শক্তিশালী দাবি করা যুক্তরাষ্ট্র ‘নাস্তানাবুদ’

অনলাইন ডেস্ক

শক্তিশালী দাবি করা যুক্তরাষ্ট্র ‘নাস্তানাবুদ’

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে নজিরবিহীন সাইবার হামলা চালিয়েছে অজ্ঞাত হ্যাকাররা। যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র নিজেকে সাইবার ক্ষেত্রে বিশ্বে সবচেয়ে শক্তিশালী বলে দাবি করে থাকে সেই দাবি এবার মারাত্মকভাবে প্রশ্নের মুখোমুখি হলো।

আসলে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রও যে বিদেশি শক্তির কাছ থেকে অত্যন্ত মারাত্মক আঘাতের শিকার হতে পারে তা স্পষ্ট হয়ে গেল।

সাইবার হামলার এইসব ঘটনায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অনেক গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠান ক্ষয়ক্ষতির শিকার হয়েছে। মার্কিন অর্থ মন্ত্রণালয়, বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ও প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের (পেন্টাগন) পর এখন দেশটির জ্বালানী মন্ত্রণালয় ও জাতীয় পারমাণবিক নিরাপত্তা দপ্তর জানিয়েছে, হ্যাকাররা এ দুই প্রতিষ্ঠানের তথ্য চ্যানেল হাতে পেয়েছে।

আরও পড়ুন: এভাবে কি সন্তান লাভ সম্ভব?

খুলনার ফুলতলায় সাবেক চরমপন্থীকে গুলি করে হত্যা

সৌদি আরবে আন্তর্জাতিক অভিবাসী দিবস পালন

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে গত কয়েক দিনে ব্যাপক সাইবার হামলা হওয়ার বিষয়টি আঁচ করতে পেরেছে মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থাগুলো ও দেশটির নিরাপত্তা বিভাগের সাইবার শাখা। 

মার্কিন কর্মকর্তারা এখনও এসব হামলার ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ খতিয়ে দেখছেন।

মনে করা হচ্ছে এইসব সাইবার হামলা ছিল খুবই সুসংগঠিত ও বড় ধরনের লক্ষ্য-ভিত্তিক। মার্কিন দৈনিক ওয়াশিংটন পোস্ট এসব সাইবার হামলার জন্য রাশিয়ার ‍‘কোজি বিয়ার’ নামের একটি হ্যাকার গোষ্ঠী দায়ী বলে অভিযোগ করেছে।

কিন্তু রাশিয়া তা জোরালোভাবে নাকচ করে দিয়েছে এবং এই অভিযোগকে রুশ-বিদ্বেষী তৎপরতা বলে অভিহিত করেছে। 

মার্কিন ক্ষমতার মসনদে নব-নির্বাচিত বাইডেন- এর আরোহণের প্রাক্কালে রুশ বিরোধিতা তীব্র করে রাশিয়ার ওপর শাস্তিমূলক ব্যবস্থা জোরদারের জন্যই এমন অভিযোগ তোলা হয়েছে বলে রুশরা মনে করছেন।

নব-নির্বাচিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন এসব হামলার কথিত সংঘটকদের হুমকি দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল প্রতিষ্ঠানগুলোর ওপর সাইবার হামলার ঘটনা উদ্বেগজনক।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ওপর এই সাইবার হামলার ব্যাপকতা ছিল এতই বেশি যে আক্রান্ত মার্কিন প্রতিষ্ঠানগুলো তাতে প্রায় অচল হয়ে পড়েছে।

ট্রাম্প সরকার ২০১৮ সালে ঘোষিত নতুন সাইবার নিরাপত্তা কৌশলে বিদেশি হ্যাকারদের ওপর হামলার নীতি গ্রহণের কথা জানিয়েছিল ও সাইবার ক্ষেত্রে ফেডারেল সরকারের নিরাপত্তা রক্ষার অগ্রগণ্য বিষয়গুলোর ব্যাখ্যা দিয়েছিল। এখন থেকে বিদেশী হ্যাকারদের ওপর হামলা জোরদার করা হবে বলেও হুমকি দেয়া হয়েছিল ওই কৌশলে।

কিন্তু এখন স্পষ্ট হলো যে মার্কিন সরকারের এসব হুমকি ছিল ফাঁকা বুলি মাত্র এবং ওয়াশিংটন তার ইতিহাসের সবচেয়ে বড় সাইবার হামলার মুখে দিশেহারা হয়ে পড়েছে।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

দুর্নীতির দায়ে ফ্রান্সের সাবেক প্রেসিডেন্টের তিন বছরের কারাদণ্ড

অনলাইন ডেস্ক

দুর্নীতির দায়ে ফ্রান্সের সাবেক প্রেসিডেন্টের তিন বছরের কারাদণ্ড

দুর্নীতির দায়ে ফ্রান্সের সাবেক প্রেসিডেন্ট নিকোলাস সারকোজিকে তিন বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। দেশটির আদালত সোমবার (১ মার্চ) এ রায় দেয়।

এছাড়াও ওই প্রেসিডেন্টের সাবেক দুই আইনজীবীকেও দেওয়া হয়েছে তিন বছরের সাজা। খবর বিবিসি।


রাঙামাটিতে বিজিবি-বিএসএফের পতাকা বৈঠক

৭৫০ মে.টন কয়লা নিয়ে জাহাজ ডুবি, শুরু হয়নি উদ্ধার কাজ

মোবাইলে পরিচয়, দেখা করতে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার কিশোরী

নোয়াখালীতে স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যা: স্বামী আটক


নিকোলাস সারকোজিকে বাড়িতে বন্দী করে রাখা হবে। সেজন্য তাকে ইলেকট্রনিক ট্যাগও দিতে হবে বলে রায় ঘোষণার সময় বলেন আদালত। 

এদিকে, নিকোলাস বলেছেন তিনি ওই রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল করবেন।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

দুর্নীতির দায়ে ফ্রান্সের সাবেক প্রেসিডেন্টের কারাদণ্ড

অনলাইন ডেস্ক

দুর্নীতির দায়ে ফ্রান্সের সাবেক প্রেসিডেন্টের কারাদণ্ড

দুর্নীতির দায়ে ফ্রান্সের সাবেক প্রেসিডেন্ট নিকোলাস সারকোজিকে তিন বছরের কারদণ্ড দিয়েছেন দেশটির আদালত। একই সাথে তার সাবেক দুই আইনজীবীকেও তিন বছরের কারাদন্ড দেওয়া হয়েছে। সোমবার (১ মার্চ) এ রায় ঘোষণা করা হয়।

নিকোলাস সারকোজিকে গৃহবন্দি করে রাখা হবে। সেজন্য তাকে ইলেকট্রনিক ট্যাগও দিতে হবে বলে রায় ঘোষণার সময় বলেন আদালত।

এদিকে, রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল করবেন বলে জানিয়েছেন নিকোলাস।

উল্লেখ্য, ফ্রান্সের সাবেক এই প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে দুর্নীতি, লিবিয়ায় রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে উৎকোচ গ্রহণ ও তা গোপন রাখার এবং ২০১২ সালের নির্বাচনী প্রচারাভিযনের কাজে অবৈধভাবে অর্জিত সম্পদ ব্যবহারের অভিযোগ আনা হয়।

এছাড়া ২০০৭ সালের নির্বাচনী প্রচারের কাজে লিবিয়ার সাবেক শাসক মুয়াম্মার গাদ্দাফির কাছ থেকে পাঁচ কোটি ইউরো ঘুষ গ্রহণ করেছিলেন বলে অভিযোগ রয়েছে নিকোলাসের বিরুদ্ধে। ২০১১ সালে গণ অভ্যুত্থানে গাদ্দাফি ক্ষমতাচ্যুত ও নিহত হওয়ার পর এই অভিযোগ উত্থাপন করেন গাদ্দাফির পুত্র সাইফুল ইসলাম গাদ্দাফি।


আমাকে ‘বলির পাঁঠা’ বানানো হয়েছে: সামিয়া রহমান

পরবর্তী নির্বাচনে আবারও অংশ নিবেন ডোনাল্ড ট্রাম্প

ইরানের সমঝোতা প্রস্তাব প্রত্যাখ্যানে হতাশ যুক্তরাষ্ট্র

খাশোগি হত্যাকান্ড: রহস্যজনকভাবে বদলে গেল প্রতিবেদনে অভিযুক্তের নাম


সম্প্রতি বিচারককে ঘুষ দেয়ার চেষ্টার অভিযোগও রয়েছে তার বিরুদ্ধে। এই রায়ের ফলে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর ফ্রান্সের ইতিহাসে প্রথম কোনও ঘটনা যেখানে একজন সাবেক প্রেসিডেন্ট দুর্নীতির অভিযোগে কারাদণ্ড ভোগ করতে যাচ্ছেন।

সূত্র: বিবিসি

news24bd.tv / নকিব

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগের দাবিতে ব্যাংককে ব্যাপক বিক্ষোভ

অনলাইন ডেস্ক

থাইল্যান্ডের রাজধানী ব্যাংককে দেশটির প্রধানমন্ত্রী প্রায়ুথ চান ওচা এবং তার সরকারের পদত্যাগের দাবিতে রোববার ব্যাপক বিক্ষোভ হয়েছে। এতে পুলিশের সাথে বিক্ষোভকারীদের সংঘর্ষে অন্তত ১৬ জন আহত হয়েছে।

রোববার  মিছিল নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে যাওয়ার চেষ্টা করলে, পুলিশ রবার বুলেট, কাঁদুনে গ্যাস নিক্ষেপ করে ও জলকামান থেকে পানি ছুড়ে তাদের গতিরোধ করার চেষ্টা করে। 


পুলিশকে কেন প্রতিপক্ষ বানানো হয়, প্রশ্ন আইজিপির

আমাকে ‘বলির পাঁঠা’ বানানো হয়েছে: সামিয়া রহমান

বিমা খাতে সচেতনতা সৃষ্টির ক্ষেত্রে আরও প্রচার প্রয়োজন: প্রধানমন্ত্রী

পোশাক খাতে ভিয়েতনামকে পেছনে ফেললো বাংলাদেশ


গেল বছর প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগের দাবিতে থাইল্যান্ডের তরুণদের নেতৃত্বাধীন রাজনৈতিক আন্দোলন বেগবান হয়ে ওঠে। এসময় প্রতিবাদকারীরা মিয়ানমারের অভ্যুত্থান বিরোধীদের প্রতিও সমর্থন জানান।  

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

গুলিতে প্রাণ গেল ১৮ জনের, তবুও রাজপথে আন্দোলনকারীরা

নাহিদ জিহান

গতকাল রোববার মিয়ানমারে পুলিশের গুলিতে ১৮ জনের প্রাণ যাবার পরেও রাজপথ ছাড়েননি আন্দোলনকারীরা। সোমবারও গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠার দাবিতে বিক্ষোভ অব্যাহত রাখেন তারা। এর মাঝেই সোমবার বিচারের জন্য ভিডিও লিংকের মাধ্যমে আদালতে হাজির করা হয় ক্ষমতাচ্যুত নেত্রী অং সান সু চিকে। 

এদিকে, বিক্ষোভকারীদের ওপর জান্তা সরকারের নিপীড়নে ব্যাপক হতাহতের ঘটনার নিন্দা জানিয়েছে আর্ন্তজাতিক সম্প্রদায়। 

মিয়ানমারে সাম্প্রতিক সামরিক অভ্যুত্থোনের পর সবচেয়ে বেশি রক্ত ঝরেছে ২৮ ফেব্রুয়ারি। দিনব্যাপী বিক্ষোভকারীদের ওপর পুলিশ সরাসরি গুলি, কাঁদানে গ্যাস, স্টান গ্রেনেডও ছুড়ে। 

এ ঘটনায় বিপুল পরিমাণ মানুষের হতাহতের ঘটনাতেও দমে যায়নি বিক্ষোভকারীরা। বরং দ্বিগুণ উদ্যমে সোমবারও ইয়াঙ্গুনসহ বিভিন্ন শহরে মিছিলে নামেন তারা। অবসান দাবি করেন সামরিক শাসনের। আন্দোলনকারীদের হটাতে সোমবারও তাদের ওপর কাঁদানো গ্যাস, স্টান গ্রেনেড ছোড়ে পুলিশ।


পুলিশকে কেন প্রতিপক্ষ বানানো হয়, প্রশ্ন আইজিপির

আমাকে ‘বলির পাঁঠা’ বানানো হয়েছে: সামিয়া রহমান

বিমা খাতে সচেতনতা সৃষ্টির ক্ষেত্রে আরও প্রচার প্রয়োজন: প্রধানমন্ত্রী

পোশাক খাতে ভিয়েতনামকে পেছনে ফেললো বাংলাদেশ


এদিকে দেশের এমন উত্তাল পরিস্থিতির মাঝেই সোমবার বিচারের জন্য আদালতে হাজির করা হয় ক্ষমতাচ্যুত নেত্রী অং সান সু চিকে। তবে সশরীরে নয়,  রাজধানী নেপিডোর একটি আদালতে ভিডিও লিংকের মাধ্যমে সু চিকে হাজির করতে দেখা গেছে বলে জানিয়েছেন তাঁর আইনজীবী খিন মং জঁ। এ নিয়ে দ্বিতীয়বার শুনানীর জন্য আদালতে হাজির করা হলো সু চিকে। 

মিয়ানমারে রোববারে বিক্ষোভে পুলিশের গুলিতে ব্যাপক হতাহতের ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছে বিশ্ব সম্প্রদায়। জাতিসংঘ, ইউরোপীয় ইউনিয়ন, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ইন্দোনেশিয়া, তুরস্কসহ বিভিন্ন মানবাধিকার সংগঠনও এদিনের ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে। 

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগের দাবিতে জোর করে সরকারি ভবনে ঢুকে বিক্ষোভ

অনলাইন ডেস্ক

প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগের দাবিতে জোর করে সরকারি ভবনে ঢুকে বিক্ষোভ

আর্মেনিয়ার প্রধানমন্ত্রী নিকোল পাশিনিয়ানের পদত্যাগের দাবিতে রাজধানীর একটি সরকারি ভবনে ঢুকে পড়েছে বিক্ষোভকারীরা। আজ সোমবার দেশটির রাজধানী ইয়েরেভানে বিক্ষোভকারীরা জোর করেই একটি সরকারি ভবনে ঢুকে পড়ে বলে জানিয়েছে আল জাজিরা।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশিত ফুটেজে দেখা গেছে, মেগাফোন হাতে কয়েকজন বিক্ষোভকারী ভবনে ঢুকে পড়লেও পুলিশ তখন দাঁড়িয়ে থেকে কিছুই করেনি।

কারাবাখ যুদ্ধে আজারবাইজানের কাছে শোচনীয় পরাজয়ের জন্য পাশিনিয়ান সরকারকে দায়ী করে আসছে বিক্ষোভকারীরা। এ সময় তাদের নিকোল তুমি বিশ্বাসঘাতক, নিকোল তুমি সরে যাও ইত্যাদি স্লোগান দিতে দেখা যায়। 


আমাকে ‘বলির পাঁঠা’ বানানো হয়েছে: সামিয়া রহমান

পরবর্তী নির্বাচনে আবারও অংশ নিবেন ডোনাল্ড ট্রাম্প

ইরানের সমঝোতা প্রস্তাব প্রত্যাখ্যানে হতাশ যুক্তরাষ্ট্র

খাশোগি হত্যাকান্ড: রহস্যজনকভাবে বদলে গেল প্রতিবেদনে অভিযুক্তের নাম


গত বছর নাগার্নো-কারাবাখে আজারবাইজানের কাছে পরাজয়ের পর থেকেই আর্মেনিয়ার প্রধানমন্ত্রী নিকোল পাশিনিয়ানের পদত্যাগের দাবিতে বিক্ষোভ চলছে। তবে এই আন্দোলন সম্প্রতি জোরদার হয়েছে। দেশটির সেনাবাহিনীও পাশিনিয়ান সরকারের পদত্যাগের দাবি জানিয়েছে।

news24bd.tv / নকিব

মন্তব্য

পরবর্তী খবর