কার্বনমুক্ত অত্যাধুনিক শহর করছে সৌদী আরব

মাসুদ রানা

কার্বনমুক্ত অত্যাধুনিক শহর করছে সৌদী আরব

সৌদি আরবের সীমান্তবর্তী শহর নিওমকে কার্বনমুক্ত অত্যাধুনিক নগর হিসেবে গড়ে তোলার পরিকল্পনা নিয়েছে সৌদি আরব। কার্বন নির্গমনের জন্য এই শহরে থাকছে না কোন গাড়ি। দ্য লাইন নামের এই শহরের ব্যাপ্তি হবে ১৭০ কিলোমিটার। প্রকল্প বাস্তবায়নে ২০ হাজার কোটি মার্কিন ডলার ব্যয় হতে পারে। 

আস্ত এক শহর, যেখানে কোনো পরিবেশ দূষণ নেই। একুশ শতকে দাঁড়িয়ে এমনটা ভাবাই যায় না। তবে রোববার সৌদি আরব যে নতুন শহরের নকশা দেখিয়েছে, তাতে এই অসম্ভবকে সম্ভব করার কথা বলা হয়েছে। নির্মাণ পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন, সৌদি আরবের যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান।

চীনে সোনার খনিতে ২২ শ্রমিক আটকা

ভাইরাসের উৎস সন্ধানে চীনে যাবে ডব্লিউএইচওর তদন্তকারী দল

তিনি বলেন,  ইতিহাস ও সভ্যতার ক্রমধারায় একসময় শিল্পবিপ্লব দেখেছে বিশ্ব,  তখন আমরা দেখলাম শহর নিয়ন্ত্রণে গাড়ি, কলকারখানা ও যন্ত্রপাতির আধিপত্য। এই আধিপত্য ২০২৫ সালের মধ্যে দ্বিগুণ হবে।  তবে সময় এসেছে আগামীর শহরের ধারণা পাল্টে দেওয়ার। 
লোহিত সাগরের কোল ঘেঁষে ২৬ হাজার ৫শ বর্গকিলোমিটার এলাকার উন্নয়নের পরিকল্পনা সৌদি সরকারের।  বিভিন্ন এলাকায় বিভক্ত এসব অঞ্চলের একটি দ্য লাইন। লোহিত সাগরের ধারে জিরো এমিশন বা সম্পূর্ণ দূষণহীন এই শহর তৈরির কাজ শুরু হবে এ বছরের প্রথম অর্ধে। কাজ শেষ হতে সময় লাগবে প্রায় ১০ বছর। পুরো পরিকল্পনা বাস্তবায়নে ৫০ হাজার কোটি মার্কিন ডলার সহায়তা দেবে দেশটির সরকার।

১শ ৭০ কিলোমিটার শহর পরিচালিত হবে শতভাগ পরিবেশবান্ধব জ্বালানি দিয়ে। গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো, এই শহরে কোনো গাড়ি চলবে না। কার্বন নিঃসরণ হয়, এমন কোনো জিনিস রাখা হবে না। কিন্তু তাই বলে শহরটি বিজ্ঞান এবং প্রযুক্তিতে পিছিয়ে থাকবে না। বরং আরো অত্যাধুনিক হবে। মূলত বিজনেস বা বাণিজ্য হাব হিসেবে গড়ে তোলা হবে এই শহর।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

দুর্নীতির দায়ে ফ্রান্সের সাবেক প্রেসিডেন্টের কারাদণ্ড

অনলাইন ডেস্ক

দুর্নীতির দায়ে ফ্রান্সের সাবেক প্রেসিডেন্টের কারাদণ্ড

দুর্নীতির দায়ে ফ্রান্সের সাবেক প্রেসিডেন্ট নিকোলাস সারকোজিকে তিন বছরের কারদণ্ড দিয়েছেন দেশটির আদালত। একই সাথে তার সাবেক দুই আইনজীবীকেও তিন বছরের কারাদন্ড দেওয়া হয়েছে। সোমবার (১ মার্চ) এ রায় ঘোষণা করা হয়।

নিকোলাস সারকোজিকে গৃহবন্দি করে রাখা হবে। সেজন্য তাকে ইলেকট্রনিক ট্যাগও দিতে হবে বলে রায় ঘোষণার সময় বলেন আদালত।

এদিকে, রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল করবেন বলে জানিয়েছেন নিকোলাস।

উল্লেখ্য, ফ্রান্সের সাবেক এই প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে দুর্নীতি, লিবিয়ায় রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে উৎকোচ গ্রহণ ও তা গোপন রাখার এবং ২০১২ সালের নির্বাচনী প্রচারাভিযনের কাজে অবৈধভাবে অর্জিত সম্পদ ব্যবহারের অভিযোগ আনা হয়।

এছাড়া ২০০৭ সালের নির্বাচনী প্রচারের কাজে লিবিয়ার সাবেক শাসক মুয়াম্মার গাদ্দাফির কাছ থেকে পাঁচ কোটি ইউরো ঘুষ গ্রহণ করেছিলেন বলে অভিযোগ রয়েছে নিকোলাসের বিরুদ্ধে। ২০১১ সালে গণ অভ্যুত্থানে গাদ্দাফি ক্ষমতাচ্যুত ও নিহত হওয়ার পর এই অভিযোগ উত্থাপন করেন গাদ্দাফির পুত্র সাইফুল ইসলাম গাদ্দাফি।


আমাকে ‘বলির পাঁঠা’ বানানো হয়েছে: সামিয়া রহমান

পরবর্তী নির্বাচনে আবারও অংশ নিবেন ডোনাল্ড ট্রাম্প

ইরানের সমঝোতা প্রস্তাব প্রত্যাখ্যানে হতাশ যুক্তরাষ্ট্র

খাশোগি হত্যাকান্ড: রহস্যজনকভাবে বদলে গেল প্রতিবেদনে অভিযুক্তের নাম


সম্প্রতি বিচারককে ঘুষ দেয়ার চেষ্টার অভিযোগও রয়েছে তার বিরুদ্ধে। এই রায়ের ফলে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর ফ্রান্সের ইতিহাসে প্রথম কোনও ঘটনা যেখানে একজন সাবেক প্রেসিডেন্ট দুর্নীতির অভিযোগে কারাদণ্ড ভোগ করতে যাচ্ছেন।

সূত্র: বিবিসি

news24bd.tv / নকিব

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগের দাবিতে ব্যাংককে ব্যাপক বিক্ষোভ

অনলাইন ডেস্ক

থাইল্যান্ডের রাজধানী ব্যাংককে দেশটির প্রধানমন্ত্রী প্রায়ুথ চান ওচা এবং তার সরকারের পদত্যাগের দাবিতে রোববার ব্যাপক বিক্ষোভ হয়েছে। এতে পুলিশের সাথে বিক্ষোভকারীদের সংঘর্ষে অন্তত ১৬ জন আহত হয়েছে।

রোববার  মিছিল নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে যাওয়ার চেষ্টা করলে, পুলিশ রবার বুলেট, কাঁদুনে গ্যাস নিক্ষেপ করে ও জলকামান থেকে পানি ছুড়ে তাদের গতিরোধ করার চেষ্টা করে। 


পুলিশকে কেন প্রতিপক্ষ বানানো হয়, প্রশ্ন আইজিপির

আমাকে ‘বলির পাঁঠা’ বানানো হয়েছে: সামিয়া রহমান

বিমা খাতে সচেতনতা সৃষ্টির ক্ষেত্রে আরও প্রচার প্রয়োজন: প্রধানমন্ত্রী

পোশাক খাতে ভিয়েতনামকে পেছনে ফেললো বাংলাদেশ


গেল বছর প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগের দাবিতে থাইল্যান্ডের তরুণদের নেতৃত্বাধীন রাজনৈতিক আন্দোলন বেগবান হয়ে ওঠে। এসময় প্রতিবাদকারীরা মিয়ানমারের অভ্যুত্থান বিরোধীদের প্রতিও সমর্থন জানান।  

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

গুলিতে প্রাণ গেল ১৮ জনের, তবুও রাজপথে আন্দোলনকারীরা

নাহিদ জিহান

গতকাল রোববার মিয়ানমারে পুলিশের গুলিতে ১৮ জনের প্রাণ যাবার পরেও রাজপথ ছাড়েননি আন্দোলনকারীরা। সোমবারও গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠার দাবিতে বিক্ষোভ অব্যাহত রাখেন তারা। এর মাঝেই সোমবার বিচারের জন্য ভিডিও লিংকের মাধ্যমে আদালতে হাজির করা হয় ক্ষমতাচ্যুত নেত্রী অং সান সু চিকে। 

এদিকে, বিক্ষোভকারীদের ওপর জান্তা সরকারের নিপীড়নে ব্যাপক হতাহতের ঘটনার নিন্দা জানিয়েছে আর্ন্তজাতিক সম্প্রদায়। 

মিয়ানমারে সাম্প্রতিক সামরিক অভ্যুত্থোনের পর সবচেয়ে বেশি রক্ত ঝরেছে ২৮ ফেব্রুয়ারি। দিনব্যাপী বিক্ষোভকারীদের ওপর পুলিশ সরাসরি গুলি, কাঁদানে গ্যাস, স্টান গ্রেনেডও ছুড়ে। 

এ ঘটনায় বিপুল পরিমাণ মানুষের হতাহতের ঘটনাতেও দমে যায়নি বিক্ষোভকারীরা। বরং দ্বিগুণ উদ্যমে সোমবারও ইয়াঙ্গুনসহ বিভিন্ন শহরে মিছিলে নামেন তারা। অবসান দাবি করেন সামরিক শাসনের। আন্দোলনকারীদের হটাতে সোমবারও তাদের ওপর কাঁদানো গ্যাস, স্টান গ্রেনেড ছোড়ে পুলিশ।


পুলিশকে কেন প্রতিপক্ষ বানানো হয়, প্রশ্ন আইজিপির

আমাকে ‘বলির পাঁঠা’ বানানো হয়েছে: সামিয়া রহমান

বিমা খাতে সচেতনতা সৃষ্টির ক্ষেত্রে আরও প্রচার প্রয়োজন: প্রধানমন্ত্রী

পোশাক খাতে ভিয়েতনামকে পেছনে ফেললো বাংলাদেশ


এদিকে দেশের এমন উত্তাল পরিস্থিতির মাঝেই সোমবার বিচারের জন্য আদালতে হাজির করা হয় ক্ষমতাচ্যুত নেত্রী অং সান সু চিকে। তবে সশরীরে নয়,  রাজধানী নেপিডোর একটি আদালতে ভিডিও লিংকের মাধ্যমে সু চিকে হাজির করতে দেখা গেছে বলে জানিয়েছেন তাঁর আইনজীবী খিন মং জঁ। এ নিয়ে দ্বিতীয়বার শুনানীর জন্য আদালতে হাজির করা হলো সু চিকে। 

মিয়ানমারে রোববারে বিক্ষোভে পুলিশের গুলিতে ব্যাপক হতাহতের ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছে বিশ্ব সম্প্রদায়। জাতিসংঘ, ইউরোপীয় ইউনিয়ন, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ইন্দোনেশিয়া, তুরস্কসহ বিভিন্ন মানবাধিকার সংগঠনও এদিনের ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে। 

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগের দাবিতে জোর করে সরকারি ভবনে ঢুকে বিক্ষোভ

অনলাইন ডেস্ক

প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগের দাবিতে জোর করে সরকারি ভবনে ঢুকে বিক্ষোভ

আর্মেনিয়ার প্রধানমন্ত্রী নিকোল পাশিনিয়ানের পদত্যাগের দাবিতে রাজধানীর একটি সরকারি ভবনে ঢুকে পড়েছে বিক্ষোভকারীরা। আজ সোমবার দেশটির রাজধানী ইয়েরেভানে বিক্ষোভকারীরা জোর করেই একটি সরকারি ভবনে ঢুকে পড়ে বলে জানিয়েছে আল জাজিরা।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশিত ফুটেজে দেখা গেছে, মেগাফোন হাতে কয়েকজন বিক্ষোভকারী ভবনে ঢুকে পড়লেও পুলিশ তখন দাঁড়িয়ে থেকে কিছুই করেনি।

কারাবাখ যুদ্ধে আজারবাইজানের কাছে শোচনীয় পরাজয়ের জন্য পাশিনিয়ান সরকারকে দায়ী করে আসছে বিক্ষোভকারীরা। এ সময় তাদের নিকোল তুমি বিশ্বাসঘাতক, নিকোল তুমি সরে যাও ইত্যাদি স্লোগান দিতে দেখা যায়। 


আমাকে ‘বলির পাঁঠা’ বানানো হয়েছে: সামিয়া রহমান

পরবর্তী নির্বাচনে আবারও অংশ নিবেন ডোনাল্ড ট্রাম্প

ইরানের সমঝোতা প্রস্তাব প্রত্যাখ্যানে হতাশ যুক্তরাষ্ট্র

খাশোগি হত্যাকান্ড: রহস্যজনকভাবে বদলে গেল প্রতিবেদনে অভিযুক্তের নাম


গত বছর নাগার্নো-কারাবাখে আজারবাইজানের কাছে পরাজয়ের পর থেকেই আর্মেনিয়ার প্রধানমন্ত্রী নিকোল পাশিনিয়ানের পদত্যাগের দাবিতে বিক্ষোভ চলছে। তবে এই আন্দোলন সম্প্রতি জোরদার হয়েছে। দেশটির সেনাবাহিনীও পাশিনিয়ান সরকারের পদত্যাগের দাবি জানিয়েছে।

news24bd.tv / নকিব

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

মিয়ানমারে শতাধিক কর্মকর্তাকে দেশে ফেরার নির্দেশ

অনলাইন ডেস্ক

মিয়ানমারে শতাধিক কর্মকর্তাকে দেশে ফেরার নির্দেশ

বিদেশী মিশনে কর্মরত শতাধিক কর্মকর্তাকে দেশে ফেরার নির্দেশ দিয়েছে মিয়ানমারের সামরিক সরকার। জাতিসংঘে মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূত কিয়াউ মো তুনের সেনাবিরোধী বিদ্রোহের পরই অন্তত ১৯টি দেশে এই নির্দেশ দেওয়া হয়।

সেই সঙ্গে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রায় অর্ধশতাধিক কর্মকর্তাকে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বদলির নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। গোপন করতে চাইলেও এ সম্পর্কিত বেশ কিছু নথি ফাঁস হয়ে এসব খবর প্রকাশিত হয়ে পড়েছে।

নথিতে বলা হয়েছে, রোববার এক নির্দেশনায় বিভিন্ন মন্ত্রণালয়বিষয়ক উপদেষ্টা ও সচিবসহ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের ডেকে পাঠায় সামরিক জান্তা সরকার। 


ফাহাদ মুস্তফা যেন দাঁড়িসহ দীপিকা!

পরবর্তী নির্বাচনে আবারও অংশ নিবেন ডোনাল্ড ট্রাম্প

ইরানের সমঝোতা প্রস্তাব প্রত্যাখ্যানে হতাশ যুক্তরাষ্ট্র

খাশোগি হত্যাকান্ড: রহস্যজনকভাবে বদলে গেল প্রতিবেদনে অভিযুক্তের নাম


এসব কর্মকর্তা যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন, অস্ট্রিয়া, ব্রাজিল, ফ্রান্স, নরওয়ে, বেলজিয়াম, সার্বিয়া, চীনা, জাপান, ভারত, সিঙ্গাপুর, থাইল্যান্ড, হংকং, ইন্দোনেশিয়া, কম্বোডিয়া, দক্ষিণ কোরিয়া ও ফিলিপাইনের মতো ১৯ দেশে কর্মরত রয়েছেন। 

এতে আরও বলা হয়, রাজধানী নেপিদোয় দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে ব্যাপক রদবদল করা হয়েছে। মন্ত্রণালয়ের শতাধিক কর্মকর্তাকে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বদলির নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

news24bd.tv / নকিব

মন্তব্য

পরবর্তী খবর