বছর জুড়েই বিশ্বব্যাপী মৃত্যুর মিছিল, ছিলো দুর্যোগও

নাহিদ জিহান

বছর জুড়েই বিশ্বব্যাপী মৃত্যুর মিছিল, ছিলো দুর্যোগও

২০২০ সাল! মহামারীর আতঙ্ক আর মৃত্যুর মিছিলে গোটাবিশ্বের মানুষ সারাবছর তটস্থ হয়ে রইলেও, থেমে থাকেনি প্রাকৃতিক দুর্যোগ কিংবা যুদ্ধের ঘনঘটা। কমতি ছিলো না জঙ্গি হামলারও।

চীন ও ইরানের সঙ্গে দ্বন্দ্বকে প্রায় যুদ্ধের দোরগোড়াতে পৌঁছে দিয়েছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। তবে বছর শেষে নির্বাচনে হেরে গিয়ে মসনদ ছাড়তে হয় জো বাইডেনের কাছে। সব মিলিয়ে বছরটা ভালো কাটেনি কারো। 

২০২০ সালের শুরুটাই ছিলো দাবানল দিয়ে। অস্ট্রেলিয়া এবং যুক্তরাষ্ট্রের ভয়াবহ দাবানলের পর বছর জুড়েই একের পর এক আঘাত হানে শক্তিশালী ঝড়, জলোচ্ছ্বাস, বন্যা আর ভূমিকম্প। আর বছরের সবচেয়ে বড় দুর্ঘটনাটি ঘটে আগস্ট মাসে লেবাননের বৈরুত। মজুদকৃত রাসায়নিকের গুদামে বিস্ফোরণে নিমেষেই ঝড়ে যায় দুই শতাধিক প্রাণ। আহত হয় সাড়ে ছয় হাজার মানুষ।

এ বছর মার্কিন নির্বাচন নিয়ে ছিলো সবার আগ্রহ। ৩ নভেম্বরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে, মার্কিনীরা ডোনাল্ড ট্রাম্পকে মাত্র এক মেয়াদে রেখে পরিবর্তনের আশায় বেছে নিয়েছে ডেমোক্রেট জো বাইডেনকে। তবে এই নির্বাচনের পূর্বেই কৃষ্ণাঙ্গদের আন্দোলনে উত্তাল হয়ে উঠেছিলো গোটা দেশ। অন্যদিকে ক্ষমতায় থাকাকালীন এ বছর প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সেরা অর্জনের মধ্যে ছিলো আরব দেশগুলোর সঙ্গে ইসরায়েলের সম্পর্ক স্বাভাবিক করা।

ইরানের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের বিরোধ অনেকটাই যুদ্ধপর্যায়ে পৌছে যায় যখন, বছরের শুরুতে হত্যা করা হয় শীর্ষ সেনা কর্মকর্তা কাশেম সোলেমানিকে। আর বছরে শেষে নভেম্বরে ইরান আবারো হারায় তাদের শীর্ষ পরমাণু বিজ্ঞানী মোহসেন ফাখরিজাদেহকে। এসবের মাঝেই জো বাইডেন পরমাণু চুক্তিতে আবারো ফিরে যাবার প্রতিশ্রুতি দিলেও, তা আর মেনে নিতে রাজি হচ্ছে না তেহরান। তবে ইরানের উপর নিষেধাজ্ঞা তুলে দেয়াটাই সবদিক থেকে সমুচিত বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।


আরও পড়ুন: ব্যাংক লেনদেন টানা তিনদিন বন্ধ


মহামারীর এমন বছরেও থেমে ছিলো না যু্দ্ধবিগ্রহ। লাদাখ সীমান্তে গালওয়ান উপত্যকার দখল নিয়ে ভারত-চীন সংঘাত থেকে শুরু করে নাগোরনো-কারবাখকে নিয়ে আর্মেনিয়া-আজারবাইজান যুদ্ধে বহু মানুষের প্রাণ গেছে। এর উপর বিভিন্ন দেশে অব্যাহত ছিলো সন্ত্রাসী হামলা। যার মধ্যে সবাইকে হতবিহ্বল করে দেয় নাইজেরিয়ার বোকো হারাম জঙ্গীদের হাতে প্রায় দুশো মানুষের হত্যার খবর।

এছাড়া মহামারী প্রতিরোধে ব্যর্থতাসহ নানা ইস্যুতে সরকার বিরোধী আন্দোলনও ছিলো বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে। এরমধ্যে ফ্রান্সের ম্যাক্রো সরকারের নানা বিতর্কিত পদক্ষেপ আর হংকং-এ নিরাপত্তা আইন বিল নিয়ে জনগণ তীব্র প্রতিক্রিয়া জানায়। আর বছর শুরুতেই সিএএ নিয়ে এই দশকের ভয়াবহতম সাম্প্রদায়িক দাঙ্গার ঘটনা ঘটে ভারতে। বছর শেষেও বিতর্কিত কৃষি আইন নিয়ে আন্দোলনে গোটা দেশের কৃষকরা দিল্লী ঘেরাওসহ আন্দোলন অব্যাহত রেখেছে।

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

ভেজাল ওষুধে সয়লাব বাজার, কোটি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে অসাধু চক্র

ফখরুল ইসলাম

গ্যাস্ট্রিক থেকে মুক্তি পেতে আপনি যে সেকলো নামের ওষুধ খান, তা কি আসল ব্র্যান্ডের? কিংবা একই রোগের এন্টাসিড সিরাপ ভেজাল নয় তো? বাজারে এমন চাহিদা সম্পন্ন বেশ কিছু ওষুধ নকল করে কোটি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে বিশেষ চক্র। আছে ইউনানী ওষুধের লাইসেন্স নিয়ে এ্যালোপ্যাথি ওষুধ বানানোর হিড়িকও। মেশাচ্ছে রং ও ঘণচিনি। এসব ওষুধই ছড়াচ্ছে অলিগলি কিংবা প্রত্যা্ন্ত অঞ্চলের ফার্মেসীগুলোয়। যা স্বাস্থ্যঝুঁকি বাড়াচ্ছে ভোক্তাদের।

ওষুধ। জীবনরক্ষা করে। মানুষকে মুক্তি দেয় অসুস্থ্যতা থেকে।

রোগ সংক্রমণের ব্যাপকতায় বেশ কিছু ওষুধের চাহিদাও বাজারে বেশ। গ্যাস্ট্রিক, প্রেসার ডায়াবেটিস, কিডনী রোগের ওষুধ অন্যতম।


আবাসিক হোটেলে অনৈতিক কর্মকাণ্ড, ধরা ২০ নারী

চুমু দিয়ে নারীদের সব রোগ সারিয়ে দেন ‘চুমুবাবা’

বুবলিকে ধাক্কা দেওয়া গাড়িটি ছিল ব্ল্যাক পেপারে মোড়ানো, ছিল না নম্বর প্লেট

অস্ত্রের মুখে ছাত্রীকে বিবস্ত্র করে ভিডিও ধারণের পর দফায় দফায় ধর্ষণ


অতি মুনাফার লোভে এইসব ওষুধই নকল করছে জালিয়াত চক্র। নিউজ টোয়েন্টিফোরের অনুসন্ধান সাভারের  এই কারখানায়। বাজারের চাহিদাবহুল ওমিপ্রাজল গ্রুপের গ্যাস্ট্রিকের ওষুধটি গোপনে মোড়ক নকল করে বানাচ্ছে কারখানাটি।

যেটি আবার একটি চক্রের মাধ্যমে ছড়িয়ে দিচ্ছে সারাদেশের ফার্মেসীগুলোতে।

শুধু সাভারেই নয় দেশে  ওষুধের সবচেয়ে বড় বাজার মিটফোর্ডেও অসাধুচক্র অতিলোভে জীবনরক্ষাকারী ওষুধটি ভেজাল করতে ছাড়েনি। এখানেও ওমিপ্রাজল গ্রুপের এই সেকলো নকল করছে জালিয়াতচক্র। ওষুধটির হালকা প্রিন্টের মোড়ক দেখেই বুঝা যায় নকলের চিহ্ন। শুধু সেকলো নয় নকল করছে এমন আরো বহু ব্র্যান্ডের ওষুধ।

শুধু নকল নয় সাভারের এই ইউনানী লাইসেন্সধারী কোম্পানীটি ক্ষতিকর রং ও নিষিদ্ধ ঘণচিনি মিশিয়ে বানাচ্ছে এ্যলোপ্যাথি ওষুধ। ক্যাপসুল বানাতেও বেশ দক্ষ কোম্পানীটি। পাশের আরেক ইউনানী কোম্পানীতো এন্টাসিড সিরাপসহ বানাচ্ছে নানা রকমের ওষুধ।

আইনশৃঙ্খলাবাহিনী বিভিন্ন সময়ে অভিযানে ভেজাল ওষুধ সিন্ডিকেটের একাদিক সদস্যকে আটক করে। যৌথ অভিযান চালায় ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরও। ওষুধ প্রশাসনের পরিসংখ্যান বলছে গত একবছরে ভেজাল ওষুধ প্রস্তুতের দায়ে জেল দিয়েছে ৫৭ জনকে।

ভেজাল ওষুধে স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে ভোক্তারা। তাই ভেজাল ওষুধ ও বাড়তি দামের বিরুদ্ধে জোরদার অভিযানের দাবি তাদের।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

মৌলিক অধিকার থেকেও বঞ্চিত তারা পথশিশু

নিজস্ব প্রতিবেদক

নেই সামাজিক পরিচয়। মৌলিক অধিকার থেকেও বঞ্চিত। এরপরও সমাজের একশ্রেনীর মানুষ স্বপ্নদেশে বড় কিছুর। তারা পথশিশু। এদের কেউ হতে চায় ডাক্তার, কেউ পাইলট, কেউ বা খুঁজছে মায়ের স্বপ্ন পূরণের পথ। আর এজন্য সরকারের পাশাপাশি সমাজের সবার সহযোগীতা চায় তারা। 

বাস্তবতা যাই হোক চঞ্চল এই প্রাণগুলোর চোখেও স্বপ্ন খেলে। সুনাগরিক হিসেবে একদিন দেশকে নেতৃত্ব চায় সমাজের সুবিধা বঞ্চিত এ শিশুরা। যাদের নেই কোন সামাজিক পরিচয়, পূর্ণ হয় না মৌলিক অধিকারটুকুও।

শুক্রবার দুপুরে জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বি মিয়ার আমন্ত্রণে সমাজের সুবিধাগুলো থেকে বঞ্চিত এই শিশুরা আসে তার সরকারি বাসভবনে অতিথি হয়ে। মূহূর্তেই মুখরিত হয় উঠে পুরো প্রাঙ্গণ।


ফেঁসে যাচ্ছেন নাসিরের স্ত্রী তামিমা!

অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণ

দেশে ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যু- শনাক্তের সর্বশেষ তথ্য

মুরগির দাম বেড়েছে কেজিতে ১০ টাকা


মধ্যাহ্ন ভোজের আগে কোমলমতি ছিন্নমূল শিশুদের সুন্দর ভবিষ্যত কামনায় প্রার্থনা করেন ডেপুটি স্পিকার।

আর সমাজের সব পর্যায় থেকে বিন্দু বিন্দু সহযোগীতা এসব শিশুর ভবিষ্যত নিশ্চিত করতে পারে, মনে করেন তাদের নিয়ে কাজ করা স্বেচ্ছাসেবীরা।

ছায়াতল বাংলাদেশ নামের সংগঠন বর্তমানে পাঠদানে কাজ করছে এমন শতাধিক পথশিশুর।

news24bd.tv / কামরুল 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের দাবি

মাহমুদুল হাসান

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের দাবি

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ইস্যুতে প্রতিবাদ থেমে নেই। বিক্ষোভ মিছিল করে এই আইন বাতিলের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি। একই বিষয়ে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, কেউ যাতে এ আইনের অপপ্রয়োগ করতে না পারে সে বিষয়ে সরকার সতর্ক। 

আর আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলছেন, এই আইনে কোন সংশোধন বা পরিবর্তন আসবে কিনা তা জানতে অপেক্ষা করতে হবে আরো কিছুদিন। 

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় কারাগারে আটক লেখক মুশতাক আহমেদের মৃত্যুর পরই জোরালো হয় আইন বাতিলের দাবি। এরই মধ্যে বাতিলের পক্ষে রাজপথে নেমেছে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও সংগঠন।

শুক্রবারও রাজধানীতে বিক্ষোভ মিছিল করে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি। পরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে সমাবেশ করে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের দাবি জানায় তারা।

এ আইনে কোন পরিবর্তন হবে কিনা সে বিষয়ে আরো কিছুদিন ধৈরর্য্যন ধরতে বলেছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। সকালে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে এ কথা বলেন তিনি।


আমি সত্যের পক্ষে থাকব, সত্যেও কথা বলব: এমপি একরাম

তৃতীয় লিঙ্গের অধিকার রক্ষা; সাহসী উদ্যোগ বৈশাখী টিভির

দলের শৃঙ্খলা ভঙ্গে ছাড় দেবে না আওয়ামী লীগ: হানিফ

যে কারণে বুড়ো সাজলেন রনবীর


নিজ বাসভবনে এক ভার্চুয়ালি ব্রিফিংয়ে একই বিষয়ে কথা বলেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরও। জানান,  আইনের অপব্যবহার রোধে সরকার সতর্ক। 

বিএনপি আরেকটি ১৫ই আগস্ট ঘটানোর ষড়যন্ত্রে লিপ্ত বলেও অভিযোগ করেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক।

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

দলের শৃঙ্খলা ভঙ্গে ছাড় দেবে না আওয়ামী লীগ: হানিফ

তৌফিক মাহমুদ মুন্না

দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেবে আওয়ামী লীগ। নিউজ টোয়েন্টিফোরকে দেওয়া বিশেষ সাক্ষাৎকারে এ কথা জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব উল আলম হানিফ। বলেন পৌর নির্বাচনে যারা দলের সিদ্ধান্ত অমান্য করে বিদ্র্রোহী ছিল দলে তাদের কঠোর শাস্তি আওতায় আনা হবে।

সদ্য সমাপ্ত দেশের পাচটি ধাপে ২৩০ টি পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ১৮৫, টিতে জয়লাভ করে । যেখানে স্বতন্ত্র হিসেব ৩ জায়গায় বিজয়ী হয়। যার অধিকাংশই আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী। যাদের মদদ দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে সরকারের প্রতিমন্ত্রী, এমপি এমনকি জেলার শীর্ষ নেতাদের বিরুদ্ধেও।

যে বা যারা দলের সিদ্বান্তের বাইরের যেয়ে নির্বাচনে অংশ নিয়েছে এবং বিদ্রোহীদের পক্ষে দলের যেসব নেতা কর্মীরা কাজ করেঝে তাদের ব্যাপারে কঠোর শাস্তির নেওয়া হবে।

আওয়ামী লীগের এই যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক দলের শৃঙ্খলার ব্যাপারে কঠোর হুঁশিয়ারি দিয়ে দলীয় প্রতীকে আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন নিয়ে বলেন বিগত নির্বাচনে যারা দলের সিদ্বান্ত মানেননি তারা মনোনয়ন পাবেন না ।


আবাসিক হোটেলে অনৈতিক কর্মকাণ্ড, ধরা ২০ নারী

চুমু দিয়ে নারীদের সব রোগ সারিয়ে দেন ‘চুমুবাবা’

বুবলিকে ধাক্কা দেওয়া গাড়িটি ছিল ব্ল্যাক পেপারে মোড়ানো, ছিল না নম্বর প্লেট

অস্ত্রের মুখে ছাত্রীকে বিবস্ত্র করে ভিডিও ধারণের পর দফায় দফায় ধর্ষণ


সম্প্রতি বিএনপির ৭ মার্চ পালন নিয়ে হানিফ জানান, দীর্ঘদিন পর বিএনপির এমন কর্মকাণ্ড কূটকৌশলের অংশ।

বিএনপি নেতাদের করোনা টিকা গোপনে না নিয়ে প্রকাশ্যে নেওয়ার আহবান জানান মাহাবুব উল আলম হানিফ।

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

মহাখালী বাসস্ট্যান্ডে সারারাতই থাকে ছিন্নমূল মানুষের আনাগোনা

মাসুদা লাবনী

মহাখালী বাসস্ট্যান্ডে সারারাতই থাকে ছিন্নমূল মানুষের আনাগোনা

রাজধানীর মহাখালী বাসস্ট্যান্ড। যেখানে যাত্রী, বাস মালিক, দোকানী থেকে শুরু করে শ্রমিক কিংবা ভিক্ষুকের আনাগোনাই বেশি। দিনভর এমন চিত্র থাকলেও, রাত যতই গভীর হয়, সেখানকার স্বাভাবিক দৃশ্যপটে যোগ হয়, অনেক ছিন্নমূল মানুষ। মধ্য কিংবা গভীর রাতে, যাত্রী সংথ্যা কম থাকলেও, ঢাকায় ফেরা মানুষের তুলনায়, ঘরমুখী মানুষের উপস্থিতিই বেশি।

কেউ কেউ এই বাসস্ট্যান্ডের অস্থায়ী ঘরের স্থায়ী বাসিন্দা। কেননা জাদুর এই শহরে নেই, স্থায়ী বসবাসের ঘর। জীবিকার তাগিদে তাই এমন রাত্রি যাপন। কষ্টকর হলেও প্রিয়জনের জন্য, এই জীবনযাপন অনেকের কাছেই হয়ে গেছে স্বাভাবিক।

আরও পড়ুন:


২৫শে মার্চের ভয়াবহ সেই রাতের বর্ণনা দিলেন মওদুদ (ভিডিও)

ঢাকা বিএনপি: ব্যর্থতার কারণ সাংগঠনিক দুর্বলতা

পৌর নির্বাচনে বিদ্রোহীদের জন্য আসছে কঠোর শাস্তি

পরীক্ষার নামে ডাকাতি করছে বেসরকারি হাসপাতাল


রাতে মানুষের আনাগোনা কম থাকলেও, কর্মজীবী মানুষ থেকে শুরু করে শ্রমজীবী মানুষ, অনেকেই দিন শেষে  ছোটেন প্রিয়জনের কাছে।

এখানে প্রায় ভোর রাত পযন্ত থাকে, বাড়ি ফেরা মানুষ পদচারণা, আর বৃহস্পতিবার রাতে সেই সংখ্যাটা অন্যান্য রাতের চেয়ে কিছুটা বেশি। ঘড়ির কাটায় সময় গড়িয়ে রাত শেষে প্রায় ভোর হয়, কিন্তু কিছু কর্মজীবী মানুষের কর্মব্যস্ততা, থেকেই যায়, জেগে থেকে সামলান দোকান। কেননা ক্রেতাদের আনাগোনা থেকে যায়।

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর