নিয়ন্ত্রণে আসেনি কনকা কারখানার আগুন

অনলাইন ডেস্ক

নিয়ন্ত্রণে আসেনি কনকা কারখানার আগুন

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে টিভি, ফ্রিজ ও এয়ারকন্ডিশন কারখানা কনকা ইলেকট্রনিকস ফ্যাক্টরিতে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। রবিবার বেলা পৌনে ১১টার দিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পাশে টিপরদী রতনদী এলাকায় অবস্থিত ওই কারখানায় আগুন লাগে। আগুন নিয়ন্ত্রণে সোনারগাঁওসহ বিভিন্ন এলাকার ১২টি ফায়ার সার্ভিস ইউনিট কাজ করছে।

এদিকে অগ্নিকাণ্ডের পর ৪ ঘণ্টা অতিবাহিত হলেও দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত আগুন নিয়ন্ত্রণে আসার কোনো সংবাদ পাওয়া যায়নি।

শ্রমিকরা জানান, সকালে কাজে যোগদান করার পরপরই আগুন লাগে। এতে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ অনেক। শ্রমিকরা একজন আহত হওয়ার খবর জানালেও কেউ নিশ্চিত করতে পারেনি।

ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের নারায়ণগঞ্জের উপ-পরিচালক আব্দুল্লাহ আল আরেফীন জানান, খবর পেয়ে আমরা দ্রুত ঘটনাস্থলে কাজ শুরু করেছি। তবে প্রধান ফটক নির্মাণাধীন থাকায় ভেতরে প্রবেশে আমাদের বেগ পেতে হচ্ছে। আমরা চেষ্টা করে যাচ্ছি আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার। আগুনের সূত্রপাত ও ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ তাৎক্ষকণিকভাবে জানানো সম্ভব হচ্ছে না। তবে কারখানার এক পাশের আগুন নিয়ন্ত্রণে এসেছে, চলছে ডাম্পিং।

সোনারগাঁ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম জানান, আগুন এখনও নিয়ন্ত্রণে আসেনি, তবে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। স্থানীয়রাও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীদের সহায়তা করছেন। মানুষের অতিরিক্ত ভিড় সামলাতে পুলিশ কাজ করছে।

সোনারগাঁও ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের ইনচার্জ সুজন কুমার হাওলাদার জানান, ঘটনাস্থালে সোনারগাঁও, বন্দর, ডেমরা স্টেশনের ১২টি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে চেষ্টা করছে। তবে এখনও পর্যন্ত হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। আমরা কাজ করছি।

এলাকাবাসী জানান, সকাল শ্রমিকেরা যখন কাজে যোগদান করছিল তখন কারখানার তৃতীয় তলায় এসি মেরামতের রুমে আগুনের সূত্রপাত হয়। আর মুুহূর্তে তা চারদিকে ছড়িয়ে পড়ে। পরে শ্রমিকেরা দৌড়ে কারখানা থেকে বের হয়ে আসে। তবে কেউ ভেতরে আটকে আছে কিনা জানা যায়নি। তাছাড়া আগুন কীভাবে লেগেছে কেউ কিছু বলতে পারেনি।

‘প্রবেশ নিষেধাজ্ঞা’ প্রত্যহারে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চলাচল শুরু সৌদিতে

মোবাইল আসল কি নকল যেভাবে যাছাই করবেন

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে যাচ্ছেন চার বাংলাদেশি নারী বিচারক

নিজস্ব প্রতিবেদক

জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে যাচ্ছেন চার বাংলাদেশি নারী বিচারক

প্রথমবারের মতো জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে যাচ্ছেন দেশের চার নারী বিচারক। তারা হলেন- মুন্সীগঞ্জের যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ আফসানা আবেদীন, টাংগাইলের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নওরিন মাহবুবা, কক্সবাজার জেলার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনালের বিচারক (জেলা জজ) জেবুন্নাহার আয়শা এবং জামালপুরের যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ লুবনা জাহান।

তাদের চারজনের মধ্যে তিনজন দক্ষিণ সুদানে অবস্থিত জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে (ইউএনএমআইএসএস) এবং অন্যজন সোমালিয়ায় অবস্থিত জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে (ইউএনএসওএম) যোগ দেবেন। 

আজ আইন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য অফিসার ড. রেজাউল করিমের সই করা সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, চার বিচারকের মধ্যে মুন্সীগঞ্জের যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ আফসানা আবেদীন ও টাঙ্গাইলের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নওরিন মাহবুবা সোমবার (৮ মার্চ) সকাল সাড়ে ১০টায় দক্ষিণ সুদানের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করবেন। কক্সবাজার জেলার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক (জেলা জজ) জেবুন্নাহার আয়শা আগামী ১৯ মার্চ দক্ষিণ সুদানের উদ্দেশে এবং জামালপুরের যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ লুবনা জাহান আগামী ১৫ মার্চ সোমালিয়ার উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করবেন।

এ উপলক্ষে রবিবার সন্ধ্যায় সচিবালয়ে আইন ও বিচার বিভাগের সচিব গোলাম সারওয়ার তাদের বিদায়ী শুভেচ্ছা জানান। এ সময় এই বিভাগের যুগ্ম সচিব বিকাশ কুমার সাহাসহ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।   

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, তারা সেখানে ‘রুল অব ল অ্যাডভাইজরি’ শাখায় এক বছর প্রেষণে ‘জাস্টিস অ্যাডভাইজার’ হিসেবে বিচার ব্যবস্থার পুনর্গঠন ও উন্নয়নে কাজ করবেন। এ জন্য বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের সঙ্গে পরামর্শক্রমে আইন ও বিচার বিভাগ থেকে গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ও ১ মার্চ পৃথক তিনটি প্রজ্ঞাপনে উল্লিখিত চার জন বিচারককে আইন ও বিচার বিভাগে সংযুক্ত করা হয়।


শত বিঘায় শস্যচিত্রে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি

৩৩৭ জনকে উপসচিব পদে পদোন্নতি

আটকে গেল ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার লড়াই

শিক্ষার্থীকে পিটিয়ে জখম মাদ্রাসার শিক্ষক প্রেপ্তার


এ বিষয়ে আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক বলেন, ‘আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে তথা জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে নারী বিচারকদের এই অংশগ্রহণ নিঃসন্দেহে বাংলাদেশের বিচার বিভাগের জন্য একটি মাইলফলক।’ 

তিনি আশা প্রকাশ করেন, বিশ্ব শান্তি ও মানবাধিকার সুরক্ষায় বাংলাদেশের নারী বিচারকরা তাদের যোগ্যতা ও দক্ষতা দিয়ে বাংলাদেশের সুনাম বয়ে আনবেন।

আইন ও বিচার বিভাগের সচিব গোলাম সারওয়ার বলেন, ‘৮ মার্চ বিশ্ব নারী দিবস। এই দিবসে দুই জন নারী বিচারকের জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে যোগদান বাংলাদেশের বিচার বিভাগের জন্য বিশাল প্রাপ্তি।’ তিনি আশা প্রকাশ করেন, জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে বাংলাদেশি নারী বিচারকের অংশগ্রহণের মাধ্যমে বিশ্ব শান্তি রক্ষা কার্যক্রম আরও মজবুত হবে।

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

ঝিনাইদহে স্বেচ্ছাসেবক দলের বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ

শেখ রুহুল আমিন , ঝিনাইদহ

ঝিনাইদহে স্বেচ্ছাসেবক দলের বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ

কারাবন্দি লেখক ও সাংবাদিক মুশতাক আহমদ’র মৃত্যু এবং বোরহান উদ্দিন মুজাক্কির হত্যার প্রতিবাদে ঝিনাইদহে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের আয়োজনে আজ সকালে শহরের আরাপপুর মুক্তিযোদ্ধা মশিউর রহমান মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের সামনে থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিন করে ঝিনুক চত্বর গিয়ে শেষ হয়। 


নারীর সঙ্গে সময় কাটানো সেই তুষার এখনো কাশিমপুর কারাগারেই

জিয়ার খেতাব বাতিলের বিষয়ে যা বললেন মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী

পরমাণু সমঝোতায় আমেরিকার অবস্থান জানতে জরুরী বৈঠকে বসার আহ্বান

মিয়ানমারে গণতন্ত্র ফেরাতে নিরাপত্তা পরিষদকে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার আহ্বান


পরে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে জেলা সেচ্ছাসেবক দলের সাংগঠনিক সম্পাদক শফিকুল ইসলাম শফিসহ অন্যান্যরা বক্তব্য রাখেন। এসময় বক্তারা, মুশতাক আহমেদ ও বোরহান উদ্দিন মুজ্জাক্কির হত্যা পরিকল্পিত উল্লেখ করে দ্রুত হত্যাকারীদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনার দাবি জানান।

news24bd.tv/আয়শা
 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

রাঙামাটির সাংবাদিক জামাল হত্যা মামলায় তদন্তে ব্যর্থ প্রশাসন

ফাতেমা জান্নাত মুমু, রাঙামাটি

রাঙামাটির সাংবাদিক জামাল হত্যা মামলায় তদন্তে ব্যর্থ প্রশাসন

রাঙামাটির অন্যতম আলোচিত সাংবাদিক জামাল হত্যাকান্ডের মামলার তদন্তে ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছে প্রশাসন বলে অভিযোগ করেছেন গণমাধ্যাম কর্মীরা। তারা বলেন, দীর্ঘ ১৪ বছর পেরিয়ে ১৫ বছরে পর্দাপণ করলো সাংবাদিক জামাল হত্যার দিন। কিন্তু এতো বছরেও সাংবাদিক জামাল হত্যার বিচার করতে পারেনি প্রশাসন।

শুধু তাই নয়, বার বার তদন্তেও ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছে তারা। সাংবাদিক জামাল হত্যার বিচার না হওয়ার কারণে প্রশাসনের উপর আস্থাহীনতায় পরেছে রাঙামাটির গণমাধ্যম কর্মীরা। নিরপেক্ষ তদন্তের মধ্যে দিয়ে খুনিদের বিচারের আওতায় আনার জন্য সরকার ও প্রশাসনের কাছে জোর দাবি জানায় তারা। 

শনিবার শহরের জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে চত্বরে রাঙামাটি প্রেস ক্লাবের উদ্যোগে আয়োজিত সাংবাদিক জামাল হত্যার বিচারের দাবিতে মানববন্ধনে গণমাধ্যম কর্মীরা এসব কথা বলেন। 

রাঙামাটি প্রেসক্লাবের সভাপতি সুশীল প্রসাদ চাকামরা সভাপতিত্বে এতে বক্তব্য রাখেন, সাংবাদিক নন্দন দেবনার্থ, সাংবাদিক মিল্টন বড়ুয়া, সাংবাদিক সৈকত রঞ্জন বড়ুয়া প্রমুখ। 

মানববন্ধনে গণমাধ্যম কর্মীরা অভিযোগ করে আরও বলেন, যেদিন পুলিশ জামালের রক্তাত্ব লাশ উদ্দার করেছিল সেদিন সুরতহাল রিপোর্টেও তার শরীরের ক্ষতবিক্ষত চিহ্নও উল্লেখ্য করা হয়। এতে প্রমাণ হয় কিভাবে ওই খুনিরা তাকে কতটা কষ্ট দিয়ে হত্যা করেছে।


‘চুম্বন বা অন্তরঙ্গ দৃশ্যয়নের আগে একান্তে সময় কাটাই’

শেবাগ-শচিনের জুটিই হারিয়ে দিল বাংলাদেশকে

মন্ত্রী ও বিধায়ককে বাদ দিয়ে প্রার্থী চূড়ান্তে মমতার চমক!

শনিবার ঢাকার যে এলাকায় যাবেন না


এর পরও প্রশাসন কেন বার বার তদন্তে ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছে সে প্রশ্নের উত্তর কে দিবে? সাংবাদিক হত্যার বিচার নাওয়া হওয়ার কারণে দেশের সাংবাদিকরা নিরাপত্তাহীন। 

বার বার হত্যা, নির্যাতন, গুমের শিকার হচ্ছে গণমাধ্যমকর্মীরা। রাঙামাটির সাংবাদিক জামালসহ সকল সাংবাদিক হত্যা নির্যাতণের বিচার করা না হলে প্রশাসনের উপর আস্থাহীনতায় পরবে গণমাধ্যম। অবিলম্বে সাংবাদিক জামাল হত্যার বিচারের দাবি জানান গণমাধ্যম কর্মীরা। 

প্রসঙ্গত, ২০০৭ সালে ৫ মার্চ নিখোঁজ হয় রাঙামাটির সাংবাদিক মো. জামাল উদ্দীন। এরপর ৬ মার্চ রাঙামাটি পর্যটন এলাকার হেডম্যান পাড়ার জঙ্গলে তার রক্তাত্ব মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। সাংবাদিক জামাল সে সময় পার্বত্যাঞ্চলের একজন সাংবাদিক ছিলেন। তিনি মৃত্যুর আগ পর্যন্ত দৈনিক বর্তমান বাংলা, বার্তা সংস্থা আবাস ও বেসরকারি টেলিভিশন এনটিভিতে কর্মরত ছিলেন। 

news24bd.tv/আয়শা

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

শনিবার ঢাকার যে এলাকায় যাবেন না

অনলাইন ডেস্ক

শনিবার ঢাকার যে এলাকায় যাবেন না

রাজধানীর বিভিন্ন এলাকার মার্কেট সপ্তাহের ভিন্ন ভিন্ন দিনে বন্ধ থাকে। তাই কোথাও যাওয়ার পরিকল্পনা থাকলে আগে জেনে নিন। আজ শনিবার রাজধানীর কোন কোন এলাকার দোকানপাট ও মার্কেট বন্ধ থাকবে।

অর্ধদিবস বন্ধ থাকবে যেসব এলাকা:

বাংলাবাজার, পাটুয়াটুলী, ফরাশগঞ্জ, শ্যামবাজার, জুরাইন, করিমউল্লাহবাগ, পোস্তগোলা, শ্যামপুর, মীরহাজারীবাগ, দোলাইপাড়, টিপু সুলতান রোড, ধূপখোলা, গেণ্ডারিয়া, দয়াগঞ্জ, স্বামীবাগ, ধোলাইখাল, জয়কালী মন্দির, যাত্রাবাড়ীর দক্ষিণ-পশ্চিম অংশ, ওয়ারী, আহসান মঞ্জিল, লালবাগ, কোতোয়ালি থানা, বংশাল, নবাবপুর, সদরঘাট, তাঁতীবাজার, লক্ষ্মীবাজার, শাঁখারী বাজার, চাঙ্খারপুল, গুলিস্থানের দক্ষিণ অংশ।


শেবাগ-শচিনের জুটিই হারিয়ে দিল বাংলাদেশকে

সূরা কাহাফ তিলাওয়াতে রয়েছে বিশেষ ফজিলত

করোনার ভ্যাকসিন গ্রহণে বাধা নেই ইসলামে

নামাজে মনোযোগী হওয়ার কৌশল


 

অর্ধদিবস বন্ধ থাকবে যেসব মার্কেট:

আজিমপুর সুপার মার্কেট, গুলিস্তান হকার্স মার্কেট, ফরাশগঞ্জ টিম্বার মার্কেট, শ্যামবাজার পাইকারি দোকান, সামাদ সুপার মার্কেট, রহমানিয়া সুপার মার্কেট, ইদ্রিস সুপার মার্কেট, দয়াগঞ্জ বাজার, ধূপখোলা মাঠবাজার, চকবাজার, বাবুবাজার, নয়াবাজার, কাপ্তান বাজার, রাজধানী সুপার মার্কেট, দয়াগঞ্জ সিটি করপোরেশন মার্কেট, ইসলামপুর কাপড়ের দোকান, ছোট কাটরা, বড় কাটরা হোলসেল মার্কেট, শারিফ ম্যানসন, ফুলবাড়িয়া মার্কেট, সান্দ্রা সুপার মার্কেট।

বন্ধ থাকবে যেসব দর্শনীয় স্থান:
শিশু একাডেমি জাদুঘর: শুক্র ও শনিবার সাপ্তাহিক ছুটি। রোববার থেকে বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত খোলা থাকে।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

মসজিদে জামাতে ফজরের নামাজরত অবস্থায় মুসল্লির মৃত্যু

অনলাইন ডেস্ক

মসজিদে জামাতে ফজরের নামাজরত অবস্থায় মুসল্লির মৃত্যু

মসজিদে নামাজ পড়ার সময় সিজদারত অবস্থায় রুহুল আমিন মোল্লা নামে এক মুসল্লির মৃত্যু হয়েছে (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন)। ঘটনাটি ঘটেছে বরগুনার বেতাগীতে। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৩৯ বছর। 

বৃহস্পতিবার (৪ মার্চ) ফজরের নামাজে সুন্নাত শেষ করে জামাতে ফরজ নামাজ আদায় করার সময় সিজদারত অবস্থায় মারা যান রুহুল আমিন। 

আমিন মোল্লা উপজেলার হোসনাবাদ ইউনিয়নের বাধঘাট বাজার সংলগ্ন ছোপখালি গ্রামের বাসিন্দা ওয়াজেদ আলী মোল্লার সন্তান। পেশায় ব্যবসায়ী ছিলেন।


অভাব দুর হবে, বাড়বে ধন-সম্পদ যে আমলে

সূরা কাহাফ তিলাওয়াতে রয়েছে বিশেষ ফজিলত

করোনার ভ্যাকসিন গ্রহণে বাধা নেই ইসলামে

নামাজে মনোযোগী হওয়ার কৌশল


প্রত্যক্ষদর্শী মসজিদে থাকা একাধিক মুসল্লি জানান, রুহুল আমিন ফজরের নামাজে সুন্নাত শেষ করে জামাতে ফরজ নামাজ আদায় করার সময় সিজদারত অবস্থায় মারা গেছেন। একজন মুমিন মুসলিমের প্রতি আল্লাহর অশেষ রহমত না থাকলে এমন মৃত্যু হয় না।

বিকেল সাড়ে ৫টায় বাধঘাট বাজার মাঠে নামাজে জানাজা শেষে তাকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। 

এলাকা ও পরিবার সূত্রে জানা যায়, তিনি ব্যক্তি হিসেবে খুব ধার্মিক ও নিষ্ঠাবান ছিলেন। তার এমন মৃত্যুতে এলাকাবাসী শোকাহত।

মসজিদ ও মরহুমের জানাজা নামাজের ঈমাম বলেন, এমন মৃত্যু আমাদের সকল মুসলিমদের কাম্য। দোয়া করি আল্লাহ তাকে জান্নাতুল ফেরদৌস নসিব করেন। তিনি স্ত্রী ও দুই সন্তান সহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর