প্রবাসীর স্ত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টা চালিয়ে মামাতো ভাই গ্রেপ্তার

অনলাইন ডেস্ক

প্রবাসীর স্ত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টা চালিয়ে মামাতো ভাই গ্রেপ্তার

যুক্তরাজ্য প্রবাসীর স্ত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে সুজেল আহমদ (২৬) নামে এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে সিলেটের বিশ্বনাথ থানা-পুলিশ। আজ সোমবার দুপুরে নিজ বাড়ি থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

তিনি উপজেলার খাজান্সি ইউনিয়নের জয়নগর (নোয়াপাড়া) গ্রামের রফিক মিয়ার ছেলে।

সূত্র জানায়, ওই যুক্তরাজ্য প্রবাসীর স্ত্রী (২৫) দীর্ঘদিন ধরে স্বপরিবারে জয়নগর গ্রামে মামার বাড়িতে বসবাস করছেন। পাশের বাড়ির সুজেল আহমদ প্রায়ই তাকে উত্ত্যক্ত করে আসছিল। তিনি ওই প্রবাসীর স্ত্রীর দুঃসম্পর্কের মামাতো ভাই।

থানা-পুলিশের উপ-পরিদর্শক সঞ্জয় লাল জানান, গতকাল রোববার (২৯ নভেম্বর) রাতে খাজাঞ্চী ইউনিয়নের জয়নগর (নোয়াপাড়া) গ্রামে মামার বাড়িতে সপরিবারে বসবাস করা এক নারী (ওই প্রবাসীর স্ত্রী) থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

তাতে তিনি উল্লেখ করেছেন, গত শুক্রবার (২৭ নভেম্বর) সন্ধ্যার দিকে পাশের বাড়ির সুজেল আহমদ তার ঘরে ঢুকে তাকে ধর্ষণের চেষ্টা চালায়। তার অভিযোগের প্রেক্ষিতে সুজেলকে আটক করা হয়েছে।

আয়কর রিটার্ন জমার সময় বাড়ল ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত

বিশ্বনাথ পুলিশ স্টেশনের অফিসার ইন-চার্জ শামীম মুসা বলেন, ভুক্তভোগী নারীর লিখিত অভিযোগ মামলা হিসেবে রুজু করা হবে।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

পরকিয়া আসক্ত স্ত্রীর মামলা : স্বামীর সংবাদ সম্মেলন

অনলাইন ডেস্ক

পরকিয়া আসক্ত স্ত্রীর মামলা : স্বামীর সংবাদ সম্মেলন

পরকিয়াতে আসক্ত স্ত্রীর করা অপপ্রচার, হয়রানি ও মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে স্ত্রীর বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেছে ওই নারীর স্বামী মো. শাহদাত হোসেন করিম ও তার শ্বশুর-শাশুড়ি। 

মঙ্গলবার (০২ মার্চ) দুপুরে বাগেরহাট প্রেসক্লাব মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন মো. শাহদাত হোসেন করিম। 

সংবাদ সম্মেলনে মো. শাহদাত হোসেন বলেন, ২০২০ সালের ৭ জুন বাগেরহাট মোরেলগঞ্জ উপজেলায় ওই নারীর (২৭) সঙ্গে ইসলামী শরিয়াহ মোতাবেক আমার বিয়ে হয়। স্ত্রীর ঢাকার পত্রিকায় চাকরির সুবাদে সে ঢাকাতে থাকত। বিয়ের মাত্র দেড় মাস পর আমার স্ত্রী পরকীয়ায় আসক্ত হয়। সংসার বাঁচাতে উপায়ন্তু না পেয়ে আমি তাকে আমার গ্রামের বাড়ি পিরোজপুর জেলার মঠবাড়িয়া উপজেলার উদয়তারা বুরিরচরে নিয়ে আসি। ব্যবসার কাজে তাকে বাড়িতে রেখে আমি ঢাকাতে আসি। আর এ সুযোগে সে বাড়ি থেকে তার কাপড় চোপড়, ৫ ভরি স্বর্ণালঙ্কার ও বাড়ির কাজের জন্য রাখা ৫ লাখ ৩০ হাজার টাকা নিয়ে পালিয়ে আসে। 


গুপ্তচরবৃত্তির ইসরাইলি জাহাজে ইরানের হামলা!

ওটিটি প্ল্যাটফর্মেও ডাবল ব্লকবাস্টার দৃশ্যম টু!

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ নিয়ে মুখোমুখি অবস্থানে পাক-ভারত!

অপো নতুন ফোনে থাকছে ১২ জিবি র‌্যাম


 

তিনি বলেন, পরবর্তীতে আমি মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে সে আমার সাথে খারাপ ব্যবহার করে। বিষয়টি আমার শ্বশুর-শাশুড়িকে জানাই। আমি আমার স্বর্ণালংকার ও টাকার জন্য চাপ দিলে একই বছর ১২ অক্টোবর আমার বৃদ্ধ মা ও আমাকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় আমার শ্বশুর-শাশুড়ি আমাকে নির্দোষ বলে আদালতে সাক্ষ্য দেয়।

পরবর্তীতে আমার স্ত্রীর না রাজির ভিত্তিতে আদালত মামলাটি তদন্তের জন্য পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে দায়িত্ব দেয়। পিবিআই মামলাটির তদন্ত করে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা রিপোর্ট প্রদান করে। আমি এই মিথ্যা মামলা থেকে বাঁচতে চাই। আমাদের নামে বিভিন্ন মিডিয়ায় মিথ্যা সংবাদ প্রকাশ ও প্রচার করে সামাজিকভাবে হেয় করছে।

শাহদাতের বোন রেশমা আক্তার ও ভাই শহিদুল ইসলাম বলেন, আমরা চেয়েছিলাম ছোট ভাইয়ের বউ বাড়িতে মাকে নিয়ে থাকবেন। কিন্তু মায়ের সাথে তো থাকলই না। বরং এখন আমাদের উল্টো হেনস্থা করছে। আমরা এই মিথ্যা মামলা থেকে বাঁচতে চাই।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত স্ত্রী বলেন, আমার স্বামী অনেকগুলো বিয়ে করেছে। বিয়ে করা তার নেশা। মামলা থেকে বাঁচতে সে আমার নামে এসব অভিযোগ করে বেড়াচ্ছেন।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

কালীগঞ্জে ৫ মাদক মামলার আসামি পৌরসভার কাউন্সিলর নির্বাচিত

শেখ রুহুল আমিন, ঝিনাইদহ

কালীগঞ্জে ৫ মাদক মামলার আসামি পৌরসভার কাউন্সিলর নির্বাচিত

একটি নয়, দুটি নয় আদালতে বিচারাধীন পাঁচ পাঁচটি মাদক মামলার আসামি রুবেল হোসেন কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়েছেন। রোববার (২৮ ফেব্রয়ারি) অনুষ্ঠিত কালীগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে রুবেল ২নং সাধারণ ওয়ার্ডের কাউন্সিলর নির্বাচিত হন।

তিনি ১ হাজার ৪৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী দিনবন্ধু পেয়েছেন ৬৪০ ভোট। কালীগঞ্জ পৌর এলাকার খয়েরতলা গ্রামের মন্টু বিশ্বাসের ছেলে রুবেল জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত হওয়ার খবরে চক্ষু চড়ক গাছে উঠেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কর্মকর্তাদের। এটি খারাপ নজীর হয়ে থাকবে বলে পুলিশের কয়েকজন কর্মকর্তা মন্তব্য করেন।


সবইতো চলছে, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কেন ঈদের পরে খুলবে: নুর

আইন চলে ক্ষমতাসীনদের ইচ্ছেমত: ভিপি নুর

রাঙামাটিতে বিজিবি-বিএসএফের পতাকা বৈঠক

৭৫০ মে.টন কয়লা নিয়ে জাহাজ ডুবি, শুরু হয়নি উদ্ধার কাজ


তথ্য নিয়ে জানা গেছে, দেশব্যাপী মাদকবিরোধী অভিযান শুরু হলে ক্রসফায়ারের ভয়ে দুই বছর ভারতে পালিয়ে ছিলেন রুবেল। সেখানে তিনি বনগায়ে বসবাস করতেন। ২০১৯ সালের ৫ মে তারিখে শীর্ষ মাদক কারবারি হিসেবে রুবেল (৩১) ও তার চাচাতো ভাই সজল (২৩) কালীগঞ্জ থানা-পুলিশের কাছে আত্মসমর্পণ করেন।

কালীগঞ্জ থানার তৎকালীন ওসি ইউনুচ আলী জানিয়েছিলেন, রুবেল শীর্ষ মাদক কারবারি। সে দীর্ঘদিন ধরে ফেন্সিডিল, ইয়াবাসহ বিভিন্ন মাদক বিক্রির সাথে জড়িত ছিল। তিনি তার চাচাতো ভাই সজলকে সাথে নিয়ে মাদকের বিরাট সিন্ডিকেট গড়ে তোলেন। র‌্যাব ও পুলিশের ভাষ্যমতে বিভিন্ন সময়ে তার বাড়িতে পুলিশ, র‌্যাব ও মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর একাধিকবার অভিযান চালিয়ে অনেক মাদকদ্রব্য উদ্ধার করে। মাদক দ্রব্য উদ্ধারের পর তার বিরুদ্ধে একে একে ৫টি মামলা
দায়ের করা হয়। এখন বিচারাধীন আছে ৫টি মাদক মামলা। রুবেল হোসেন তার হলফনামায়ও ৫টি মাদক মামলা থাকার কথা স্বীকার করেছেন। ঝিনাইদহ র‌্যাবের তৎকালীন মেজর মনির আটক করার পর তিনি পালিয়ে যান বলেও কথিত আছে। 

নবনির্বাচিত কাউন্সিলর রুবেল হোসেন প্রথমে মামলাগুলো ষড়যন্ত্র হিসেবে উল্লেখ করলেও পরে জানান, ২০১৯ সালের ৫ মে পুলিশের কাছে আত্মসমর্পণ করার পর সব কিছু ছেড়ে দিয়ে তাবলীগ করেন। দ্বীনের দাওয়াত দেওয়ার কারণে মানুষ তাকে পচ্ছন্দ করে ভোট দিয়েছেন। তিনি এখন স্বাভাবিক জীবন-যাপন করছেন বলেও দাবি করেন।

এদিকে একাধিক মাদক মামলার আসামি কাউন্সিলর নির্বাচিত হওয়ার বিষয়ে কালীগঞ্জ উপজেলার নির্বাচন অফিসার
আলমগীর হোসেন জানান, আদালত থেকে সাজাপ্রাপ্ত হলে তার মনোনয়ন বাতিল হতো। যেহেতু তার মামলাগুলো বিচারাধীর রয়েছে, সেহেতু তার কাউন্সিলর হতে বাধা ছিল না।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

নোয়াখালীতে ধর্ষণের লজ্জা সইতে না পেরে স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যা

আকবর হোসেন সোহাগ, নোয়াখালী

নোয়াখালীতে ধর্ষণের লজ্জা সইতে না পেরে স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যা

নোয়াখালীর সূবর্ণচরে ধর্ষণের অপমান সইতে না পেরে আত্মহত্যা করেছে এক স্কুলছাত্রী। এমন অভিযোগ করেছেন নিহত ছাত্রীর পরিবার। নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় ওই ছাত্রী।

মঙ্গলবার দুপুরে সুধারাম পুলিশ তার লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছে।

নিহত স্কুলছাত্রী সূবর্ণচর উপজেলার চরজব্বর থানার চর জুবলী ইউনিয়নের শহীদ জয়নাল আবেদীন মডেল সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এবার এসএসসি পরীক্ষার্থী ছিলো। সে ওই ইউনিয়নের চর জিয়া উদ্দিনের মো. আলমগীরের মেয়ে।


সবইতো চলছে, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কেন ঈদের পরে খুলবে: নুর

আইন চলে ক্ষমতাসীনদের ইচ্ছেমত: ভিপি নুর

রাঙামাটিতে বিজিবি-বিএসএফের পতাকা বৈঠক

৭৫০ মে.টন কয়লা নিয়ে জাহাজ ডুবি, শুরু হয়নি উদ্ধার কাজ


নিহতের চাচা ফিরোজ শাহ জানান, ফজলে রাব্বি রুবেল (১৯) নামে এক বখাটে রোববার (২৮ ফেব্রুয়ারি) তিনটায় তার ভাতিজিকে বাড়িতে একা পেয়ে ধর্ষণ করে। ওই অপমান সইতে না পেরে ওই দিন সন্ধ্যা ৭ টার দিকে সে বিষপান করে। তাকে সূবর্ণচর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে সেখান থেকে তাকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে পাঠায়। নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে সোমবার রাত সাড়ে ১২ টায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মুত্যু হয়। বখাটের বিরুদ্ধে মামলা করবেন বলে জানান নিহতের চাচা।

স্কুল ছাত্রীর বাবা মো. আলমগীর হোসেন জানান, তিনি গাজীপুর একটি পোষাক কারখানায় চাকরি করেন। তার তিন মেয়ে দুই ছেলে। রোববার তার স্ত্রী বড় মেয়েকে নিয়ে তার কাছে (গাজীপুর) যান।

ছোট মেয়ের কাছে তার নানীকে রেখে গেলেও তিনি (নানী) ওই দিন দুপুরে একটি কাজে পার্শ্ববর্তী মান্নান নগরে গেলে বখাটে রুবেল তাকে একা পেয়ে ধর্ষণ করে। অভিযুক্ত রুবেল জেলার সদর উপজেলার পাক কিশোরগঞ্জের শল্লা গ্রামের জাহাঙ্গীর আলমের ছেলে। তিনি (আলমগীর) একজন দোকানদার থাকাকালে সে কিছুদিন তার দোকানের কর্মচারী ছিলো। সে সুবাদে পরিবারের সদস্যদের কাছে পরিচিত ছিল রুবেল।

সুধারাম থানার ওসি শাহেদ উদ্দিন বলেন, লাশ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য চরজব্বর থানায় বলা হয়েছে।

চরজব্বর থানার ওসি মো. জিয়াউল হক বলেন, আমি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। পরিবারের লোকজন ধষর্ণের বিষয়টি মৌখিকভাবে জানিয়েছে। এখনো কোনো লিখিত অভিযোগ পাইনি।অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

সাভারে সংঘর্ষ: রামদা নিয়ে কোপানো হলো প্রতিপক্ষকে

অনলাইন ডেস্ক

সাভারে সংঘর্ষ: রামদা নিয়ে কোপানো হলো প্রতিপক্ষকে

সাভারে আশুলিয়ার ভাদাইল এলাকায় ঝুট ব্যবসার আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ইউপি সদস্য ও যুবলীগ কর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষর ঘটনা ঘটেছে।

এসময় ১৬টি মোটরসাইকেল ভাঙচুর, ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও এক পক্ষকে রামদা নিয়ে কোপাতে দেখা গেছে। এ ঘটনায় উভয়পক্ষের কমপক্ষে ২০ জন আহত হয়েছেন। 

আজ সকালে সংঘর্ষের ঘটনাটি ঘটে। আহতদের স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় যুবলীগের দুই কর্মীকে আটক করা হয়েছে। 

স্থানীয় ও পুলিশ জানিয়েছে, পুরাতন ইপিজেডের এক্সপিরিয়েন্স ক্লোথিং লিমিডেট নামে কারখানায় আশুলিয়া থানা যুবলীগের আহ্বায়ক কবির হোসেন সরকার ঝুট ব্যবসা করে আসছে। তবে গত ২৮ ফেব্রুয়ারি কারখানার সঙ্গে ইউপি মেম্বার সাদেক ভূঁইয়ার ছেলে মনির হোসেনের চুক্তিবদ্ধ হয়েছে বলে দাবি করা হয়। 

খবর পেয়ে যুবলীগের নেতৃত্বে বেশ কয়েকটি মোটরসাইকেল নিয়ে ভাদাইলে মহড়া দেয়। এসময় মনিরের লোকজনের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষের ঘটনায় আহত ২০জন।


রাজশাহীতে চলছে বিএনপির মহাসমাবেশ

করোনায় দেশে আরও ৭ জনের মৃত্যু

বিমানের মধ্যেই মৃত্যু, পাকিস্তানে ভারতীয় বিমানের জরুরি অবতরণ

কুয়েতে দিনার ছিটিয়ে ‘অশ্লীল নাচ’, ৪ বাংলাদেশিকে খুঁজছে দূতাবাস


আশুলিয়ার থানার ওসি কামরুজামান বলেন, পুরাতন ইপিজেডের এক্সপিরিয়েন্স ক্লোথিং লিমিডেট ব্যবসায়িক দ্বন্দ্বের জের ধরে আওয়ামী যুবলীগের দুটি গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ধাওয়া দিয়ে এলাকার শীর্ষ সন্ত্রাসী মনির ভূইয়া, দেওলায়ার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়।

ঢাকা জেলার পুলিশ সুপার মারুফ হোসেন সরদার বলেন, বিষয়টি তার জানা নেই, তবে এখনই খোঁজ নেওয়া হচ্ছে। এছাড়াও এ ধরনের ঘটনা ঘটে থাকলে ওই পরিবারের সদস্যরা লিখিত অভিযোগ দিলে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।  

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

জামালপুরে এক কিশোরীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

তানভীর আজাদ মামুন, জামালপুর

জামালপুরে এক কিশোরীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

জামালপুরে ১৫ বছর বয়সী এক অজ্ঞাত কিশোরীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার সকালে শহরের মনিরাজপুর মোড় এলাকার একটি মেহগনির বাগান থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়েছে। 


সাই পল্লবীর ফাঁস হওয়া ভিডিও ভাইরাল (ভিডিও)

আনুশকাকে ধর্ষণের পর হত্যা দিহানের বিরুদ্ধে প্রতিবেদন পেছাল

ডিভোর্সের গুঞ্জনের মধ্যেই নতুন প্রেমে জড়ালেন শ্রাবন্তী!

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন স্থগিতের আহ্বান জাতিসংঘের


জামালপুর সদর থানার ওসি মো. রেজাউল ইসলাম খান জানান, ভোরে মসজিদ থেকে ফেরার সময় মুসল্লিরা প্রথমে লাশটি দেখতে পান। পরে স্থানীয়রা খবর দিলে অজ্ঞাত কিশোরীর লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের পর নিশ্চিত হওয়া যাবে এটি হত্যা নাকি আত্মহত্যা।

news24bd.tv আয়শা

মন্তব্য

পরবর্তী খবর