চাকরি বাঁচাতে ৪৬ বছর বয়সী নারী বসের শয্যাসঙ্গী তরুণ

চাকরি বাঁচাতে ৪৬ বছর বয়সী নারী বসের শয্যাসঙ্গী তরুণ

কর্মক্ষেত্রে বাজে পারফরমেন্সের কারণে বহিষ্কার হতে যাচ্ছিলেন এক ব্রিটিশ তরুণ। ওই সময় নারী বসের আহ্বানে তৈরি হয় শারীরিক সম্পর্ক। রক্ষা পায় চাকরি। এখন চাকরি ছাড়তে চাচ্ছেন, বিপাকে পড়েছেন বসের সঙ্গে গড়ে ওঠা সম্পর্ক নিয়ে। 

সম্প্রতি নাম প্রকাশ না করে ব্রিটিশ এক তরুণ নিউজ ওয়েবসাইট রেডডিটে একটি লেখা পোস্ট করেন। সেখানে নিজের অভিজ্ঞতা তুলে ধরেন।

বলেন, সেপ্টেম্বর থেকে তিনি একটি কল সেন্টারে কাজ করছেন। অফিসের দেওয়া ন্যূনতম লক্ষ্য পূরণের জন্য আপ্রাণ লড়াই করে যাচ্ছিলেন তিনি।

গেল কয়েক সপ্তাহ ধরে কল সেন্টারের চাকরিতে ওই তরুণ স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করছেন না। তখন তিনি চাকরি ছাড়ার কথা নারী বসকে জানান। নারী বস তখন তাকে চাকরি না ছাড়ার অনুরোধ করেন। বলেন, তুমি থাকো, তোমার কোনো কাজ করতে হবে না, বাকি সব আমি দেখছি।

আরও পড়ুন: প্রেমিকাকে ‘মেরে’ সেফটিক ট্যাংকে ফেলে কংক্রিটের ঢালাই

মৃত কিশোরীদের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক, এ কেমন আচরণ

ছেলের বউকে সুযোগ পেলেই ধর্ষণ করত ৭০ বছরের শ্বশুর

ব্রিটিশ তরুণ তার পোস্টে নারী বসের নাম ‘মিশেল’ বলে উল্লেখ করেন। ওই তরুণ বলেন, তিনি ভেবেছেন আমি চাকরি ছেড়ে চলে গেলে হয়তো তার সঙ্গে আর সম্পর্ক রাখব না, যোগাযোগ করব না। বাস্তবে আমি তাই করতাম। তারপর মিশেল আমাকে হুমকি দেয়, আমি যদি চাকরি ছাড়ার চেষ্টা করি, তাহলে অফিসের জ্যেষ্ঠ ব্যবস্থাপকের কাছে গোপন সম্পর্কের বিষয় জানিয়ে দেবেন।

পোস্টে তিনি লিখেন, সেপ্টেম্বরে চাকরি শুরুর পর আমি আমার ন্যূনতম লক্ষ্য পূরণ করতে পারছিলাম না। এ কারণে হতাশা কাজ করছিল। খুব চাপে ছিলাম। আমি জানতাম আমাকে বহিষ্কার করা হবে। এটা আমার জন্য খুব বিব্রতকর হতো। চাকরি ছেড়ে দেবো দেবো ভাবছিলাম। এমন সময় আরও কয়েকজন সহকর্মী এবং আমার ৪৬ বছর বয়সী নারী বস মিলে স্থানীয় একটি পানশালায় যাই।

নিজের মেয়ে ইভাঙ্কার সঙ্গে ট্রাম্পের যৌন সম্পর্ক?

‘দুজনের সহমতে যৌন সম্পর্ক ধর্ষণ নয়’

‘যৌন ব্যবসায়’ ‌‌নায়িকারা

‘সেখানে আমাদের অনেক গল্প হয়। লম্বা সময় ধরে আমরা আড্ডা দিই। পরে আমি এবং আমার বস একসাথে বাসায় ফিরি। একসাথে রাত কাটাই। পরবর্তীতে বিভিন্ন জায়গায় আমাদের সাক্ষাত হয়েছে। সময় কাটিয়েছি আমরা।’

‘আমার বয়স ১৯ বছর। কর্মক্ষেত্রে আমার পারফরমেন্স খারাপ হওয়ার কারণে বস খুব চাপ নিচ্ছিলেন। আমরা মনে হয়েছে, আমি চাকরি ছেড়ে দিলে তিনি ভালো থাকবেন। তিন সপ্তাহ আগে আমি তাকে জানাই, আমি চাকরি ছেড়ে দিতে চাচ্ছি। তিনি চাকরি না ছাড়তে অনুরোধ করেন। প্রতিশ্রুতি দেন, আমার কাজ সহজ করে দেয়ার চেষ্টা করবেন।’

‘তিনি আমার কাজ সহজ করে দিয়েছেন। এখন আমি অফিসে যাই। সবার সাথে গল্প করি। বসে থাকি। তেমন কোনো কাজ আমাকে করতে হয় না। আর তিনি আমার কাজকে বৈধ বলেই মেনে নিচ্ছেন। কারণ তিনি আমাকে হারাতে চান না।’

‘আমি এ পরিস্থিতি থেকে রক্ষা পেতে চাই। কিন্তু সমস্যা হচ্ছে নারী বস এখন বলছেন, আমি যদি কাজ ছেড়ে দেই, তাহলে এতদিন যে আমি কাজ করিনি, অফিসে কাজ না করে বসে গল্প করে সময় কাটিয়েছি, সেটা তিনি তার ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়ে দেবেন। তিনি এমনভাবে নালিশ করার বিষয়টি বলছেন, মনে হয় তিনি সত্যি সত্যি আমার নামে অভিযোগ করবেন। আমি বুঝতেছি না কেন তিনি এমনটা করছেন। পরামর্শ দিলে কৃতজ্ঞ থাকবো।’

‘মাদ্রাসার লোকেরা কেন যৌন নিপীড়ন করে?’

তার এ পোস্টে অনেকে মন্তব্য করেছেন। নানা ধরনের পরামর্শও দিয়েছেন।

একজন ওই তরুণের উদ্দেশে বলেন, তোমার বস তোমার সঙ্গে কারসাজি করছে। এসব না করে তিনি বলে দিলেই পারে, তুমি কাজে ফাঁকি দিয়েছো? কেন তোমাকে শুধু শুধু হয়রানি করছে? অভিযোগ দিয়ে তোমার বস কিছুই করতে পারবে না। কারণ তুমি তার অধীনে, তার দেওয়া সুবিধা নিয়েই কাজ করোনি। তোমার বয়স ১৯; তোমার বসের বয়স ৪৬। তার বয়স তোমার মায়ের সমান। সে তোমার সঙ্গে বেআইনি কাজ করছে।

আরেকজন লেখেন, যাহোক, আমাকে বিশ্বাস করো, তুমি চাকরি ছেড়ে দাও। আর কখনোই এ চাকরির অভিজ্ঞতার কথা কোনো সিভিতে লিখবে না। তোমার জীবন এ অভিজ্ঞতা ধ্বংস করে দেবে। এ অবস্থা বেশিদিন চলতে দেওয়া উচিৎ হবে না। বস, তোমার জন্য আরও সমস্যা তৈরি করবে। তিনি তোমাকে সহায়তা করছেন না, তোমার ক্যারিয়ার ধ্বংস করে দিচ্ছেন। তিনি একজন প্রতারক।

আরেকজন বলেন, নতুন সিভি তৈরি কর। অন্য চাকরি খোঁজো। এ বিষয় নিয়ে অতিরিক্ত ভেব না। তোমার বস কারো কাছে অভিযোগ দেবে না। কারণ অভিযোগ দিলে সে-ই বিপদে পড়বে। সে তোমাকে যে কোনো মূল্যে ব্যবহার করতে চাইছে।

অন্যরা তাকে চাকরি না ছাড়ার পরামর্শ দিয়েছেন। তাদের পরামর্শ, একজন আইনজীবীর সঙ্গে কথা বলে বসের বিরুদ্ধে প্রতিষ্ঠানের মানবসম্পদ বিভাগে অভিযোগ দায়ের করার।

‘সে তোমার নামে অভিযোগ দেবে না। কারণ অভিযোগ দিলে সে নিজে সমস্যায় পড়বে। যদি তুমি চাকরিতে থাকতে চাও, তাহলে একজন আইনজীবী জোগাড় কর, তোমার অফিসের মানবসম্পদ উন্নয়ন বিভাগে যোগাযোগ কর। আর যদি মনে করো ছেড়ে দেবে, তাহলে আরেকটি চাকরি পাওয়ার আগ পর্যন্ত অপেক্ষা কর। অতীতে কি হয়েছে সামনে আগানোর সময় তা মাথায় নেয়ার দরকার নেই।’ বলেন একজন।

আরেকজন বলেন, এটি যৌন হয়রানি। তোমার বয়স মাত্র ১৯। যদি তোমার বস পুরুষ হতো; আর তুমি নারী হতে, তাহলে বিষয়টাকে তুমি কিভাবে দেখতে? সে তোমাকে কাজে ফাঁকি দেয়ার ব্যবস্থা করে দিয়েছে। আমি বিশ্বাস করি তোমার বসের বস, এটা পছন্দ করবে না। তোমার বস তার চাকরি হারাবে এবং খারাপ পরিণতিতে পড়বে। এটা নিয়ে সে ভীত, সে তোমার নামে অভিযোগ দেবে না।

তৃতীয় আরেকজন বলেন, আমি নিশ্চিতভাবে বলছি, সে তোমাকে যে কাজে ফাঁকি দেয়ার ব্যবস্থা করেছেন তিনি তা স্বীকার করবেন না। তুমি ছেড়ে গেলেও তোমাকে তিনি কিছু করতে পারবেন না। যদি অভিযোগ দেও, তাহলে তোমার বসের মান সম্মান যাবে। পরবর্তী পোস্টে তুমি তোমার নাম স্পষ্ট করে জানিও। তোমাদের সম্পর্কের তথ্য প্রমাণ আমি সংগ্রহ করতে চাই। তোমাকে সেখান থেকে উদ্ধার করার জন্য।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

মিসরে বাস-ট্রাক সংঘর্ষে নিহত ২০

অনলাইন ডেস্ক

মিসরে বাস-ট্রাক সংঘর্ষে নিহত ২০

মিসরের দক্ষিণাঞ্চলীয় একটি মহাসড়কে যাত্রীবাহী বাস ও ট্রাকের সংঘর্ষে অন্তত ২০ জন প্রাণ হারিয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও তিনজন। মঙ্গলবার দেশটির আসিউত শহরে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

আসিউতের গভর্নর এসাম সাদ এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, বাসটি কায়রো থেকে রওয়ানা দিয়েছিল। পথিমধ্যে একটি ট্রাককে ওভারটেক করতে গিয়ে মহাসড়কের ওপর হঠাৎ উল্টে যায় সেটি। এসময় দ্রুতগতির ট্রাকটি বাসে ধাক্কা দেয়। সংঘর্ষে বাস-ট্রাক দুটোতেই আগুন ধরে যায়।

গভর্নরের কার্যালয় থেকে প্রকাশিত ছবিতে দেখা গেছে, পুড়ে যাওয়া বাসের মধ্যে হতাহতদের খুঁজছেন উদ্ধারকারীরা।

আহতদের নিকটবর্তী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনাস্থলে ৩৬টি বাস অ্যাম্বুলেন্স পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছে মিসরীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।


সৌদি-সিঙ্গাপুর-কাতার-ওমান-আরব আমিরাতের জন্য বিশেষ ফ্লাইট

শরিফউল্লাহ রিমান্ডে

করোনা নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ সরকার লকডাউনের নামে চালাচ্ছে শাটডাউন: ফখরুল

আব্দুল মতিন খসরু লাইফ সাপোর্টে


মিসরে প্রতি বছর সড়ক দুর্ঘটনায় হাজার হাজার মানুষ মারা যান। দেশটিতে সড়কের নিরাপত্তা ব্যবস্থা অত্যন্ত দুর্বল হওয়া নিয়ে সমালোচনা হয় প্রচুর।

গত মার্চেই দেশটির গিজা এলাকায় ট্রাক-মিনিবাস সংঘর্ষে অন্তত ১৮ জন প্রাণ হারিয়েছিলেন। ওই মাসেই তাহতা এলাকার কাছে দুটি ট্রেনের সংঘর্ষে অন্তত ২০ জন নিহত এবং ২০০ জন আহত হন।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

আফগানিস্তান থেকে সব মার্কিন সেনা প্রত্যাহার করতে রাজি বাইডেন

অনলাইন ডেস্ক

আফগানিস্তান থেকে সব মার্কিন সেনা প্রত্যাহার করতে রাজি বাইডেন

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র আগামী ১১ সেপ্টেম্বরের আগেই আফগানিস্তান থেকে সব সেনা প্রত্যাহারের পরিকল্পনা করছে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন শিগগিরই এ সংক্রান্ত ঘোষণা দিতে যাচ্ছেন বলে জানা গেছে।

২০০১ সালের ১১ সেপ্টেম্বর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে সন্ত্রাসী হামলা হয়েছিল। এই ঘটনাকে অজুহাত হিসেবে কাজে লাগিয়ে সন্ত্রাসবিরোধী কথিত যুদ্ধের নামে আফগানিস্তানে সামরিক হামলা চালায় আমেরিকা।

যুক্তরাষ্ট্রে ওই দিনের ঘটনা ‘নাইন–ইলেভেন’ নামে পরিচিত। এই ঘটনার ২০ বছর পূর্তির আগেই আফগানিস্তান থেকে সেনা সরিয়ে নেওয়ার কথা ভাবছে আমেরিকা।


সৌদি-সিঙ্গাপুর-কাতার-ওমান-আরব আমিরাতের জন্য বিশেষ ফ্লাইট

শরিফউল্লাহ রিমান্ডে

করোনা নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ সরকার লকডাউনের নামে চালাচ্ছে শাটডাউন: ফখরুল

আব্দুল মতিন খসরু লাইফ সাপোর্টে


আফগানিস্তানে অবস্থানরত মার্কিন সেনা ইতিমধ্যে কমিয়ে আনা হয়েছে। আড়াই হাজারের কিছু বেশি মার্কিন সেনা এখনো আফগানিস্তানে রয়েছেন।

আফগান যুদ্ধ পুরোপুরি গুটিয়ে আনার জন্য এখন তালেবানের সঙ্গেও গোপন সমঝোতা করছে যুক্তরাষ্ট্র।

জো বাইডেন ক্ষমতা গ্রহণের আগেই বলেছিলেন, আফগানিস্তান থেকে সব মার্কিন সেনা দ্রুততার সঙ্গে প্রত্যাহার করা হবে। প্রথমে মে মাসের মধ্যে সেনা প্রত্যাহারের কথা ছিল।

কিন্তু ক্ষমতা নেওয়ার পর প্রেসিডেন্ট বাইডেন বলেন, মে মাসের মধ্যেই আফগানিস্তান থেকে সব মার্কিন সেনা ফিরিয়ে আনা সম্ভব হবে না। আফগানিস্তান দখল করে সেখানে বহু বছর মার্কিন সেনা মোতায়েন থাকলেও সেখানে সহিংসতার অবসান হয়নি। মাদক উৎপাদনের মতো কিছু অন্যায় তৎপরতা আগের চেয়ে আরও বেড়েছে।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

জনসনের টিকা যুক্তরাষ্ট্রে সাময়িক স্থগিত

অনলাইন ডেস্ক

জনসনের টিকা যুক্তরাষ্ট্রে সাময়িক স্থগিত

জনসন অ্যান্ড জনসনের টিকা নেয়ায় বেশ কয়েকজনের শরীরে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। এজন্য টিকাটি সাময়িকভাবে স্থগিত করেছে যুক্তরাষ্ট্র। জানা যায়, টিকা নেয়ার পর বেশ কয়েকজনের শরীরে রক্ত জমাট বেঁধে গেছে। এদিকে যুক্তরাষ্ট্রে এমন খবরে আগেই সতর্ক অবস্থানে দক্ষিণ আফ্রিকা ও ইউরোপীয় ইউনিয়নেও (ইইউ)। তারাও এই টিকার প্রয়োগ সাময়িক স্থগিত ঘোষণা করেছে।

ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদনে এমন তথ্যই জানা গেছে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রে এই টিকা নেওয়ার পর এখন পর্যন্ত মোট ছয় জনের শরীরে রক্ত জমাট বাঁধার ঘটনা ঘটেছে। তবে ইইউ ও দক্ষিণ আফ্রিকায় এমন ঘটনার এখনো ঘটেনি। বিষয়টির ওপর নজর রাখছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

যুক্তরাষ্ট্রের খাদ্য ও ওষুধ নিয়ন্ত্রক সংস্থা ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (এফডিএ) জানিয়েছে, জনসন অ্যান্ড জনসনের টিকা নেয়ার পর দেশটিতে এ পর্যন্ত মোট ছয়জন রক্ত জমাট বেঁধেছে। এই ঘটনার শিকার সবাই নারী এবং তাদের বয়স আঠারো থেকে আটচল্লিশের মধ্যে।

আরও পড়ুন


রোজা মানে শুধু না খেয়ে থাকা না, সুদ, ঘুষ থেকেও বিরত থাকা

সাতক্ষীরায় বাঘের আক্রমণে মৌয়াল আহত

উত্তরায় ৬ তলা ভবনের ছাদ থেকে পড়ে গৃহকর্মীর মৃত্যু

দেশবাসীকে নববর্ষ ও রমজানের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ওবায়দুল কাদের


ফুড অ্যান্ড ড্রাগ বিভাগের বায়োলজিক ইভ্যালুয়েশন অ্যান্ড রিসার্চ কেন্দ্রের পরিচালক ডা. পিটার মার্কস এবং সরকারি রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ কেন্দ্রের প্রধান উপপরিচালক ডা. অ্যানি স্চুচ্যাট এক যৌথ বিবৃতিতে বলেন, ‘অতি সাবধানতা অবলম্বনে আমরা এ টিকার ব্যবহার বন্ধ করছি। এ মুহূর্তে এই নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া খুব বিরল ঘটনা বলেই মনে হচ্ছে।’

দক্ষিণ আফ্রিকায় প্রথম টিকা সরবরাহ করেছিল জনসন অ্যান্ড জনসন। দেশটির মানুষকে এ টিকা দেয়ার পর এখনো রক্ত জমাট বেঁধে যাওয়ার কোনো ঘটনা জানা যায়নি। ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝি থেকে দেশটির প্রায় তিন লাখ স্বাস্থ্যকর্মী জনসন অ্যান্ড জনসনের টিকা নেন।

জনসন অ্যান্ড জনসনের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘আমাদের নীতিমালা অনুসরণ করে স্বেচ্ছাসেবকের অসুস্থতার বিষয়টি পর্যালোচনা করা হচ্ছে। এটি মূল্যায়ন করছে স্বতন্ত্র ডেটা সেফটি মনিটরিং বোর্ড (ডিএসএমবি)। এ ছাড়া আমাদের নিজস্ব চিকিৎসকেরাও এ তথ্য মূল্যায়ন করবেন।’

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

ইরানের ৬০ শতাংশ ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণের ব্যাপারে ‌‘নড়েচড়ে বসেছে’ আমেরিকা-ফ্রান্স

অনলাইন ডেস্ক

ইরানের ৬০ শতাংশ ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণের ব্যাপারে ‌‘নড়েচড়ে বসেছে’ আমেরিকা-ফ্রান্স

ইরান তার নাতাঞ্জ পরমাণু স্থাপনায় শতকরা ৬০ শতাংশ ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করার ঘোষণার পর ‌‘নড়েচড়ে বসেছে’ আমেরিকা-ফ্রান্স। এ ব্যাপারে  প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে দেশ দুটি।

হোয়াইট হাউজের মুখপাত্র জেন সাকি এ ঘটনাকে ‘উসকানিমূলক’ আখ্যায়িত করেছেন।

পাশাপাশি বলেছেন, জো বাইডেন প্রশাসনে এখনো ইরানের সঙ্গে পরমাণু আলোচনা চালিয়ে যাওয়ার পক্ষপাতী।

ইরানের এক ধাপে ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধরণের মাত্রা তিনগুণ বাড়িয়ে দেওয়ার ব্যাপারে মার্কিন সরকার উদ্বিগ্ন বলেও জানান সাকি।

ইরান এ পর্যন্ত সর্বোচ্চ ২০ মাত্রায় ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করেছে।


করোনা নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ সরকার লকডাউনের নামে চালাচ্ছে শাটডাউন: ফখরুল

আব্দুল মতিন খসরু লাইফ সাপোর্টে

ওবায়দুল কাদের কিংবা জাহিদ মালেক যদি এই ডিগ্রিটা পেতেন, তখন কী করতাম: সুমন্ত আসলাম

শ্রীপুরে মসজিদে অচেতন থাকা ব্যক্তিকে উদ্ধা


হোয়াইট হাউজের মুখপাত্র দাবি করেন, আমেরিকা ইরানের পরমাণু সমঝোতায় ফিরে আসতে চায়।

এদিকে দু’দিন আগে ইরানের নাতাঞ্জ পরমাণু স্থাপনায় তিন দিন আগে যে নাশকতামূলক হামলা হয় সে ব্যাপারে কোনো প্রতিক্রিয়া না জানালেও ইরানের নতুন ঘোষণার ব্যাপারে মুখ খুলেছে ফ্রান্স।

ফরাসি প্রেসিডেন্টের প্রাসাদ এক বিবৃতিতে বলেছে, ইরান ৬০ শতাংশ হারে ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করার যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে তার নিন্দা জানায় প্যারিস।

এর আগে ইরান বুধবার থেকে ৬০ মাত্রায় ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করবে বলে জানায় শীর্ষ পর্যায়ের পরমাণু আলোচক এবং উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী সাইয়্যেদ আব্বাস আরাকচি। মঙ্গলবার বিকেলে তিনি এ ঘোষণা দেন।

তিনি ইরানের প্রেস টিভিকে জানান, নাতাঞ্জ পরমাণু স্থাপনায় অন্তর্ঘাতমূলক তৎপরতার কারণে ক্ষতিগ্রস্ত সেন্ট্রিফিউজ শুধুমাত্র বদল করা হবে না বরং ইরান সেখানে ৬০ মাত্রায় ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করবে।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

করোনা রোধে কুয়েতে নামাজ ও রমজানের আনুষ্ঠানিকতায় বিধিনিষেধ

অনলাইন ডেস্ক

করোনা রোধে কুয়েতে নামাজ ও রমজানের আনুষ্ঠানিকতায় বিধিনিষেধ

কুয়েতে উদ্বেগজনক হারে করোনা সংক্রমণ বাড়ায় তা নিয়ন্ত্রণে দেশটির সরকারের পক্ষ থেকে বেশ কিছু বিধি নিষেধ আরোপ করা হয়েছে। গত সোমবার দেশটির মন্ত্রীসভার নিয়মিত বৈঠকে সংক্রমণ রোধে নামাজ ও রমজানের বেশ কিছু আনুষ্ঠানিকতায় বিধিনিষেধ আরোপ করেছেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও মন্ত্রিপরিষদ বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ড. শেখ আহমদ নাসের আল-মোহামাদ আল-সাবাহ মন্ত্রিসভার ভার্চুয়াল বৈঠকের পর এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানান। বিবৃতি থেকে জানা যায়, তারাবিহ নামাজের সময় সীমাবদ্ধ করা হয়েছে এবং রমজান মাসে একটি সন্ধ্যা নামাজের পাশাপাশি রাতের এশার নামাজ মসজিদে ১৫ মিনিটের মধ্যে সীমাবদ্ধ রেখেছে।

প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে প্রধানমন্ত্রী শেখ সাবাহ খালেদ আল-হামাদ আল-সাবাহার নেতৃত্বে মন্ত্রিসভা নামাজের পরে মসজিদে ধর্মীয় বক্তৃতা বা খুতবা প্রদান ও কোনও কার্যক্রম পরিচালনা নিষিদ্ধ করেছে।

মন্ত্রিসভা মসজিদে বা অন্য যে কোনও সরকারি বা বেসরকারি জায়গায় ইফতার (দ্রুত ব্রেকিং) ভোজের ব্যবস্থা নিষিদ্ধ করেছে। এটি অবশ্য অভাবগ্রস্তদের মধ্যে প্যাকেটযুক্ত দ্রুত বণ্টন করার অনুমতি দেয়। দেশের মহামারি পরিস্থিতি নিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. শেখ বাসেল আল-সাবাহের উপস্থাপনার পরে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

আরও পড়ুন


লকডাউন কার্যকরে কঠোর অবস্থানে পুলিশ, নগরীর মোড়ে-মোড়ে চেকপোস্ট

৮ দিনের লকডাউন শুরু, রাজধানীর সড়কে সুনসান নীরবতা

করোনাবিধ্বস্ত জনপদে উৎসবহীন পহেলা বৈশাখ আজ

রাজধানীর যাত্রবাড়ী থেকে হেফাজত নেতা মুফতি শরিফউল্লাহ গ্রেপ্তার


মন্ত্রী আরও বলেন, কুয়েতে করোনাভাইরাস সংক্রমণ ও প্রাণহানির সংখ্যা এখনও বেশি। পরিস্থিতি নাজুক ও ভাইরাসকে লাগাম টানার জন্য জনগণের ভ্যাকসিন নেয়া জরুরি। মন্ত্রিসভা নাগরিকদের সামাজিক দূরত্ব মেনে এবং অন্যান্য করোনাভাইরাসের সাবধানতামূলক ব্যবস্থাগুলো মেনে চলার আহ্বান জানিয়েছে।

মন্ত্রিসভা জিবুতির রাষ্ট্রপতি ইসমাইল ওমর গুলেলেহকে পুনর্নির্বাচন করার জন্য অভিনন্দন জানিয়ে তার অভিযানে সাফল্য কামনা করেছেন এবং তার দেশের আরও অগ্রগতি ও কল্যাণ কামনা করেছেন। সূত্র: আরব টাইমস কুয়েত।

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর