কাজুবাদাম উৎপাদনে শীর্ষে ভিয়েতনাম

অনলাইন ডেস্ক

কাজুবাদাম উৎপাদনে শীর্ষে ভিয়েতনাম

কাজুবাদাম উৎপাদনে বিশ্বের শীর্ষ দেশ ভিয়েতনাম। একই সঙ্গে প্রতি বছর কৃষিপণ্যটির রপ্তানি বাবদ প্রচুর বৈদেশিক মুদ্রা আয় করে দেশটি। প্রক্রিয়াকরণ শিল্প বেশ উন্নত হওয়ায় অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক বাজারে ভিয়েতনামিজ কাজুবাদামের চাহিদাও রয়েছে ব্যাপক।

ভিয়েতনামের এই যাত্রা বেশি দিনের নয়। মাত্র তিন দশকের মধ্যে কাজুবাদাম রপ্তানি করে আয় ৩ হাজার ১০০ কোটি ডলারে উন্নীত করেছে দেশটি। বর্তমানে বিশ্বজুড়ে ৯০টির বেশি দেশ ও অঞ্চলে কাজুবাদাম রপ্তানি করছে ভিয়েতনাম।

শুরুতে ১২ উৎপাদনকারী ও রপ্তানিকারক এর সদস্য হলেও ৩০ বছরের ব্যবধানে সদস্য সংখ্যা ৫০০ ছাড়িয়েছে। এ সময়ের মধ্যে দেশে-বিদেশে অবস্থান পোক্ত করেছে ভিয়েতনামের কাজুবাদাম শিল্প।

কাজুবাদামের বৈশ্বিক বাজার বিস্তারে প্রভাবক ছিল পণ্যটির উৎপাদনের টানা প্রবৃদ্ধি ধরে রাখা। গত বছর বিশ্বজুড়ে ৫৪ লাখ টন কাজুবাদাম উৎপাদন হয়েছে। এ পরিমাণ আগের বছরের তুলনায় ৪ দশমিক ৪ শতাংশ বেশি। ২০১৩-১৯ সালের মধ্যে প্রতি বছর গড়ে ৪ দশমিক ৩ শতাংশ হারে কাজুবাদাম উৎপাদন বেড়েছে।


আরও পড়ুন: যে পাঁচ মসলা বাড়াতে পারে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা


উৎপাদনের পাশাপাশি কাজুবাদাম ব্যবহারেও আধিপত্য ধরে রেখেছে ভিয়েতনাম। গত বছর কাজুবাদাম ব্যবহারে শীর্ষ দেশ ছিল ভিয়েতনাম। দেশটি ২২ লাখ টন কাজুবাদাম ব্যবহার করেছে। এরপর ১৫ লাখ টন নিয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে ভারত ও ২ লাখ ৪৩ হাজার টন নিয়ে তৃতীয় অবস্থানে ফিলিপাইন। শীর্ষ এ তিন দেশ সম্মিলিতভাবে বৈশ্বিক উৎপাদনের ৭৪ শতাংশ কাজুবাদাম ব্যবহার করে। মালি, গিনি-বিসাউ, বেনিন, ব্রাজিল, আইভরি কোস্ট, মোজাম্বিক ও ইন্দোনেশিয়া মিলে আরো ১৮ শতাংশ ব্যবহার করে। বাকিটা অন্যান্য দেশের দখলে।

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

সূর্যমুখী ফুলের চাষে আগ্রহ বাড়ছে নেত্রকোনার কৃষকদের

সোহান আহমেদ কাকন, নেত্রকোনা

সূর্যমুখী ফুলের চাষ ছড়িয়ে পড়ছে নেত্রকোনায়ও। জেলার বারহাট্টায় এক কৃষক এখন ভালো লাভের আশায় আছেন এই তেলবীজ চাষ করে। তার দেখাদেখি অনেকে আগ্রহী হচ্ছেন এ ব্যাপারে। ভিড় করছেন দর্শনার্থীরাও। 

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের সহযোগিতায় নেত্রকোনার বারহাট্টা উপজেলায় কৃষক সবুজ মিয়ার সূর্যমুখীর বাগান এটি। সিংধা ইউনিয়নের ভাটিপাড়া গ্রামে ১০ একর জায়গায় এই তৈলবীজের চাষ করেছেন সবুজ মিয়া। কয়েক মাসে তার বাগানে শতশত ফুল এসেছে।

উপজেলাবাসীর কাছে এই দৃশ্য বেশ উপভোগ্য তাই প্রতিদিনই ভিড় করছেন তারা। অনেকে বেষ্টনি পেরিয়ে বাগানে ঢুকে পড়ছেন ছবি তুলতে। উদ্যোক্ত সবুজ মিয়ার কাছে এটি বিড়ম্বনা। নতুন ফসলের চাষ এই এলাকায় কর্মসংস্থানও বাড়িয়েছে।


সমালোচনা আমাদের কাজের সফলতা : কবীর চৌধুরী তন্ময়

পাবনায় থাকছেন শাকিব খান

সাধ্যের মধ্যে ৮ জিবি র‍্যামের রেডমি ফোন

কমেন্টের কারণ নিয়ে যা বললেন কবীর চৌধুরী তন্ময়


খাটো জাতের সূর্যমুখীর চাষ বাড়াতে কাজ করছে কৃষি বিভাগ। এতে ভোজ্যতেলের আন্তর্জাতিক বাজারে স্থান করে নেয়ার পাশাপাশি বাড়বে কৃষি পর্যটনের সম্ভাবনাও।

জেলা কৃষি অফিস থেকে জানা যায় নেত্রকোনার বিভিন্ন উপজেলায় অন্তত ৫ হেক্টর জমিতে এবার সূর্যমুখীর চাষ করেছেন কৃষকরা।

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

ব্যাংকের চাকরিতে নারী কর্মীর সংখ্যা বাড়ছে

অনলাইন ডেস্ক

ব্যাংকের চাকরিতে নারী কর্মীর সংখ্যা বাড়ছে

ব্যাংকের চাকরিতে নারী কর্মীর প্রতিনিয়ত সংখ্যা বাড়ছে। ফলে পুরুষের তুলনায় নারীদের অংশও বাড়ছে। এখন যারা চাকরিতে আসছেন এমন ব্যাংকারদের মধ্যে ১৮ শতাংশের বেশি রয়েছেন নারী। 

এক সময় তা ১০ শতাংশেরও কম ছিল। অন্যদিকে নারী কর্মীদের চাকরি বদলের প্রবণতা কিংবা চাকরি ছেড়ে দেওয়ার প্রবণতাও আগের চেয়ে কমেছে। ব্যাংক খাতের ওপর বাংলাদেশ ব্যাংকের লিঙ্গসমতা বিষয়ক প্রতিবেদনে এমন তথ্য উঠে এসেছে।


পশ্চিমবঙ্গের কাছে পর্যাপ্ত পানি থাকবে তখন তিস্তা চুক্তি: মমতা

যে দোয়া পড়লে বিশ্ব নবীর সঙ্গে জান্নাতে যাওয়া যাবে!

খুলনায় সওজ কার্যালয় ঘেরাও কর্মসূচি, ক্ষোভ

৭ই মার্চের অনুষ্ঠান থেকে বেড়িয়ে গেলেন অথিতিরা


বেঙ্গল কমার্শিয়াল ব্যাংক বাদে দেশে কার্যরত অন্য ৫৯টি তপশিলি ব্যাংকের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, দেশের ব্যাংকগুলোতে জনবলের সংখ্যা ১ লাখ ৮৩ হাজার ২০৩। গত ডিসেম্বর পর্যন্ত হিসাবে দেখা গেছে, এরমধ্যে পুরুষ কর্মীর সংখ্যা ১ লাখ ৫৪ হাজার ৮২৮ জন। 

আর নারী কর্মীর সংখ্যা ২৮ হাজার ৩৭৮ জন। সে হিসাবে ব্যাংকগুলোতে নারী কর্মী ১৮ দশমিক ৩২ শতাংশ। অন্যদিকে ব্যাংক বহির্ভূত আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোতে নারী কর্মকর্তা-কর্মচারীর রয়েছেন ১৬ শতাংশ। দেশের ৩৪টি আর্থিক প্রতিষ্ঠানে ১ হাজার ১৫ জন নারী চাকরি করেন।

এদিকে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানে কর্মরত নারী কর্মকর্তা কর্মচারীদের জন্য বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা চালু করেছে। ব্যাংকগুলো মাঝে মধ্যে লৈঙ্গিক সমতা বিষয়ক সচেতনতামূলক প্রশিক্ষণের আয়োজন করে থাকে। ব্যাংকগুলোর নেওয়া এসব উদ্যোগের ফলে নারীরা স্বাচ্ছন্দে চাকরি করতে পারছেন। বাংলাদেশ ব্যাংকও সময়ে সময়ে এসব সুবিধার বিষয়ে তদারকি করে থাকে।

news24bd.tv / কামরুল 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

দেশি-বিদেশি বিনিয়োগ আকর্ষণে একগুচ্ছ কর্মপরিকল্পনা বিডা’র

বাবু কামরুজ্জামান

করোনা পরবর্তী অর্থনীতিতে দেশি বিদেশি বিনিয়োগ আকর্ষণে একগুচ্ছ কর্মপরিকল্পনা হাতে নিয়েছে বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ-বিডা। 

সংস্থাটি বলছে, বিশ্বদরবারে বাংলাদেশকে তুলে ধরতে দূতাবাসগুলোতে ব্র্যান্ডিং করার পাশাপাশি চলতি বছরের জুলাই মাসে বিনিয়োগ সম্মেলন-২০২১ আয়োজন করবে বিডা। নিউজ টোয়েন্টিফোরকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে বিনিয়োগ বাড়াতে এমন নানা কর্মসূচির কথা তুলে ধরেছেন বিডার নির্বাহী চেয়ারম্যান মো. সিরাজুল ইসলাম। 

দেশে বিদেশী বিনিয়োগ বৃদ্ধি এবং বিনিয়োগ পরিবেশের উন্নয়নে নানামুখী উদ্যোগ এবং তা বাস্তবায়নে কাজ করছে বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ বিডা।

বিডার ওয়ান স্টপ সার্ভিস পোর্টালের মাধ্যমে এখন বিনিয়োগকারীদের ১১টি সংস্থার ৪১ টি সেবা দিচ্ছে সংস্থাটি। তবে খুব শিগিগির দুই সিটি করপোরেশনে ট্রেড লাইসেন্স প্রক্রিয়া সহজ করতে এর আওতায় আনা হচ্ছে। এছাড়া মুজিববর্ষে বিনিয়োগ আকর্ষণে বিডা আয়োজন করছে বিনিয়োগকারীদের আন্তর্জাতিক সম্মেলন।


অনুমোদনের অপেক্ষায় সিএমপির ছয় থানা

৩৩৭ জনকে উপসচিব পদে পদোন্নতি

আটকে গেল ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার লড়াই

শিক্ষার্থীকে পিটিয়ে জখম মাদ্রাসার শিক্ষক প্রেপ্তার


বিডার দেয়া সবশেষ হিসাব বলছে,২০১৯ সালে সংস্থাটির মাধ্যমে নিবন্ধিত হওয়া দেশি বিনিয়োগ প্রকল্প প্রস্তাবের সংখ্যা ছিল ৯৬৮ টি যেখানে বিদেশি বিনিয়োগ প্রস্তাব ছিল ১৮৫। যদিও করোনার ধাক্কায় ২০২০ সালে কমেছে দেশি বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ। 

তবে ২০২১ সালের মাত্র ২ মাসে বিনিয়োগ প্রকল্প নিবন্ধিত হয়েছে শতাধিক যেখানে ৭টি বিদেশী কোম্পানির কাছে মিলেছে ৪৯ মিলিয়ন ডলারের প্রস্তাব; যা নিয়ে আশার কথা বলছে বিডা কর্তৃপক্ষ।

বিশ্বব্যাংকের ইজ অব ডুয়িং বিজনেস বা সহজে ব্যবসা সূচকে ১৯০ দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ১৬৮তম। যা এবার ১শর মধ্যে উন্নীত করতে সমন্বিতভাবে কাজ চলছে বলেও জানান বিডা চেয়ারম্যান।

তবে বাংলাদেশে বিনিয়োগ বাড়াতে এখনো অন্যতম চ্যালেঞ্জ করপোরেট কর হার। প্রতিবেশি দেশ ভারত শ্রীলঙ্কা, মালয়েশিয়া কিংবা ভিয়েতনামের তুলনায় বাংলাদেশে স্টক এক্সচেঞ্জে তালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলোর করপোরেট কর এখনো সর্বোচ্চ যা সাড়ে ৩২ শতাংশ। জুলাই থেকে ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত এই ৮ মাসে প্রস্তাবিত বিনিয়োগ বাস্তবায়ন হলে অন্তত ১ লাখ লোকের কর্মসংস্থান তৈরি হবে বলে জানিয়েছে বিডা।

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

বাংলাদেশে আর ব্যবসা করতে চান না আজিজ মোহাম্মদ ভাই

অনলাইন ডেস্ক

বাংলাদেশে আর ব্যবসা করতে চান না আজিজ মোহাম্মদ ভাই

আজিজ মোহাম্মদ ভাই

বাংলাদেশ থেকে ব্যবসা গোটাতে চাইছেন দেশের আলোচিত শিল্পোদ্যোক্তা আজিজ মোহাম্মদ ভাই ও তার পরিবারের সদস্যরা। মহামারী করোনা ভাইরাসের আগে থেকেই ব্যবসা গোটানোর এ চেষ্টা চলছে।

শিল্প-বাণিজ্য-অর্থনীতিবিষয়ক বাংলা দৈনিক পত্রিকা দৈনিক বণিক বার্তা'র এক প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা যায়। 

প্রতিবেদনে বলা হয়, বাংলাদেশ থেকে ব্যবসা গুটিয়ে নিতে দেশি-বিদেশি ক্রেতার সঙ্গে যোগাযোগও করেছেন তারা। কিন্তু ক্রেতাদের প্রস্তাবিত দাম তাদের প্রত্যাশার সঙ্গে মেলেনি। ফলে নতুন ক্রেতার কাছে বিক্রির প্রস্তাব ও দরকষাকষির প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে।

বণিক বার্তা বলছে, আজিজ মোহাম্মদ ভাইয়ের হাত ধরেই যাত্রা করেছিল পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানি অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজ। তালিকাভুক্ত আরেক কোম্পানি এমবি ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডেরও স্বত্বাধিকারী তিনি ও তার পরিবার। বর্তমানে পরিবারটি বসবাস করছে থাইল্যান্ডে। মাঝেমধ্যে দেশে এসে ব্যবসা দেখাশোনা করছিলেন তার স্ত্রী নওরীন আজিজ মোহাম্মদ ভাই, চাচা মুবারক আলীসহ স্বজনরা।

সম্প্রতি দেশের একটি শীর্ষস্থানীয় করপোরেট গ্রুপের কাছে অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজ ও এমবি ফার্মাসিউটিক্যালস বিক্রির প্রস্তাব দিয়েছেন ‘মোহাম্মদ ভাই’ পরিবারের সদস্যরা। একটি ব্যাংক ও বেশ কয়েকটি অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট কোম্পানি তাদের পক্ষ হয়ে ক্রেতাদের কাছে শেয়ারগুলো বিক্রির জন্য দেনদরবার করছে। শিল্প গ্রুপটির সঙ্গে যুক্ত একাধিক পক্ষসহ বিভিন্ন সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।


শত বিঘায় শস্যচিত্রে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি

৩৩৭ জনকে উপসচিব পদে পদোন্নতি

আটকে গেল ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার লড়াই

শিক্ষার্থীকে পিটিয়ে জখম মাদ্রাসার শিক্ষক প্রেপ্তার


ঢাকা ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে তালিকাভুক্ত অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের বর্তমান বাজার মূলধন ৩ হাজার ৩৬২ কোটি টাকা। আর ১০২ কোটি টাকা বাজার মূলধন আছে এমবি ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের। দুটি কোম্পানিরই সিংহভাগ শেয়ারের মালিকানা মোহাম্মদ ভাই পরিবারের। এর মধ্যে শুধু আজিজ মোহাম্মদ ভাইয়ের মালিকানাধীন শেয়ারের বর্তমান বাজারমূল্য ৫৫০ কোটি টাকার বেশি।

আজিজ মোহাম্মদ ভাই পরিবারের সঙ্গে যুক্ত একাধিক সূত্রের ভাষ্যমতে, থাইল্যান্ড, মালয়েশিয়া, হংকং, সিঙ্গাপুরসহ বিভিন্ন দেশে ‘মোহাম্মদ ভাই’ পরিবারের ব্যবসা রয়েছে। দেশে শেয়ারবাজার কেলেঙ্কারি, হত্যাকাণ্ড, মাদক বাণিজ্যসহ নানা বিতর্কে জড়িয়ে ভাবমূর্তি সংকটে পড়েছে পরিবারটি। এ অবস্থায় বাংলাদেশে থাকা কোম্পানিসহ অন্যান্য সম্পদ বিক্রি করে এ পরিবারের সদস্যরা থাইল্যান্ডে স্থায়ী নিবাস গড়তে চাইছেন।

বণিক বার্তার প্রতিবেদনটি পড়তে এখানে ক্লিক করুন

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

বগুড়ায় হয়ে গেল ৩ দিনব্যাপী উদ্যোক্তা মেলা

নিজস্ব প্রতিবেদক

বগুড়ায় হয়ে গেল ৩ দিনব্যাপী উদ্যোক্তা মেলা

উৎপাদিত পণ্যের প্রচার ও আরো বেশি উদ্যোক্তা তৈরির লক্ষ্যে বগুড়ায় অনুষ্ঠিত হলো ৩ দিনব্যাপী উদ্যোক্তা মেলা। মেলায় স্থান পাওয়া ৪২টি স্টলের মধ্যে ৩৮টি ছিলো নারীদের দখলে। তাদের দাবি মেলার মাধ্যমে দর্শনার্থীরা উৎপাদিত পণ্য সম্পর্কে যেমন পরিচিতি হয়েছেন তেমনি অনেকেই আগ্রহী হয়েছেন ব্যবসায়। 

করোনাকালে অনলাইনে ব্যবসায় জড়িয়ে পড়েছেন অনেক তরুণ-তরুণী। তাদের উৎপাদিত পণ্যের প্রচার-প্রসারসহ নতুন উদ্যোক্তা সৃষ্টিতে এই মেলা। তিন দিনব্যাপী এই মেলায় স্থান পাওয়া ৪২টি স্টলের মধ্যে ৩৮টি ছিল নারীদের, এদের মধ্যে নতুন উদ্যোক্তা ৩৬ জন।


মশা মারতে গিয়ে পুড়ে গেলেন মা ও দুই মেয়ে

আস্থা ভোটে জিতলেন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান

চিকিৎসাপত্র ছাড়াই ওষুধ কিনছেন ক্রেতারা, রোগী দেখছেন ফার্মেসি মালিকরা

দেশে বাজারে আবারও কমছে স্বর্ণের দাম


মেলায় বিভিন্ন ধরনের কেক, পিঠা, আচার, শুকনো খাবারসহ মেয়েদের  জামাকাপড় ও প্রসাধনী দর্শনার্থীদের নজর কাড়ে। মেলার কারণে সহজেই ক্রেতাদের কাছে উৎপাদিত পণ্য সম্পর্কে জানাতে পেরে খুশি উদ্যোক্তারাও।

উদ্বোধনের দিন থেকেই মেলায় বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষের ভিড় ছিল চোখে পড়ার মত। তরুণ-তরুণীদের ব্যবসায় আগ্রহী করতেই বগুড়া শহরের শহীদ টিটু মিলনায়তন চত্বরে গত ৪ মার্চ থেকে ৬ মার্চ পর্যন্ত-৩দিনব্যাপী এই উদ্যোক্তা মেলা অনুষ্ঠিত হয়।

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর