সৌরজগতের বিরল ঘটনা

ড. ওয়াহিদউদ্দিন মাহমুদ

সৌরজগতের বিরল ঘটনা

সৌরজগতের সবচেয়ে বড় দুটি গ্রহ বৃহস্পতি ও শনি এখন আকাশে খুব কাছাকাছি অবস্থান করতে দেখা যাচ্ছে। প্রায় আট শ' বছর আগে এরকম আরেকবার হয়েছিল, সম্ভবতঃ গ্যালিলিওর জীবদ্দশায়। 

গতকাল রাত্রে অনেকদিন পর আমার ছাদে গিয়ে বুঝলাম ঢাকার আকাশে এখন মেঘ না থাকলেও কোনো তারা দেখা যায় না; কুয়াশা না বায়ু দূষণের কারণে বোঝা গেলো না। এই ছবিটা গতকাল রাতের আমেরিকার আকাশের, telescope দিয়ে তোলা; সৌজন্যে Taz Meen। শনির দুটি ও বৃহস্পতির তিনটি চাঁদকেও দেখা যাচ্ছে।


নিজেকে আবেদনময়ী করতে গিয়ে অস্ত্রোপচারে প্রাণ গেল মডেলের

রোহিঙ্গাদের ফেরাতে পাশে থাকবে তুরস্ক

মাদারীপুরে পিকআপ-মোটরসাইকেল মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ৩

সম্পর্ক বাঁচাতে নারী সহকর্মীদের গোসলের ভিডিও প্রেমিককে পাঠাত নার্স


নিউজ টোয়েন্টিফোর / কামরুল

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

সাকিব-নাসিরদের ব্যক্তিগত বিষয় নিয়ে নাড়াচাড়া করাতে কি আনন্দ আছে?

আশরাফুল আলম খোকন

সাকিব-নাসিরদের ব্যক্তিগত বিষয় নিয়ে নাড়াচাড়া করাতে কি আনন্দ আছে?

সাকিব-নাসিরদের ব্যক্তিগত বিষয় নিয়ে নাড়াচাড়া করাতে কি আনন্দ আছে তা খুঁজে পাচ্ছিনা। পৃথিবীর আর কোনো দেশে এমন আছে কিনা জানি না, যারা অন্যের ব্যক্তিগত বিষয় নিয়ে আলোচনা করে এতো সময় ব্যায় করে ও মজা পায়। 

আমি খুব উচ্চবর্গীয় একজন লোককে বলতে শুনেছিলাম” শাকিব খান এইটা কি করলো ? অপু বিশ্বাসের সাথে এইটা না করলেও পারতো।” ওনার অনেক অনেক ব্যস্ততার মাঝেও তিনি ওই বিষয়টি নিয়ে তখন খুব চিন্তিত ছিলেন। 

অন্যের ব্যক্তিগত বিষয় নিয়ে যত সময় ব্যয় করেন এর অর্ধেক সময় নিজেকে নিয়ে চিন্তা করলে আপনি এবং এই জাতি দুই’ই অনেক দূর এগিয়ে যাবে। 

কেউ খারাপ কিছু করলে ঐটার জন্য কোর্ট কাচারী ও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ আছে। বিচার আচার আপনি আমি না করলেও চলবে।

(ফেসবুক থেকে)

news24bd.tv কামরুল

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

কাদের মির্জার অশালীন ফোনালাপ ফাঁস (অডিওসহ)

নোয়াখালী প্রতিনিধি:

কাদের মির্জার অশালীন ফোনালাপ ফাঁস (অডিওসহ)

এবার বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আব্দুল কাদের মির্জার অশালীন ফোনালাপ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ফাঁস হয়েছে। বঙ্গবন্ধু পরিষদ নামে একটি ফেসবুক আইডিসহ বিভিন্ন আইডি থেকে ইতিমধ্যে ফোন আলাপটি প্রকাশ পায়। 

আজ বুধবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) সকাল থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়।

আরও পড়ুন:


স্ত্রীকে সৌদি পাঠিয়ে ৮ বছরের মেয়েকে নিয়মিত ধর্ষণ করে বাবা

বন্ধুর স্ত্রীর ‘গোপন ভিডিও’ ধারণ, ভয় দেখিয়ে আটমাস ধরে ‘ধর্ষণ’

কুমিল্লাগামী বাসে দরজা-জানালা বন্ধ করে তরুণীকে ধর্ষণ!

কলাইক্ষেতে নারীর অর্ধনগ্ন মরদেহ, পাশে পাজামা-ছাতা-স্যান্ডেল


ফোনালাপে শোনা যায় কাদের মির্জার ছেলের বিরুদ্ধে কথা বলার অভিযোগ এনে কোনো এক কর্মীর সাথে অশালীন ভাষায় তিনি কথা বলছেন। এক মিনিট ৩৪ সেকেন্ডের ওই ফোনালাপে প্রায় একতরফা কাদের মির্জা অন্য প্রান্তে থাকা ওই লোকটিকে অশালীন গালমন্দ করছেন। তবে কার সাথে কথা বলছিলেন ফোনালাপে সেটা ষ্পষ্ট নয়। 

এ বিষয়ে আবদুল কাদের মির্জার প্রতিক্রিয়া জানতে তার ব্যবহৃত মুঠোফোনে ফোন করা হলে তিনি রিসিভ করেননি। 

রেকর্ডটি শুনতে ক্লিক করুন।

news24bd.tv / কামরুল 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

স্বাভাবিক জীবনযাত্রা শুরুর পরিকল্পনায় এগুচ্ছে কানাডা

শওগাত আলী সাগর

স্বাভাবিক জীবনযাত্রা শুরুর পরিকল্পনায় এগুচ্ছে কানাডা

কোভিডের ভ্যাকসিনে কানাডা খানিকটা পিছিয়ে পরলেও যতোটা ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে সেগুলো অসাধারনভাবে কাজ করতে শুরু করেছে বলে পাবলিক হেলথ এজেন্সী জানাচ্ছে। গত নভেম্বরে যেখানে টরন্টোর লং টার্ম কেয়ারগুলোতে সংক্রমণের হার ছিল ১০.৯ শতাংশ।

ফেব্রুয়ারির দ্বিতীয় সপ্তাহ থেকে এই হার নেমে  এসেছে ০.৬ শতাংশে। সামগ্রিকভাবে টরন্টোর সংক্রমণের হার এখন ৪.৮ শতাংশ। সিটির সংক্রমণের হারের চেয়েও লং টার্ম কেয়ারগুলোয় সংক্রমণের হার উল্লেখযোগ্য পরিমাণে কমে এসেছে।  

আমরা জানি, কানাডায় কোভিডে মৃত্যু বা সংক্রমণের হারকে স্ফিত করেছে এই লং টার্ম কেয়ারগুলোই।

আরও পড়ুন:


আরও পড়ুন: তামিমাকে নিয়ে নাসিরের ‘ভয়’

কাল সকাল-সন্ধ্যা গ্যাস থাকবে না রাজধানীর যেসব এলাকায়

মসজিদে দাঁড়িয়ে কোরআন হাতে নিজেকে নির্দোষ দাবি করে সে

দু'নম্বরি করলে লুকিয়ে বিয়ে করতাম: নাসির (ভিডিও)

স্ত্রীকে নিয়ে কিছু বললে আইনগত ব্যবস্থা: নাসির


স্বাস্থ্য বিভাগ বলছে, লং টার্ম কেয়ারগুলোয় ভ্যাকসিন উৎসাজনক কাজ করছে।

কানাডা সারা দেশের লং টার্ম কেয়ার, হাসপাতালে কর্মরত স্বাস্থ্যকর্মীদের ভ্যাকসিন দেওয়া শেষ করে এখন আশি বছরের বেশি বয়সী সাধারণ নাগরিকদের ভ্যাকসিন দিতে শুরু করেছে। লং টার্ম কেয়ারে ভ্যাকসিনের এই সাফল্য স্বাস্থ্য বিভাগকে উৎসাহী করে তুলেছে।

কানাডার স্বাস্থ্য বিভাগ, আগামী সেপ্টেম্বর মাস থেকে সব ধরনের বিধি-নিষেধ তুলে নিয়ে স্বাভাবিক জীবনযাত্রা শুরুর  পরিকল্পনা নিয়ে এগুচ্ছে।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

নাসির ইস্যুতে আমার দুইটাই মন্তব্য

রাখী নাহিদ, নিউইয়র্ক

নাসির ইস্যুতে আমার দুইটাই মন্তব্য

নাসির ইস্যুতে আমার দুইটাই মন্তব্য, এক - ওর সমস্ত ফোন কনভারসেশন ফাঁস হয়ে যায়। এর থেকে বড় পেইন একটা মানুষের জীবনে আর কিছু হতে পারে না। সে না পারে মন খুলে প্রেম করতে; না পারে গালি দিতে। বেচারা দ্বিতীয় উল্লেখযোগ্য বক্তব্য ওনা আগে কালো ছিলো। এত ফর্সা হইসে কীভাবে ? কী ক্রিম মাখে?

আরও পড়ুন: তামিমাকে নিয়ে নাসিরের ‘ভয়’

কাল সকাল-সন্ধ্যা গ্যাস থাকবে না রাজধানীর যেসব এলাকায়

মসজিদে দাঁড়িয়ে কোরআন হাতে নিজেকে নির্দোষ দাবি করে সে

দু'নম্বরি করলে লুকিয়ে বিয়ে করতাম: নাসির (ভিডিও)

স্ত্রীকে নিয়ে কিছু বললে আইনগত ব্যবস্থা: নাসির

রাখী নাহিদ, নিউইয়র্ক (ফেসবুক থেকে)

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

যে কারণে আমি নিউইয়র্কে'র ‌‘দেশ’ পত্রিকা'য় লিখিনি

সালেম সুলেরী

যে কারণে আমি নিউইয়র্কে'র ‌‘দেশ’ পত্রিকা'য় লিখিনি

বিশ্বের রাজধানী-খ্যাত নিউইয়র্ক থেকে বেরুলো নতুন কাগজ। চকচকে নতুন একটি সাপ্তাহিক-- ‘দেশ’। এর উদ্যোক্তারা আমার একান্ত ঘনিষ্ঠ, সুহৃদ। অধিকাংশজন ছিলেন প্রবাসের প্রধান কাগজ ‘ঠিকানা’য়। আমিও একদা ‘বিশেষ সংবাদদাতা’ রূপে নিয়োগপত্র পেয়েছিলাম। দশক দশক সেই পর্যন্তই আছি অনিয়মিতরূপে।

নিউইয়র্কে ‘ঠিকানা’ বেরোয় প্রতি বুধবার। সাপ্তাহিক দেশ’-এর প্রকাশবারও ওই বুধবার। উদ্যোক্তাদের বলেছিলাম-- এই ঠোকাঠুকি কেনো? উত্তর দিয়েছিলেন উদ্যোক্তা মনজুর হোসেন। তিনি সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি। ঠিকানার সর্বশেষ পরিচালক, বাণিজ্য ছিলেন।

বললেন, ডাকযোগে পাঠালে শুক্রবার অন্য রাজ্যে পৌঁছায়। শনি-রবি ছুটিবারে মানুষ মন-মজিয়ে পড়তে পারে। তাছাড়া সোম-মঙ্গল কাজ সেরে রাতেই ছাপানো। বুধ-বৃহস্পতি-শুক্র-- বাজারজাতকরণ। বাণিজ্যিক বিকাশের জন্যে বুধবার প্রকাশনার বিকল্প নেই।

মনে মনে ঠিকানা'র ৩২ বছরের পুরনো উদ্যোগকে স্বাগত জানাই। কারণ ৩২ বছর আগেই ওনারা 'বুধবারে'র উপযোগিতা বুঝেছিলেন। একটি স্মৃতি বারবার চলকে ওঠে। ১৯৮৯-এর অক্টোবরে সম্ভাব্য সম্পাদক এম এম শাহীন বাংলাদেশে এলেন। ঢাকায় ‘হোটেল প্রীতম’ থেকে আমাকে ফোন দিলেন। আমি তখন সর্বাধিক প্রচারিত সাপ্তাহিক সন্দ্বীপের নির্বাহী সম্পাদক। বললেন-- নিউইয়র্ক থেকে ঢাকা এসেছি জরুরি কাজে। একটি সাপ্তাহিক পত্রিকা প্রকাশ করবো আমরা। নির্বাহী সম্পাদক কৌশিক আহমেদ একটি চিঠি দিয়েছেন। সেটি নিয়ে আপনার সঙ্গে মতবিনিময় করতে চাই। 

সেই যে এলেন, হৃদয়ের গহীনেই থেকে গেলেন। নিউইয়র্ক থেকে ঠিকানা বেরুলো ১৯৯০-এর ২১ ফেব্রুয়ারি। প্রায় দশ বছর পর মনজুরকে দেখি ঢাকাতেই। শাহীন সাহেবের ‘কাজিন ব্রাদার’ হিসেবে। নিউইয়র্কে  ঠিকানা’য় বিজ্ঞাপন বিভাগে কাজ করে। ঢাকায় জমায়েত হয়েছে বিবাহ উপলক্ষে। বঙ্গবন্ধুর বত্রিশ নম্বর-সংলগ্ন ‘সন্তুর’ রেস্টুরেন্টে। শাহীন সাহেবের মহান মাতা-- প্রিয়-শ্রদ্ধেয় খালাম্মাও ছিলেন। সেই থেকে অনুজ মনজুর সর্বদা আমার সুপ্রিয়জন।

মনজুরে'র শেষ ফোনটি পেলাম ২৩ ফেব্রুয়ারি'২১ সন্ধ্যায়। প্রকাশনা-প্রস্তুতিকালে অনেকবারই কথা হয়েছে। মনজুর জানালেন, কাজ প্রায় শেষ। 'সাপ্তাহিক দেশ' উদ্বোধনী সংখ্যা প্রেসে পাঠাচ্ছি। প্রায় ৩০০ পাতার আয়োজন, প্রবাসে রেকর্ড। ২০০৭-এ ঠিকানা করেছিলো ২৪০ পৃষ্ঠা। আমাদের 'দেশ'-এ প্রায় সব লেখাই নতুন। কোনরকম 'কাট এন্ড পেস্ট' না। প্রতিউত্তরে বললাম, অনেক অনেক শুভকামনা। 

না, এমন এক বিশাল বপুর আয়োজনে আমার লেখা নেই। আগেই বলেছিলাম-- থাকবে না। যুক্টিটি পূর্বে জানিয়ে দিয়েছিলামও। কারণ পত্রিকার নামটি মৌলিক নয়। সংবাদপত্র বা মিডিয়া একটি সৃষ্টিপ্রধান প্রতিষ্ঠান। এটি কেনো পুরনো বা নকল নাম ধারণ করবে? প্রথমত 'দেশ' শিল্প-সাহিত্যের অতীব পুরনো কাগজ। ভারতের পশ্চিমবঙ্গ থেকে শতাব্দী প্রাচীন ঐতিহ্যে লালিত। সারা পৃথিবীতেই এর প্রচার প্রসার। আশির দশকে আমরা এর আঙিনায় ঠাঁই নেই। গল্প-কবিতা-সাহিত্য সমালোচনা-- সবটাতেই কলমচারণা।

পাঠের শুরু মুক্তিযুদ্ধকালে ভারতের শরণার্থীকাল শৈশবে। ১৯৮৫-তে 'দেশ' কার্যালয়ে আমাদের প্রবেশ শুরু। ইত্তেফাক'র 'রোববার'-খ্যাত ফটোসাংবাদিক বাতেন সিরাজসহ। 'কবির লড়াই' প্রচ্ছদের তিন কুশীলবকে একযোগে প্রাপ্তি। সুনীল গাঙ্গুলী, শক্তি চট্টোপাধ্যায় আর শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়। তখন থেকেই সুসম্পর্ক সম্পাদক সাগরময় ঘোষের সঙ্গেও। কী বিশাল ভাবমূর্তির মানুষটির গোপন আকুলতা ভুলিনি। বলতেন, যে মাটিতে জন্মেছি তাতে তোমাদের বসবাস। কলকাতা এলেই দ্বিধাহীনভাবে চলে আসবে। তোমাদের নৈকট্য মানে জন্মমাটির গন্ধ, স্মৃতিপেলবতা। 'দেশ' নামটির ভেতর হারানো বাংলাদেশ'কেই খুঁজে ফিরি।

সেই 'দেশ' নামটিই কি নিউইয়র্কে চুরি হয়ে গেলো! না, মহান মাতৃভাষার মাসে আমি তাতে লিখতে পারিনি। হাজার লেখক এমন নৈতিকতা'র রোগে ভোগেন না। আমি আমার নীতিমালা নিয়ে একটু নিভৃতেই থাকি। সরকারি দলের পক্ষে থাকলে সরকারি পদক জোটে। শীর্য পর্যায় থেকে হাতছানি দেয় প্রলোভন। আমি বলি আমরা অস্তিত্ববাদী জ্যা পল সার্ত্রের ভক্ত। ১৯৬৪-তে নোবেল সাহিত্য পুরস্কার নিতে অস্বীকৃতি জানান। বলেছিলেন-- ওটা আমার কাছে এক বস্তা আলুর সমান। 

উল্লেখ্য, একটি প্রামাণ্য ইতিহাস আজ তুলে ধরি। দেশ-সম্পাদক সাগরময় ঘোষ ঢাকার একটি কাগজকেই সাক্ষাৎকার দিয়েছিলেন। সেটি আমার সম্পাদিত সাপ্তাহিক সন্দ্বীপে', ১৯৮৯-এ। নিয়েছিলো বর্তমানে 'এটিএন'-এ কর্মরত সুসাংবাদিক শহিদুল আজম। রাশভারী সাগরদা'র জন্ম বাংলাদেশের মেঘনা-সংলগ্ন চাঁদপুরে। পিতা কালীমোহন ঘোষের হাত ধরে চলে যান শান্তিনিকেতন। সেখানে, কলকাতায় লেখাপড়া, বিপ্লব, জেল খাটা। অতঃপর আনন্দবাজার গ্রুপে 'দেশ'-এ যোগদান। সম্পাদক ১৯৭৬ থেকে ১৯৯৭ সালে। পরকালে চলে গেলেন ১৯৯৯-এর ১৯ ফেব্রুয়ারি। ওনার বিদেহী আত্মা যেন আমাদের সাহিত্যজীবন পাহারা দিচ্ছে।

আমি নবম শ্রেণিতে মফস্বল সাংবাদিকতা শুরু করি। থানা প্রতিনিধি ছিলাম সাপ্তাহিক মুক্তিবাণী'র। আর সত্তর দশকের 'দৈনিক দেশ'-এর। দুটি কাগজ দুটি প্রধান রাজনৈতিক ধারায় বিভাজিত। একসঙ্গেই কাজ করেছি নিরপেক্ষতার পতাকা উড়িয়ে। আশির দশকে ঢাকার পূর্ণ-পেশাজীবনে মিডিয়াসরব ছিলাম। কিন্তু 'দেশ' নামাঙ্কিত কোনো মিডিয়ায় নয়।

প্রবাসের 'দেশ' পত্রিকাটির সাফল্য কামনা করি। যদিও নামের কারণে জন্মকালে আমাকে নাড়াতে পারেনি। কর্ম দিয়ে ভবিষ্যতে নাড়াবে আশা করি। সৈয়দ শামসুল হকের কাব্য ভাষায় তখন বলতে চাই--
তারে আমি কই জাদুকর,

যে তার রুমাল নাড়ে পরানের গহীন ভেতর!

নিউইয়র্ক,  ফেব্রুয়ারি ২০২১ 
 # [email protected]

মন্তব্য

পরবর্তী খবর