পাঁচ বছর বয়সে মা হয়েছিল লিনা, চিকিৎসা বিজ্ঞান উত্তর খুঁজে পায়নি আজও!

অনলাইন ডেস্ক

পাঁচ বছর বয়সে মা হয়েছিল লিনা, চিকিৎসা বিজ্ঞান উত্তর খুঁজে পায়নি আজও!

সন্তানের সঙ্গে লিনা মেদিনা

গোটা বিশ্বের ইতিহাস জুড়েই এমন কিছু ঘটনা রয়েছে যা সত্যি বলে বিশ্বাসই করতে ইচ্ছে করে না। এমন কিছু অনন্য রেকর্ড রয়েছে, যা সকলকে হতবাক করে দেয়। এরকমই এক অত্যদ্ভূত রেকর্ডের অধিকারী দক্ষিণ আমেরিকার দেশ পেরুর বাসিন্দা লিনা মেদিনা। 

বিশ্বের ইতিহাসে সর্বকণিষ্ঠ বয়সে মা হওয়ার রেকর্ড করেছিলেন তিনি। অবিশ্বাস্য হলেও ঘটনা হল, লিনা যখন তার প্রথম সন্তানের জন্ম দিয়েছিলেন মাত্র পাঁচ বছর বয়সে!

আরও পড়ুন: 


‘ম্যারাডোনা আহত হয়ে তিন দিন অবহেলায় পড়েছিলেন’

দাঁতের পাথর থেকে মুক্তি পেতে যা করবেন

মুসলিম বিশ্বের ইতিহাস-ঐতিহ্য বহনকারী সব ভাস্কর্য


১৯৩৩ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর পেরুর ট্রিকাপো নামে এক ছোটো শহরে জন্ম হয়েছিল তার। লিনার যখন পাঁচ বছর বয়স, তখন তার বাবা-মা লক্ষ্য করেছিলেন তার পেট হঠাৎ ফুলতে শুরু করেছে। তারা প্রথমে ভেবেছিলেন লিনার সম্ভবত পেটের কোনও রোগ হয়েছে। কিংবা তার পেটে টিউমার হয়েছে। গভীর উদ্বেগে তারা লিনাকে এক চিকিৎসকের কাছে নিয়ে গিয়েছিলেন। চিকিৎসকরা বিভিন্ন রোগের জন্য ছোট্ট লিনার বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেছিলেন। কিন্তু, কিছুতেই তার রোগ ধরতে পারছিলেন না।

অবশেষে, ধরা পড়ে যে লিনা গর্ভবতী, এক সন্তানের জন্ম দিতে চলেছে সে। চিকিৎসকরা এই আবিষ্কারে একেবারে হতবাক হয়ে যান। এরপর লিনাকে হাসপাতালে ভর্তি করে একদল চিকিৎসক পরীক্ষা করে এই বিষয়ে নিশ্চিত হয়েছিলেন। ১৯৩৯ সালের ১৪ মে, মাত্র ৫ বছর ৭ মাস ১৭ দিন বয়সে এক পুত্র সন্তানের জন্ম দিয়েছিলেন লিনা। অস্ত্রোপচার করতে হয়েছিল ডাক্তারদের। লিনা যে পুত্রের জন্ম দিয়েছিলেন সেও সুস্থই ছিল। ঘটনাচক্রে, ওই দিনটি আবার পেরুতে মাতৃ দিবস হিসাবে পালিত হয়।

১৯৭২ সালে বিবাহ করেছিলেন লিনা। নার্সের কাজ করতেন। তার সেই সন্তান জীবিত ছিল ৪০ বছর। কিন্তু, এত ছোট বয়সে লিনা কীভাবে গর্ভবতী হল, সেই প্রশ্নের উত্তর আজও পাওয়া যায়নি। মনে করা হয়, সম্ভবত পরিবারের বা প্রতিবেশীদের কেউ তাকে ধর্ষণ করেছিল। কিন্তু, ৫ বছর বয়সে কীভাবে সন্তান ধারণ সম্ভব তা নিয়ে রহস্য রয়ে গেছে। 

সাধারণ চিকিৎসা বিজ্ঞান বলে, মেয়েরা বয়সন্ধিতে না পৌঁছালে তাদের শরীরে সন্তান ধারণের প্রয়োজনীয় হরমোনই তৈরি হয় না। তাই এই ঘটনাটা ডাক্তারদের কাছে শুধু বিস্ময়কর নয়, অসম্ভব ছিল। চিকিৎসা বিজ্ঞান বিশেষজ্ঞরা আজও লিনার মাতৃত্বের ধাঁধার উত্তর খুঁজে পাননি। সূত্র : দ্য সান ও এশিয়ানেট নিউজ।

news24bd.tv কামরুল

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

গাড়ির মধ্যেই মিউজিক ক্লাব

অনলাইন ডেস্ক

গাড়ির মধ্যেই মিউজিক ক্লাব

করোনার কারণে গতবছর এক প্রকার বন্দী জীবন কাটিয়েছে বিশ্ববাসী। সব কিছুই বন্ধ ছিল। কোন মতে মানুষ খেয়ে পরে বেচেঁ ছিল। কিন্তু এভাবে আর কতদিন। মানুষ আর কতদিনই বা সংগীতসুধা থেকে বঞ্চিত থাকবে? জার্মানির মিলিয়ার্ডেন ব্যান্ড এবার শ্রোতাদের কাছেই হাজির হচ্ছে ভ্যান নিয়ে। তাদের সেই ভ্যানই এখন মিউজিক ক্লাব। 

এ মাসে নিজেদের তৃতীয় স্টুডিয়ো অ্যালবাম প্রকাশ করেছে মিলিয়ার্ডেন (www.milliardenmusik.de)। জার্মান শব্দ মিলিয়ার্ডেনের অর্থ বিলিয়ন। তাদের নতুন অ্যালবামের নাম ‘শুলডিগ’ বা অপরাধী।

তা লকডাউনের মধ্যে নতুন অ্যালবামের গান শোনাতে এক সঙ্গে হাজারো শ্রোতার সামনে হাজির হতে চাইলে সত্যিই অপরাধই করা হতো। তেমন আয়োজনের অনুমতিই তো নেই!


ঋণ থেকে মুক্তির দু’টি দোয়া

মেসি ম্যাজিকে সহজেই জিতল বার্সা

দোয়া কবুলের উত্তম সময়

প্রবাসী স্বামীকে তালাক দিয়ে প্রেমিকের বাড়িতে প্রেমিকার অনশন!


তাই বলে বসে থাকেনি মিলিয়ার্ডেন। ভ্যানকে রঙিন আলো, প্লাস্টিকের গোলাপ আর নানা ধরনের পোস্টার দিয়ে সাজিয়ে নেমে পড়েছে রাস্তায়। বিশেষ করে ছোট ছোট শহর বা গ্রামে যারা আগে কোনোদিন ঘরের কাছে কনসার্ট উপভোগের সুযোগ পাননি, ভ্যান চলে যাচ্ছে তাদের কাছে।

মিলিয়ার্ডেন ব্যান্ডের সদস্য বেন হার্টমানের মতে, প্রতিটি শিল্পীর, প্রতিটি ব্যান্ডেরই শ্রোতাদের প্রতি কিছু ঋণ থাকে, মিলিয়ার্ডেনেরও আছে। তিনি জানান, করোনা সংকটের কারণে দীর্ঘদিন ধরে কনসার্ট দেখতে না পারা শ্রোতাদের সেই ঋণই কিছুটা শোধ করার চেষ্টা করছে মিলিয়ার্ডেন। 

এমন অভিনব উদ্যোগে শ্রোতারা নিশ্চয়ই মুগ্ধ হবেন। সংগীতের ক্ষুধাও মানুষ মেটাতে পারবেন। এই ব্রান্ড এরই মধ্যে সবার কাছে পরিচিতি পেয়েছে অভিনব এই উদ্যেগের ফলে। 

news24bd.tv/আয়শা

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

কুকুর ফিরে পেতে ৪ কোটি টাকা পুরস্কার

অনলাইন ডেস্ক

কুকুর ফিরে পেতে ৪ কোটি টাকা পুরস্কার

যুক্তরাষ্ট্রের জনপ্রিয় পপতারকা লেডি গাগা সবসময়ই আলোচনায় থাকেন। এবার তার দুটি পোষা কুকুর ছিনতাই হয়েছে। এজন্য তিনি বেশ ভেঙ্গে পড়েছেন। কুকুর দুটি ফেরত পেতে তিন পাঁচ লাখ মার্কিন ডলার পুরস্কারেরও ঘোষণা দিয়েছেন। খবর বিবিসির। 

গত বুধবার রাতে লস অ্যাঞ্জেলেসে হাঁটিয়ে নেওয়ার সময় এক কর্মচারীকে গুলি করে ফরাসি বুলডগ কোজি ও গুস্তাভ নামের কুকুর দুটি ছিনতাই করা হয়। পরে কুকুর দুটিকে একটি গাড়িতে উঠিয়ে নিয়ে পালিয়ে যায় ওই দুর্বৃত্ত।

তিনি জানান, কুকুর চুরির ঘটনায় তাঁর ‘হৃদয় ভেঙে’ গেছে। একই সঙ্গে কুকুরটি নিরাপদে ফিরিয়ে দেওয়ার জন্য পাঁচ লাখ মার্কিন ডলার পুরস্কারেরও ঘোষণা দেন তিনি। বাংলাদেশি মুদ্রায় এই পুরস্কারের অর্থের পরিমাণ হচ্ছে প্রায় ৪ কোটি ২৪ লাখ টাকা।


ঋণ থেকে মুক্তির দু’টি দোয়া

মেসি ম্যাজিকে সহজেই জিতল বার্সা

দোয়া কবুলের উত্তম সময়

রোনালদোর গোলেও হোঁচট খেল জুভেন্টাস


কুকুর দুটি খুঁজে পেতে মার্কিন ওই তারকা নিজের ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করেন। সেখানে তিনি লেখেন, ‘আমার হৃদয় ভেঙে গেছে এবং আমি প্রার্থনা করছি যে, কোনো উদারতায় আমার পরিবার আবারও একত্র হবে। তাদের (কুকুর) নিরাপদে ফিরিয়ে দিলে আমি পাঁচ লাখ মার্কিন ডলার দেব।’

কুকুর দুটি উদ্ধার করতে নিরাপত্তা বাহিনী উঠেপড়ে লাগে। অবশেষে উদ্ধার করা হয়েছে প্রাণী দুটিকে। গতকাল শনিবার কুকুরটি দুটি নিরাপদে উদ্ধার করা হয়েছে এবং লেডি গাগার কাছে তা হস্তান্তর করা হয়েছে। তবে কুকুর দুটিকে কীভাবে, কোথা থেকে উদ্ধার করা হলো, সেই বিষয়ে স্পষ্ট করে কিছু বলা হয়নি। কুকুর দুটি ফিরে পাওয়ায় গাগা পুরস্কারের অর্থ পরিশোধ করেছেন কি না, সেটাও নিশ্চিত নয়।

তবে তার ভক্তরা বেশ অবাকই হয়েছেন দুটি কুকুরের জন্য তিনি এত অর্থ পুরস্কার ঘোষণা করেছেন শুনে। শেষমেষ তিনি কুকুর ফিরে পেয়েছেন এটাই বড় কথা। 

news24bd.tv/আয়শা

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

ইন্টারনেট দুনিয়ায় নতুন দুই নিরাপত্তারক্ষী টোর ও সাইফন

অনলাইন ডেস্ক

ইন্টারনেট দুনিয়ায় নতুন দুই নিরাপত্তারক্ষী টোর ও সাইফন

অন্যে ক্ষতি করতে পারে এমন কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে নিজেকে আড়াল করে তথ্য গোপন করে ইন্টারনেট ব্যবহার করা বেশিরভাগ সময়ই অসম্ভব হয়ে পড়ে। কিন্তু কিভাবে তা সম্ভব? এ বিষয়ে সহজলভ্য এবং শতভাগ নিশ্চয়তা দেয়ার ব্যবস্থা নেই বললেই চলে। তবে অন্তর্জালের পরতে পরতে কতভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার ঝুঁকি থাকে সে ধারণা কিছুটা থাকলে নিরাপদে ব্রাউজ করা সম্ভব।

কিন্তু, ইন্টারনেটে কোন বিষয় কতভাবে গোপনীয়তা ভঙ্গ হতে পারে তা বলা মুশকিল। বস্তুতপক্ষে ইন্টারনেটের সবই সার্ভারের সঙ্গে যুক্ত এমন সব মানুষের কাছেই উন্মুক্ত। পোস্টকার্ডের লেখা যেমন প্রেরক এবং প্রাপক ছাড়াও ইচ্ছে করলে যে কেউ পড়তে পারেন, ইন্টারনেটের ট্রাফিকও ঠিক সেরক। সেখানে পরিচয় প্রকাশ করার মতো অনেক তথ্যই প্রায় উন্মুক্ত থাকে। প্রথমে বলা যেতে পারে কম্পিউটারের আইপি অ্যাড্রেসের কথা।

আজকাল অবশ্য এর বাইরেও অনেক কিছু দিয়েই ব্যবহারকারীকে চিনে নেয়া যায়। এমনকি কম্পিউটারের ব্রাউজার প্লাগইন, স্ক্রিন রেজোলিউশন, উইনডোজের আকার, ভাষা, সময় ইত্যাদি দিয়েও ব্যক্তিকে চেনা যায়। এমনকি আধুনিক প্রযুক্তির এই বিশ্বে ফিঙ্গারপ্রিন্টও সার্ভারের সঙ্গে সংযুক্ত শতকরা ৯৮ ভাগ মানুষের কাছে একজনের পরিচয় প্রকাশে সহায়ক হতে পারে। তাকে চিনে নিতে তখন আইপি অ্যাড্রেসেরও দরকার পড়ে না।


ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনকে ‘বৃদ্ধাঙ্গুলি’ ছাত্র ফেডারেশনের

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের দাবিতে আল্টিমেটাম

শাকিবের হয়ে পুরস্কার গ্রহণ করলেন বুবলি, জল্পনা তুঙ্গে

মহাসমাবেশে যোগ দিতে খুলনায় ইশরাক, পথে বাধার অভিযোগ


টোর (Tor) মানে ‘দ্য অনিয়ন রাউটার’। পেঁয়াজের খোসার মতো স্তরে স্তরে গড়ে তোলা নিরাপত্তা প্রাচীর দিয়ে এই ব্রাউজার ব্যবহারকারীকে আড়ালে রাখে। সার্ভারের সঙ্গে সরাসরি যুক্ত হতে হয় না বলে এর মাধ্যমে ইন্টারনেট ব্যবহার সবচেয়ে বেশি নিরাপদ।

ক্যানাডার তৈরি সাইফনও নিরাপদে ইন্টারনেট ব্যবহারের নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এতে এমন ধরনের অ্যাপ এবং কম্পিউটার প্রোগ্রাম ব্যবহারের সুযোগ থাকে, যা বিভিন্ন ধরনের সেন্সরশিপ এড়ানোর মেকানিজম গড়ে তুলতে সক্ষম।

তাই টোর অথবা সাইফন ব্যবহার করে ব্যক্তি সহজেই নিজের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পারবেন।  

news24bd.tv/আয়শা

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

অন্য পুরুষের সাথে সম্পর্ক নিয়ে সন্দেহ, স্ত্রীকে খুন

অনলাইন ডেস্ক

অন্য পুরুষের সাথে সম্পর্ক নিয়ে সন্দেহ, স্ত্রীকে খুন

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বাসন্তী হাইওয়েতে পরকীয়া সন্দেহে স্ত্রীকে হত্যা করেছেন স্বামী। গত শুক্রবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) ভোরে বাসন্তী হাইওয়ের কয়লাডিপোর কাছে দেহটি পড়ে থাকতে দেখা যায়।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে পুলিশ রাস্তা থেকে সেই মহিলার রক্তাক্ত দেহ উদ্ধার করে। জীবনতলা থানার সরবেরিয়ায় নাকা চেকিংয়ের সময় একটি গাড়ির সিটে রক্তের দাগ দেখে আটকায় পুলিশ।

পালানোর চেষ্টা করলে পিছু ধাওয়া করে গাড়িটিকে আটক করে পুলিশ। জিজ্ঞাসাবাদে অপরাধের কথা স্বীকার করেন ওই ব্যক্তি।


৭৬ জন সৌদি নাগরিকের উপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞা

গাড়িতে অগ্নিকান্ড, রেকর্ড সংখ্যক গাড়ি উঠিয়ে নিচ্ছে হুন্দাই

সানি লিওনের জায়গা নিলেন আবিরা! (ভিডিও)

৭ সন্তান নিতে স্বেচ্ছায় দেড় লাখ ডলার জরিমানা গুনলেন চীনা দম্পতি


নিহত নারীর মাথায় ও দেহের অন্যান্য জায়গায় একাধিক আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়। প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের অনুমান এটি খুন। দুর্ঘটনার জেরেও এই ঘটনা ঘটতে পারে বলে সন্দেহ করেছে পুলিশ।

news24bd.tv / নকিব

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

সমুদ্রের সঙ্গে লড়াই করে বেচেঁ ফিরলেন এক নাবিক

অনলাইন ডেস্ক

সমুদ্রের সঙ্গে লড়াই করে বেচেঁ ফিরলেন এক নাবিক

বিশাল সমুদ্রের মাঝে হঠাৎ করেই পড়ে যান পেরেভার্তিলোভ নামে এক নাবিক। মালবাহী এক জাহাজে করে তিনি যাচ্ছিলেন। অসাবধানতাবশত তিনি প্রশান্ত মহাসাগরে পড়ে যান। কিন্তু, তার কোন সহকর্মীই এ ঘটনা দেখতে পাননি। বিশাল সমুদ্রের সঙ্গে একাই লড়ে গেছেন দীর্ঘ ১৪ ঘন্টা। খড়কুটো আবর্জনা যাই পেয়েছেন তাকেই আকড়ে ধরে বাচঁতে চেয়েছেন। খবর বিবিসির।

মৃত্যু আর জীবনের মধ্যে এই আবর্জনাকে অবলম্বন করেই বেচেঁছেন তিনি। দক্ষিণ প্রশান্ত মহাসাগরে নিউজিল্যান্ডের টওরাঙ্গা পোর্ট ও পিটকেয়ার্ন দ্বীপের মাঝে এমন ঘটনা ঘটেছে। বিদাম পড়ে গিয়েছিলেন এক মালবাহী জাহাজ থেকে। কিন্তু জাহাজের কেউ জানতেই পারেননি তা।
  
বিদামের গায়ে কোনো লাইফ জ্যাকেট ছিল না। হঠাৎ পড়ে গিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু ভয় না পেয়ে একা বিশাল সমুদ্রে মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করেছেন তিনি।


নিউজিল্যান্ডের সঙ্গে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে কে?

মার্কিন গোয়েন্দা রিপোর্টে উঠে এল খাসোগি হত্যার গোপন তথ্য

নামাজে মনোযোগী হওয়ার কৌশল

অভাব দুর হবে, বাড়বে ধন-সম্পদ যে আমলে


প্রশান্ত মহাসাগরে ১৪ ঘণ্টা আবর্জনা আঁকড়ে ভেসে থাকেন। পরে তার জাহাজের সতীর্থরা জাহাজে তাকে খুঁজে না পেয়ে বুঝতে পারেন, তিনি পানিতে পড়ে গেছেন। তখনই জাহাজ পেছন দিকে ফেরে তাকে খুঁজতে থাকেন। খবর দেওয়া হয় অন্যান্য জাহাজগুলোতেও।

১৪ ঘণ্টা পরে বিদাম একটি জাহাজ দেখতে পান। ওটাই তখন তার কাছে লাইফলাইন। যতটুকু শক্তি তার তখনও টিকে আছে শরীরে, তা দিয়ে চিৎকার শুরু করেন। সেই জাহাজটিই তাকে উদ্ধার করে। পানিতে এত দীর্ঘ সময় থাকায় তখন যথেষ্ট দুর্বল ও অসুস্থ বিদাম। তবে অদম্য ইচ্ছা আর সাহসের জেরে জীবনের আলো দেখতে পান এই নাবিক।

news24bd.tv/আয়শা

মন্তব্য

পরবর্তী খবর