তুরস্কে সেনা কর্মকর্তাসহ ৩৩৭ যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

অনলাইন ডেস্ক

প্রিন্ট করুন printer
তুরস্কে সেনা কর্মকর্তাসহ ৩৩৭ যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

তুরস্কে ব্যর্থ সেনা অভ্যুত্থান। ফাইল ছবি

তুরস্কে ব্যর্থ সেনা অভ্যুাত্থানের দায়ে সেনা কর্মকর্তাসহ ৩৩৭ যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার তুরস্কের একটি আদালত এ রায় ঘোষণা করে। খবর-বিবিসি'র। 

২০১৬ সালে ১৫ জুলাই তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যিপ এরদোগানকে রাজধানী আঙ্কারার কাছের একটি বিমান ঘাঁটি থেকে উৎখাতের চেষ্টা শুরু হয়। এ ঘটনায় বিমানবাহিনী ও সেনাবাহিনীর কমান্ডারসহ ৫০০ জনকে অভিযুক্ত করে মামলা দায়ের করা হয়েছিল। 

এই অভ্যুত্থান প্রচেষ্টার জন্য আঙ্কারা যুক্তরাষ্ট্রে স্বেচ্ছানির্বাসিত ধর্মগুরু ও ব্যবসায়ী ফেতুল্লাহ গুলেনকে দায়ী করে আসছে।

ওই সময় যুদ্ধবিমান, হেলিকপ্টার ও ট্যাংক নামিয়ে রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠানগুলো দখলের চেষ্টা করা হয়। সেনাদের সঙ্গে সংঘর্ষে নিহত হয় আড়াই শতাধিক মানুষ। 

আরও পড়ুন:


‘ইসরাইলের সঙ্গে চুক্তি করেও নিরাপত্তা আসবে না’

অনশন করে স্ত্রীর স্বীকৃতি মিলল মেহেরিনের


দণ্ডপ্রাপ্তদের মধ্যে অন্তত ২৫ জন এফ-১৬ যুদ্ধবিমানের পাইলট রয়েছেন। বিমানবাহিনীর প্রাক্তন কমান্ডার আকিন ওজতার্কসহ অন্যান্যদের বিরুদ্ধে অভ্যুত্থান ও পার্লামেন্ট ভবনসহ গুরুত্বপূর্ণ সরকারি ভবনগুলোতে বোমা হামলা চালানোর নির্দেশনা দেওয়ার অভিযোগ আনা হয়েছে। তাদেরকে ক্রমবর্ধমান যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। এর মানে হচ্ছে এই দণ্ডপ্রাপ্তরা প্যারোল সুবিধা পাবেন না।

২০১৬ সালের ১৫ জুলাই রাতে কোনো বড় কারণ ছাড়াই অভ্যুত্থানের চেষ্টা চালায় সামরিক বাহিনীর একাংশ। স্থানীয় সময় সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে সেনাবাহিনী রাজপথে অবস্থান নেয়। অভ্যুত্থানকারী সেনারা বিমান হামলা চালালেও তা রুখে দেয় নিরস্ত্র জনতা। 


news24bd.tv কামরুল

মন্তব্য