‘প্রবেশ নিষেধাজ্ঞা’ প্রত্যহারে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চলাচল শুরু সৌদিতে
‘প্রবেশ নিষেধাজ্ঞা’ প্রত্যহারে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চলাচল শুরু সৌদিতে

‘প্রবেশ নিষেধাজ্ঞা’ প্রত্যহারে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চলাচল শুরু সৌদিতে

অনলাইন ডেস্ক

করোনাভাইরাসের অতি সংক্রামক নতুন ধরন ঠেকাতে আরোপ করা ‘প্রবেশ নিষেধাজ্ঞা’ তুলে নিয়েছে সৌদি আরব। রোববার থেকে সাগর, স্থল ও আকাশপথে ফের দেশটিতে প্রবেশ করা যাবে বলে সৌদি আরবের রাষ্ট্রায়ত্ত বার্তা সংস্থা (এসপিএ) জানিয়েছে। রোববার (৩ জানুয়ারি) স্থানীয় সময় বেলা ১১টায় দেশটিতে পুনরায় আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চলাচল শুরু হবে বলে দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে জানিয়েছে।

আরব নিউজ জানায়, যুক্তরাজ্যে করোনার নতুন ধরন শনাক্তেরে পর গত ২০ ডিসেম্বর অন্য দেশ থেকে সড়ক, নৌ ও আকাশপথে সব ধরনের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দেয় সৌদি সরকার।

এই কয়দিন অতিবাহিত হওয়ার পর আজ থেকে সেই নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা। তবে করোনার নতুন ধরনের সংক্রমণ রুখতে বেশকিছু শর্ত জুড়ে দিয়ে ভ্রমণ নিষেধজ্ঞা তুলে নেয়া হয়েছে।

সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, যুক্তরাজ্য, দক্ষিণ আফ্রিকাসহ অন্যান্য যেসব দেশে করোনার নতুন ধরন শনাক্ত হয়েছে, সেসব দেশ থেকে সৌদি নাগরিক নন এমন কেউ সৌদি আরবে আসতে চাইলে কমপক্ষে ১৪ দিন অন্যকোনো দেশে অবস্থান করে তারপর সৌদি আরবে ঢুকতে হবে। এরপর ১৪ দিন পার হলে তারা করোনামুক্ত কিনা তা প্রমাণ করতে পিসিআর টেস্টের ফলাফল লাগবে।

এরপরও নতুন ধরন শনাক্ত হওয়া দেশ থেকে কেউ সৌদি আরব আসলে তাদের বাড়িতে সাত দিনের পর্যব্ক্ষেণে রাখা হবে। এছাড়া ছয় দিনের মাথায় তাদের পিসিআর টেস্ট করাতে হবে।


মোবাইল আসল কি নকল যেভাবে যাছাই করবেন

পর্যটন কর্পোরেশনকে গ্রাহকদের আস্থা অর্জন করতে হবে : পর্যটন প্রতিমন্ত্রী


 

 

এছাড়া সৌদি নাগরিক যাদের মানবিক বা জরুরিভাবে প্রবেশের অনুমতি দেয়া হবে, তাদের সৌদি আরবে এসে কমপক্ষে ১৪ দিন বাড়িতে পর্যবেক্ষণে থাকতে হবে। তাদের দুইবার পিসিআর টেস্ট করাতে হবে। প্রথমবার সৌদি প্রবেশের ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে এবং দ্বিতীয়বার কোয়ারেন্টাইন শেষ হওয়ার ১৩ দিনের মাথায়।

এছাড়া যেসব দেশে করোনার নতুন সংক্রমণ ধরা পরেনি যেসব দেশের ক্ষেত্রে পূর্বের সতর্কতা বহাল থাকবে। তাদেরকে সৌদি প্রবেশের পর সাত দিনের বা তিন দিনের হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। এছাড়াও তাদের পিসিআর টেস্ট করাতে হবে।

গত মাসে যুক্তরাজ্যে প্রথম শনাক্ত হয় করোনার নুতন স্ট্রেইন(ধরন)। করোনর এই নতুন ধরন উচ্চ মাত্রার সংক্রমিত হওয়ায় তা নিয়ে চিন্তিত বিশ্ববাসী। ইতোমধ্যে যুক্তরাজ্য ছাড়াও ফ্রান্স, সুইডেনসহ ইরোপের অন্যান্য দেশ ও জাপান, দক্ষিণ আফ্রিকা, জর্ডান, কানাডা এবং ভারতে এই নতুন ধরন শনাক্ত হয়েছে বলে জানা গেছে।

দেশটিতে করোনার টিকা প্রদান শুরু হয়েছে। বর্তমানে সৌদিতে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা কমে আসছে এবং মৃত্যুও হ্রাস পাচ্ছে।   শনিবার সেখানে মাত্র ১০২ জন নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে, যা গত নয় মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন। দেশটিতে এ পর্যন্ত করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন ৩ লাখ ৬২ হাজার ৪৮৮জন। মোট মৃত্যু হয়েছে ৬ হাজার ২৩০ জনের।

news24bd.tv/আলী