এবার বড় ভাই কাদেরকে বউ-টউ সামলানোর পরামর্শ কাদের মির্জার

নিজস্ব প্রতিবেদক

এবার বড় ভাই কাদেরকে বউ-টউ সামলানোর পরামর্শ কাদের মির্জার

(বাঁ-দিক থেকে) ওবায়দুল কাদের, আবদুল কাদের মির্জা

নির্বাচন, ভোট ও দলের রাজনীতি নিয়ে বিতর্কিত বক্তব্য দিয়ে বেশ কয়েকদিন ধরে আলোচনা-সমালোচনায় রয়েছেন নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার বসুরহাট পৌরসভার মেয়র প্রার্থী এবং আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ছোট ভাই আবদুল কাদের মির্জা।

এবার বড় ভাই কাদেরকে বউ-টউ সামলানোর পরামর্শ দিলেন তিনি। 

তিনি বলেছেন, ‘তার (ওবায়দুল কাদের) ওপরও আমার ক্ষোভ আছে। এখানে জিততে হলে তার আমাদের লাগবে। সামনে জিততে হলে ওনাকেও সতর্ক হতে হবে। এত সহজ নয়, কঠিন ব্যাপার। বউটউ সামলাতে হবে। আর ওনার সঙ্গে যারা হাঁটেন, তারা কার থেকে মাসোহারা পান, তার খোঁজখবর নিতে হবে।’

আজ সকালে নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জের বসুরহাট পৌরসভার ৯ নম্বর ওয়ার্ডে নির্বাচনী পথসভায় এসব কথা বলেন তিনি।

বক্তব্যের শুরুতেই তিনি বলেন, ‘ওবায়দুল কাদের আমার সঙ্গে নেই। কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ আমার সঙ্গে নেই। নোয়াখালী ও ফেনীর আওয়ামী লীগ আমার বিরুদ্ধে অস্ত্রশস্ত্র পাঠিয়েছে। ডিসি, এসপি, নির্বাচন অফিসার আমার সঙ্গে নেই। আপনারা কেউ আমার সঙ্গে থাকবেন? থাকলে আমি কথা বলব।’

যুব মহিলা লীগের পরিচয়ে তাকে অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করা হয়েছে, এমন অভিযোগ করে বসুরহাট পৌরসভায় আওয়ামী লীগের এই মেয়র প্রার্থী বলেন, ‘মুঠোফোনে আমাকে যুব মহিলা লীগের পরিচয় দিয়ে অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করেছে। প্রশাসনকে জানিয়েছি, তারা কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি। তাহলে এই মহিলার হাত অনেক শক্তিশালী, না হয় ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি কেন?’

তিনি বলেন, ‘আমি একটি জায়গায় দুর্বল। ওবায়দুল কাদের সাহেব অসুস্থ। তিনি মারা যাবেন, এটা বললে আমি দুর্বল হয়ে যাই। তারও বুঝতে হবে, তিনি জাতীয় নেতা। আওয়ামী লীগের দুইবারের সাধারণ সম্পাদক। আমি নোয়াখালীর, ফেনীর অপরাজনীতির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করব, দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করব, গ্যাসের অধিকারের জন্য প্রতিবাদ করব। প্রতিবাদ করলে তখন বলে, আমি নাকি পাগল।’

তুরাগ পাড়ে হবে নতুন সিটি: এলজিআরডি মন্ত্রী

কেজিএফ : চ্যাপ্টার টু’র টিজার লিক অনলাইনে!

বোনকে ধর্ষণচেষ্টা, মা-বাবার হাতে ছেলে খুন

সাঈদ খোকনের বক্তব্যে ‘ব্যক্তিগত আক্রোশের’ : মেয়র তাপস

এর আগে গতকাল শনিবার বসুরহাট পৌরসভার উপজেলা পরিষদের সামনে নির্বাচনী পথসভায় তিনি বলেছিলেন,  ‘ওবায়দুল কাদের সাহেব আমার ওপর রাগ করবে, তাতে আমার কিছু আসে যায় না।’

আগামী ১৬ জানুয়ারি অনুষ্ঠেয় নোয়াখালীর কোম্পানিগঞ্জ উপজেলার বসুরহাট পৌরসভার আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী আবদুল কাদের মির্জা। গত ৩১ ডিসেম্বর থেকে হঠাৎ বিভিন্ন সভায় তার বক্তব্য নিয়ে দেশের রাজনৈতিক মহলে ব্যাপক আলোচনা শুরু হয়। এসব বক্তব্যে সুষ্ঠু নির্বাচন ও জেলা আওয়ামী লীগের কমিটি যথাযথভাবে করার দাবি জানান তিনি। দলের বিভিন্ন পর্যায়ের দুর্নীতি ও অনিয়মের বিরুদ্ধেও সরব হন। এসব দাবিতে ৩ জানুয়ারি সমর্থকদের নিয়ে বসুরহাটের জিরো পয়েন্ট এলাকা অবরোধ করেন কাদের মির্জা। টায়ার জ্বালিয়ে হাতে ঝাড়ু নিয়ে বিক্ষোভ দেখান তার সমর্থকেরা। সেই সময় কাদের মির্জা দাবি করে জানান, অসুস্থতা থেকে সুস্থ হয়ে তিনি সবসময় সত্য বলার পণ করেছেন।

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

বিএনপি, জামায়াত ও হেফাজত একই সূত্রে গাঁথা: ১৪ দল

অনলাইন ডেস্ক

বিএনপি, জামায়াত ও হেফাজত একই সূত্রে গাঁথা: ১৪ দল

বিএনপি, জামায়াত ও হেফাজত একই সূত্রে গাঁথা। এই সাম্প্রদায়িক অপশক্তি দমনে কোনো আপস নয়। দুধ দিয়ে সাপ পুষলে তার ফল কখনও শুভ হয় না বলে জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় ১৪ দল আয়োজিত আলোচনা সভায় বক্তরা।

ঐতিহাসিক মুজিব নগর দিবস উপলক্ষে মঙ্গলবার (২০ এপ্রিল) সকালে কেন্দ্রীয় ১৪ দলের ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় বক্তরা এসব কথা বলেন।

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য এবং কেন্দ্রীয় ১৪ দলের সমন্বয়ক ও মুখপাত্র আমির হোসেন আমু সভাপতির বক্তব্যে বলেন, ১৭ এপ্রিল মুজিবনগর সরকার গঠনের মধ্য দিয়ে বাংলার স্বাধীনতার সূর্য উদিত হয়েছিল, আর বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে মুজিবনগর সরকারের অধীনেই বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ পরিচালিত হয়েছিল।

তিনি বলেন, অসহযোগ আন্দোলনের সময় বঙ্গবন্ধু আওয়ামী লীগের যে হাই কমান্ডকে জাতির সামনে উপস্থাপন করেছেন তাদের নিয়ে গঠন করা হয় মুজিবনগর সরকার। আর এই সরকারের অধীনেই কাজ করেছেন সকল সেক্টর ও সাবসেক্টর কমান্ডারসহ বিভিন্ন ফোর্স। আজ যে যত কথাই বলুক না কেন এরা সবাই ছিলেন মুজিবনগর সরকারের বেতনভুক্ত।

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য তোফায়েল আহমেদ বলেন, নীতির প্রশ্নে শক্তভাবে দাঁড়ালে কোনো অশুভ শক্তি মাথা চাড়া দিয়ে উঠতে পারে না। ২০১৩ সালের ৫ মে তাণ্ডবের পরই হেফাজত প্রশ্নে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করা উচিত ছিল।

আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য বেগম মতিয়া চৌধুরি বলেন, বঙ্গবন্ধুর অসাম্প্রদায়িক, চেতনাবোধ ও দেশপ্রেম সঠিকভাবে জাতীয় জীবনে প্রতিফলনের মধ্য দিয়ে তাঁর কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে জাতির পিতার স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে হবে।

জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জাসদের সভাপতি হাসানুল হক ইনু বলেন, বিএনপি, জামায়াত ও হেফাজত একই সূত্রে গাঁথা। সাম্প্রদায়িক অপশক্তি দমনে কোনো আপস নয়। দুধ দিয়ে সাপ পুষলে তার ফল কখনও শুভ হয় না।

আওয়ামী লীগের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক মৃনাল কান্তি দাসের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়া, জাতীয় পার্টি-জেপির সাধারণ সম্পাদক শেখ শহীদুল ইসলাম, তরিকত ফেডারেশনের চেয়ারম্যান সৈয়দ নজিবুল বশর মাইজ ভাণ্ডারি, গণ আজাদী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট এস কে সিকদার, গণতন্ত্রী পার্টির সাধারণ সম্পাদক ডা. শাহাদাত হোসেন, ন্যাপের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল হোসেন প্রমুখ।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

মাছ ছিনতাই : থানায় অভিযোগ ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে

অনলাইন ডেস্ক

মাছ ছিনতাই : থানায় অভিযোগ ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় চাঁদা না পেয়ে জেলেদের মাছ ছিনতাই করার অভিযোগ পাওয়া গেছে জিয়াউর রহমান (৩৩) নামে এক ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে। সেই ঘটনায় ভুক্তভোগী জেলে  জিয়াউর রহমানকে আসামী করে থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।  

শনিবার দুপুরে হাতীবান্ধা উপজেলায় অবস্থিত দেশের বৃহত্তম সেচ প্রকল্প তিস্তা ব্যারাজের এলাকার ৩ নং ওয়ার্ডের তিস্তা নদীতে মাছ ছিনতাইয়ের এই এ ঘটনাটি ঘটে।  

এ ঘটনায় ১৯ এপ্রিল রাতে ভুক্তভোগী জেলে রহমত আলী বাদী হয়ে জিয়াকে প্রধান আসামি করে আরও একজনকে আসামি করে থানায় লিখিত অভিযোগ দেন।  

অভিযুক্ত জিয়াউর রহমান উপজেলার দোয়ানী পিত্তিফাটা এলাকার ২ নং ওয়ার্ডের মৃত লিয়াকত আলীর ছেলে। এছাড়া সে উপজেলা ছাত্রলীগের দোয়ানী ইউনিটের সাবেক ছাত্রলীগ সভাপতি। তবে সে ছাত্রলীগের কেউ নন বলে দাবি করেন হাতীবান্ধা উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি।

থানায় দায়েরকৃত লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, দেশের বৃহত্তম সেচ প্রকল্প তিস্তা ব্যারাজ এলাকায় অসহায় গরীব ২২ জন জেলেদের নিয়ে গঠিত দোয়ানী তিস্তা ব্যারাজ মৎসজীবী সমবায় সমিতি। সেই সমিতির সভাপতি জেলে রহমত আলীর নেতৃত্বে ব্যারাজের পিছনের তিস্তা নদী থেকে জাল দিয়ে মাছ ধরে বিক্রি করেই জীবিকা নির্বাহ করেন সমিতির সকলে। প্রায় বছর দুয়েক আগ থেকে চাঁদার জন্য জেলেদের নদী থেকে মাছ ধরতে বাধা দিয়ে আসছেন জিয়া গং। এরই মাঝে বেশ কয়েকবার চাঁদার টাকা না পেয়ে ঝামেলা করে জোর পূর্বক ২-৩ কেজি বৈরালী মাছ নিয়ে চলে যায়। টাকাতো দেননা উল্টো ১০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করেন তিনি।

গত ১৯ এপ্রিল জেলেরা তিস্তা ব্যারাজ এলাকার ৩ নং ওয়ার্ডের তিস্তা নদীতে জাল দিয়ে মাছ ধরছিলো। এ সময় জিয়াসহ কয়েকজন সেখানে গিয়ে মাছ ধরতে বাধা দেন। যদি দশ হাজার টাকা না দেয় তাহলে মাছ ধরতে পারবে না বলে জানান। এতে রহমত আলীসহ অন্যান্যরা চাঁদা দিকে অপরাগতা প্রকাশ করেন। এতে জিয়া ক্ষিপ্ত হয়ে জেলেদের ধরা ৮শত টাকা মূল্যের বৈরালী মাছ জোরপূর্বক নিয়ে চলে যাওয়ার চেষ্টা করলে এতে বাধা দেন রহমত। ফলে জিয়া গং রহমের উপর হামলা চালিয়ে মারধর শুরু করে।

এ সময় গড্ডিমারী ইউপি সদস্য মতিয়ার রহমান ছুটে এসে রহমতকে রক্ষা করে জিয়াকে চলে যেতে বলে। কিন্ত জিয়া চলে না গিয়ে আরও ক্ষিপ্ত হয়ে ইউপি সদস্যের উপর অতর্কিত হামলা চালিয়ে বেধড়ক পিটিয়ে আহত করেন। এ সময় স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গিয়ে ভর্তি করান।  

এ বিষয়ে উপজেলার দোয়ানী ইউনিট শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি জিয়াউর রহমান বলেন, ওরা নিজেরাই চলতে পারে না। কোন রকম মাছ ধরে দিন পার করে। ওরা দশ হাজার টাকা কই পাইবে। আমি তাদের কাছে কোন চাঁদা দাবি করিনি। এটা সম্পূর্ন মিথ্যা বানোয়াট ভিত্তিহীন।

এ বিষয়ে আহত ইউপি সদস্য মতিয়ার রহমান বলেন, ওই জিয়া প্রায় জেলেদের উপর অবিচার করে। জেলেরা অনেক কষ্টে মাছ ধরে জীবিকা নির্বাহ করেন। তারা দশ হাজার টাকা কই পাবে। উল্টো টাকা ছাড়া মাছ নিয়ে যায়। বাধা দেয়ায় রহমতকে মারধর করে। আমিও বাধা দিতে গিয়ে জিয়ার মারধরের স্বীকার হই। আমি জিয়ার বিচার চাই।

এ বিষয়ে হাতীবান্ধা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এরশাদুল আলম বলেন, অভিযোগ পেয়েছি,  তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় কাদের মির্জার ভাই ও ছেলের বিরুদ্ধে মামলা

অনলাইন ডেস্ক

সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় কাদের মির্জার ভাই ও ছেলের বিরুদ্ধে মামলা

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইউপি চেয়ারম্যান নুর নবী চৌধুরীর ওপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায়  উপজেলা আ.লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা খিজির হায়াত খান বাদী থানায় মামলা করেছেন।

মঙ্গলবার (২০ এপ্রিল) সকালে খিজির হায়াত খান বাদী হয়ে এ মামলাটি করেন।

মামলায় কাদের মির্জার অনুসারী যুবলীগ নেতা নাজিম উদ্দিন মিকনকে প্রধান আসামি, তার সহযোগী শহিদ উল্যাহ রাসেল ওরফে কেচ্ছা রাসেল, কাদের মির্জার ছেলে তাশিক মির্জা, ছোট ভাই শাহাদাত হোসেনসহ ৩৫ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত ২০-৩০ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করা হয়।

কোম্পানীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মীর জাহেদুল হক রনি মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

শেখ তন্ময়ের পক্ষে রাজধানীতে ইফতার বিতরণ

অনলাইন ডেস্ক

শেখ তন্ময়ের পক্ষে রাজধানীতে ইফতার বিতরণ

বাগেরহাট-২ আসনের সরকার দলীয় সংসদ সদস্য শেখ তন্ময়ের পক্ষ থেকে রাজধানীতে অসহায় দুস্থদের মাঝে ইফতার সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় করোনা মহামারির দ্বিতীয় ঢেউয়ে লকডাউন চলাকালীন সময়ে অসহায় ও দুস্থদের জন্য ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নিবাস মজুমদার উদ্যোগে চার শতাধিক মানুষের মাঝে রাজধানীর কমলাপুর এলাকায় ইফতারি ও খাদ্য বিতরণ করা হয়। 

এসময় দক্ষিণ ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নিবাস মজুমদার বলেন, করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর নির্দেশ দিয়েছেন তারুণ্যের অহংকার বাগেরহাট-২ আসনের সংসদ সদস্য  শেখ তন্ময়ের নির্দেশে রাজধানীর কমলাপুর এলাকার আশেপাশে ইফতার সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।

ইতিমধ্যেই বাগেরহাটে মাননীয় সংসদ সদস্য মহোদয় রোগীর কাছে চিকিৎসক পাঠানোর উদ্যোগ নিয়েছেন। এ ধারাবাহিকতায় এখন অন্যান্য এমপিরা তাদের নিজ এলাকায় বাস্তবায়ন করা শুরু করেছেন। করোনার দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলায় সরকার লকডাউন ঘোষণা করেছেন। তাই চলমান পরিস্থিতিতে  অসহায় মানুষেরা ঠিকমতো খাওয়া-দাওয়া করতে পারছে না তাই যতটুকু পারি আমরা ওনার নির্দেশে অসহায় মানুষের পাশে থাকার চেষ্টা করছি। পুরো রমজান এবং করোনার দ্বিতীয় ঢেউ চলাকালে যতটুক সম্ভব অসহায় মানুষের পাশে থাকার প্রচেষ্টা চালিয়ে যাব।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

হেফাজত নেতার জবানবন্দি

শাপলা চত্বরের সমাবেশের আগে খালেদা জিয়ার সঙ্গে বৈঠক করেন বাবুনগরী : মুফতি ফখরুল

অনলাইন ডেস্ক

শাপলা চত্বরের সমাবেশের আগে খালেদা জিয়ার সঙ্গে বৈঠক করেন বাবুনগরী : মুফতি ফখরুল

২০১৩ সালের ৫ মে মতিঝিলের শাপলা চত্বরে জামায়াতের নেতা-কর্মীরা সরাসরি হেফাজতের কর্মসূচীতে ঢুকে জ্বালাও পোড়াও করে সরকারের পতন ঘটাতে চেয়েছিল। শাপলা চত্বরের সমাবেশের ঠিক এক সপ্তাহ আগে খালেদা জিয়ার সঙ্গে বৈঠক করেন জুনায়েদ বাবুনগরী। বিএনপির পক্ষ থেকে ওই আন্দোলনে জন্য অর্থ সহায়তা দেওয়া হয় বলে  আদালতে দেওয়া ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে বলেছেন হেফাজত ইসলামের ঢাকা মহানগর কমিটির তৎকালীন প্রচার সম্পাদক মুফতি ফখরুল ইসলাম। 

গত সোমবার মুখ্য মহানগর হাকিম দেবদাস চন্দ্র অধিকারীর আদালতে তিনি এই স্বীকারোক্তি দেন।

আদালতে দেওয়া জবানবন্দিতে মুফতি ফখরুল বলেছেন, ২০১৩ সালের ৫ মে’র সেই সহিংসতায় তৎকালীন বিএনপি ও জামায়াতের একাধিক শীর্ষ নেতা অর্থ সহায়তা দিয়েছিলেন। সহিংসতায় অংশ নিয়েছিলেন বিএনপি-জামায়াতের নেতাকর্মীরাও।

 গত ১৪ এপ্রিল লালবাগ এলাকা থেকে মুফতি ফখরুলকে গ্রেফতারের পর পাঁচ দিনের রিমান্ডে নেয় ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। রিমান্ড শেষে সোমবার তিনি আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। এরপর আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর