জাতীয় আয়কর দিবস আজ, শেষ সময়ে রিটার্ন জমায় ভীড়

সুলতান আহমেদ

প্রিন্ট করুন printer
জাতীয় আয়কর দিবস আজ, শেষ সময়ে রিটার্ন জমায় ভীড়

জাতীয় আয়কর দিবস আজ। করোনার কথা মাথায় রেখে কোন প্রকার আয়োজন ছাড়াই পালন করা হচ্ছে দিবসটি। শেষ সময়ে রিটার্ন জমা দেয়ার উপচে পড়া ভীড় চোখে পড়ছে কর অঞ্চলগুলোতে। 

আদায়ের হিসেবে কিছুটা কম হলেও বছর শেষে রেকর্ড পরিমাণ আদায়ের প্রত্যাশা জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের। তবে তরুণ করদাতাদের চাওয়া করের টাকার সঠিক ব্যবহার হবে, মিলবে সব ধরনের নাগরিক সুবিধা। 

লম্বা লাইন আর দীর্ঘ সময়ের অপেক্ষা করে রির্টান জমা দিচ্ছেন সচেতন নাগরিকরা। এ চিত্র রাজধানীর বিভিন্ন কর অঞ্চলগুলোতে। আজ ৩০ নভেম্বর সোমবার শেষ হচ্ছে আয়কর রির্টান জমা দেয়ার সময়, তাই কষ্ট হলেও ঝামেলা এড়িয়ে জমা দেয়া চাই নিজের করের হিসেব। 
 
করোনা মহামারি কিছুটা বিঘ্ন তৈরি করেছে কর আদায়েও। এনবিআরের হিসেবে নভেম্বরের ২৬ তারিখ পর্যন্ত মোট রির্টান জমা পড়েছে ১৩ লাখ ২০ হাজার ৮২৫ টি, যার বিপরীতে আদায় হয়েছে ২ হাজার ৩৮৭ কোটি টাকা, ২০১৯ সালে একই সময়ে রিটার্ন জমা পড়েছিলো ১২ লাখ ৫৭ হাজার ৬২৬ টি, যার বিপরীতে আদায় ছিলো ২ হাজার ৫৮০ কোটি টাকা।

কর অঞ্চল ৭-এর কর কমিশনার মো. হারুন অর রশীদ জানান, গত বছরের চেয়ে কর জমা ও রিটার্ন কিছুটা কম। আইনে কিছুটা পরিবর্তন করা হয়েছে। টিআইএন (টিন) ধারীদের কারও আয় যদি শূন্যও হয় তাও প্রত্যেককে রিটার্ন জমা দিতে হবে।


আরও পড়ুন: রাজধানীতে রাস্তা দখল করে গাড়ি পার্কিং, দেখার কেউ নেই


তবে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের করনীতির সদস্য আলমগীর হোসেনের প্রত্যাশা, বছর শেষে আদায়ের নতুন রেকর্ড হবে। তিনি বলেন, মানুষ এখন সচেতন। রাষ্ট্রের প্রতি ভালবাসা থেকে মানুষ আয়কর জমা দিবে যাতে এই অর্থে দেশ আরও এগিয়ে যায়।

তারপরও যারা সময়মতো রির্টান জমা দিতে পারবেন না জরিমানা দিয়ে পরে জমা দেয়ার সুবিধাও বহাল থাকছে। সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যরিষ্টার এ এম মাসুম জানান, যারা সময়মতো রিটার্ন জমা দিবে না নির্দিষ্ট পরিমাণ জরিমানা দিয়ে তা পরেও দিতে পারবেন আয়কর না দেয়া ব্যক্তিরা।

তারপরও দেরিতে জমা দেয়ার যৌক্তিক কারণ দেখাতে পারলে জরিমানা মওকুফ করার ঘোষণাও দিয়েছে এনবিআর।

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য