প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ভারতীয় হাইকমিশনারের সাক্ষাৎ

অনলাইন ডেস্ক

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ভারতীয় হাইকমিশনারের সাক্ষাৎ

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে গণভবনে গিয়ে দেখা করেছেন ঢাকায় ভারতের হাইকমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামী। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে বৃহস্পতিবার গণভবনে গিয়ে দেখা করেছেন ঢাকায় ভারতের হাইকমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামী।

দুই দেশের ‘যুগান্তকারী সম্পর্ক’ বাস্তবায়িত করার জন্য ভারতের প্রধানমন্ত্রী ‘নরেন্দ্র মোদির প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করতে’ দোরাইস্বামী গণভবনে যান বলে ভারতীয় দূতাবাসের ফেসবুক পেজ থেকে জানানো হয়েছে।

পেজে পোস্ট করা বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘আমাদের গভীর ভ্রাতৃত্বপূর্ণ সম্পর্কের ভিত্তি যৌথ আত্মত্যাগ, সমতা এবং পারস্পরিক শ্রদ্ধা। এই সম্পর্ক পারস্পরিক আস্থা, বোঝাপড়া এবং মানুষে মানুষে গভীর সংযোগ থেকে শক্তি অর্জন করেছে।’

দোরাইস্বামী ভারতীয় পররাষ্ট্র ক্যাডারের ১৯৯২ ব্যাচের কর্মকর্তা। বাংলাদেশে আসার আগে তিনি ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আন্তর্জাতিক সংস্থা ও সম্মেলন বিষয়ক দপ্তরের অতিরিক্ত সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

অতিরিক্ত সচিব পদে যোগ দেয়ার আগে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বাংলাদেশ-মিয়ানমার (বিএম) বিভাগের যুগ্ম সচিব হিসেবে কাজ করেছেন তিনি। এরও আগে দক্ষিণ কোরিয়া ও উজবেকিস্তানে ভারতের রাষ্ট্রদূতের দায়িত্বও পালন করেছেন।

news24bd.tv কামরুল

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

অবৈধভাবে ক্ষমতা দখলকারীরাই দেশকে অস্থিতিশীল করে: প্রধানমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

অবৈধভাবে ক্ষমতা দখলকারীরাই দেশকে অস্থিতিশীল করে: প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, গণতন্ত্র ধ্বংস করে যারা অবৈধভাবে ক্ষমতায় বসে তারাই দেশকে অস্থিতিশীল করে। বৃহস্পতিবার (০৪ মার্চ) ‘বঙ্গবন্ধু বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ফেলোশিপ’, এনএসটি ফেলোশিপ এবং গবেষণা-অনুদান বিতরণ অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হন।

এসময় তিনি আরও বলেন, ‘বিশ্বে এখন আমরা মর্যাদার আসনে অধিষ্ঠিত। আমাদের অগ্রযাত্রা কেউ থামিয়ে দিতে পারবে না। করোনাভাইরাস যখন পারেনি, কেউ আর পারবে না। এটাই আমার বিশ্বাস।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘প্রত্যেক বিভাগে নভোথিয়েটার করে দেব। যাতে প্রতিটি শিক্ষার্থী বিজ্ঞান জানতে পারে। আমরা গবেষণার ওপর জোর দিচ্ছি। এর মাধ্যমে ব্যয় কমানো, উৎপাদনশীলতা বাড়ানো ও বাজারজাতকরণ সহজ হয়। নতুন নতুন পণ্য সৃষ্টি বা উদ্ভাবন করা যায়।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘আজকে জলমগ্ন ধান গবেষণা হচ্ছে। স্ট্রবেরিসহ বিভিন্ন ফলের উৎপাদন দেশে হয়। এগুলো সবই গবেষণার ফসল। আমাদের মানুষ ও উর্বর মাটি আছে। সেগুলোকে কাজে লাগিয়ে উন্নত দেশ গড়বো।’

তিনি আরও বলেন, ‘পঁচাত্তরের পর যারা ক্ষমতায় ছিল তারা শিক্ষার উন্নতির পরিবর্তে অবনতি করেছে। শিক্ষাঙ্গণে অস্ত্রের ঝনঝনানি, শিক্ষার্থীদের হাতে অস্ত্র ও টাকা তুলে দিয়ে তাদের বিপথগামী করেছে। ক্ষমতা ধরে রাখতে তাদের ব্যবহার করেছে।’

আরও পড়ুন:


আইটেম গার্ল জেরিন খান এখন ড. জেরিন খান

রাজধানীর খিলক্ষেতে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১

সিরাজগঞ্জে এইচ টি ইমামের প্রথম জানাজা সম্পন্ন

মা হচ্ছেন শ্রেয়া ঘোষাল, বেবি বাম্পের ছবি ভাইরাল


শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়া বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা জাতির পিতার পদাঙ্ক অনুসরণ করে শিক্ষানীতি করে শিক্ষাকে বহুমুখী করেছি। দক্ষ মানবসম্পদ গড়ে তুলছি। আমাদের সময়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখতে হয়নি। শুধু করোনা মহামারি পরিস্থিতির কারণে গত বছর এ সমস্যা হয়েছে। শিক্ষার্থীদের সুস্থতার জন্য বন্ধ রাখতে হয়েছে। অবশ্য মার্চের শেষে খুলে দেয়া হবে।’

৯৮৬ গবেষককে বৃত্তি ও ফেলোশিপ দেয়া হয়েছে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘ফেলোশিপের টাকা জনগণের। এটা যেন জনগণের কাজে লাগে, মাথায় রাখতে হবে।’

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

সিরাজগঞ্জে এইচ টি ইমামের প্রথম জানাজা সম্পন্ন

অনলাইন ডেস্ক

সিরাজগঞ্জে এইচ টি ইমামের প্রথম জানাজা সম্পন্ন

প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচ টি ইমামের প্রথম জানাজা সিরাজগঞ্জে সম্পন্ন হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে তার মরদেহ সিরাজগঞ্জের সোনতলা তফছির মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়ে মাঠে এয়ার অ্যাম্বুলেন্স নেয়া হয়। পরে উল্লাপাড়া পৌর শহরের সরকারি আকবর আলী কলেজ মাঠে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে তার জানাজা নামাজ সম্পন্ন হয়।

জানাজায় স্বজন, এলাকাবাসীসহ হাজার হাজার ধর্মপ্রাণ মানুষ অংশ নেন। সিরাজগঞ্জ জেলা প্রশাসক ড. ফারুক আহমেদ ও উল্লাপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দেওয়ান মওদুদ আহমেদ, সিরাজগঞ্জ জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সরাফত হোসেন, উল্লাপাড়ার সহকারী কমিশনার (ভূমি) তাকে গার্ড অব অনার প্রদান করেন।

আরও পড়ুন:


মা হচ্ছেন শ্রেয়া ঘোষাল, বেবি বাম্পের ছবি ভাইরাল

নন-ক্যাডারে নিয়োগ দেবে পিএসসি

মা হওয়ার জন্য মোটা হওয়া গর্বের: শুভশ্রী (ভিডিও)

মোদির দলে যোগ দেয়া নিয়ে কী সিদ্ধান্ত নিলেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়?


পরে সিরাজগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ, উল্লাপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগ, দলটির সহযোগী সংগঠন, বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রধান, সুধীজনসহ বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা তার কফিনে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। তার মৃত্যুতে তার নিজ গ্রাম সোনতলাসহ উল্লাপাড়ায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

সিরাজগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক, উল্লাপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনের নেতারা শোক প্রকাশ করেছেন। উপদেষ্টাপুত্র উল্লাপাড়া আসনের সংসদ সদস্য তানভীর ইমাম তার বাবার জন্য সকলের কাছে দোয়া চেয়েছেন।

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রথমবারের মতো দেশে পালিত হচ্ছে টাকা দিবস

অনলাইন ডেস্ক

প্রথমবারের মতো দেশে পালিত হচ্ছে টাকা দিবস

বাংলাদেশের প্রথম ও একমাত্র ব্যাংকনোট এবং মুদ্রা বিষয়ক তথ্য ও গবেষণাধর্মী পত্রিকা ‘কালেক্টার’ ৪ মার্চকে ‘টাকা দিবস’ হিসেবে উদযাপন করতে যাচ্ছে। বাংলাদেশের প্রথম কাগজি টাকা প্রচলনের ঐতিহাসিক দিনটিকে স্মরণীয় করতে এই উদ্যোগ নেয়া হয়।

৪ মার্চ দেশের ইতিহাসে একটি বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ দিন। ১৯৭২ সালের এই দিনের স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম দুটি ব্যাংক নোট প্রকাশিত হয়, যার মূল্যমান ছিল ১ ও ১০০ টাকা।

এর আগে এ দেশে পাকিস্তানের ব্যাংক নোট প্রচলিত ছিল এবং মুদ্রার নাম ছিল রুপি। স্বাধীন বাংলাদেশের মুদ্রার নাম রাখা হয় টাকা।

দিবসটি উপলক্ষে ৪ ও ৫ মার্চ দুই দিনব্যাপী সংগ্রাহক মহাসমাবেশের আয়োজন করবে কালেক্টার পরিবার।

টাকার ব্যবহারে সচেতনতা বাড়ানোর লক্ষ্য নিয়েই দিবসটি উদযাপনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন কালেক্টার পত্রিকার ব্যবস্থাপনা সম্পাদক ও মুদ্রা সংগ্রাহক প্রকৌশলী এসএম আকিবুর রহমান।

আকিবুর রহমান জানান, কালেক্টার পত্রিকাটি স্থানীয় মুদ্রার ইতিহাস নিয়ে গবেষণা করে। ৪৯ বছর হলো টাকা চালু হয়েছে, কিন্তু এ দিবসটি আলাদাভাবে পালন করা হয়নি কখনো। তারাই প্রথম এই দিবসটি উদযাপনকে কেন্দ্র করে দু’দিনব্যাপী কর্মসূচি হাতে নিয়েছেন।


আমাকে ‘বলির পাঁঠা’ বানানো হয়েছে: সামিয়া রহমান

ভারতে বাড়ছে গাধার চাহিদা!

ইয়ার্ড সেলে মিললো ৪ কোটি টাকার মূল্যবান চীনামাটির পাত্র!

এই নচিকেতা মানে কী? আমি তোমার ছোট? : মঞ্চে ভক্তকে নচিকেতার ধমক (ভিডিও)


তিনি বলেন, টাকাকে কেন্দ্র করেই দেশে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডের ব্যাপ্তি বাড়ছে। তবে টাকার ব্যবহারে এখনো অনেক মানুষ সচেতন নন। ফলে কাগুজে মুদ্রাগুলো দ্রুত পুরনো হয়ে যায় বা স্থায়িত্ব কমে যায়।

news24bd.tv / নকিব

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

ঝটিকা সফরে এসেই মোমেনের সঙ্গে বৈঠকে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

ঝটিকা সফরে এসেই মোমেনের সঙ্গে বৈঠকে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী

একদিনের সফরে ঢাকায় এসে পৌঁছেছেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস. জয়শঙ্কর। বৃহস্পতিবার (৪ মার্চ) সকাল ১০টায় বিএএফ বঙ্গবন্ধু বিমান ঘাঁটিতে পৌঁছালে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন তাকে স্বাগত জানান।

এরপর রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আসন্ন সফর নিয়ে বৈঠক বসেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে মোমেনের সঙ্গে।

বাংলাদেশের স্বাধীনতার ৫০তম বার্ষিকী এবং বাংলাদেশ-ভারত কূটনৈতিক সম্পর্কের ৫০ বছর উদযাপন অনুষ্ঠানে যোগ দিতে ২৬ মার্চ নরেন্দ্র মোদির ঢাকা পৌঁছানোর কথা রয়েছে। এ সফরে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করবেন নরেন্দ্র মোদি।


আমাকে ‘বলির পাঁঠা’ বানানো হয়েছে: সামিয়া রহমান

ভারতে বাড়ছে গাধার চাহিদা!

ইয়ার্ড সেলে মিললো ৪ কোটি টাকার মূল্যবান চীনামাটির পাত্র!

এই নচিকেতা মানে কী? আমি তোমার ছোট? : মঞ্চে ভক্তকে নচিকেতার ধমক (ভিডিও)


ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বুধবার (৩ মার্চ) এক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, গত বছরের ১৭ ডিসেম্বর দুই দেশের প্রধানমন্ত্রীর ভার্চুয়াল বৈঠকের পর জয়শঙ্কর ঢাকা সফর করছেন। এ সফরে তিনি দুই দেশের সম্পর্ক পর্যালোচনার সুযোগ পাবেন।

news24bd.tv / নকিব

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

জামালপুরে নারীর সঙ্গে ভিডিও ফাঁস হওয়া সেই ডিসির বেতন কমল

অনলাইন ডেস্ক

জামালপুরে নারীর সঙ্গে ভিডিও ফাঁস হওয়া সেই ডিসির বেতন কমল

জামালপুরে নারী অফিস সহায়কের সঙ্গে আপত্তিকর সম্পর্কের ভিডিও ফাঁসে দেশজুড়ে ব্যাপক সমালোচিত সাবেক সেই জেলা প্রশাসক (ডিসি) আহমেদ কবীরের বেতন গ্রেড কমানো হয়েছে। সরকারি কর্মচারী বিধিমালায় উল্লিখিত সবচেয়ে লঘু এই শাস্তি তাঁকে দিয়েছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।

সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা বলছেন, অপরাধ অনুযায়ী আহমেদ কবীরের চাকরি চলে যাওয়ার কথা। তবে স্ত্রী সন্তানের কথা ভেবে তাঁকে চাকরিতে রেখে বেতন গ্রেড কমিয়ে দেওয়া হয়েছে। তাঁরা আরো বলেন, গুরুদণ্ডের সবচেয়ে কম শাস্তি দেওয়া হলেও এই কর্মকর্তার ক্যারিয়ার শেষ ধরতে পারেন।

কর্মচারী (শৃঙ্খলা ও আপিল) বিধিমালা-২০১৮-তে গুরুদণ্ডের চার শাস্তির মধ্যে রয়েছে নিম্ন পদ বা নিম্ন বেতন গ্রেডে অবনমিতকরণ, বাধ্যতামূলক অবসর, চাকরি থেকে অপসারণ এবং বরখাস্তকরণ।

তদন্ত সংশ্লিষ্টরা জানান, নিম্ন পদে নামিয়ে দেওয়ার শাস্তি দেওয়া হলে আহমেদ কবীর বিদ্যমান বেতনই পেতেন। আর নিম্ন বেতন গ্রেডের শাস্তি দেওয়ায় তাঁর বেতন অর্ধেক কমে গেল, তবে তিনি পদে বহাল থাকলেন।

আরও পড়ুন:


‘পরমাণু সমঝোতার একমাত্র পথ নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার’

এইচ টি ইমামের জানাজা ও দাফনের সময়

এইচ টি ইমামের মৃত্যুতে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর শোক

এইচ টি ইমামের মৃত্যুতে ওবায়দুল কাদেরের শোক


আহমেদ কবীরের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ সত্য প্রমাণিত হওয়ায় তাঁকে শাস্তি দেওয়ার কথা উল্লেখ করে প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, ‘সরকারি কর্মচারী (শৃঙ্খলা ও আপিল) বিধিমালা-২০১৮-এর বিধি ৪(৩)(ক) মোতাবেক গুরুদণ্ড হিসেবে তিন বছরের জন্য নিম্ন বেতন গ্রেডে অবনমিতকরণ করা হলো।’

আহমেদ কবীর উপসচিব হিসেবে বর্তমানে পঞ্চম গ্রেডে বেতন পান। শাস্তির কারণে এখন থেকে তিনি ২০১৫ সালের জাতীয় বেতন স্কেল অনুযায়ী ষষ্ঠ গ্রেডের সর্বনিম্ন ধাপের বেতন পাবেন। অর্থাৎ একজন সহকারী সচিব পদোন্নতি (সিনিয়র) পাওয়ার পর যে বেতন পান, তিনি এখন সেটা পাবেন। পঞ্চম গ্রেডে মূল বেতন প্রায় ৭০ হাজার টাকা। এখন থেকে তিনি মূল বেতন পাবেন ৩৫ হাজার টাকা। এই গ্রেডের সঙ্গে সংগতিপূর্ণ অন্যান্য ভাতা-সুবিধা পাবেন।

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর