যেসব কারণে বারমুডা ট্রায়াঙ্গেলে জাহাজ নিখোঁজ হতে পারে

অনলাইন ডেস্ক

যেসব কারণে বারমুডা ট্রায়াঙ্গেলে জাহাজ নিখোঁজ হতে পারে

বারমুডা ট্রায়াঙ্গেল নিয়ে রহস্যের শেষ নেই। আটলান্টিক মহাসাগরের এই্ বিশেষ স্থানে আজও একটি ভেসেল ২০ জন যাত্রী নিয়ে নিখোঁজ হয়েছে। বারমুডা ট্রায়াঙ্গেল আসলেই কি রহস্যে ঘেরা নাকি সব মানুষের তৈরি গল্প। সারাবিশ্বের নাবিকদের কাছে বারমুডা ট্রায়াঙ্গেল এক আতঙ্কের নাম। বারমুডা ট্রায়াঙ্গল হলো আটলান্টিক মহাসাগরের উত্তর-পশ্চিমাংশে ত্রিভুজাকৃতির একটি বিশেষ অঞ্চল। এর এক কোণে বারমুডা দ্বীপ আর অন্য দুই প্রান্তে মায়ামি বিচ ও পুয়ের্তে রিকোর সান জুয়ান। সেই দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের শেষ দিকে ১৯৪৫ সালের ৫ ডিসেম্বর পাঁচটি টিভিএম অ্যাভেঞ্জার উড়োজাহাজ এবং একটি উদ্ধারকারী উড়োজাহাজ রহস্যজনকভাবে উধাও হয়ে যায়। সেই থেকে বারমুডা ট্রায়াঙ্গল রহস্য কথাটার চল। এরপরও বেশ কিছু জাহাজ ও উড়োজাহাজ সেখানে নিখোঁজ হয়েছে।

প্রাকৃতিক ঘটনার মাধ্যমে ব্যাখ্যা
কন্টিনেন্টাল সেলভে জমে থাকা বিপুল পরিমাণ মিথেন হাইড্রেট অনেক জাহাজ ডোবার কারণ বলে দেখা গেছে। অস্ট্রেলিয়ায় পরীক্ষাগারের গবেষণায় দেখা গিয়েছে, বাতাসের বুদবুদ পানির ঘনত্ব কমিয়ে দেয়। তাই সাগরে যখন পর্যায়ক্রমিক মিথেন উদগীরন হয়, তখন পানির প্লবতা (কোন কিছুকে ভাসিয়ে রাখার ক্ষমতা) কমে। যদি এমন ঘটনা ঐ এলাকায় ঘটে থাকে তবে সতর্ক হবার আগেই কোন জাহাজ দ্রুত ডুবে যেতে পারে। ১৯৮১ সালে “ইউনাইটেড স্টেটস জিওলজিক্যাল সার্ভে” একটি রিপোর্ট প্রকাশ করে। যাতে বর্ণিত আছে যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ উপকূলের বিপরীতে ব্ল্যাক রিজ এলাকায় মিথেন হাইড্রেট রয়েছে। 

কম্পাসের ভুল দিক নির্দেশনা
কম্পাসের পাঠ নিয়ে বিভ্রান্তি অনেকাংশে এই বারমুডা ট্রায়াঙ্গেলের কাহিনীর সাথে জড়িত। এটা মনে রাখা প্রয়োজন যে কম্পাস থেকে চুম্বক মেরুর দূরত্বের উপর ভিত্তি করে এর দিক নির্দেশনায় বিচ্যূতি আসে। উদাহরন হিসেবে বলা যায়- যুক্তরাষ্ট্রে শুধুমাত্র উইসকনসিন থেকে মেক্সিকোর উপসাগর পর্যন্ত সরলরেখা বরাবর চৌম্বক উত্তর মেরু সঠিক ভাবে ভৌগোলিক উত্তর মেরু নির্দেশ করে। এই সাধারণ তথ্য যে কোন দক্ষ পথপ্রদর্শকের জানা থাকার কথা। কিন্তু সমস্যা হল সাধারণ মানুষকে নিয়ে, যারা এ বিষয়ে কিছুই জানে না। ঐ ত্রিভুজ এলাকা জুড়ে কম্পাসের এমন বিচ্যূতি তাদের কাছে রহস্যময় মনে হয়। কিন্তু এটা খুবই স্বাভাবিক ঘটনা।


আরও পড়ুন: সরকার কারা ডুবায় কীভাবে ডুবায়

মরদেহ পোড়ানোকালে হঠাৎ ভেঙ্গে পড়ল ছাদ, নিহত ১৯

আরও পড়ুন: ধর্ষকের গোপনাঙ্গ কাটার আইন চেয়ে আদালত প্রাঙ্গণে তিনি

ওরা আমার বুক, গোপনাঙ্গ পুড়িয়ে দিয়েছে : সৌদি ফেরত তরুণী


হারিকেন
হারিকেন হল শক্তিশালী ঝড়। ঐতিহাসিক ভাবেই জানা যায়- আটলান্টিক মহাসাগরে বিষুব রেখার কাছাকাছি অঞ্চলে শক্তিশালী হারিকেনের কারণে হাজার হাজার মানুষের প্রাণহানী ঘটেছে। আর ক্ষতি হয়েছে কোটি কোটি টাকার। রেকর্ড অনুসারে ১৫২০ সালে স্প্যানিশ নৌবহর “ফ্রান্সিসকো দ্য বোবাডিলা” এমনি একটি বিধ্বংসী হারিকেনের কবলে পড়ে ডুবে যায়। বারমুডা ট্রায়াঙ্গেলের কাহিনীর সাথে জড়িত অনেক ঘটনার জন্য এধরনের হারিকেনই দায়ী।

গলফ স্ট্রিম
গলফ স্ট্রিম হল মেক্সিকো উপসাগর থেকে স্ট্রেইটস অব ফ্লোরিডা হয়ে উত্তর আটলান্টিকের দিকে প্রবাহিত উষ্ণ সমুদ্রস্রোত। একে বলা যায় মহা সমুদ্রের মাঝে এক নদী। নদীর স্রোতের মত গলফ স্ট্রিম ভাসমান বস্তুকে স্রোতের দিকে ভাসিয়ে নিতে পারে। যেমনি ঘটেছিল ১৯৬৭ সালের ২২ ডিসেম্বর “ উইচক্রাফট” নামের একটি প্রমোদতরীতে। মিয়ামি তীর হতে এক মাইল দূরে এর ইঞ্জিনে সমস্যা দেখা দিলে তার নাবিকরা তাদের অবস্থান কোস্ট গার্ডকে জানায়। কিন্তু কোস্ট গার্ডরা তাদেরকে ঐ নির্দিষ্ট স্থানে পায়নি।

মানবিক ভুল
মানব ঘটিত দূর্ঘটনায় অনেক জাহাজ এবং বিমান নিখোঁজ হওয়ার ঘটনার তদন্তে দেখা গিয়েছে এর অধিকাংশই চালকের ভুলের কারণে দূর্ঘটনায় পতিত হয়েছে। মানুষের ভুল খুবই স্বাভাবিক ঘটনা। আর এমনি ভুলের কারণে দূর্ঘটনা বারমুডা ট্রায়াঙ্গেলেও ঘটেতে পারে। যেমন কোস্ট গার্ড ১৯৭২ সালে ভি.এ. ফগ এর নিখোঁজ হবার কারণ হিসেবে বেনজিন এর পরিত্যাক্ত অংশ অপসারনের জন্য দক্ষ শ্রমিকের অভাবকে দায়ী করেছে। সম্ভবত ব্যবসায়ী হার্ভি কোনভার এর ইয়ট টি তার অসাবধানতার কারণেই নিখোঁজ হয়। অনেক নিখোঁজের ঘটনারই উপসংহারে পৌঁছানো যায়নি, কারণ অনুসন্ধানের জন্য তাদের কোন ধ্বংসাবশেষ উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি।

ইচ্ছাকৃত ভাবে যে সব ধ্বংসসাধিত হয়েছে
যুদ্ধের সময় অনেক জাহাজ শত্রু পক্ষের অতর্কিত আক্রমণে ডুবে গিয়ে থাকতে পারে বলে মনে করা হয়। এ কারণেও জাহাজ নিখোঁজ হতে পারে। তবে বিশ্বযুদ্ধের সময় বেশ কিছু জাহাজ, যাদের মনে করা হয় এমনি কারণে ডুবেছে। তাদের উপর অনুসন্ধান করা হয়। তবে শত্রু পক্ষের নথিপত্র, নির্দেশনার লগ বই ইত্যাদি পরীক্ষা করে তেমন কিছু প্রমাণ করা যায়নি। ১৯১৮ সালে ইউ এস এস সাইক্লপস এবং ২য় বিশ্বযুদ্ধে এর সিস্টার শিপ প্রোটিয়াস এবং নিরিয়াস কে জার্মান ডুবোজাহাজ ডুবিয়ে দেয়। কিন্তু পরবর্তীতে জার্মান রেকর্ড থেকে তার সত্যতা প্রমাণ করা যায়নি।

আবার ধারণা করা হয় জলদস্যুদের আক্রমণে অনেক জাহাজ নিখোঁজ হয়ে থাকতে পারে। সে সময়ে প্রশান্ত মহাসাগরের পশ্চিমাংশে এবং ভারত মহাসাগরে মালবাহী জাহাজ চুরি খুব সাধারণ ঘটনা ছিল। মাদক চোরাচালানকারীরা সুবিধা মত জাহাজ, নৌকা, ইয়ট ইত্যাদি চুরি করত মাদক চোরাচালানের জন্য। ১৫৬০ থেকে ১৭৬০ পর্যন্ত ক্যারিবিয়ান অঞ্চল ছিল জলদস্যুদের আখড়া। কুখ্যাত জলদস্যু এডওয়ার্ড টিচ এবং জেন ল্যাফিট্টি ছিল ঐ অঞ্চলের বিভীষিকা। তবে শোনা যায় জেন ল্যাফিট্টি-ই নাকি বারমুডা ট্রায়াঙ্গেলের শিকার হয়েছিল। আর এক ধরনের দস্যুতার কথা শোনা যায়, যা পরিচলিত হত স্থল থেকে। এধরনের দস্যুরা সমুদ্র ধারে রাতে আলো জ্বালিয়ে জাহাজের নাবিকদের বিভ্রান্ত করত। নাবিকরা ঐ আলোকে বাতি ঘরের আলো মনে করে সেদিকে অগ্রসর হত। তখন জাহাজগুলি ডুবো পাহাড়ের সাথে সংঘর্ষে ডুবে যেত। আর তারপরে ডোবা জাহাজের মালপত্র তীরের দিকে ভেসে এলে দস্যুরা তা সংগ্রহ করত। হয়তো ডুবন্ত জাহাজে কোন নাবিক বেঁচে থাকলে দস্যুরা তাদেরকেও হত্যা করত।

আসল কথা হলো পত্র-পত্রিকা ও অন্যান্য গণমাধ্যম স্বভাবতই ষড়যন্ত্র তত্ত্বে বেশি আগ্রহী। একটু গন্ধ পেলেই তা ফুলিয়ে ফাঁপিয়ে তোলে। গাদা গাদা রহস্যোপন্যাসও বেরিয়েছে। কিন্তু এসবের পেছনে সত্যতা নেই। রহস্যের কিছু নেই।

news24bd.tv আয়শা

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

কলকাতায় বাম-কংগ্রেসের নজিরবিহীন সমাবেশে মোদি-মমতাকে উৎখাতের ডাক

অনলাইন ডেস্ক

কলকাতায় বাম-কংগ্রেসের নজিরবিহীন সমাবেশে মোদি-মমতাকে উৎখাতের ডাক

পশ্চিমবঙ্গে আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে উৎখাতের ডাক দিয়েছেন ইন্ডিয়ান সেক্যুলার ফ্রন্ট (আইএসএফ)-এর প্রতিষ্ঠাতা ও ফুরফুরা শরীফের পীরজাদা আব্বাস সিদ্দিকী। বলেছেন, এজন্য বাম শরীক দলের প্রার্থীদের জয়ী করার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

রোববার কলকাতার ঐতিহাসিক ব্রিগেড ময়দানে পশ্চিমবঙ্গের বাম-কংগ্রেস জোট ও ইন্ডিয়ান সেক্যুলার ফ্রন্ট (আইএসএফ) যৌথ আয়োজনে আব্বাস সিদ্দিকী বলেন, এবার এ বাংলা থেকে মমতাকে উৎখাত করে ছাড়ব। বিজেপির বি-টিম এই মমতা। তাদের বাংলা থেকে তাড়াতেই হবে। এই বাংলা নেতাজি, নজরুল, রবীন্দ্রনাথের। এখানে সাম্প্রদায়িকতার স্থান নেই।


গুলি ছুড়ে ইয়েমেনের ক্ষেপণাস্ত্র আকাশেই ধ্বংস করেছে সৌদি

জানা গেল আসল রহস্য, ১৩-১৪ বছরের দুই বোনের সঙ্গেই শরীরিক মেলামেশা ছিল তার

আবাহনীকে ৪-১ গোলে উড়িয়ে দিল বসুন্ধরা কিংস

৬৬ নারীকে ধর্ষণ


বাম ফ্রন্টের চেয়ারম্যান বিমান বসুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ বিশাল সমাবেশে কংগ্রেস, বাম দল এবং আইএসএফের নেতারা ভাষণ দেন। সবার বক্তব্যেই মোদি-মমতার ‘অপশাসনের’ কথা উঠে আসে।

কংগ্রেসের পশ্চিমবঙ্গ শাখার সভাপতি ও সংসদ সদস্য অধীর চৌধুরী বলেন, এই রাজ্যে আগামী দিনে তৃণমূল ও বিজেপি থাকবে না। থাকবে সংযুক্ত মোর্চা। আমাদের লড়াই থাকবে এই তৃণমূল ও বিজেপির বিরুদ্ধে।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

নতুন ইতিহাস গড়ল ভারতের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা

অনলাইন ডেস্ক

নতুন ইতিহাস গড়ল ভারতের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা ইসরো। রোববার ১৯টি স্যাটেলাইট নিয়ে মহাকাশে পাড়ি জমায় PSLV-C51 রকেট। স্যাটেলাইটের মধ্যে পাঠানো হয়েছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ছবিও। আর এটিই ছিল  ইসরোর প্রথম বাণিজ্যিক অভিযান। 

২০২১ সালে প্রথম মহাকাশ অভিযান ইসরোর। রোববার সকালে শ্রীহরিকোটা মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্র থেকে এই রকেট উৎক্ষেপণ হয়। ১৯টি স্যাটেলাইটের মধ্যে রয়েছে ব্রাজিলের অ্যামাজোনিয়া ১। এই প্রথম ভারতের মাধ্যমে ব্রাজিলের প্রধম স্যাটেলাইট লঞ্চ করা হল। আর  এটিই  ইসরোর প্রথম বাণিজ্যিক অভিযান। 


জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ফটক আটকে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

শিক্ষা জাতির উন্নয়নের মূল চাবিকাঠি: প্রধানমন্ত্রী

অসুস্থ মাকে বাঁচাতে ক্রিকেটে ফিরতে চান শাহাদাত

প্রেমিকের আশ্বাসে স্বামীকে তালাক, বিয়ের দাবিতে অনশন!


এদিন স্যাটেলাইট লঞ্চের সময় ভারতের মহাকাশ কেন্দ্রে উপস্থিত ছিল ব্রাজিলের প্রতিনিধি দল। এছাড়াও ছিলেন ইসরোর প্রধান কে শিবনও। মহাকাশ থেকে পৃথিবীর বায়ুমণ্ডল, জলবায়ুর তারতম্যের তথ্য-চিত্র মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্রে পাঠাবে এই উপগ্রহ।

অন্য যে ১৮টি স্যাটেলাইট লঞ্চ হয়েছে তার মধ্যে একটিতে  রয়েছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ছবি। মোদীর পাশাপাশি ভগবত গীতারও ছবি রয়েছে। শুধুমাত্র প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ছবি এবং ভগবত গীতাই নয়, সেইসঙ্গে ওই উপগ্রহে থাকছে আরও ২৫০০০ জন মানুষের নাম। 

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

বিক্ষোভে উত্তাল মিয়ানমার, একদিনে নিহত ১০

চন্দ্রানী চন্দ্রা, আসমা তুলি

ফের বিক্ষোভে উত্তাল হয়ে উঠেছে মিয়ানমার। সেইসঙ্গে বেড়েছে জান্তা সরকারের দমনপীড়ন। পুলিশ-বিক্ষোভকারীদের সংঘর্ষে রোববারও ১০ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও বেশ কয়েকজন। 

এদিকে, সেনা বিরোধী বক্তব্যের জেরে বরখাস্ত হয়েছেন জাতিসংঘে মিয়ানমারের স্থায়ী রাষ্ট্রদূত কিয়াও মোয়ে তুন। 

তিন সপ্তাহেরও বেশি সময় পেরিয়ে গেছে মিয়ানমারে সামরিক অভ্যুত্থানের। তবুও এখনও সমানভাবে ক্ষোভে ফুঁসছে গোটা দেশ। রোববারও দাওয়েই শহরে অভ্যুত্থানবিরোধী মিছিলে পুলিশের গুলিতে ৩ জন নিহত এবং বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন।

গ্রেফতার করা হয় অর্ধশতাধিক বিক্ষোভকারীকে। স্থানীয় সংবাদ মাধ্যম এই তথ্য জানিয়েছে বলে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে এপি। একইদিন পুলিশ পড়াও হন ইয়াঙ্গুণে বিক্ষোভকারীদের উপর। বিভিন্ন স্থানে পুলিশ ব্যারিক্যাড দিলে আন্দোলনকারীরা সেখানেই অবস্থান নেন।

শনিবারও গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠার দাবিতে বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ অব্যাহত ছিল। দাওয়েই শহরে বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষে এক নারী গুলিবিদ্ধ হন। এছাড়াও দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর ম্যান্দালেতে অভ্যুত্থানবিরোধী বিক্ষোভে হয়। সেখানে যোগ দেন বৌদ্ধ ভিক্ষুরাও।


জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ফটক আটকে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

শিক্ষা জাতির উন্নয়নের মূল চাবিকাঠি: প্রধানমন্ত্রী

অসুস্থ মাকে বাঁচাতে ক্রিকেটে ফিরতে চান শাহাদাত

প্রেমিকের আশ্বাসে স্বামীকে তালাক, বিয়ের দাবিতে অনশন!


শুক্রবার জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের মিয়ানমারে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের হস্তক্ষেপ কামনা করেন সংস্থাটিতে নিযুক্ত মিয়ানমারের স্থায়ী প্রতিনিধি কিয়াও মো।

পাশাপাশি সেনা সরকারকে কোন ধরনের সহায়তা না করতে বিশ্ব সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানান। এ ঘটনায় জান্তা সরকারের রোষানলে পড়েন কিয়াও মো। শনিবার  তাকে বরখাস্ত করে সেনা শাসক।  

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

ইরানের ‌‘কনিষ্ঠা আঙুলের’ আঘাতেই ভূগর্ভে লুকায় মার্কিন সেনারা

অনলাইন ডেস্ক

ইরানের ‌‘কনিষ্ঠা আঙুলের’ আঘাতেই ভূগর্ভে লুকায় মার্কিন সেনারা

ইরাকে মার্কিন ঘাঁটি আইন আল আসাদে যে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা করা হয়েছে তা ইরানের কনিষ্ঠা আঙুলের আঘাত বলে মন্তব্য করেছে তেহরান।

ইরানের স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন বাসিজের শিক্ষক শাখার উপ-প্রধান ব্রিগেডিয়ার মেহরান তাহমাসেবি এমন মন্তব্য করেন।

তিনি বলেছেন, মুসলিম বিশ্বের মহাবীর জেনারেল কাসেম সোলাইমানির জানাজা অনুষ্ঠানে জনগণ কঠোর প্রতিশোধের যে দাবি জানিয়েছিল তারই কিয়দংশ ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাতের মাধ্যমে বাস্তবায়ন করা হয়েছে, এটা ছিল ইরানের কনিষ্ঠা আঙুলের আঘাত।


গুলি ছুড়ে ইয়েমেনের ক্ষেপণাস্ত্র আকাশেই ধ্বংস করেছে সৌদি

জানা গেল আসল রহস্য, ১৩-১৪ বছরের দুই বোনের সঙ্গেই শরীরিক মেলামেশা ছিল তার

আবাহনীকে ৪-১ গোলে উড়িয়ে দিল বসুন্ধরা কিংস

৬৬ নারীকে ধর্ষণ


ইরানের বাসিজের এই কর্মকর্তা বলেন, মার্কিন ঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্রের সাহায্যে যে আঘাত হানা হয়েছিল তাতে মার্কিন সেনারা ভূগর্ভস্থ আশ্রয়কেন্দ্রে লুকাতে বাধ্য হয়। তারা প্রথমে বলেছিল কিছুই হয়নি, কিন্তু পরবর্তীতে ক্ষয়ক্ষতির কথা স্বীকার করেছে।

২০২০ সালের ৩ জানুয়ারি ইরানের জেনারেল কাসেম সোলাইমানি ও তার ৯ সহযোগী ইরাকে মার্কিন কাপুরুষোচিত হামলায় নিহত হন।

জেনারেল সোলাইমানিকে কবর দেওয়ার আগেই মার্কিন ঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় ইরানের ইসলামী বিপ্লবী গার্ড বাহিনী আইআরজিসি।

মার্কিন ঘাঁটি আইন আল আসাদে ১১টি ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করে ইরান, এর প্রতিটি ক্ষেপণাস্ত্রের ওজন ছিল এক হাজার পাউন্ডের বেশি।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

এবার এক ডোজের ভ্যাকসিন অনুমোদন দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র

অনলাইন ডেস্ক

এবার এক ডোজের ভ্যাকসিন ​মার্কিন কোম্পানি জনসন এন্ড জনসনের ভ্যাকসিনের অনুমোদন দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। শনিবার মার্কিন খাদ্য ও ঔষধ প্রশাসন-এফডিএ এই টিকার অনুমোদন দেয়।

এছাড়া মহামারীতে বিপাকে পড়া মার্কিনীদের সাহায্যে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের ১ দশমিক ৯ ট্রিলিয়ন ডলারের ত্রাণ পরিকল্পনায় অনুমোদন দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধি পরিষদ। 


জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ফটক আটকে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

শিক্ষা জাতির উন্নয়নের মূল চাবিকাঠি: প্রধানমন্ত্রী

অসুস্থ মাকে বাঁচাতে ক্রিকেটে ফিরতে চান শাহাদাত

প্রেমিকের আশ্বাসে স্বামীকে তালাক, বিয়ের দাবিতে অনশন!


শনিবার সকালে হওয়া ওই ভোটে বিলটি ২১৯-২১২ ব্যবধানে অনুমোদন পায়। বিলটি এখন অনুমোদনের জন্য উচ্চকক্ষ সেনেটে পাঠানো হবে। এদিকে গেলো সপ্তাহে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব কিছুটা কমে আসলেও চলতি সপ্তাহের শুরুতেই আবারো কিছুটা বেড়েছে সংক্রমণের মাত্রা। 

এ পরিস্থিতিতে ভারতে করোনা সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা। এরইমধ্যে দেশটিতে মোট সংক্রমণ ছাড়িয়ে গেছে এক কোটি ১০ লাখ। এদিকে বিশ্বজুড়ে মোট শনাক্ত হয়েছে ১১ কোটি ৪৩ লাখ এবং মৃত্যু ছাড়িয়েছে ২৫ লাখ ৩৬ হাজার।

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর