আগের স্ত্রীর সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করায় নারীর আত্মহত্যা

অনলাইন ডেস্ক

প্রিন্ট করুন printer
আগের স্ত্রীর সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করায় নারীর আত্মহত্যা

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় পারিবারিক কলহের জের ধরে সুরভী আক্তার (২৬) নামে এক নারী বিষপানে আত্মহত্যা করেছেন। নিহত সুরভী উপজেলার মনিয়ন্ধ ইউনিয়নের ইটনা গ্রামের ইউসুফ মিয়ার স্ত্রী। তার বাপের বাড়ি নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলা গৌরিপুর গ্রামে। তিনি ওই গ্রামের আহাম্মদ আলীর মেয়ে।

পুলিশ জানায়, পারিবারিক কলহের জের ধরে সুরভী গতকাল শুক্রবার বিকেলে বাথরুমে গিয়ে কীটনাশক পান করে অচেতন হয়ে পড়ে। পরে পরিবারের লোকজন তাকে উদ্ধার করে আখাউড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে যায়।


সাত ব্যাংকের নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিত

করোনা ভাইরাসের উৎস চীন নয়, বরং ভারত বা বাংলাদেশ


সেখানে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দেওয়ার পরও সুস্থ না হয়ে উঠলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে পাঠায়।রাতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

সুরভীর মা ফরিদা বেগম জানায়, গত বছরের জানুয়ারি মাসে ইউসুফের সঙ্গে তার মেয়ের বিয়ে হয়। বিয়ের কিছুদিন পরে তারা জানতে পারেন ইউসুফ বিবাহিত। আগের স্ত্রীর সঙ্গে এখনও সে যোগাযোগ রক্ষা করে চলছে। 

এরপর থেকেই বনিবনা না হওয়াসহ আমার মেয়ের সংসারে দাম্পত্য কলহ শুরু। প্রায় সময়ই স্বামীসহ শ্বশুরবাড়ির লোকজন আমার মেয়েকে শারীরিক ও মানুসিকভাবে নির্যাতন করতো। তাদের প্ররোচনা ও অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়েই আমার মেয়ে আত্মহননের পথ বেছে নিল।

থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মাসুদুল আলম মাসুদ জানায়, নিহতের মা বাদী হয়ে থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। বাড়ির বাথরুম থেকে বিষের একটি বোতল পাওয়া গেছে। নারী পুলিশ দিয়ে নিহতের শরীর পরীক্ষা করানো হয়েছে। কোনও আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি। মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে। প্রাথমিক তদন্তে মনে হচ্ছে এটি একটি আত্মহত্যা।

news24bd.tv কামরুল

মন্তব্য