করোনা: একদিনে মারা গেলো ৪০ জন

অনলাইন ডেস্ক

করোনা: একদিনে মারা গেলো ৪০ জন

করোনা ভাইরাসে দেশে এক দিনে আরও ৪০ জন মারা গেছে, যা গেল ৮৩ দিনের মধ্যে সর্বোচ্চ। এ পর্যন্ত মোট প্রাণহানি ৭ হাজার ১২৯। 

২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ১৯ হাজার ৫৪টি। এর মধ্যে শনাক্ত ১ হাজার ৮৭৭ জন। মোট শনাক্ত ৪ লাখ ৯৪ হাজার ২০৯ জন। নতুন করে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২ হাজার ৮৮৪ জন। 

মঙ্গলবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়।


আরও পড়ুন:

স্বাস্থ্যবিধি মেনে বিজয় দিবস উদযাপনের অনুরোধ প্রধানমন্ত্রীর

ফাইনাল না খেলে যুক্তরাষ্ট্রের উদ্দেশে সাকিব

'যুক্তরাষ্ট্র সাইবার হামলা ঠেকাতে ব্যর্থ হলেই রাশিয়ার ঘাড়ে দোষ চাপায়'


২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষার বিবেচনায় শনাক্তের হার ৯ দশমিক ৮৫ শতাংশ, এ পর্যন্ত মোট শনাক্তের হার ১৬ দশমিক ৪৪ শতাংশ।

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

কারাগারে লেখক মুশতাকের মৃত্যু, তদন্ত কমিটি গঠন

অনলাইন ডেস্ক

কারাগারে লেখক মুশতাকের মৃত্যু, তদন্ত কমিটি গঠন

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় গাজীপুরের কাশিমপুর হাই সিকিউরিটি কেন্দ্রীয় কারাগারে লেখক মুশতাক আহমেদের (৫৩) মৃত্যুর ঘটনায় তদন্তে একটি কমিটি গঠন করেছে গাজীপুর জেলা প্রশাসন।

গতকাল শুক্রবার রাতে গাজীপুরের জেলা প্রশাসক (ডিসি) এস এম তরিকুল ইসলাম ওই কমিটি গঠন করেন।

এস এম তরিকুল ইসলাম জানান, গাজীপুরের কাশিমপুর হাইসিকিউরিটি কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দী মুশতাক আহমেদের মৃত্যুর ঘটনায় দুই সদস্যবিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। আগামী দুই কার্যদিবসের মধ্যে এই কমিটিকে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে। এ কমিটির সদস্যরা হলেন গাজীপুর জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ওয়াসিউজ্জামান চৌধুরী ও উম্মে হাবিবা ফারজানা।


নিউজিল্যান্ডের সঙ্গে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে কে?

মার্কিন গোয়েন্দা রিপোর্টে উঠে এল খাসোগি হত্যার গোপন তথ্য

নামাজে মনোযোগী হওয়ার কৌশল

অভাব দুর হবে, বাড়বে ধন-সম্পদ যে আমলে


 

উল্লেখ্য, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে কাশিমপুর হাইসিকিউরিটি কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দী ছিলেন লেখক মুশতাক আহমেদ (৫৩)। 

গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় কারাগারের ভেতর অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। পরে গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে রাত সোয়া আটটার দিকে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। গতকাল ময়নাতদন্ত ও সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি শেষে দুপুরে পুলিশ তার মরদেহ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করে। 

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

উদ্ধারকৃত রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে পাঠাতে চায় ভারত

অনলাইন ডেস্ক

উদ্ধারকৃত রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে পাঠাতে চায় ভারত

শুক্রবার আন্দামান সাগর থেকে ভারতের কোস্টগার্ড একটি রোহিঙ্গা নৌকা উদ্ধার করেছে। যে নৌকায় ৮১ জন জীবিত ছিলেন ও আটজন ইতোমধ্যে মারা গেছেন। উদ্ধারকৃত রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে পাঠানোর জন্য ইতিমধ্যেই নৌকা মেরামতের কাজ শুরু করেছে তারা।

গত ১১ ফেব্রুয়ারি মালয়েশিয়া যাওয়ার উদ্দেশ্যে রোহিঙ্গাদের নিয়ে নৌকাটি বাংলাদেশের কক্সবাজার থেকে ছেড়ে যায়। নৌকাটিতে ৫৬ জন নারী, আটজন কিশোরী, পাঁচজন কিশোর ও ২১ জন্য প্রাপ্তবয়স্ক পুরুষ ছিলেন।

সাগরে যাত্রা শুরুর চার দিন পরে নৌকাটির ইঞ্জিন নষ্ট হয়ে যায়। সাগরে ভেসে থেকে যাত্রীরা তীব্র পানিশূন্যতা এবং খাদ্য ও খাবার পানির অভাবে ভুগছিলেন।

ভারতীয় কোস্ট গার্ডের এক কর্মকর্তা জানান, এ সপ্তাহের শুরুতে নৌকাটির ইঞ্জিন নষ্ট হয়ে যায় এবং বাঁচানোর জন্য কয়েকজন রোহিঙ্গাদের কাছ থেকে তারা অনুরোধ পান।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে তিনি বলেন, এটি একটি মানবিক সংকট এবং তাদের জীবন বাঁচাতে আমরা যতটা পারা যায় করছি।


১৯ মার্চ আসছে জয়ার ‘অলাতচক্র’

বস্তিবাসীকে না জানিয়েই ভ্যাকসিনের ট্রায়াল

গাড়িতে অগ্নিকান্ড, রেকর্ড সংখ্যক গাড়ি উঠিয়ে নিচ্ছে হুন্দাই

৭ সন্তান নিতে স্বেচ্ছায় দেড় লাখ ডলার জরিমানা গুনলেন চীনা দম্পতি


তিনি আরও বলেন, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় উদ্ধার রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে কীভাবে ফেরত পাঠানো যায় তা নিয়ে কাজ করছে। ভারত নৌকাটি মেরামত অথবা পরিবর্তন করে আরেকটি নৌকা দেবে যেন তাদের নিরাপদে ফিরে যাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত হয়।

নৌকাটি ফেরত পাঠানোর জন্য ভারতের সরকার বাংলাদেশের সঙ্গে আলোচনা করছে বলেও জানানো হয়েছে।

news24bd.tv / নকিব

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

সুখবর জানাতে বিকেলে সংবাদ সম্মেলনে আসছেন প্রধানমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

সুখবর জানাতে বিকেলে সংবাদ সম্মেলনে আসছেন প্রধানমন্ত্রী

স্বল্পোন্নত দেশের (এলডিসি) তালিকা থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণের সুখবর জানাতে আজ  শনিবার সংবাদ সম্মেলনের আসছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শনিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) বিকেল চারটায় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছে। এতে গণভবন থেকে যুক্ত হবেন তিনি।

শুক্রবার প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিমের স্বাক্ষরিত এক বার্তায় এ কথা জানানো হয়েছে।

জানা গেছে, বাংলাদেশ স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উত্তরণের জন্য জাতিসংঘের চূড়ান্ত সুপারিশ লাভ করা উপলক্ষে এ প্রেস কনফারেন্স (ভার্চুয়ালি) আয়োজন করা হচ্ছে। যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় সময় শুক্রবার দিবাগত রাতে নিউইয়র্কে জাতিসংঘের কমিটি ফর ডেভেলপমেন্ট পলিসির (ইউএন-সিডিপি) সভায় পর্যালোচনা শেষে বাংলাদেশকে স্বল্পোন্নত দেশে থেকে উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে উত্তরণের সুপারিশ করা হবে।

নিয়ম অনুযায়ী, তিন শর্ত পূরণ হলে এবং পরপর দুটি পর্যালোচনায় এ মানদণ্ড ধরে রাখতে পারলে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণের সুপারিশ করে ইউএন-সিডিপি। তার মধ্যে ২০১৮ সাল থেকে তিনটি শর্তই পূরণ করতে পেরেছে বাংলাদেশ এবং এ মান ধরে রেখেছে।


নিউজিল্যান্ডের সঙ্গে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে কে?

মার্কিন গোয়েন্দা রিপোর্টে উঠে এল খাসোগি হত্যার গোপন তথ্য

নামাজে মনোযোগী হওয়ার কৌশল

অভাব দুর হবে, বাড়বে ধন-সম্পদ যে আমলে


তিনটি শর্ত হলো- মাথাপিছু আয় হতে হয় কমপক্ষে ১ হাজার ২৩০ মার্কিন ডলার, মনবসম্পদ সূচকে ৬৬ পয়েন্ট ও অর্থনীতির ভঙ্গুরতা সূচকে ৩২ বা নিচে আসতে হয়। বাংলাদেশ এসব শর্ত ২০১৮ থেকেই পূরণ করে আসছে।

২০২০ সালে বাংলাদেশের মাথাপিছু আয় ছিল ১ হাজার ৮২৭ ডলার, মানব উন্নয়ন সূচকে বাংলাদেশের পয়েন্ট ৭৫.৩ এবং অর্থনৈতিক ভঙ্গুরতা সূচকে ২৫.২। এই সুপারিশ পাওয়ার পর নিয়ম অনুযায়ী আনুষ্ঠানিক ঘোষণার জন্য তিন থেকে পাঁচ বছর প্রস্তুতির সময় পাওয়া যায়। বাংলাদেশ ইতোমধ্যে পাঁচ বছরের প্রস্তুতির সময় চেয়ে আবেদন করেছে।

প্রসঙ্গত, সাধারণত বিদেশ সফর ও বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে মাঝেমধ্যেই সংবাদ সম্মেলন করতেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। কিন্তু করোনাভাইরাসের কারণে প্রায় এক বছর পর এই সুখবর নিয়ে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হচ্ছেন সরকারপ্রধান।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

ফেসবুকে লিখলে ইজ্জত চলে যায়, আসলে আপনাদের ইজ্জত আছে?: নুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক

ফেসবুকে লিখলে ইজ্জত চলে যায়, আসলে আপনাদের ইজ্জত আছে?: নুরু

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর বলেছেন, ফেসবুকে কিছু লিখলেই সরকারের ইজ্জত চলে যায়। এমপি-মন্ত্রীরা কী এমন হয়ে গেলেন যে, তাদের বিরুদ্ধে দুই-চারটা কথা বললেই মানহানির ঘটনা ঘটে। 

তিনি বলেন, আমি জিজ্ঞেস করতে চাই, ফেসবুকে দুই চার লাইন লিখলে আপনাদের ইজ্জত চলে যায়, আসলে আপনাদের ইজ্জত আছে?

শুক্রবার ( ২৬ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে রাজধানীর কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারের পাদদেশে আয়োজিত নাগরিক সমাবেশে এসব কথা বলেন তিনি। লেখক মুশতাক আহমেদের মৃত্যুর সঠিক তদন্ত এবং ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের দাবিতে সমাবেশটির আয়োজন করা হয়।

নুর বলেন, কখনো হাতুড়ি দিয়ে, কখনো হেলমেট দিয়ে, কখনো পুলিশ দিয়ে, কখনো ছাত্রলীগ দিয়ে, কখনো যুবলীগ দিয়ে, যারাই সরকারের বিরুদ্ধে কথা বলছে, তাদেরকেই এই নির্যাতন-নিপীড়নের মধ্য দিয়ে যেতে হচ্ছে। বিভিন্ন সময়ে দমন-পীড়ন হয়েছে, সামরিক শাসনামলেও হয়েছে। কিন্তু বর্তমান সরকার সামরিক শাসনকেও অতিক্রম করে গেছে।


নাসিরের স্ত্রীকে ‘জাতীয় ভাবী’ আখ্যা দিয়ে সুবাহ'র স্ট্যাটাস

বিএনপির সমাবেশ ঘিরে খুলনায় পরিবহন চলাচল বন্ধ

১৩৮ বছরের পুরনো পরিত্যক্ত আদালত ভবনে চলে বিচার কাজ

নাইজেরিয়ায় হোস্টেল থেকে কয়েকশ ছাত্রীকে অপহরণ


তিনি বলেন, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন যেটিকে সরকার একটি অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করছে ভিন্ন মতের মানুষের দমন-পীড়নে। আপনি কথা বলবেন, লিখবেন, প্রত্যেকটা জায়গায় সেই ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন দিয়ে আপনার কণ্ঠকে রুদ্ধ করার চেষ্টা করা হচ্ছে। এই সরকারের কাছ থেকে আজকে কেউই আর নিরাপদ নাই।

সমাবেশে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির সদস্য সচিব অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের শিক্ষক অধ্যাপক তানজিম উদ্দিন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

মুশতাকের মৃত্যু সত্যিই অনভিপ্রেত: তথ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক

মুশতাকের মৃত্যু সত্যিই অনভিপ্রেত: তথ্যমন্ত্রী

তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেছেন, লেখক মুশতাক আহমেদের মৃত্যুতে কারা কর্তৃপক্ষের কোনো গাফিলতি ছিল কি না, তা খুঁজে দেখা যেতে পারে। তার মৃত্যু সত্যিই অনভিপ্রেত।

আজ বিকেলে চট্টগ্রাম নগরীর দেওয়ানজি পুকুর পাড়ের বাসভবনে সমসাময়িক বিষয়ে ব্রিফিং করেন তিনি। 

এক প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন হচ্ছে বাংলাদেশের সব মানুষকে ডিজিটাল নিরাপত্তা দেওয়ার জন্য। ডিজিটাল বিষয়টা আজ থেকে ১০-১৫ বছর আগে ছিল না। সুতরাং ডিজিটাল নিরাপত্তার বিষয়টিও ছিল না। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমসহ অনলাইনে যখন একজন সাংবাদিকের চরিত্র হনন করা হয়, একজন গৃহিণীকে যখন অপবাদ দেওয়া হয়, একজন সাধারণ মানুষ যখন ডিজিটাল আক্রমণের শিকার হন; তখন তিনি কোন আইনে প্রতিকার পাবেন, কোন আইনের বলে নিরাপত্তা পাবেন, সে জন্য একটা আইনের দরকার। এই জন্যই ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন।


নাসিরের স্ত্রীকে ‘জাতীয় ভাবী’ আখ্যা দিয়ে সুবাহ'র স্ট্যাটাস

বিএনপির সমাবেশ ঘিরে খুলনায় পরিবহন চলাচল বন্ধ

১৩৮ বছরের পুরনো পরিত্যক্ত আদালত ভবনে চলে বিচার কাজ

নাইজেরিয়ায় হোস্টেল থেকে কয়েকশ ছাত্রীকে অপহরণ


 

তিনি বলেন, আমিও তার মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করছি। সেখানে কারা কর্তৃপক্ষের কোনো গাফিলতি ছিল কি না, তা খুঁজে দেখা যেতে পারে। তবে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের অপব্যবহার যাতে না হয়, সেটির জন্য আমরা সচেতন আছি। বিশেষত, সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে যাতে এ আইনের অপব্যবহার না হয়, সে জন্য তথ্য মন্ত্রণালয় ও আমি ব্যক্তিগতভাবে সব সময় সচেতন আছি। কোনোখানে এ ধরনের ঘটনা ঘটলে খোঁজখবর নিয়ে ব্যবস্থাও গ্রহণ করা হয়।

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর