পাত্র চেয়ে বিজ্ঞাপন দিয়ে কোটি টাকার মালিক জান্নাত

অনলাইন ডেস্ক

পাত্র চেয়ে বিজ্ঞাপন দিয়ে কোটি টাকার মালিক জান্নাত

পত্রিকায় পাত্র চেয়ে চটকদার বিজ্ঞাপণ দিয়ে হাতিয়ে নিয়েছেন কোটি কোটি টাকা। স্বামীর সঙ্গে মিলে এমন প্রতারণা করেছেন জান্নাতুল। সম্প্রতি ভুক্তভোগীদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে প্রমাণসহ গ্রেপ্তার হয়েছেন এ নারী। 

গত মঙ্গলবার (১৫ ডিসেম্বর) দুপুরে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানিয়েছে ক্রিমিনাল ইনভেস্টিগেশন ডিপার্টমেন্ট (সিআইডি)।

জান্নাতসহ পাঁচজনকে প্রতারণার অভিযোগে গ্রেপ্তার করেছে সিআইডি। অভিযুক্তরা হলেন সাদিয়া জান্নাত ওরফে জান্নাতুল, জান্নাতের দ্বিতীয় স্বামী হাসান ওরফে জিহাদ, সিরাজুল ইসলাম সিরাজ, ফিরোজ মিয়া ও তামান্না।

সিআইডির মিডিয়া কর্মকর্তা সিনিয়র এসপি জিসানুল হক বলেন, বিভিন্ন পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিয়ে বিয়ের নামে প্রতারণার অভিযোগে জান্নাত নামের এক নারী ও তার স্বামী এবং তিন সহযোগীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এসএসসি পাস করতে না পারা জান্নাত এ পর্যন্ত প্রতারণার মাধ্যমে প্রায় ২০ কোটি টাকার সম্পত্তির মালিক হয়েছেন। প্রথম স্বামীকে ডিভোর্স দিয়ে দ্বিতীয় বিয়ে করা স্বামীকে নিয়ে নামেন এই প্রতারণায়। 


এবার ট্রাম্পের চোখ ৬ জানুয়ারির দিকে

কুষ্টিয়ায় বিপ্লবী বাঘা যতীনের ভাস্কর্য ভাঙচুর

দুই ভাই জেলা প্রশাসক, এক বোন এএসপি


সিনিয়র এসপি জিসানুল হক জানান, চলতি বছরের আগস্ট মাসে একটি পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিয়ে প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী কানাডার নাগরিক, ডিভোর্সি সন্তানহীন, নামাজি পাত্রীর জন্য ব্যবসার দায়িত্ব নিতে আগ্রহী বয়স্ক পাত্র চেয়ে একটি বিজ্ঞাপন দেয়া হয়। আগ্রহীদের একটি মোবাইল নম্বর দিয়ে বারিধারার একটি বাড়িতে যোগাযোগ করতে বলা হয়। পরে সিআইডির কাছে অভিযোগ দেয়া এক ভুক্তভোগী ওই বিজ্ঞাপনে উল্লেখ করা মোবাইল নম্বরে যোগাযোগ করেন। পরে তার সঙ্গে গুলশানের একটি রেস্টুরেন্টে দেখা করেন জান্নাত। এ সময় ভুক্তভোগী নাজির দেড় লাখ টাকা ও পাসপোর্ট তুলে দেন জান্নাতের হাতে।

পরে জান্নাত নাজির হোসেনকে জানান, তিনি নিজেই পাত্রী। কানাডায় দুইশ কোটি টাকার ব্যবসা আছে। কিন্তু বর্তমানে কানাডায় অনেক শীত থাকায় নাজির হোসেনকে নেয়া যাচ্ছে না। এরপর দেশে ব্যবসার জন্য কানাডা থেকে টাকা আনার কথা বলে ট্যাক্স, ভ্যাট, ডিএইচএল বিল ইত্যাদি খরচের কথা বলে এক কোটি ৭৯ লাখ ৫০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেন। জান্নাত এরপর মোবাইল বন্ধ করে দেন। নাজিরের সঙ্গে যোগাযোগও বন্ধ করে দেন। পরে ভুক্তভোগী নাজির হোসেন এ বিষয়ে সিআইডিতে অভিযোগ করেন।

একইভাবে অন্য একজন ভুক্তভোগীর সঙ্গে দেখা করতে যাওয়ার সময় প্রথমে জান্নাতকে গ্রেপ্তার করে সিআইডি।

পরে জান্নাতের কাছ থেকে তিনজন ভুক্তভোগীর পাসপোর্ট, ১০টি মোবাইল ফোন, তিনটি মেমোরি কার্ড, সাতটি সিল, অসংখ্য সিম, প্রতারণার শিকার হওয়া ভুক্তভোগীদের হিসাবের খাতা ও ব্যাংকে ৪৮ লাখ টাকা জমা দেয়ার স্লিপ উদ্ধার করা হয়।

সিআইডির এই কর্মকর্তা জানান, উদ্ধার করা খাতায় বিগত দিনের প্রতারণার হিসাব ও ভুক্তভোগীদের নাম-ঠিকানা পাওয়া যায়। জান্নাতের নেতৃত্বে এই চক্রটি গত ১০ বছর ধরে এমন প্রতারণা করে আসছেন। এখন পর্যন্ত সিআইডি তাদের ২০ কোটি টাকার সম্পত্তির সন্ধান পেয়েছে।

news24bd.tv কামরুল

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

বিক্রি হওয়া সেই শিশু ফিরে পেলেন মা

নাটোর প্রতিনিধি:

বিক্রি হওয়া সেই শিশু ফিরে পেলেন মা

নাটোরের বড়াইগ্রামে সুদি মহাজনের চাপে বিক্রিত শিশুকে মায়ের কোলে ফিরিয়ে দিলেন উপজেলা প্রশাসন। বুধবার দুপুরে নাটোরের জেলা প্রশাসক মো. শাহরিয়াজ ওই শিশুকে তার মায়ের কোলে তুলে দেন। এ সময় বড়াইগ্রামের ইউএনও জাহাঙ্গীর আলম, অফিসার ইনচার্জ আনোয়ারুল ইসলাম, নগর ইউপি চেয়ারম্যান নিলুফার ইয়াসমিন ডালু উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে গত সোমবার সুদি মহাজনের চাপে বাধ্য হয়ে উপজেলার নগর ইউনিয়নের কয়েন গ্রামে ভ্যানচালক বাবা রেজাউল করিম তার  চাঁদনী আক্তার লিজা নামে ২২ দিন বয়সী কন্যা শিশুকে এক লাখ ১০ হাজার টাকায় বিক্রি করেন। মঙ্গলবার বিকেলে ঘটনাটি গণমাধ্যমে প্রকাশ হলে এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়। 


আমাকে ‘বলির পাঁঠা’ বানানো হয়েছে: সামিয়া রহমান

ভারতে বাড়ছে গাধার চাহিদা!

ভারতের মাদ্রাসায় পড়ানো হবে বেদ, গীতা, সংস্কৃত

এই নচিকেতা মানে কী? আমি তোমার ছোট? : মঞ্চে ভক্তকে নচিকেতার ধমক (ভিডিও)


খবর পেয়ে জেলা প্রশাসকের নির্দেশে রাতেই ভুক্তভোগির বাড়িতে গিয়ে অনুসন্ধানে প্রকৃত ঘটনা উদঘাটন করেন ইউএনও জাহাঙ্গীর আলম। পরে বিক্রিত শিশুটিকে উদ্ধার করে মায়ের কোলে ফিরিয়ে দেয়ার উদ্যোগ গ্রহণ করেন।

শিশুকে ফিরিয়ে দেয়ার পাশাপশি জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকে তাকে নগদ অর্থ, ফলমুল ও খাবার এবং একটি ভ্যান কিনে দেন। উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে জমিসহ একটি ঘর এবং চলমান ঋণ পরিশোধের, নগর ইউপি চেয়ারম্যান ভিজিডি কার্ড করে দেয়ার প্রতিশ্রুতি দেন।

news24bd.tv / কামরুল 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

১৭ ভরি সোনা ও শিশু সন্তানকে নিয়ে পালাল প্রবাসীর স্ত্রী

নাসিম উদ্দীন নাসিম, নাটোর

১৭ ভরি সোনা ও শিশু সন্তানকে নিয়ে পালাল প্রবাসীর স্ত্রী

নাটোরের গুরুদাসপুরে নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকারসহ ৭ বছরের ছেলেসন্তান নিয়ে পালিয়েছেন প্রবাসীর স্ত্রী। গত ২৫ ফেব্রুয়ারি উপজেলার মশিন্দা ইউনিয়নের মাঝপাড়া গ্রামে ওই ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় স্বামী বাদী হয়ে ওই রাতেই গুরুদাসপুর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন।

জানা গেছে, ওই গ্রামের মৃত রমজান আলীর ছেলে প্রবাসী মো. আবুল বাশার (৩২) সঙ্গে পার্শ্ববর্তী তাড়াশ উপজেলার মাগুড়া গ্রামের মো. নিজাম উদ্দিনের মেয়ে শম্পা খাতুনের (২৫) সঙ্গে বিয়ে হয় ২০১৩ সালে।


সবইতো চলছে, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কেন ঈদের পরে খুলবে: নুর

আইন চলে ক্ষমতাসীনদের ইচ্ছেমত: ভিপি নুর

রাঙামাটিতে বিজিবি-বিএসএফের পতাকা বৈঠক

৭৫০ মে.টন কয়লা নিয়ে জাহাজ ডুবি, শুরু হয়নি উদ্ধার কাজ


বিয়ের চার মাস পরে স্ত্রীকে রেখে সৌদি আরবে যান আবুল বাশার। বিয়ের এক বছর পরে তাদের ঘরে একটি পুত্রসন্তান জন্মগ্রহণ করে। যার বয়স এখন ৭ বছর।

২০২০ সালের সেপ্টেম্বর মাসে সৌদি থেকে তিনি বাসায় আসেন। বাসায় আসার কয়েক দিনের মধ্যেই আবুল বাশারের মা অসুস্থ বোধ করলে তিনি তার মাকে নিয়ে হাসপাতালে আসলে তাদের অগোচরে বাড়িতে থাকা ১৭ ভরি স্বর্ণের অলংকার যার বাজারমূল্য প্রায় ১২ লাখ টাকাসহ তার ৭ বছরের সন্তান মো. বাঁধন পারভেজকে নিয়ে তার স্ত্রী পালিয়ে যান। তবে কীভাবে কার সঙ্গে পালিয়ে গেছেন, তা এখন পর্যন্ত জানা যায়নি।

ভুক্তভোগী প্রবাসী আবুল বাশার জানান, তিনি তার স্ত্রী সন্তানকে খুব ভালোবাসতেন। তাদের কোনো চাহিদা কখনও অপূর্ণ রাখেননি। সৌদি থাকা অবস্থায় তার স্ত্রী শম্পা খাতুনকে তিনি দুই বার ওমরা হজ ও করিয়েছেন। কয়েক দিন আগে বাসায় এসে তার মা অসুস্থ হওয়ায় গুরুদাসপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যান।

তাদের অগোচরে তার স্ত্রী বাড়িতে থাকা নগদ ৫ লাখ টাকা ও ১৭ ভরি স্বর্ণ অলংকারসহ তার ৭ বছরের ছেলেকে নিয়ে পালিয়ে গেছেন। তবে সঙ্গে সঙ্গেই তার স্ত্রীর পরিবার-পরিজনদেরকে তার উধাও হওয়ার বিষয়টি জানানো হয়েছে এবং বিভিন্ন জায়গায় অনেক খোঁজাখুঁজি করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

তিনি তার পালিয়ে যাওয়া স্ত্রী ও সন্তানকে খুঁজে পাওয়ার জন্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ৫০ হাজার টাকা পুরস্কার ঘোষণা করেছেন।

গুরুদাসপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আব্দুর রাজ্জাক জানান, এ বিষয়ে তদন্ত চলছে। আশা করি, খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে তাদের সন্ধান পাওয়া যাবে।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

নোয়াখালীতে গৃহবধূকে তুলে নিয়ে ধর্ষণ, গ্রেফতার ৩

অনলাইন ডেস্ক

নোয়াখালীতে গৃহবধূকে তুলে নিয়ে ধর্ষণ, গ্রেফতার ৩

নোয়াখালীর দ্বীপ উপজেলা তমরদ্দী ইউনিয়নে ক্ষিরোদিয়ায় এক গৃহবধূকে (২০) বাড়ী থেকে তুলে নিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনায় গৃহবধূর দায়ের করা মামলায় তিন আসামীকে গ্রেপ্তার করেছে হাতিয়া থানা পুলিশ। বুধবার সকালে তমরদ্দী এলাকা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। 

গ্রেপ্তারকৃতরা হচ্ছেন, ২নং ওয়ার্ডের ক্ষিরোদিয়া গ্রামের মোয়াজ্জেম হোসেনের ছেলে ফজল আলী হেলাল (২৫), আবদুর রহিমের ছেলে মিরাজ (২৮) ও মৃত খোরশেদ আলমের ছেলে নেজাম (৫০)।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, গত ২৭ ফেব্রুয়ারি রাতে খাওয়া শেষে পরিবারের সদস্যদের সাথে ঘুমিয়ে পড়েন গৃহবধূ। রাত ১১টা ৪৫মিনিটের সময় প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে ঘুম থেকে উঠে ঘরের বাইরে যান ওই গৃহবধূ।


যে জায়গায় মিল পাওয়া গেছে বুবলী-দীঘির

সোনালির প্রেমে পড়ে স্ত্রীকে ডিভোর্স দিতে চেয়েছিলেন যেসব তারকারা

পুলিশ হেফাজতে আইনজীবীর মৃত্যু: বিচার বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ

ভাসানচরে যাচ্ছে দুই হাজারের বেশি রোহিঙ্গা


কোন কিছু বুঝে উঠার আগেই ফজর আলী হেলাল গৃহবধূর মুখ চেপে ধরে বাড়ীর পশ্চিম পাশের একটি পুকুর পাড়ে নিয়ে যায়। পরে ওই স্থানে থাকা মিরাজের সহযোগিতায় হেলাল ও নেজাম পালাক্রমে তাকে ধর্ষণ করে পালিয়ে যায়। 

পুলিশ জানায়, এ ঘটনায় বুধবার সকালে বিচারিক আদালত-৩, হাতিয়া আদালতের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. নিজাম উদ্দিনের আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দেন আসামি ফজল আলী হেলাল। 

হাতিয়া থানার ওসি আবুল খায়ের বলেন, ধর্ষণের ঘটনায় ওই গৃহবধূ বাদী হয়ে মঙ্গলবার রাতে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। অভিযান চালিয়ে মামলার এজাহারভুক্ত তিন আসামীকে গ্রেপ্তার করে বুধবার সকালে তাদের বিচারিক আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। 

news24bd.tv আয়শা

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

গৃহবধূকে তুলে নিয়ে গণধর্ষণ, গ্রেপ্তার ৩

আকবর হোসেন সোহাগ, নোয়াখালী

গৃহবধূকে তুলে নিয়ে গণধর্ষণ, গ্রেপ্তার ৩

নোয়াখালীর হাতিয়ায় গৃহবধূকে তুলে নিয়ে গণধর্ষণ অভিযোগের মামলায় তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

বিস্তারিত আসছে...

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

রাজধানীতে মানবপাচার চক্রের এক সদস্য গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক

রাজধানীতে মানবপাচার চক্রের এক সদস্য গ্রেপ্তার

রাজধানীর শাহজাহানপুর এলাকা থেকে কানাডায় মানবপাচার চক্রের সক্রিয় এক সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব।

বিস্তারিত আসছে...

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর