এমপি পাপুলের স্ত্রী ও মেয়েকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক

এমপি পাপুলের স্ত্রী ও মেয়েকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ

অবৈধ সম্পদ অর্জন ও টাকাপাচারের অভিযোগে দুদকের মামলায় এমপি পাপুলের স্ত্রী ও মেয়েকে আগামী ২৮ ডিসেম্বরের মধ্যে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট।

মঙ্গলবার সকালে হাইকোর্টের একটি ভার্চুয়াল বেঞ্চ এ আদেশ দেন। এর আগে গত ২৮ নভেম্বর অবৈধ সম্পদ অর্জন ও টাকাপাচারের মামলায় কাজী শহীদ ইসলাম পাপুলের স্ত্রী সেলিনা ইসলাম ও মেয়ে ওয়াফা ইসলাম হাইকোর্টে আগাম জামিন চেয়ে আবেদন করেন।

পাপুল কুয়েতে গ্রেপ্তার হওয়ার পর গত ১১ নভেম্বর তিনিসহ তার স্ত্রী এমপি সেলিনা, শ্যালিকা জেসমিন প্রধান এবং মেয়ে ওয়াফা ইসলামের বিরুদ্ধে একটি মামলা করে দুদক।


'কিলার' ভাড়া করে স্বামীকে খুন করে স্ত্রী সালমা!

সৌদী আরবের পর ওমানের সঙ্গে বিমান যোগাযোগ বন্ধ

আওয়ামী লীগ নেতার বাড়ি থেকে বিপুল পরিমাণ দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার, আটক ২

১২ বছরের ছোট প্রেমিককেই বিয়ে করছেন অভিনেত্রী গওহর!


নিউজ টোয়েন্টিফোর / কামরুল

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

সেই দুই ভাইয়ের সাড়ে ৫ হাজার বিঘা জমি, ৫৫টি বাস ক্রোকের নির্দেশ

অনলাইন ডেস্ক

সেই দুই ভাইয়ের সাড়ে ৫ হাজার বিঘা জমি, ৫৫টি বাস ক্রোকের নির্দেশ

ফরিদপুরের সেই আওয়ামী লীগের নেতা সাজ্জাদ হোসেন বরকত ও তার ভাই ইমতিয়াজ হাসান রুবেলের অর্থপাচার মামলায় পাঁচ হাজার ৭০৬ বিঘা জমি ক্রোকের আদেশ দিয়েছেন আদালত। পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার ঢাকার মহানগর দায়রা জজ কেএম ইমরুল কায়েশ এ আদেশ দেন।  


হাতে নেই ছবি, তবুও বিলাসবহুল জীবনযাপন?

হৃদরোগে মৃত্যুর পরও ফাঁসিতে ঝুলানো হল নিথর দেহ

টিকা নেয়ার ১২ দিন পর করোনায় আক্রান্ত ত্রাণ সচিব

যমজ ভাই অস্ত্রোপচার করে পরিণত হলেন যমজ বোনে


আদালতের সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) তাপস কুমার পাল এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, অর্থপাচার মামলায় সাজ্জাদ হোসেন বরকত, তার ভাই ইমতিয়াজ হাসান রুবেলসহ পাঁচজনের ৮৮টি ব্যাংক হিসাব আজ ক্রোকের আদেশ দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে তাদের ১৮৮টি ব্যাংক হিসাবে থাকা প্রায় ১০ কোটি টাকা এবং তাদের মালিকানাধীন ৫৫টি বাস, ট্রাক ও ব্যক্তিগত গাড়ি ক্রোক করারও আদেশও দিয়েছেন আদালত।

বরকত ও রুবেলের বিরুদ্ধে সিআইডির পরিদর্শক এসএম মিরাজ আল মাহমুদ বাদী হয়ে গত বছরের ২৬ জুন ঢাকার কাফরুল থানায় অর্থপাচারের অভিযোগে মামলা করেন। মামলায় ওই দুই ভাইয়ের বিরুদ্ধে দুই হাজার কোটি টাকার সম্পদ অবৈধ উপায়ে উপার্জন ও পাচারের অভিযোগ আনা হয়। 

news24bd.tv / কামরুল 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

ঝালকাঠিতে আলোচিত শাহাদাৎ হত্যা মামলায় তিনজনের যাবজ্জীবন

এস এম রেজাউল করিম, ঝালকাঠি।

ঝালকাঠিতে আলোচিত শাহাদাৎ হত্যা মামলায় তিনজনের যাবজ্জীবন

ঝালকাঠি শহরের আলোচিত শাহাদাৎ হোসেন হত্যা মামলায় তিনজনকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড দিয়েছেন আদালত। বৃহস্পতিবার দুপুরে ঝালকাঠির জেলা ও দায়রা জজ মো. শহিদুল্লাহ এ রায় দেন করেন। 

দন্ডপ্রাপ্তরা হলেন সদর উপজেলার পোনাবালিয়া ইউনিয়নের দেউরি গ্রামের গিয়াস মল্লিক (৪৫), কিস্তাকাঠি গ্রামের শাহীন ভূইয়া (৩৫) ও মির্জাপুর গ্রামের জয়নাল কাদি (৪৬)। অভিযোগ প্রমানিত না হওয়ায় ছোহরাব হোসেন নামে একজনকে খালাস দেয়া হয়। রায় ঘোষণার সময় যাবজ্জীবন সাজা প্রাপ্ত শাহীন ও জয়নাল আদালতে উপস্থিত থাকলেও গিয়াস মল্লিক পলাতক ছিলেন।

মামলার বিবরণে জানা যায়, পূর্ব শত্রতার কারনে ২০১৪ সালের ২১ এপ্রিল ঝালকাঠি শহরের স্টেশন রোডের একটি টিনের দোকানের ম্যানেজার শাহাদাৎ হোসেনকে নেশা জাতীয় দ্রব্য খাইয়ে লঞ্চঘাট এলাকার জয়নাল কাদির বাসায় নিয়ে গলাকেটে হত্যা করে আসামীরা। পরে তাঁর মস্তকবিহীন লাশ সুগন্ধা নদীতে ফেলে দেওয়া হয়। 


জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থগিত পরীক্ষার নতুন সূচি ঘোষণা

লেবানন বিএনপির ভার্চুয়াল সভা অনুষ্ঠিত

বিয়ে করতে রাজি না হওয়ায় কেটে ফেলা হল কিষানীর তিন হাজার গাছ

তামিমার পাসপোর্ট আসল কিনা মুখ খুললেন নাসিরের সাবেক প্রেমিকা


২৩ এপ্রিল দুপুরে নদীতে ভাসমান অবস্থায় মাথাবিহীন শাহাদাতের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় ওইদিন ঝালকাঠি থানার পিএসআই আবদুর রহিম বাদী হয়ে অজ্ঞাত ব্যাক্তিদের আসামী করে মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে জয়নাল কাদ্বীকে ঢাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। 

তাঁর স্বীকারোক্তি অনুযায়ী হত্যাকান্ডের রহস্য উন্মোচিত হয়। সাজাপ্রাপ্ত গিয়াস মল্লিকের বাবা দেউরি গ্রামের মোকছেদ আলী মল্লিককে ১৯৮০ সালে হত্যা করে প্রতিপক্ষরা। এ মামলায় আসামি ছিলেন শাহাদাৎ হোসেন। এ মামলায় সকল আসামী খালাশ পায়। 

বাবাকে হত্যার প্রতিশোধ নিতে গিয়াস মল্লিক তাঁর সহযোগিদের নিয়ে শাহাদাৎকে হত্যা করে। ঝালকাঠি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শীল মণি চাকমা তদন্ত শেষে ২৮ অক্টোবর ২০১৪ আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেন। আদালত ৩৬ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে রায় দেন। 

 news24bd.tv আয়শা
 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

ধর্ষণের শিকার নারী-শিশুকে পুনর্বাসনসহ ক্ষতিপূরণ দিতে রুল

অনলাইন ডেস্ক

ধর্ষণের শিকার নারী-শিশুকে পুনর্বাসনসহ ক্ষতিপূরণ দিতে রুল

সারা দেশে ধর্ষণের শিকার নারী ও শিশুদের প্রযোজ্য ক্ষেত্রে (প্রমাণিত হোক বা না হোক) পুনর্বাসনসহ ক্ষতিপূরণ দেওয়ার বিষয়ে একটি নীতিমালা তৈরির নির্দেশ কেন দেওয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।

একই সঙ্গে ধর্ষণের শিকার তিনটি শিশুকে (দিনাজপুরের পাবর্তীপুরের একজন, রংপুরের বড়বাড়ি এলাকার চার বছরের এক শিশু এবং খুলনার তেরখাদার নয় বছরের একজনকে) পর্যাপ্ত ক্ষতিপূরণ দিতে কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না- রুলে তাও জানতে চাওয়া হয়েছে।

জনস্বার্থে করা এক রিট আবেদনের পরিপ্রক্ষিতে আজ বুধবার বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি মো. কামরুল হোসেন মোল্লার হাইকোর্ট বেঞ্চ এই রুল জারি করেন।

সাত দিনের মধ্যে স্বরাষ্ট্র সচিব, মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব, স্বাস্থ্য সচিবসহ ১৫ জনকে এ রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার আব্দুল হালিম। বিভিন্ন সময় গণমাধ্যমে প্রকাশিত তিনটি ধর্ষণের ঘটনা যুক্ত করে গত ২ জানুয়ারি হাইকোর্টে রিট দায়ের করে চিলড্রেন চ্যারিটি ফাউন্ডেশন নামে একটি সংগঠন।

রিটের আইনজীবী আব্দুল হালিম বলেন, ধর্ষণের মামলায় ৯৭ শতাংশ আসামির খালাস হয়ে যায়। তার মানে ৯৭ শতাংশ কি ধর্ষণ হয়নি? এই খালাসের কারণ হলো রাষ্ট্র যথেষ্ট সাক্ষ্যপ্রমাণ হাজির করতে ব্যর্থ হয়েছে। এর জন্য দায়ভার ভুক্তভোগী কেন নেবে? কেননা তার আত্মমর্যাদা রয়েছে। 


নাসির প্রেমিক না আমার বন্ধু : মডেল মিম

আমার বয়ফ্রেন্ড নিয়ে আমিও মজায় আছি : নাসিরের সাবেক প্রেমিকা

বউ যেন এদিক-ওদিক ভাইগা না যায় : নাসিরের সাবেক প্রেমিকা (ভিডিও)

নাসির-তামিমার জন্য ভালোবাসা ও দোয়া : শবনম ফারিয়া


শিশুটির লেখাপড়া ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে। এসব শিশুরা স্কুলে পর্যন্ত যেতে পারছে না। তাহলে সে কোথায় যাবে? এখানেই হলো রাষ্ট্রের দায়িত্ব। সারা পৃথিবীতে ধর্ষণের শিকার ভুক্তভোগীদের পুনর্বাসনের বিধান রয়েছে। ভারতের সুপ্রিম কোর্ট একটি ধর্ষণের ঘটনায় ১০ লাখ রুপি ক্ষতিপূরণ দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে সেটি আমরা নজির হিসেবে দিয়েছি।

‘রংপুরের বড়বাড়ির শিশু মাইশাকে যৌন নিপীড়নের চেষ্টার পর হত্যা করে ডোবায় ফেলেন প্রতিবেশী’, ‘তিন বছরেও স্বাভাবিক হতে পারেনি দিনাজপুরের সেই শিশু’, ‘স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে পুলিশ সদস্য গ্রেপ্তার’- শিরোনামে প্রতিবেদন বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়। ওইসব প্রতিবেদন যুক্ত করে হাইকোর্টে রিটটি দায়ের করা হয়। ওই রিটের শুনানি নিয়ে আদালত আজ বুধবার এ রুল জারি করেন।

news24bd.tv / কামরুল 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

বাবাকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগে ছেলে গ্রেপ্তার

সৈয়দ নোমান, ময়মনসিংহ

বাবাকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগে ছেলে গ্রেপ্তার

ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়ায় বাবাকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগে সন্তান মো. ফারুককে (৩২) আটক করেছে র‌্যাব-১৪। বুধবার রাত দুইটার দিকে ভালুকা উপজেলার উথুরা ইউনিয়নের চামাদি এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়।

বুধবার বিকেলে র‌্যাব-১৪’র কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এমন তথ্য জানান উপ-অধিনায়ক মেজর মো. ফজলে রাব্বি।

আরও পড়ুন:


আরও পড়ুন: ৩০-৩২ গার্লফ্রেন্ড থাকার পরও আমাকে ভালোবাসত নাসির: তামিমা

প্রতিদিন এক নারী ভালো লাগত না তার


সাংবাদিকদের র‌্যাবের ওই অফিসার আর জানায়, ফুলবাড়িয়া উপজেলার আছিম পাটুলি গ্রামের নূর মোহাম্মদ চাঁন মিয়াকে (৬৮) তার ছেলে মো. ফারুক গত ২১ ফেব্রুয়ারি পাওনা টাকা নিয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে বাঁশের লাঠি দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। এতে চান মিয়ার মৃত্যু হয়। এরপর থেকেই ছেলে ফারুক পলাতক ছিল।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

তামিমার মায়ের নামে মামলা না করার কারণ জানালেন রাকিব

অনলাইন ডেস্ক

তামিমার মায়ের নামে মামলা না করার কারণ জানালেন রাকিব

অন্যের স্ত্রীকে বিয়ে করার অভিযোগে ক্রিকেটার নাসির হোসেন ও তামিমা সুলতানা তাম্মির বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। কিন্তু তামিমার মাকে এতে জড়ানো হয়নি।

এর কারণ হিসেবে রাকিব বলেন, ‘আমি প্রতিকার চেয়ে নাসির ও তামিমার বিরুদ্ধে মামলা করেছি। মামলায় তামিমার মাকেও আসামি করতাম। মানবিক দৃষ্টিকোণ থেকে তাকে আসামি করিনি। হাজার হলেও আমি তাকে মা বলে ডেকেছি।’

বুধবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) ঢাকা মহানগর হাকিম মোহাম্মদ জসীমের আদালতে তামিমার সাবেক স্বামী রাকিব হাসান বাদী হয়ে এ মামলা করেন। আদালত বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ করে আগামী ৩০ মার্চের মধ্যে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন।

মামলায় অভিযোগ আনা হয়েছে দণ্ডবিধি ৪৯৪/৪৯৭/৪৯৮ ও ৫০০ ধারায়। এ ধারাগুলোর সর্বোচ্চ শাস্তি সাত বছরের কারাদণ্ড।


সিইসি-রেজাউল, নির্বাচন কর্মকর্তা ও অন্য ছয় মেয়রপ্রার্থীর নামে মামলা

প্রতিদিন নতুন নারী লাগত তার, পরতেন ত্রিশ দিনে ৩০ সানগ্লাস

স্ত্রীকে সৌদি পাঠিয়ে ৮ বছরের মেয়েকে নিয়মিত ধর্ষণ করে বাবা

বন্ধুর স্ত্রীর ‘গোপন ভিডিও’ ধারণ, ভয় দেখিয়ে আটমাস ধরে ‘ধর্ষণ’


মামলার অভিযোগে থেকে জানা যায়, ২০১১ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি বাদীর (রাকিব হাসান) সঙ্গে মামলার ১ নম্বর আসামি তামিমা সুলতানার ইসলামী শরীয়ত মোতাবেক ৩ লাখ এক টাকা দেনমোহরে বিয়ে ও রেজিস্ট্রি হয়। বিয়ের পর থেকে তারা স্বামী-স্ত্রী হিসেবে সংসার করতে থাকেন। তোবা হাসান নামে তাদের একটি মেয়ে রয়েছে, যার বর্তমান বয়স ৮ বছর।

মামলা সূত্রে আরও জানা যায়, তামিমা পেশায় একজন কেবিন ক্রু। তিনি সৌদি এয়ারলাইন্সে কর্মরত আছেন। চাকরির সুবাদে ২০২০ সালের ১০ মার্চ সৌদিতে গিয়েছিলেন তিনি। মহামারির কারণে জরুরি অবস্থা সৃষ্টি হলে সেখানেই অবস্থান করেন তামিমা। এ সময় ফোন ও সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে রাকিবের সঙ্গে তার যোগাযোগ হতো।

মামলায় বলা হয়, চলতি বছরের ২৪ ফেব্রুয়ারি তামিমার সঙ্গে ২ নম্বর আসামির (ক্রিকেটার নাসির) কথিত বিয়ের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। পরে তা বাদীর নজরে আসে। বাদী এই ধরনের ছবি দেখে হতবাক হয়ে যান। পরবর্তীতে পত্রিকায় এই বিষয়ে সংবাদ দেখে তিনি ঘটনার বিষয় নিশ্চিত হন। এছাড়া তাদের গায়ে হলুদ ও বিয়ে পরবর্তী সংবর্ধনা অনুষ্ঠান যথাক্রমে ১৭ ও ২০ ফেব্রুয়ারি সম্পন্ন হয়, যা ইতোমধ্যে বিভিন্ন সংবাদে প্রকাশিত হয়েছে।

মামলার অভিযোগে আরও বলা হয়, তামিমা বাদীর সঙ্গে বিয়ের সম্পর্ক চলমান থাকাবস্থায় নাসিরের সঙ্গে বিয়ে বন্ধনে আবদ্ধ হন। নাসির বাদীকে ফোন করে জানান, সম্পূর্ণ বিষয়টি সম্পর্কে তিনি অবগত এবং তার নিকট তামিমা আছেন। বাদীর সঙ্গে বিয়ের সম্পর্ক চলমান থাকাবস্থায় তামিমার নাসিরকে বিয়ে করা, যা ধর্মীয় ও রাষ্ট্রীয় আইনে সম্পূর্ণ অবৈধ। আসামির সঙ্গে তিনি অবৈধ বিয়ের সম্পর্ক দেখিয়ে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন করেছেন, যা নিকৃষ্ট ব্যভিচার।

অভিযোগে আরও বলা হয়, আসামিদের এরূপ অনৈতিক ও অবৈধ সম্পর্কের কারণে বাদী ও তার শিশুকন্যা মারাত্মকভাবে মানসিক বিপর্যস্ত হয়েছেন। আসামিদের এহেন কার্যকলাপে বাদীর চরমভাবে মানহানি হয়েছে, যা বাদীর জন্য অপূরণীয় ক্ষতি।

মন্তব্য

পরবর্তী খবর