গ্রেপ্তার

অনলাইন ডেস্ক

বাবা-মাকে মেরে হাসপাতালে পাঠানো সেই মেয়ে গ্রেপ্তার

সীমা আক্তার ও তার স্বামী হাফিজুর রহমান

বরগুনায় পেনশনের টাকার জন্য বাবা-মাকে মেরে রক্তাক্ত করে হাসপাতালে পাঠানোর ঘটনায় দায়ের করা মামলায় মেয়েকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। পরে আদালতের মাধ্যমে তাকে জেলহাজতে পাঠানো হয়। 

এর আগে গত বুধবার (১৯ নভেম্বর) রাতে বাবার পেনশনের এক লাখ টাকার দাবিতে স্বামী ও স্বজনদের নিয়ে মা-বাবাকে মেরে রক্তাক্ত করেন মেয়ে সীমা আক্তার।

এ ঘটনায় শুক্রবার (২০ নভেম্বর) রাতে বরগুনা সদর থানায় একটি মামলা করেন গ্রেফতার সীমা আক্তারের মা ও ভুক্তভোগী জাহানারা বেগম। পরে রাতেই ঢাকা যাওয়ার পথে একটি যাত্রীবাহী বাসে অভিযান চালিয়ে সীমাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। মামলায় সীমা আক্তার ও তার স্বামী হাফিজুর রহমানসহ পাঁচজনকে আসামি করা হয়েছে।

এ বিষয়ে বরগুনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তারিকুল ইসলাম বলেন, ‘টাকার জন্য মা-বাবাকে মারধরের অভিযোগে বরগুনা সদর থানায় মামলা করেছেন ভুক্তভোগী জাহানারা বেগম। মামলার প্রধান আসামি করা হয়েছে তার মেয়ে সীমা আক্তারকে। মামলার পর সীমাকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ।’

news24bd.tv কামরুল

মন্তব্য