বন্যহাতি রক্ষায় ব্যর্থদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা: বনমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রিন্ট করুন printer
বন্যহাতি রক্ষায় ব্যর্থদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা: বনমন্ত্রী

পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তনমন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন বলেছেন, বর্তমান সরকার পরিবেশ ও জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণে নিরলসভাবে কাজ করছে। কিন্তু পার্বত্য চট্টগ্রাম ও কক্সবাজারসহ দেশের কিছু এলাকায় বিভিন্ন কারণে বন্যহাতি নিহত হচ্ছে। এসব বন্যহাতি নিধন প্রতিরোধে ব্যর্থ ও দায়ী কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বিরুদ্ধে বিধি মোতাবেক শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

বুধবার সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে আয়োজিত এক বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন বনমন্ত্রী। বন্যহাতি হত্যার সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধেও আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ অব্যাহত থাকবে বলে জানান তিনি।


আরও পড়ুন: বাংলাদেশি ৯ জেলেকে ফেরত দিল মিয়ানমার


সভায় পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী বেগম হাবিবুন নাহার, সচিব জিয়াউল হাসান, অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন) ড. মো. বিল্লাল হোসেন, অতিরিক্ত সচিব (পরিবেশ) মাহমুদ হাসান, অতিরিক্ত সচিব (উন্নয়ন) আহমদ শামীম আল রাজ, পরিবেশ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. এ কে এম রফিক আহাম্মদ, বন অধিদপ্তরের প্রধান বন সংরক্ষক মো. আমির হোসেন চৌধুরী প্রমুখ আলোচনায় অংশ নেন।

বনমন্ত্রী জনসাধারণকে বন্যহাতি নিধন থেকে বিরত করতে সচেতনতামূলক কর্মসূচি জোরদারের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘বন্যহাতির কারণে ক্ষতির সম্মুখীন মানুষদের সরকারের উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ প্রদানের বিষয়টি সবাইকে জানাতে হবে। হাতিসহ অন্য সব বন্যপ্রাণীর নিরাপত্তায় প্রয়োজনীয় সব পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে।’

প্রধান বন সংরক্ষক আমীর হোসাইন চৌধুরী বলেন, ‘রোহিঙ্গাদের আবাসস্থল তৈরি এবং বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নের কারণে হাতির আবাসস্থল বিনষ্ট ও বিভক্ত হয়েছে। তাদের দীর্ঘকালীন পরিচিত চলাচলের পথও নষ্ট হয়েছে। ফলে বন্যহাতি পথভ্রষ্ট হয়ে অথবা খাদ্যের সন্ধ্যানে মানুষের ধানক্ষেতে প্রবেশের চেষ্টা করে। ফলে স্থানীয় মানুষের পাতানো বিদ্যুতের তারে জড়িয়ে বা অন্যবিধ আক্রমণে নিহত হচ্ছে। প্রতিটি ক্ষেত্রেই ময়নাতদন্ত করে মামলা হচ্ছে। বন্যহাতি হত্যা প্রতিরোধে সচেতনতা সৃষ্টির কর্মসূচি জোরদার করা হবে।’

সভায় পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের ২০২০-২১ অর্থবছরের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিতে (এডিপি) অন্তর্ভুক্ত প্রকল্পগুলো বাস্তবায়নের অগ্রগতি বিস্তারিতভাবে পর্যালোচনা করা হয়। প্রতিটি ক্ষেত্রেই সুনির্দিষ্ট দিকনির্দেশনা প্রদান করা হয়। সব প্রকল্প যাতে যথানিয়মে এবং যথাসময়ে সম্পন্ন হয় সে বিষয়ে মনোযোগী হতে পরিবেশমন্ত্রী সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানান।

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য