আমরা ধনী হতে চাই, কিন্তু অর্থের শৈল্পিক ব্যবহার জানি না

সাদিয়া নাসরিন

প্রিন্ট করুন printer
আমরা ধনী হতে চাই, কিন্তু অর্থের শৈল্পিক ব্যবহার জানি না

আমরা অর্থ চাই, ধনী হতে চাই। কিন্তু অর্থের শৈল্পিক ব্যবহার জানি না, ধনের নান্দনিকতা শিখতে চাইনা। আমরা বলতে শিখিনি যে, একটি সুন্দর জিনিস কিনেছি। আমরা বলি এতো টাকা দিয়ে কিনেছি। আমাদের কাছে জিনিসটি গুরুত্বপূর্ণ নয়, অর্থ গুরুত্বপূর্ণ। 

হঠাৎ পয়সাওয়ালা আমরা এডপ্টিবিলিটি শব্দটার মানেই জানিনা। আমাদের মাথায় কাজ করে, ওদের আছে, আমাদের নেই, অথবা আমাদের ওদের চেয়ে বেশি আছে। এর সবকিছুর প্রভাবই সন্তানের ওপর পড়ে। যতক্ষণ পর্যন্ত না সেই প্রভাবের ক্ষতির দিকটি দৃশ্যমান হয়, ততক্ষণ আমরা সচেতন হই না। অথবা যখন সচেতন হই, তখন আর কিছু করার থাকে না। 

আমি নিজে আমার অনেক বন্ধুকে দেখেছি বাচ্চাকে হাতে ধরে এই শো-অফ শেখাতে। ১০ বছরের একজন বাচ্চা যখন আমার বাচ্চাকে তার জুতো দেখিয়ে বলে এটা হাশপাপিশের জুতো, এর দাম দশ হাজার টাকা, আমার তখন ভীষণ করুণা হয়। 

আমার নিজের বাচ্চাদের প্রতি আমি ভীষণ কৃতজ্ঞ এই কারণে যে, ওদের আমি যাই কিনে দেই, হোক সেটা এ্যাস্তরিয়ঁ কিংবা ফুটপাতের ভ্যান থেকেই, কখনো জানতে চায়না এটার দাম কতো। 

ইনফ্যাক্ট কোন জিনিসের দাম যে জিজ্ঞেস করতে হয় এটাই ওরা শেখেনি। স্কুলে বন্ধুদের কাছে দামী কিছু দেখে এসে বায়নাও ওরা কখনো ধরেনা। এমন কি নয় বছরের বাচ্চাটাও কিছু চাওয়ার আগে জানতে চায় আমার হাতে টাকা আছে কিনা। এখন না, আরো শিশুকাল থেকেই। আমি এভাবেই ওদের গ্রুম করেছি। 

ইলাসটিক টানলে লম্বা হয়। যত টানবেন তত লম্বা হবে। অর্থও এমন। যতো দরকার মনে করবো, তত পেতে ইচ্ছে করবে। ছুটোছুটি শুরু হবে তার পেছনে। যার শুরু আছে, শেষ নেই। এই জায়গাটার রেশ আমি শক্ত করে ধরেছি। 

আমাদের কতো টাকা দরকার সেই লিমিটটা ঠিক করে, বাকি সময়টুকু জীবনের জন্য রেখেছি। সেই জীবনে বাচ্চারা প্রথম প্রায়োরিটি। এরপর আমার সংসার, সম্পর্ক, ক্যারিয়ার, এ্যাক্টিভিজম, লেখালেখি, পড়াশোনা, সমাজিকতা, শখ এবং অন্য কিছু।


আরও পড়ুন: মেয়েটা ফিরেছে মৃত লাশ হয়ে


আমি জানি, ভালো থাকতে অর্থ দরকার। তারচাইতে ভালো জানি, ভালো থাকার একমাত্র উপায় অর্থ নয়। সুতরাং অর্থের পরিমিত ও নান্দনিক ব্যবহারটা শিখতে চেষ্টা করেছি শুরু থেকেই।

আপনি হয়তো সবসময় ভাবছেন, কি পেলামনা এই জীবনে? ভাবছেননা, কত কিছু পেয়েছেন! ভাবছেন অন্যদের চেয়ে কত খারাপ আছেন, কত কষ্টে আছেন, কত দুঃখে আছেন। ভাবছেননা, অন্য অনেকের চেয়ে অনেক বেশি ভালো আছেন! ভাবছেন কেউ আপনাকে বুঝল না। ঠিক আছে, আপনি অন্যকে বোঝার চেষ্টা করুন!

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য