মালয়েশিয়ায় বিদেশি শিক্ষার্থীদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার

শাহাদাত হোসেন, মালয়েশিয়া থেকে:

মালয়েশিয়ায় বিদেশি শিক্ষার্থীদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার

মালয়েশিয়ায় বিদেশি শিক্ষার্থীদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের ঘোষণা দিয়েছে দেশটির সরকার। আগামী (১ জানুয়ারী) শুক্রবার থেকে বাংলাদেশিসহ বিদেশি শিক্ষার্থীরা মালয়েশিয়ায় প্রবেশ করতে পারবে।

স্থানীয় সময় মঙ্গলবার (২২ ডিসেম্বর) বিকালে প্রতিরক্ষামন্ত্রী দাতুক সেরি ইসমাইল সাবরি বিন ইয়াকুব এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান। তবে সাম্প্রতিক সময়ে যুক্তরাজ্যে করোনা সংক্রমণের হার বৃদ্ধি পাওয়ায় লন্ডনসহ কয়েকটি শহরের শিক্ষার্থীদের এই মুহূর্তে মালয়েশিয়া প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে।

মন্ত্রী বলেন, যে সব নতুন ও পুরানো শিক্ষার্থী স্থানীয় বিশ্ববিদ্যালয় ও স্কুলগুলো থেকে প্রবেশের অনুমতি ও থাকার বাসস্থান পেয়েছে তারাই কেবল নিজ নিজ অভিভাবকদের নিয়ে প্রবেশ করতে পারবে।

 দেশটিতে প্রবেশের ৭২ ঘন্টার মধ্যে শিক্ষার্থীদের অবশ্যই কোভিড-১৯ পরীক্ষা করিয়ে নিতে হবে। মালয়েশিয়া বিমানবন্দরে পৌঁছানোর পর তাদের দ্বিতীয়বার নমুনা দিতে হবে। এতে কোন শিক্ষার্থীর ফলাফল নেতিবাচক হলেও, তাহলে ১০ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারান্টাইন সেন্টারে পাঠানো হবে।

এছাড়া মালয়েশিয়ার সরকারের দেয়া স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং সিস্টেম-এসওপি মেনে চলতে হবে বলে জানান প্রতিরক্ষা মন্ত্রী। উল্লেখ্য করনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে বিদেশি শিক্ষার্থীদের মালয়েশিয়া প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা ছিল এতে অনেক বাংলাদেশি শিক্ষার্থী দেশে আটকা পড়ে এই ঘোষণার মধ্যে স্বস্তি ফিরে এসেছে শিক্ষার্থীদের মাঝে।


নিজেকে আবেদনময়ী করতে গিয়ে অস্ত্রোপচারে প্রাণ গেল মডেলের

রোহিঙ্গাদের ফেরাতে পাশে থাকবে তুরস্ক

মাদারীপুরে পিকআপ-মোটরসাইকেল মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ৩

সম্পর্ক বাঁচাতে নারী সহকর্মীদের গোসলের ভিডিও প্রেমিককে পাঠাত নার্স


নিউজ টোয়েন্টিফোর / কামরুল

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

জীবন যুদ্ধে হেরে গেলেন অগ্নিদগ্ধ সিঙ্গাপুরপ্রবাসী

অনলাইন ডেস্ক

জীবন যুদ্ধে হেরে গেলেন অগ্নিদগ্ধ সিঙ্গাপুরপ্রবাসী

সিঙ্গাপুরে একটি কারখানায় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় আনিসুজ্জামান (৩২) নামে এক প্রবাসী বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। বুধবার নিজ কর্মস্থলে অগ্নিদগ্ধ হন এ প্রবাসী। পরে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে একদিন পরই মারা যান তিনি। গত বুধবার দুপুরে কারখানায় কাজ করার সময় অগ্নিদগ্ধ হন তিনি।

এরপর হাসপাতালে নেয়া হলে বৃহস্পতিবার রাতে মৃত্যু হয় তার। চাঁদপুর জেলার হাজীগঞ্জ উপজেলার বড়কূল পশ্চিম ইউনিয়নের গোবিন্দপুর গ্রামের অহিদ হাওলাদারের ছেলে আনিসুজ্জামান বলে জানা গেছে।


গুপ্তচরবৃত্তির ইসরাইলি জাহাজে ইরানের হামলা!

ওটিটি প্ল্যাটফর্মেও ডাবল ব্লকবাস্টার দৃশ্যম টু!

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ নিয়ে মুখোমুখি অবস্থানে পাক-ভারত!

অপো নতুন ফোনে থাকছে ১২ জিবি র‌্যাম


 

ছেলের মরদেহ দেশে ফিরিয়ে আনার বিষয়ে তার বাবা অহিদ হাওলাদার বলেন, ‘আমার ছেলের মরদেহ কবে ফিরবে তা জানি না। তবে মেয়ের জামাতা সেখান থেকে আনিসের মরদেহ দেশে নিয়ে আসার জন্য চেষ্টা করছে।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

আমিরাত বিবিএফ এর সভাপতি কামাল সম্পাদক আবু বক্কর

অনলাইন ডেস্ক

আমিরাত বিবিএফ এর সভাপতি কামাল সম্পাদক আবু বক্কর

মধ্য প্রচ্যের দেশ সংযুক্ত আরব আমিরাতে বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশি ব্যবসায়ীদের সংগঠন ‘বাংলাদেশ বিজনেস ফোরাম (বিবিএফ) ইউএই’র বার্ষিক নির্বাচন শেষ হয়েছে। কামাল হোসাইন সুমন সভাপতি ও আবু বক্কর ছিদ্দিক সাধারণ সম্পাদক পুনর্নির্বাচিত হয়েছেন।

শুক্রবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) বিকেল ৪টায় স্থানীয় ইব্রাহীম ম্যানশনে বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করা হয়। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার ইসমাইল গনি চৌধুরী, নির্বাচন কমিশনার তরিকুল ইসলাম শামীম ও মিহির ব্রাগনোরা।

করোনা পরিস্থিতি কারণে অনলাইনে ডিজিটাল পদ্ধতিতে এ নির্বাচন আয়োজিত হয়েছে। নির্বাচন পরিচালনার জন্য সংগঠনের সাবেক কমিটির প্রধান উপদেষ্টা ইসমাইল গনি চৌধুরীকে প্রধান নির্বাচন কমিশনার, সাবেক সহ-সভাপতি তরিকুল ইসলাম শামীম ও মিহির ব্রাগনোরাকে সহকারী কমিশনার করে কমিশন গঠন করা হয়েছে।


অভাব দুর হবে, বাড়বে ধন-সম্পদ যে আমলে

সূরা কাহাফ তিলাওয়াতে রয়েছে বিশেষ ফজিলত

করোনার ভ্যাকসিন গ্রহণে বাধা নেই ইসলামে

নামাজে মনোযোগী হওয়ার কৌশল


 

২৪ ফেব্রুয়ারি থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে ২৬ ফেব্রুয়ারি বিকেল ৪টায় শেষ হয়। সভাপতি পদে কামাল হোসাইন সুমন ৯১ শতাংশ ও সাধারণ সম্পাদক পদে আবু বক্কর ছিদ্দিক খন্দকার ৮৪ শতাংশ ভোট পেয়ে পুনরায় নির্বাচিত হন।

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন জাফর চৌধুরী, জসিম উদ্দিন মল্লিক, মো. আব্বাস, ইব্রাহীম ওসমান, কামাল হোসাইন সুমন, আবু বকর ছিদ্দিক, মুনসুর মো. খলিল, আহসান হাবীব, আবদুস সাত্তার, যমুনা টিভি প্রতিনিধি মুহাম্মদ রফিক উল্লাহ প্রমুখ।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

বাংলাদেশ বিজ্ঞান একাডেমীর ‘ফেলো হলেন বিজ্ঞানী ড. মোহাম্মদ মোর্শেদ

লায়লা নুসরাত, কানাডা

বাংলাদেশ বিজ্ঞান একাডেমীর ‘ফেলো হলেন বিজ্ঞানী ড. মোহাম্মদ মোর্শেদ

কানাডায় কর্মরত বিশিষ্ট অণুজীব বিজ্ঞানী ড. মোহাম্মদ মোর্শেদকে ’ফেলো’ হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে বাংলাদেশ বিজ্ঞান একাডেমী। বাংলাদেশ এবং আন্তর্জাতিক পর্যায়ে অনুজীব বিজ্ঞানের গবেষণা এবং শিক্ষায় অসাধারন অবদান রাখার স্বীকৃতি হিসেবে বাংলাদেশে বিজ্ঞানী ও প্রযুক্তি বিষয়ক শীর্ষ প্রতিষ্ঠান ‘বাংলাদেশ বিজ্ঞান একাডেমী’ ড. মোর্শেদকে এই স্বীকৃতি দিয়েছে। ‘এক্সপেট্টিয়েট ফেলো’ ক্যাটাগরিতে তিনি এই নিয়োগ পান। 

স্বাধীনতার পর এ পর্যন্ত আন্তর্জাতিক পর্যায়ে কর্মরত ১৪ জন বাংলাদেশি বিজ্ঞানীকে এই মর্যাদায় অভিষিক্ত করেছে বিজ্ঞান একাডেমী। ড. মোহাম্মদ মোর্শেদ তাঁদের একজন।

বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত কানাডীয়ান বিজ্ঞানী ড. মোহাম্মদ মোর্শেদ বর্তমানে কানাডার ব্রিটিশ কলম্বিয়া ইউনিভার্সিটিতে প্যাথোলোজি ও ল্যাবরেটরি মেডেসিন বিভাগের ক্লিনিক্যাল অধ্যাপক হিসেবে কর্মরত আছেন। একই সঙ্গে তিনি বৃটিশ কলম্বিয়া সেন্টার ফর ডিজিস কন্ট্রোল এর পাবলিক হেলথ ল্যাবরেটরির জুনুটিক ও ইমার্জিং প্যাথোজেন প্রোগ্রামের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

কানাডায় পেশাগত জীবন শুরুর আগে ড. মোর্শেদ ঢাকার আইসিডিডিআরবি, শিশু হাসপাতাল, বাংলাদেশ ইন্সটি্টিউট অব চাইল্ড হেলথ এবং জাহাঙ্গীরনগ বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত ছিলেন। 


ঋণ থেকে মুক্তির দু’টি দোয়া

মেসি ম্যাজিকে সহজেই জিতল বার্সা

দোয়া কবুলের উত্তম সময়

প্রবাসী স্বামীকে তালাক দিয়ে প্রেমিকের বাড়িতে প্রেমিকার অনশন!


অণুজীব বিজ্ঞানের গবেষণা এবং শিক্ষায় বিশেষ অবদান রাখায় কানাডায়ও তিনি বিভিন্ন সময় সম্মানিত হয়েছেন। ২০১৭ সালে তিনি বৃটিশ কলম্বিয়া ইউনিভার্সিটির ‘এক্সিলেন্স ইন ক্লিনিক্যাল সার্ভিস এওয়ার্ড‘ পান। একই বছর বিভিন্ন খাতে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে পুরো কানাডা থেকে বাছাই করা ‘দ্যা আরবিসি টপ ২৫ ইমিগ্রেন্ট এওয়ার্ড পান তিনি। ২০১৯ সালে কানাডার কলেজ অব মাইক্রোবায়োলোজি তাঁকে ডিসটিঙ্গুইশ্ড মাইক্রোবায়োলোজিষ্ট এওয়ার্ড’ দেয়। 

এ প্রসঙ্গে প্রতিক্রিয়া জানতে চাওয়া হলে ড. মোহাম্মদ মোর্শেদ বলেন, বিশ্বের বিভিন্ন দেশে কর্মরত বিজ্ঞানীদের নিজ দেশে স্বীকৃতি দেয়ার বিজ্ঞান একাডেমীর উদ্যোগকে তিনি স্বাগত জানান এবং তাকে মনোনীত করায় ধন্যবাদ জানান। বিজ্ঞান একাডেমীর ফেলো হিসেবে নিয়োগ পা্ওয়ায় দেশের বিজ্ঞান চর্চ্যায় আরো বেশি ভূমিকা রাখার দায়িত্ব তার উপর বর্তেছে বলে তিনি মনে করেন। তিনি বলেন, কানাডার বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় এবং গবেষনাগারের সাথে বাংলাদেশের যোগসূত্র ঘটিয়ে দেয়ার জন্য কাজ করে যাবেন।

news24bd.tv/আয়শা

 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

বাংলাদেশ বিজ্ঞান একাডেমী ফেলো হলেন কানাডীয়ান বাংলাদেশি বিজ্ঞানী ড. মোহাম্মদ মোর্শেদ

অনলাইন ডেস্ক

বাংলাদেশ বিজ্ঞান একাডেমী ফেলো হলেন কানাডীয়ান বাংলাদেশি বিজ্ঞানী ড. মোহাম্মদ মোর্শেদ

কানাডায় কর্মরত বিশিষ্ট অণুজীব বিজ্ঞানী ড. মোহাম্মদ মোর্শেদকে ‘ফেলো’ হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে বাংলাদেশ বিজ্ঞান একাডেমী। বাংলাদেশ এবং আন্তর্জাতিক পর্যায়ে অনুজীব বিজ্ঞানের গবেষণা এবং শিক্ষায়  অসাধারণ অবদান রাখার স্বীকৃতি হিসেবে বাংলাদেশে বিজ্ঞানী ও প্রযুক্তি বিষয়ক  শীর্ষ প্রতিষ্ঠান ‘বাংলাদেশ বিজ্ঞান একাডেমী’ ড. মোর্শেদকে  এই স্বীকৃতি  দিয়েছে। ‘এক্সপেট্টিয়েট ফেলো’ ক্যাটাগরিতে তিনি এই নিয়োগ পান।

স্বাধীনতার পর এ পর্যন্ত আন্তর্জাতিক পর্যায়ে কর্মরত ১৪ জন বাংলাদেশি বিজ্ঞানীকে এই মর্যাদায় অভিসিক্ত করেছে বিজ্ঞান একাডেমী। ড. মোহাম্মদ মোর্শেদ তাঁদের একজন।

বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত কানাডীয়ান বিজ্ঞানী ড. মোহাম্মদ মোর্শেদ বর্তমানে কানাডার ব্রিটিশ কলম্বিয়া ইউনিভার্সিটিতে প্যাথোলোজি ও ল্যাবরেটরি মেডেসিন বিভাগের ক্লিনিক্যাল অধ্যাপক হিসেবে কর্মরত আছেন।

একই সঙ্গে তিনি বৃটিশ কলম্বিয়া সেন্টার ফর ডিজিস কন্ট্রোল এর পাবলিক হেলথ ল্যাবরেটরির জুনুটিক ও ইমার্জিং প্যাথোজেন প্রোগ্রামের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

কানাডায় পেশাগত জীবন শুরুর আগে ড. মোর্শেদ ঢাকার আইসিডিডিআরবি, শিশু হাসপাতাল, বাংলাদেশ ইন্সটি্টিউট অব চাইল্ড হেলথ এবং জাহাঙ্গীরনগ বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত ছিলেন।


গুলি ছুড়ে ইয়েমেনের ক্ষেপণাস্ত্র আকাশেই ধ্বংস করেছে সৌদি

জানা গেল আসল রহস্য, ১৩-১৪ বছরের দুই বোনের সঙ্গেই শরীরিক মেলামেশা ছিল তার

আবাহনীকে ৪-১ গোলে উড়িয়ে দিল বসুন্ধরা কিংস

৬৬ নারীকে ধর্ষণ


অণুজীব বিজ্ঞানের গবেষণা এবং শিক্ষায় বিশেষ অবদান রাখায় কানাডায়ও তিনি বিভিন্ন সময় সম্মানিত হয়েছেন। ২০১৭ সালে তিনি  বৃটিশ কলম্বিয়া ইউনিভার্সিটির ‘এক্সিলেন্স ইন ক্লিনিক্যাল সার্ভিস এওয়ার্ড‘ পান। একই বছর  বিভিন্ন খাতে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে পুরো কানাডা থেকে বাছাই করা ‘দ্যা আরবিসি টপ ২৫ ইমিগ্রেন্ট এওয়ার্ড পান তিনি।  ২০১৯ সালে কানাডার কলেজ অব মাইক্রোবায়োলোজি তাঁকে ডিসটিঙ্গুইশ্ড মাইক্রোবায়োলোজিস্ট এওয়ার্ড’ দেয়।

এ প্রসঙ্গে প্রতিক্রিয়া জানতে চাওয়া হলে ড. মোহাম্মদ মোর্শেদ বলেন,বিশ্বের বিভিন্ন দেশে কর্মরত বিজ্ঞানীদের নিজদেশে স্বীকৃতি দেওয়ার বিজ্ঞান একাডেমীর উদ্যোগকে তিনি স্বাগত জানান এবং তাকে মনোনীত করায় ধন্যবাদ জানান।

বিজ্ঞান একাডেমীর ফেলো হিসেবে নিয়োগ পা্ওয়ায় দেশের বিজ্ঞান চর্চ্যায় আরো বেশি ভূমিকা রাখার দায়িত্ব তার উপর বর্তেছে  বলে তিনি মনে করেন।

তিনি বলেন, কানাডার বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় এবং গবেষণাগারের সাথে বাংলাদেশের যোগসূত্র ঘটিয়ে দেওয়ার জন্য তিনি কাজ করে যাবেন।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশি মালিকানাধীন বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্বোধন করলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক


যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশি মালিকানাধীন বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্বোধন করলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশি মালিকানাধীন প্রথম বিশ্ববিদ্যালয় ইনোভেটিভ গ্লোবাল ইউনিভার্সিটির উদ্বোধন করেছেন সফররত পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডক্টর একে আবদুল মোমেন।

শনিবার ভাজির্নিয়ায় বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ থেকে পড়তে আসতে ইচ্ছুক শিক্ষার্থীদের জন্য প্রতি বছর প্রায় দুই কোটি টাকার শিক্ষা বৃত্তি ঘোষণা করেছে প্রতিষ্ঠানটির কর্তৃপক্ষ। সেই সঙ্গে ডক্টর আবদুল মোমেনের নামে ব্যাচেলর ও মাস্টার্স পর্যায়ে দুটি স্কলারশীপও দেওয়া হবে। 

যুক্তরাষ্ট্রের ভার্জিনিয়ায় ইনোভেটিভ গ্লোবাল বা আই গ্লোবাল ইউনিভার্সিটি-আইজিইউয়ের উদ্বোধন করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে আবদুল মোমেন। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীতে বাংলাদেশি মালিকানায় প্রতিষ্ঠিত প্রথম এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি প্রবাসে বাংলা ভাষাভাষীদের জন্য অনন্য এক উদ্যোগ বলে আখ্যা দেন মন্ত্রী। 

আই গ্লোবাল বিশ্ববিদ্যালয়ের চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার আবুবকর হানিপ বলেন, তার প্রতিষ্ঠিত পিপলএনটেক নামের আইটি প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটের মাধ্যমে সাত হাজার প্রবাসীকে ভাল বেতনে চাকরির ব্যবস্থা করেছে। বিশ্ববিদ্যালয়েও তিনি এই অভিজ্ঞতা কাজে লাগাবেন। বাংলাদেশ থেকে পড়তে আসা ছাত্রছাত্রীদের জন্য প্রায় দুই কোটি টাকার বৃত্তিও ঘোষণা করেন তিনি।    

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত এম. শহীদুল ইসলাম, ভয়েস অব আমেরিকা বাংলা বিভাগের প্রধান রোকেয়া হায়দার, আইজিইউ প্রফেসর ডক্টর মিখায়েল কব, চিফ ফিনান্সিয়াল অফিসার ফারহানা হানিপ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের দুজন শিক্ষার্থী অমিত গুপ্ত ও নাতালিয়া জ্যাগোন বক্তব্য রাখেন।

এই বিশ্ববিদ্যালয়ে সাইবার সিকিউরিটি বিষয়ে মাস্টার্স ও সায়েন্স অ্যান্ড ইনফরমেশন টেকনোলজি এবং বিজনেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশনে মাস্টার্স এবং ব্যাচেলর ডিগ্রি রয়েছে। এছাড়া কম্পিউটার ও আইটি বিষয়ে বেশ কিছু সার্টিফিকেট কোর্স রয়েছে। শিগগিরই হেলথ কেয়ার, নার্সিং, ডেটা সায়েন্স ও আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স বিষয়েও বেশ কয়েকটি কোর্স চালুর পরিকল্পনা রয়েছে প্রতিষ্ঠানটির।

২০০৮ সালে প্রতিষ্ঠিত এই বিশ্ববিদ্যালয়টি বিজ্ঞান, ব্যবসা ও প্রযুক্তি শিক্ষার জন্য এশিয়া, মধ্যপ্রাচ্য ও ইউরোপের শিক্ষার্থীদের কাছে বিশেষভাবে পরিচিত। এখন থেকে এটি বাংলাদেশিদের শিক্ষা ক্ষেত্রেও অনন্য অবদান রাখবে বলে মনে করছেন প্রবাসীরা। 

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর