ধর্ষণের ভিডিও ছড়িয়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে স্কুলছাত্রীকে বার বার ধর্ষণ

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি:

প্রিন্ট করুন printer
ধর্ষণের ভিডিও ছড়িয়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে স্কুলছাত্রীকে বার বার ধর্ষণ

প্রতীকী ছবি

সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে প্রথমবার ধর্ষণের পর ভিডিও ধারণ করে সেই ভিডিও ফেসবুকে ভাইরালের ভয় দেখিয়ে দীর্ঘ একমাস যাবত তিন যুবক চতুর্থ শ্রেণীর একছাত্রীকে একাধিকবার ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। ঘটনার সাথে জড়িত ধর্ষক এক যুবককে বুধবার দুপুরে আটকের পর স্থানীয়রা পুলিশে সোপর্দ করেছে। 

আটক ধর্ষক যুবক শাহজাদপুর পোরজনা ইউপির পোরজনা গুচ্ছগ্রামের আলহাজ আলীর ছেলে রিক্সা চালক ইউসুফ আলী (১৮)। ঘটনার সাথে জড়িত অপর দুই যুবক একই গ্রামের মিন্টু প্রামানিকের ছেলে জীবন (১৮) ও মানিক হোসেনর ছেলে ফয়সালকে (১৮) খুঁজছে পুলিশ। 

আরও পড়ুন: 


প্রেমের বিয়ের ৭ মাস পর স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগ

শ্রীলেখার নামে ভুয়া ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খুলে বন্ধুত্বের ডাক!


ধর্ষণের শিকার ওই স্কুলছাত্রীর মা পাঁচতোলা খাতুন, বাবা আবুল কালাম প্রামানিক ও খালা শুকু খাতুন জানান, প্রায় একমাস আগে স্কুলে যাবার পথে ইউসুফ, জীবন ও ফয়সাল মেয়েটিকে রাস্তা থেকে জোরপূর্বক তুলে নিয়ে ফয়সালের নির্জন বাড়ির একটি ঘরে তিনজন মিলে ধর্ষণ করে। 

এ সময় ইউসুফের একটি মোবাইল ফোনে ফয়সাল এ ধর্ষণের ভিডিও চিত্র ধারণ করে। এরপর ওই ভিডিও ফেসবুকে ছড়িয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে তিনজন দীর্ঘ একমাস যাবত মেয়েটিকে জোরপুর্বক ধর্ষণ করে। মঙ্গলবার রাত নয়টার দিকে তারা মেয়েটিকে আবারও ধর্ষণের উদ্দেশ্যে নিয়ে যাবার চেষ্টা করে।

এ সময় মেয়েটি চিৎকার করলে আশপাশের লোকজন ছুটে এসে ইউসুফকে আটক করে। লোকজনের উপস্থিতি টের পেয়ে ফয়সাল ও জীবন পালিয়ে যায়। পরে ইউসুফকে পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়েছে। এদিকে, ঘটনাটি এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে এলাকাবাসী ও স্কুল শিক্ষার্থীরা ধর্ষকদের শাস্তির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করেছে। 

শাহজাদপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাহিদ মাহমুদ খান জানান, সংবাদ পেয়ে বুধবার দুপুরে ধর্ষক ইউসুফকে আটক করা হয়েছে। ইউসুফের মোবাইলে ধর্ষণের ভিডিও রয়েছে। যেভিডিও দেখিয়ে মেয়েটিকে একাধিক ধর্ষণ করা হয়েছে। এঘটনায় স্কুলছাত্রীর বাবা আবুল কালাম বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছে। মামলার অপর দুজনকে আটকের জন্য অভিযান চলছে। 

news24bd.tv কামরুল

মন্তব্য