মামলা-হামলা দিয়ে আমাদের দমন করা যাবে না: নূর

নিজস্ব প্রতিবেদক

মামলা-হামলা দিয়ে আমাদের দমন করা যাবে না: নূর

মামলা-হামলা দিয়ে আমাদের দমন করা যাবে না বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সাবেক সহ-সভাপতি (ভিপি) নুরুল হক নূর।

আজ দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের প্রথম আদালতে নূরের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলার আবেদন করা হয়। এই বিষয়ে জানতে চাইলে গণমাধ্যমকে এসব কথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, সরকার নানা কারণে ভীত-সন্ত্রস্ত্র। কারণ তারা এতদিন রাষ্ট্রযন্ত্রকে নিয়ন্ত্রণ করে ক্ষমতা ধরে রেখেছে অগণতান্ত্রিকভাবে। এখন রাজপথে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের বিভিন্ন বিরোধী সংগঠনের আন্দোলন সংগ্রাম হচ্ছে। দেশের মধ্যে একটা অস্থিতিশীল পরিবেশের কারণে আমাদের যে উন্নয়ন সহযোগী সংস্থা বা বিদেশি সংস্থা বা দাতা রাষ্ট্রগুলো মানবাধিকার এবং গণতন্ত্রের প্রশ্নে সরকারকে চাপ দিচ্ছে। 

মাঠের রাজনীতিতে আমরা শক্তিশালী সংগঠন বা দল এক্ষেত্রে হয়তো আমাদের কোণঠাসা করার জন্য কিংবা দমন-পীড়ন করার জন্য নতুন ফন্দি বা রাস্তা তারা তৈরি করেছে। এসব মামলা-হামলা দিয়ে আমাদের দমন করা যাবে না। আমাদের কার্যক্রম গতানুগতিকভাবে চলছে চলবে।

উল্লেখ্য, উস্কানিমূলক বক্তব্য দেয়ার অভিযোগে আজ ব্রাহ্মণবাড়িয়া সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের প্রথম আদালতে নুরুল হকের নুরের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলার আবেদন করেন জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রবিউল হোসেন রুবেল। মামলায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহাদাৎ হোসেন শোভনসহ ছাত্রলীগের ৬ জন নেতাকর্মীকে সাক্ষী করা হয়েছে। 


করোনায় দেশে মৃত্যু বাড়লো

৭ মিনিটে ১২৬ ভরি স্বর্ণালঙ্কার চুরি, রহস্যের জট খুলল ৮ মাস পর

পি কে হালদারের পরোয়ানা ইন্টারপোলে

যে লক্ষণে বুঝবেন শরীরে প্রোটিনের ঘাটতি রয়েছে!


মামলার এজহারে বলা হয়, ১৬ ডিসেম্বর রাত ৮টায় নুর তার ফেসবুক আইডি থেকে সরকার ও সরকারের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে সাধারণ মানুষকে উস্কিয়ে দেওয়ার হীন মানসিকতার আক্রমণাত্মক মিথ্যা-ভীতি প্রদর্শক তথ্য উপাত্ত প্রকাশ করে। যেমন: স্বাধীন বাংলাদেশ সংবিধানিক প্রতিষ্ঠান নির্বাচন কমিশনকে 'বেহুদা কমিশন', বাংলাদেশের বৈধ নির্বাচিত সরকারকে বারবার 'অবৈধ অনির্বাচিত সরকার' বলা, বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের নেতৃত্ব দানকারী সংগঠন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগকে 'বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বিরোধী', বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কর্মীদের বার বার কুলাঙ্গার বলে এবং বাংলাদেশ সরকারকে 'বিদেশী পা চাটা তাবেদার সরকার' বলে বিভিন্ন অশালীন বক্তব্য প্রকাশ করে। এছাড়া এই মামলার বাদিকে নাম উল্লেখ করে 'মাদকাসক্ত ও ফেন্সিডিল ব্যবসায়ী' অসত্য মানহানিকর বক্তব্য পেশ করে। আসামি মিথ্যা ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে দাঙ্গাফ্যাসাদের মাধ্যমে দেশে অশান্ত পরিবেশ সৃষ্টি করতে ও মিথ্যা তথ্য দিয়ে বাদির মান-সম্মান বিনষ্ট করেছে।

বাদীপক্ষের আইনজীবী একরাম হোসেন গণমাধ্যমকে জানান, মামলাটি আদালত আমলে নিয়েছেন। এখন এটি আদেশের অপেক্ষায় রয়েছে।

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

বিমা খাতে সচেতনতা সৃষ্টির ক্ষেত্রে আরও প্রচার প্রয়োজন: প্রধানমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

বিমা খাতে সচেতনতা সৃষ্টির ক্ষেত্রে আরও প্রচার প্রয়োজন: প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, বিমা খাতের সুফল নিয়ে সচেতনতা সৃষ্টির ক্ষেত্রে দেশ এখনোও পিছিয়ে রয়েছে। বিমার ওপর মানুষের আস্থা তৈরিতে আরও প্রচার প্রয়োজন।

আজ সোমবার (১ মার্চ) সকালে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে জাতীয় বিমা দিবস-২০২১-এর আয়োজনে তিনি এ কথা বলেন।

এ সময় বিমা খাতকে ডিজিটাল প্রযুক্তির আওতায় সেবা দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে শেখ হাসিনা জানান, দেশে স্বাস্থ্য বিমা আরো ব্যাপকভাবে চালু করা উচিত।


প্রেস ক্লাবের সামনে পুলিশ-ছাত্রদল সংঘর্ষ ঘটনায় মামলা

মাদক মামলা থেকেও ইরফান সেলিমকে অব্যহতি

ইয়াবার টাকা না পেয়ে কাঁচি দিয়ে মাকে হত্যা

৯৯৯ এ ফোন এক ঘন্টায় চোরাই মোটরসাইকেল উদ্ধার


প্রধানমন্ত্রী বলেন, অর্থনীতি যত বেশি আমাদের শক্তিশালী হবে, বিস্তৃত হবে মানুষের মধ্যে সচেতন হবে বিমার গুরুত্বটাও কিন্তু ততটা বাড়বে। আর এ বিমা থেকে সুফলটা পেতে পারে মানুষ এ সম্পর্কে সচেতনার যথেষ্ট অভাব রয়েছে। আমি আশা করি আপনারা যারা বিমার সঙ্গে জড়িত তারা উদ্যোগ নিবেন মানুষের মাঝে সচেতনাটা বৃদ্ধি করা। 

তিনি বলেন, এখন তো আধুনিক প্রযুক্তি এসে গেছে তাছাড়া ডিজিটাল বাংলাদেশ, ডিজিটাল পদ্ধতি ব্যবহার করতে পারেন বিমা সেবার দেওয়ার জন্য, যেটা মানুষকে আরো সহজ করে দিবে। তবে আমাদের স্বাস্থ্য বিমাটা আরো ব্যাপকভাবে চালু করা একান্তভাবে প্রয়োজন বলে আমি মনে করি। আমার দেশের মানুষ সচেতন না, করোনা ভাইরাসের পরে আমি মনে করি মানুষের মধ্যে সেই সচেতনা সৃষ্টি হবে।

news24bd.tv / কামরুল 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রেস ক্লাবের সামনে পুলিশ-ছাত্রদল সংঘর্ষ ঘটনায় মামলা

অনলাইন ডেস্ক

প্রেস ক্লাবের সামনে পুলিশ-ছাত্রদল সংঘর্ষ ঘটনায় মামলা

রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবে পুলিশ ও ছাত্রদলের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় একটি মামলা করেছে পুলিশ। এতে বিএনপির ৪৭ নেতাকর্মীকে আসামি করা হয়েছে। রোববার দিনগত রাতে পুলিশ বাদী হয়ে শাহবাগ থানায় এই মামলাটি করেন।

মামলার এজাহারে ৪৭ জন নেতাকর্মী ও অজ্ঞাতনামা ২০০/২৫০ জনকে আসামি করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত সংঘর্ষের ঘটনায় ১২ জনকে গ্রেপ্তার দেখিয়েছে পুলিশ। মামলায় অভিযোগ করা হয়েছে (পুলিশ অ্যাসল্ট) হত্যাচেষ্টা, হামলা ও ভাঙচুর চালানো।


মাদক মামলা থেকেও ইরফান সেলিমকে অব্যহতি

ইয়াবার টাকা না পেয়ে কাঁচি দিয়ে মাকে হত্যা

৯৯৯ এ ফোন এক ঘন্টায় চোরাই মোটরসাইকেল উদ্ধার

ঠাকুরগাঁওয়ে ব্যাংক থেকে বয়স্ক ভাতার টাকা উধাও


আজ সোমবার (১ মার্চ) সকালে শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মামুন-অর-রশীদ বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, গ্রেপ্তার আসামিদের আদালতে উপস্থাপন করা হবে। গতকাল সংঘর্ষের ঘটনায় পুলিশের বেশ কয়েকজন সদস্য আহত হয়েছে। সংঘর্ষের সময় প্রেস ক্লাব সংলগ্ন অস্থায়ী পুলিশ বক্সের জানালা ভাঙচুরসহ পুলিশের ওপর হামলা চালায় ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা।

news24bd.tv / কামরুল 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

এলো অগ্নিঝরা মার্চ

অনলাইন ডেস্ক

এলো অগ্নিঝরা মার্চ

আজ অগ্নিঝরা মার্চের প্রথম দিন। বাঙালি জাতির মহান স্বাধীনতা সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধের সময়ের নানা কারণে মার্চ মাস ঐতিহাসিক ও ঘটনা বহুল। এ মাসেই জাতি এবার পালন করবে মহান স্বাধীনতার ৫০ বছর। এ উপলক্ষে মাসের প্রথম দিন থেকেই শুরু হবে সভা সমাবেশ এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। নানা আয়োজনে মুখরিত থাকবে গোটা দেশ।

একাত্তরে এই মাসের ২৫ মার্চে বর্বর পাকিস্তানি বাহিনী গণহত্যা শুরু করলে গ্রেপ্তার হওয়ার আগে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশের স্বাধীনতা ঘোষণা করেন। বঙ্গবন্ধুর আহ্বানে ঘরে ঘরে দুর্গ গড়ে তোলা হয়। আবালবৃদ্ধবনিতা যোগ দেন মহান মুক্তিযুদ্ধে। দীর্ঘ নয় মাস রক্তক্ষয়ী সশস্ত্র যুদ্ধের পর ১৬ ডিসেম্বর বিজয় অর্জনের মধ্যদিয়ে জাতি লাভ করে স্বাধীনতা।

এর আগে জাতির অবিসংবাদিত নেতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ৭ মার্চ পাকিস্তানি শাসকদের হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছিলেন, ‘সাত কোটি মানুষকে দাবায়ে রাখতে পারবে না। মরতে যখন শিখেছি, তখন কেউ আমাদের দাবায়ে রাখতে পারবে না। রক্ত যখন দিয়েছি, আরও দেব। এদেশের মানুষকে মুক্ত করে ছাড়বো- ইনশাআল্লাহ। এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম। জয় বাংলা।’

ইয়াবার টাকা না পেয়ে কাঁচি দিয়ে মাকে হত্যা

৯৯৯ এ ফোন এক ঘন্টায় চোরাই মোটরসাইকেল উদ্ধার

ঠাকুরগাঁওয়ে ব্যাংক থেকে বয়স্ক ভাতার টাকা উধাও

আল্লাহর কাছে যে তিনটি কাজ বেশি প্রিয়


১৯৭১ এর ৭ মার্চ সাবেক রেসর্কোস ময়দান- আজকের সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে দেয়া এই ঐতিহাসিক ভাষণের সময় মুহুর্মুহু গর্জনে উত্তাল ছিল জনসমুদ্র। লাখো কণ্ঠের একই আওয়াজ উচ্চারিত হতে থাকে দেশের এ প্রান্ত থেকে অপর প্রান্তে। ঢাকাসহ গোটা দেশে পতপত করে উড়ছিল সবুজ জমিনের উপর লাল সূর্যের পতাকা।

২৫ মার্চের কালোরাতে পাকিস্তানিরা বাঙালির কণ্ঠ চিরতরে স্তব্ধ করে দেয়ার লক্ষ্যে ‘অপারেশন সার্চলাইট’ নামে বাঙালি নিধনে গণহত্যা শুরু করে। ঢাকার রাস্তায় বেরিয়ে পাকিস্তানি সৈন্যরা নির্বিচারে হাজার হাজার লোককে হত্যা করে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে হামলা চালিয়ে ছাত্র-শিক্ষককে হত্যা করে।

news24bd.tv / কামরুল 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

স্বাধীনতার মাস ‘অগ্নিঝরা মার্চ’ শুরু

অনলাইন ডেস্ক

স্বাধীনতার মাস ‘অগ্নিঝরা মার্চ’ শুরু

বাঙালির স্বাধীনতা সংগ্রামের ইতিহাসের সাক্ষী অগ্নিঝরা মার্চ। ১৯৭১ সালের এই মাসে তীব্র আন্দোলনের পরিণতিতে শুরু হয় মহান স্বাধীনতা যুদ্ধ। বাংলার আন্দোলন সংগ্রামের ঘটনাবহুল ও বেদনাবিধুর স্মৃতি বিজড়িত ১৯৭১-এর এই মার্চ মাসেই জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে শুরু হয় অসহযোগ আন্দোলন। পাকিস্তানি বাহিনীর বিরুদ্ধে দীর্ঘ ২৩ বছরের আন্দোলন সংগ্রামের চূড়ান্ত পর্বে এসে শুরু হয় সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধ।

দীর্ঘ নয় মাস রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের পর বিশ্ব মানচিত্রে অভ্যুদয় ঘটেছিল বাংলাদেশ নামক স্বাধীন সার্বভৌম রাষ্ট্রের। ১৯৭১ সালের ২৬ মার্চ স্বাধীন বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠা হলেও চূড়ান্ত আন্দোলনের সূচনা হয়েছিল একাত্তরের ১ মার্চ থেকেই।

বছর ঘুরে এক অন্যরকম পরিবেশে এবার বাঙালির জীবনে এসেছে মার্চ। এবারের মার্চটি ভিন্ন আঙ্গিকে পালিত হবে। এবার দেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী।

সরকারিভাবে মার্চসহ গোটা বছরই নানা কর্মসূচির মাধ্যমে জাঁকজমকভাবে উদযাপন করা হবে।

 


স্বাধীনতার ৫০ বছরের অগ্নিঝরা মার্চে পা দিলো লাল সবুজের বাংলাদেশ। এ উপলক্ষে রাত ১২টা এক মিনিটে ধানমন্ডিতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়েছে বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ।

মার্চ মাস শুরুর ক্ষণে স্বাধীনতার জন্য জীবন দেয়া বীর শহীদদের স্মরণ করে মোমবাতি প্রজ্বলন করেন নেতা কর্মীরা। এ সময় শ্লোগানে শ্লোগানে ধানমন্ডি ৩২ নম্বর সড়ক মুখর করে বঙ্গবন্ধুকে স্মরণ করেন তারা।

মোমবাতি প্রজ্বলন ও ফুল নিবেদন শেষে এক মিনিট নীরবতা পালন করে বীর শহীদদের স্মরণ করেন স্বেচ্ছাসেবক নেতা কর্মীরা।

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

সৈয়দপুরের প্রথম ‘নারী নৌকার মাঝি’ বেবী

আব্দুর রশিদ শাহ, নীলফামারী

সৈয়দপুরের প্রথম ‘নারী নৌকার মাঝি’ বেবী

নীলফামারীর প্রথম শ্রেনীর সৈয়দপুর পৌরসভার ৬৩ বছরের ইতিহাসে প্রথম নারী মেয়র নির্বাচিত হলেন রাফিকা জাহান আকতার বেবী। পঞ্চম ধাপের পৌর নির্বাচনে ২৮ ফেব্রুয়ারী রবিবার ভোট গ্রহণ শেষে বেসরকারীভাবে তাকে মেয়র ঘোষণা করেন নির্বাচন কর্তৃপক্ষ।

প্রতিদ্বন্দ্বী ৪ জন প্রার্থীকে পেছনে ফেলে তিনি ২৮ হাজার ২৭৮ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। স্বামী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক মেয়র আখতার হোসেন বাদলের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর সরাসরি মনোনয়ন পেয়ে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেন। আওয়ামী লীগের এই নতুন মুখ প্রথমবার নির্বাচনে এসেই গৃহিনী থেকে পৌর পরিষদের অভিভাবক হলেন।

তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির প্রার্থী হাজী রশিদুল হক সরকার পেয়েছেন ১০ হাজার ৯৭৫ ভোট।


গুলি ছুড়ে ইয়েমেনের ক্ষেপণাস্ত্র আকাশেই ধ্বংস করেছে সৌদি

জানা গেল আসল রহস্য, ১৩-১৪ বছরের দুই বোনের সঙ্গেই শরীরিক মেলামেশা ছিল তার

আবাহনীকে ৪-১ গোলে উড়িয়ে দিল বসুন্ধরা কিংস

৬৬ নারীকে ধর্ষণ


এছাড়া জাতীয় পার্টির আলহাজ্ব সিদ্দিকুল আলম পেয়েছেন ৯হাজার ৬৩৩, স্বতন্ত্র প্রার্থী (মোবাইল ফোন) ব্যবসায়ী রবিউল আউয়াল রবি পেয়েছে ১ হাজার ৮৯২ এবং ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থী হাফেজ নুরুল হুদা পেয়েছেন ১ হাজার ৮৪৩ ভোট।

তার বিজয়ে সৈয়দপুরের ইতিহাসে নতুন অধ্যায়ের সূচনা হলো। এই অধ্যায়ে সৈয়দপুরের উন্নয়নের অতীত দৃষ্টান্তের রেকর্ড ভেঙ্গে সম্পূর্ণভাবে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার ধারাবাাহিকতায় সার্বিক উন্নয়ন ঘটিয়ে সমৃদ্ধ নগরীতে রূপান্তরিত হবে বলেই পৌরবাসী আশাবাদী।

বিজয়ের শুভক্ষণে অভিবাদন জানিয়ে তার প্রতি শুভ কামনা জ্ঞাপন করেছেন সৈয়দপুর আওয়ামী লীগের উপজেলা সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান মো. মোখছেদুল মোমিন, সাধারণ সম্পাদক মহসিনুল হক মহসিন, পৌর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রফিকুল ইসলাম বাবু, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আজমল হোসেন সরকার, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সানজিদা বেগম লাকী, জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক দিলনেওয়াজ খানসহ আওয়ামী লীগ, অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের সকল স্তরের নেতাকর্মীবৃন্দ।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর