হল-মার্কের ননফান্ডেড ১২শ কোটি টাকার অনুসন্ধান শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রিন্ট করুন printer
হল-মার্কের ননফান্ডেড ১২শ কোটি টাকার অনুসন্ধান শুরু

বহুল আলোচিত হল-মার্ক গ্রুপের ঋণ কেলেঙ্কারির ননফান্ডেড (ঋণসুবিধা) অংশের ১২শ কোটি টাকার অনুসন্ধান শুরু করতে যাচ্ছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। এ জন্য পরিচালক মীর মোহাম্মদ জয়নুল আবেদীন শিবলীর নেতৃত্বে আট সদস্যের একটি অনুসন্ধান দল গঠন করেছে কমিশন।

এর আগে এই দুর্নীতির ফান্ডেড অংশ নিয়ে দুদক মামলা ও চার্জশিট দিয়েছিলো, এবার নন ফান্ডেড অংশ নিয়ে অনুসন্ধান শুরু হয়েছে।

২০১০ থেকে ২০১২ সালের মধ্যে হল-মার্ক গ্রুপের ননফান্ডেড ঋণ জালিয়াতির পরিমাণ প্রায় ১ হাজার ২০০ কোটি টাকা। ২০১২ সালে এ বিষয়ে অনুসন্ধান শুরুর পর ২০১৩ সাল থেকে এই অনুসন্ধান স্থগিত রাখে কমিশন। ফান্ডেড ও ননফান্ডেড সব মিলিয়ে হল-মার্কের মোট ঋণের পরিমাণ সাড়ে চার হাজার কোটি টাকার বেশি। যার পুরোটাই খেলাপি। সোনালী ব্যাংকের শুধু হোটেল রূপসী বাংলা শাখা থেকেই ৩ হাজার ৬০৬ কোটি ৪৮ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয় হল-মার্ক গ্রুপ।

এসব ঘটনায় হল-মার্ক ও ব্যাংকের সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে মোট ৩৮টি মামলা করে কমিশন। এর মধ্যে প্রথমে ২০১২ সালের ৪ অক্টোবর ১ হাজার ৫৬৮ কোটি ৪৯ লাখ ৩৪ হাজার ৮৭৭ টাকা আত্মাতের অভিযোগে ২১ জনকে আসামি করে ১১টি মামলা করা হয়।


আরও পড়ুন: কমছে সোনার দাম, স্বাভাবিক হচ্ছে অর্থনীতি


মামলাগুলোর তদন্ত শেষে ২০১৩ সালের ৭ই অক্টোবর ২১ জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়। ২০১২ সালে হল-মার্কের সহযোগী বিভিন্ন কাগুজে প্রতিষ্ঠানের নামে আরও অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে কমিশন ৩৫ জনকে আসামি করে আরও ২৭টি মামলা করে।

পরে মামলাগুলো তদন্ত করে আদালতে অভিযোগপত্রও দেওয়া হয়েছে। কিন্তু ননফান্ডেড প্রায় ১ হাজার ২০০ কোটি টাকা আত্মসাতের বিষয়টির অনুসন্ধান ২০১৩ সাল থেকে সাময়িক স্থগিত থাকে। সাত বছর পর এখন আবার সেই অনুসন্ধান শুরু হয়েছে।

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য