বৃহস্পতিবার, ২৮ মে, ২০২০ | আপডেট ০৩ মিনিট আগে

এক নম্বর সেরেনার এখন কোন র‌্যাঙ্কিং নেই!

নিউজ টোয়েন্টিফোর ডেস্ক

এক নম্বর সেরেনার এখন কোন র‌্যাঙ্কিং নেই!

সন্তানসহ সেরেনা উইলিয়ামস

মেয়েদের একক টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়ে কয়েক বছর ধরেই রাজত্ব করছেন সেরেনা উইলিয়ামস। সর্বকালের সেরা নারী টেনিস তারকাদের মধ্যে সেরেনা উইলিয়ামসের নাম সবার উপরে থাকাই স্বাভাবিক। মাতৃত্বকালীন ছুটির কারণে কোর্ট ছাড়ার আগেও র‌্যাঙ্কিংয়ে শীর্ষে ছিলেন টেনিস কুইন। কিন্তু, প্রায় ১৩ মাস পর কোর্টে ফেরা সেরেনার নাম এখন অবাছাইয়ের খাতায়। এ কারণেই এই মার্কিন তারকাকে মিয়ামি ওপেনে খেলতে হচ্ছে অবাছাই হিসেবে। আর এই নিয়ে শুরু হয়েছে তীব্র সমালোচনা। 

মা হবার পর কোর্টে ফিরলে কেন একজন খেলোয়াড়ের র‌্যাঙ্কিং কমে যাবে এ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অনেকে। অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় গ্র্যান্ড স্ল্যাম জেতা সেরেনা কেন মাতৃত্বের কারণে র‌্যাঙ্কিংয়ে থাকবেন না- এ প্রশ্ন তুলেছেন টুর্নামেন্ট ডিরেক্টর জেমস ব্লেকও।  সেরেনার উদাহরণ টেনে তিনি বলেছেন, ‘‘টেনিসে কেন মাতৃত্বের ছুটির ক্ষেত্রে বিশেষ ছাড় দেওয়া হবে না? মা হওয়ার জন্য যখন কেউ টেনিস থেকে সরে থাকছে, তাকে তো উপযুক্ত সুরক্ষা দেওয়া উচিত।’’

এদিকে ১৩ মাস না খেলার ফলে টেনিসের এখনকার নিয়ম অনুযায়ী, সেরেনার র‌্যাঙ্কিং পড়ে গেছে। ফলে মায়ামি ওপেনে অবাছাই হিসেবে খেলতে হচ্ছে তাকে। শুরুতেই শক্ত প্রতিপক্ষ নাওমি ওসাকার বিরুদ্ধে খেলা পড়েছে টেনিস সম্রাজ্ঞীর।

ব্লেকের আরও যুক্তি, ‘‘মাতৃত্বের কারণে ছুটি নেওয়ার আগে সেরেনা বিশ্বের এক নম্বর ছিল। ফেরার পরে ওকে অবাছাই হিসেবে খেলতে হচ্ছে। এটা কেন হবে? নিয়ম এমন হওয়া উচিত যাতে কোর্টে ফেরার পরে ও সঠিক ড্র পায় এবং যত দূর সম্ভব টুর্নামেন্টে পৌঁছতে পারে।’’ প্রাক্তন নামী খেলোয়াড় এবং মায়ামি ওপেনের টুর্নামেন্ট ডিরেক্টরের এই যুক্তি কিন্তু টেনিসে নতুন তর্ক তুলে দিতে পারে। কোর্টে ফেরার পরে এখনও খুব একটা ছন্দে নেই তেইশ গ্র্যান্ড স্ল্যাম জেতা সেরেনা। পাশাপাশি, তাঁকে লড়াই করতে হচ্ছে বেশি, কারণ দীর্ঘ অনুপস্থিতিতে র‌্যাঙ্কিংয়ে পিছিয়ে যাওয়ায় বেশির ভাগ প্রতিযোগিতাতেই তাঁকে অবাছাই হিসেবে খেলতে হচ্ছে। এই মুহূর্তে সেরেনার কোনও সরকারি র‌্যাঙ্কিং নেই। তার ফলে যে কোনও ডব্লিউটিএ (উওমেন্স টেনিস অ্যাসোসিয়েশন) টুর্নামেন্টেই তাঁকে অবাছাই হিসেবে খেলতে হবে। তবে ছুটিতে যাওয়ার আগে এক নম্বর থাকার সুবাদে এক বছরে তিনি দু’টি গ্র্যান্ড স্ল্যাম-সহ আটটি টুর্নামেন্টে নামার সুযোগ পাবেন। 

সেরেনা জানিয়েছিলেন, মেয়ে হওয়ার সময় একাধিক অস্ত্রোপচার সহ্য করতে হয়েছিল তাঁর। নানা জটিলতায় ভুগেছিলেন তিনি। এমনও বলেছিলেন যে, তাঁর একটা সময় মনে হয়েছিল, তিনি হয়তো বেঁচেই ফিরবেন না। দীর্ঘ অসুস্থতা কাটিয়ে তিনি সম্প্রতি টেনিস কোর্টে ফিরেছেন। ইন্ডিয়ান ওয়েলসে নেমে তৃতীয় রাউন্ডে উঠে হেরে যান বোন ভেনাস উইলিয়ামসের কাছে। তার পর তিনি বলেন, এখনও সেরা ছন্দে আসতে তাঁর সময় লাগবে। তিনি লড়াই চালিয়ে যাবেন।

মায়ামি আবার সেরেনার সবচেয়ে সাফল্যের টেনিস ভূমি। এখানে তিনি আট বার খেতাব জিতেছেন। টেনিস ভক্তদের কাছে অসম্ভব জনপ্রিয় সেরেনা যেহেতু তাঁর সেরা ফর্মে নেই, তাঁকে না তাড়াতাড়ি বিদায় নিতে হয়— এই আশঙ্কায় ভুগছেন সংগঠকরাও। কারণ, সেরেনা মাঠে থাকা মানে দর্শক গ্যালারিও পরিপূর্ণ থাকা। এদিকে প্রথমেই সেরেনাকে খেলতে হচ্ছে ন্ডিয়ান ওয়েলসে খেতাব জেতা বিশ বছর বয়সি উঠতি প্রতিভা ওসাকার সঙ্গে।

এদিকে বিতর্ক নিয়ে মুখ খুলেছে ডব্লিউটিএ অর্থাৎ মহিলা টেনিসের নিয়ামক সংস্থাও। তারা জানিয়েছে, মাতৃত্বের কারণে বিশেষ ছাড় দেওয়ার জন্য নিয়মে রদবদলের কথা ভাবা যেতেই পারে। ‘‘বিশেষ করে মা হওয়ার পরে খেলোয়াড়দের কোর্টে ফেরার ক্ষেত্রে আমরা সব সময় পাশে দাঁড়াতে চেয়েছি,’’ বলেছেন ডব্লিউটিএ প্রধান স্টিভ সাইমন।

মন্তব্য