দুপক্ষের সংঘর্ষ চলাকালে যমুনায় ঝাঁপ, দুদিন পর ভাসল ৩ জুয়াড়ির লাশ

তানভীর আজাদ মামুন, জামালপুর

প্রিন্ট করুন printer
দুপক্ষের সংঘর্ষ চলাকালে যমুনায় ঝাঁপ, দুদিন পর ভাসল ৩ জুয়াড়ির লাশ

জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে যমুনা নদীতে ঝাঁপ দিয়ে নিখোঁজ হওয়া ৩ জুয়াড়ির লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। রোববার দুপুরে উপজেলার পিংনা ইউনিয়নের চর বসুরিয়া থেকে যমুনা নদীতে ভেসে ওঠা ছানোয়ার হোসেন ছানু, ফজলুল হক ফজল ও টাঙ্গাইলের ভুয়াপুর এলাকায় যমুনা নদী থেকে হাফিজুর রহমানের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

নিখোঁজের তিন দিন পর ওই তিন জুয়াড়ির লাশ উদ্ধার করা হয়।

জানা গেছে, সরিষাবাড়ী উপজেলার দুর্গম চর বাসুরিয়ার যমুনা নদীর তীরে জুয়াড়ি আব্দুল মান্নানের নেতৃত্বে দীর্ঘদিন ধরে ‘ওয়ান টেন’ নামে জুয়ার আসর চলে আসছিল। এ নিয়ে স্থানীয় অপর একটি গ্রুপের সঙ্গে জুয়ার আসরের আধিপত্য নিয়ে বিরোধ বাধে। একপর্যায়ে গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় দুই গ্রুপের মধ্যে হামলা, ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষ চলাকালে ধারাল অস্ত্রের আঘাতে গুরুতর আহত হন জুয়াড়ি আব্দুল মান্নান। এ সময় ৩ জুয়াড়ি উপজেলার পোগলদিঘা ইউনিয়নের পাখিমারা গ্রামের শামছুল হকের ছেলে ছানোয়ার হোসেন ছানু, গোপালপুর উপজেলার হেমনগর ইউনিয়নের সাখারিয়া গ্রামের জমসের আলী খানের ছেলে হাফিজুর রহমান ও ভুয়াপুরের গবিন দাসি গ্রামের আব্দুল বারেক মন্ডলের ছেলে ফজলুল হক ফজল নিজেদের আত্মরক্ষার জন্য যমুনা নদীতে ঝাঁপ দেন। এরপর থেকে ওই তিনজনকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না।

নিখোঁজের ২ দিন পর শনিবার দুপুর থেকে জামালপুর ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল চর বাসুরিয়া যমুনা নদীতে নিখোঁজ ওই ৩ জুয়াড়িকে খোঁজার চেষ্টা চালিয়ে ব্যর্থ হয়। পরে রোববার দুপুরে যমুনা নদীতে তাদের লাশ ভেসে ওঠে।

মেয়েটা ফিরেছে মৃত লাশ হয়ে

সরিষাবাড়ী থানার ওসি (তদন্ত) রাশেদুল ইসলাম জানান, যমুনা নদীতে নিখোঁজ ৩ জুয়াড়ির লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। সুরতহাল সংগ্রহ করে ময়নাতদন্তের জন্য লাশ জামালপুর মর্গে পাঠানো হয়েছে।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য