স্বামী বিবেকানন্দের জন্মদিনে বিভ্রান্তিমূলক পোস্টার, সমালোচনা শ্রীলেখার

অনলাইন ডেস্ক

স্বামী বিবেকানন্দের জন্মদিনে বিভ্রান্তিমূলক পোস্টার, সমালোচনা শ্রীলেখার

স্বামী বিবেকানন্দের জন্মদিনের ফ্লেক্সে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি দেখে সমালোচনা করলেন ভারতীয় বাঙালি চলচ্চিত্র অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র।

ফেসবুকের ভাইরাল ছবি দেখে হতবাক অভিনেত্রী।

অটোর পেছনে লাগানো হয়েছে ওই পোস্টার। যা স্বামী বিবেকানন্দের জন্মদিন উপলক্ষেই তৈরি করা হয়েছে।

যাতে লেখা, স্বামী বিবেকানন্দ-এর ১৫৮-তম জন্ম দিবস উদযাপন। কিন্তু সেই পোস্টারে মণিষীর মুখ কোথায়? তাঁর পরিবর্তে এ তো রাজনীতিক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি দেওয়া পোস্টারে! দার্জিলিং জেলা কমিটির তৃণমূল যুব কংগ্রেসের পক্ষ থেকে এই পোস্টারটি তৈরি করা হয়েছে। সুযোগ বুঝে আবার কেউ কেউ ওই অটোর পেছনে লাগানো পোস্টারকে ফ্রেমবন্দি করতেও ছাড়েননি।

ব্যাঙ্গাত্মক বাক্যবাণে কটাক্ষ করে শেয়ারও করেছিলেন ফেসবুকে। মুহূর্তের মধ্যে যা ভাইরাল হয়ে যায়। নজর এড়ায়নি অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্রর। তিনিও ওই ছবি ফেসবুকে শেয়ার করে ঠাট্টা করেছেন।

শ্রীলেখা বরাবরই স্পষ্টভাষী। সোজাসুজি কথা বলতে ভালোবাসেন। এক্ষেত্রেও তার অন্যথা হল না। রাজ্যের শাসকদলের এহেন কর্মকাণ্ড নিয়ে বিদ্রুপ করলেন। বিভ্রান্তিমূলক ওই পোস্টারের ছবি শেয়ার করে শ্রীলেখা লিখেছেন, “আহা… চোখ, মন আরও যা যা আছে সব জুড়িয়ে গেল দেখে।

ছবিটি তিনি সারণ দত্ত বলে যাঁর সোশ্যাল-ওয়াল থেকে নিয়েছেন তাঁর নামও উল্লেখ করেছেন ওই পোস্টে।

অভিনেত্রীর ফেসবুক ওয়ালে ভাইরাল ওই বিভ্রান্তিমূলক পোস্টার দেখে নেটিজেনরাও কটাক্ষ করতে শুরু করেছেন। কেউ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে বিঁধে, ভাইপো নাকি মালপো বলছেন, আবার কেউ বা এই গোটা বিষয়টিকে ‌‌‌‌আস্ত অশিক্ষার নিদর্শন' হিসেবেও ব্যাখ্যা করেছেন।

প্রসঙ্গত, এর আগেও তৃণমূলের দুই সাংসদ-অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী এবং নুসরত জাহানকে নিয়ে মন্তব্য় করেছিলেন শ্রীলেখা। 

তখন তিনি বলেছিলেন, ‌‘টিকটক তো বন্ধ হয়ে গেল, এবার সাংসদরা কোথায় মুখ দেখাবেন?’

খোঁচা দেওয়া এমন মন্তব্যে শোরগোল পড়ে যায় নেটদুনিয়ায়।

এবার স্বামী বিবেকানন্দের জন্মদিনে তাঁর নাম করে বিভ্রান্তিমূলক পোস্টার শেয়ার করে ফের কটাক্ষ করলেন টলিউড অভিনেত্রী।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

বেলুনের মতো পোশাক পরে হাসির খোরাক প্রিয়াঙ্কা

অনলাইন ডেস্ক

বেলুনের মতো পোশাক পরে হাসির খোরাক প্রিয়াঙ্কা

কখনো গাড়ির হর্ন, কখনো বা প্যারাসুট কখনো চকলেট বোমা হয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছেন বলিউড সুপারস্টার প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। নেট দুনিয়ায় এমন প্রিয়াঙ্কারই দেখা মিলছে, যা নিয়ে হাসাহাসি চলছে প্রচুর। এর আগে নানা আন্তর্জাতিক অনুষ্ঠান তথা রেড কার্পেটে প্রিয়াঙ্কা চোপড়া পোশাক নিয়ে প্রশংসিত হলেও বেশকিছু ক্ষেত্রে হাসি-ঠাট্টারও শিকারও হয়েছেন তিনি। ফের পোশাক নিয়ে হাসির খোরাক হচ্ছেন প্রিয়াঙ্কা।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়া টুডের খবরে বলা হয়,প্রিয়াঙ্কাকে এবার  দেখা গেছে সবুজ রঙের বল ড্রেস পরিহিত অবস্থায়। পায়ে রয়েছে উঁচু হিল জুতা। মাথায় টপ-নট। কিন্তু শর্ট ড্রেসটা পুরো বেলুনের মতো ফুলে রয়েছে। আর বেলুনের মতো ফুলে যাওয়া ড্রেন নিয়েই মাজায় মেতেছেন নেটিজেনরা। তারা প্রিয়াঙ্কাকে নিয়ে হাসি-তামাশা শুরু করেছেন।


অস্ত্রের মুখে ছাত্রীকে বিবস্ত্র করে ভিডিও ধারণের পর দফায় দফায় ধর্ষণ

মেয়েকে তুলে নিয়ে মাকে রাত কাটানোর প্রস্তাব অপহরণকারীর

নাসির বিয়ে করেছেন আপনার খারাপ লাগে কেন?

ঘুমন্ত স্বামীর পুরুষাঙ্গ কাটলেন স্ত্রী


প্রিয়াঙ্কার আজব এই পোশাক দেখেই মিম তৈরিকারীরা নিজেদের সৃষ্টিশীলতা ফুটিয়ে তুলছেন নানাভাবে।একের পর এক মজাদার মিম নিমেষে ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

এদিকে, নানা সময় হাসির খোরাক হওয়া বলিউডের ‘দেশি গার্লের’ পোশাক স্টাইল এখন বিনোদনের জগতে চর্চার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। ছড়িয়ে পড়েছে একের পর এক মিম। তা দেখে এতটুকু রেগে যাননি ‘বেওয়াচ’ অভিনেত্রী। এবারের বিষয়টি তিনি নিজেই যে খুব উপভোগ করছেন তা বোঝা যাচ্ছে। তার এ পোশাক নিয়ে বানানো একাধিক মিম নিজেই তার টুইটার ও ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে শেয়ার করছেন।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

চিরযুবক শাহিদ, সাবেক প্রেমিকার শুভেচ্ছাবার্তা

অনলাইন ডেস্ক

চিরযুবক শাহিদ, সাবেক প্রেমিকার শুভেচ্ছাবার্তা

বলিউড স্টার শাহিদ কাপুর। ভক্তদের দিয়েছেন অনেক ব্যবসা সফল ছবি। তবে তিনি এখনও অভিনয় করেন কলেজপড়ুয়া ছাত্রের ভূমিকায়। বৃহস্পতিবার ৪০ বছর পূর্ণ হল শাহিদ কাপুরের।

বলিউড এই অভিনেতাকে স্ত্রী মীরা রাজপুত, ভাই ঈশান খট্টরসহ ইন্ডাস্ট্রির অনেকেই শুভেচ্ছাবার্তা জানিয়েছেন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। শুভেচ্ছা জানাতে ভুলে জাননি সাবেক প্রেমিকা কারিনা কাপুর খানও।

মীরা ও শাহিদের বিয়ের সময়ে তাঁদের বয়সের ব্যবধান নিয়ে নানা চর্চা হয়েছিল। কিন্তু সে সব ছাপিয়ে কর্তা-গিন্নির প্রেমে ভরা সোশ্যাল মিডিয়া পোস্ট কেড়ে নেয় লাইমলাইট। এ দিন মীরা ছবির ক্যাপশনে লিখেছেন, ‘‘আমি লাকি, কারণ তুমি কোনও বিষয়ে মাথা ঘামাও না। আর তুমিও ভাগ্যবান, কারণ আমি কোনও অসুবিধে বুঝতে দিই না।’’

শৈশবে দাদার কোলে এবং ‘কফি উইথ কর্ণ’-এ দুই ভাইয়ের ছবির কোলাজ পোস্ট করেছেন ঈশান। জীবনের প্রতিটি হাসি-কান্নার মুহূর্তে ‘বড়ে ভাইয়া’র পাশে থাকাই তাঁর ক্যাপশনে লেখা ছিল।

আরও পড়ুন:


বগুড়ায় বাস-ট্রাক-টেম্পুর ত্রিমুখী সংঘর্ষে নিহত ৪

চট্টগ্রামে সূর্যমুখী ফুলের হাসি দেখতে ভীড় করছেন দর্শনার্থীরা

দীর্ঘ সময় পর রং তুলির আঁচরে ১১ বন্ধুর চিত্র প্রদর্শনী

অন্তহীন সমস্যায় রাজধানীবাসী, সমন্বয়ের তাগিদ


কারিনা কাপুরের অফিশিয়াল ফ্যান পেজ থেকে শাহিদকে শুভেচ্ছা জানিয়ে একটি পোস্ট করা হয়েছে। ‘জব উই মেট’ ছবির একটি দৃশ্য পোস্ট করে লেখা হয়েছে, ‘‘হ্যাপি বার্থডে টু মিস্টার কাশ্যপ।’’ শাহিদ-কারিনা জুটির এই ছবি তাঁদের দু’জনের ক্যারিয়ারে একটি মাইলফলক। কিন্তু এই ছবির আগেই তাঁদের বিচ্ছেদ হয়ে গিয়েছিল। এখন অবশ্য দু’জনেই নিজেদের ব্যক্তিগত জীবনে সুখী।

শাহিদের আগামী ছবি ‘জার্সি’তে তাঁর সঙ্গে অভিনয় করবেন ম্রুণাল ঠাকুর। নবীন অভিনেত্রী শাহিদকে শুভেচ্ছা জানিয়ে লিখেছেন, ‘ধন্যবাদ, আমার পারফরম্যান্সের মান বাড়ানোর জন্য।’’ এই ছবিতে রয়েছেন শাহিদের বাবা পঙ্কজ কাপুরও।

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

ভেঙে পড়েছেন মিমি

অনলাইন ডেস্ক

ভেঙে পড়েছেন মিমি

টালিউড অভিনেত্রী ও সংসদ সদস্য মিমি চক্রবর্তী মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছেন। তবুও লড়াই করতেই হবে। এমন প্রত্যয়ে ভক্তদের পাশে থাকার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। কী হয়েছে মিমির? উত্তরটাও সোশ্যাল মিডিয়ায় লম্বা পোস্টের মাধ্যমে নিজেই জানিয়েছেন নায়িকা।

কদিন আগেই গিয়েছিলেন গোয়া। নাচে গানে মাতিয়েছিলেন সব। কিন্তু হঠাৎ কি হলো তার? অভিনেত্রীর ইনস্টাগ্রাম পোস্ট পড়ে মন খারাপ অনুরাগীদেরও।


কার সাথে কার পরকিয়া তা চিন্তা করে মাথা নষ্ট করবেন না : আঁখি আলমগীর

নাসির প্রেমিক না আমার বন্ধু : মডেল মিম

আমার বয়ফ্রেন্ড নিয়ে আমিও মজায় আছি : নাসিরের সাবেক প্রেমিকা

তামিমার সাবেক স্বামীকে বাটপার বলছে মিম


বোঝে না সে বোঝে না ছবির নায়িকা মিমি লিখেছেন, বন্ধুরা আমি ছিন্ন, বিচ্ছিন্ন, বিধ্বস্ত। আমি শ্বাস নিতে পারছি না। এই লড়াইয়ের জন্য আমার প্রয়োজন আপনাদের সাহায্যের প্রয়োজন। এতক্ষণে নিশ্চয় জেনে গেছেন বাচ্চাটি কে? আমার বড় ছেলে চিকু, ও আট বছরের ল্যাব্রাডর। ও ক্যানসারে আক্রান্ত। যা এখন ছড়িয়ে পড়েছে। এখানকার চিকিৎসকরা হাল ছেড়ে দিয়েছেন এবং কোনো অস্ত্রোপচারও সম্ভব নয় বলে জানিয়েছেন। আমি চেন্নাই যেতে চাই। যে কেউ আমাকে সাহায্য করতে পারেন? তাহলে ইনবক্সে উত্তর দিন।

এই পোস্ট দেখেই বোঝা যায় মিমি তার পোষ্যদের কতোটা ভালোবাসেন, তা তার অনুরাগীরা বেশ ভালো করেই জানেন। দুই পোষ্য চিকু ও ম্যাক্সকে তিনি সন্তান স্নেহেই ভালোবাসেন। এবার বড় ছেলে চিকুর অসুস্থতায় ভেঙে পড়েছেন মিমি।

চিকুর অসুস্থতায় ভেঙে পড়েছেন মিমি

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

কারণে-অকারণে রাকিবকে চড়-থাপ্পড় দিত তামিমার মা

অনলাইন ডেস্ক

কারণে-অকারণে রাকিবকে চড়-থাপ্পড় দিত তামিমার মা

টেলিভিশনে মা তামিমা সুলতানা তাম্মির বিয়ের খবর দেখে শিশুকন্যা রাফিয়া হাসান তুবা। মায়ের বিয়ে দেখে কান্নায় ভেঙে পড়ে সে। সেদিন খুব কষ্ট পায় ৮ বছরের তুবা।

বুধবার ঢাকায় ক্রিকেটার নাসির হোসেনের নববিবাহিত স্ত্রী তামিমা সুলতানা তাম্মি সংবাদ সম্মেলনে এবং বিভিন্ন গণমাধ্যমে দেওয়া বক্তব্যে রাকিবের ঘরে জন্ম নেওয়া তাম্মির শিশুকন্যা ৮ বছরের রাফিয়া হাসান তুবাকে জোর করে তাম্মির বাসা থেকে নিয়ে যাওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন।

তবে সেই অভিযোগ সত্য নয় বলে জানিয়েছে শিশু তুবা। বাসায় তাম্মির মা তাকে মারধর করতো বলে অভিযোগ তুবার।

তুবা জানায়, তার বাবা রাকিবকে দেখতে পারত না তাম্মির মা। তাকেও কারণে-অকারণে চড়-থাপ্পড় দিত। বাসায় সারাক্ষণ ধমকের ওপর রাখত তাকে নানি। একটু এদিক-সেদিক হলেই রাগারাগি আর গালাগালি করত। এ কারণে সে নিজের ইচ্ছায় বাবার সাথে দাদির কাছে চলে আসে।


গণধর্ষণের চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে কলেজছাত্রীর গায়ে আগুন

বাবার সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে রাতধর ধর্ষণের শিকার মেয়ে

৩০-৩২ গার্লফ্রেন্ড থাকার পরও আমাকে ভালোবাসত নাসির: তামিমা

আমার সব প্রশ্নের জবাব ইসলামে পেয়েছি: কানাডিয়ান নারী


কান্নাজড়িত কণ্ঠে তুবা বলে- মা এখন আর আমায় ফোন দেয় না। আমার সাথে কথাও বলে না। মা অনেক পচা হয়ে গেছে। সে আরেকজনকে বিয়ে করেছে। আপনারা আমার মাকে এনে দিন। আমি মা আর বাবাকে নিয়ে সবাই একসঙ্গে থাকব।

রাকিবের মা সালমা সুলতানা বলেন, ১০-১২ বছর আগে রাকিবের সঙ্গে বিয়ে হয় তাম্মির। প্রেম করে বিয়ে করায় প্রথমে আমরা মেনে নেইনি। পরে তুবার জন্ম হলে সম্পর্ক স্বাভাবিক হয়। শুরু থেকেই তাম্মির আচরণ কিংবা স্বভাব কোনোটাই ভালো ছিল না। তবুও আমরা ছেলে আর নাতির মুখ চেয়ে কখনো কিছু বলিনি।

তিনি বলেন, রাকিবের বউ থাকা অবস্থায় তাম্মি যে আবার বিয়ে বসবে সেটা আমাদের কল্পনাতেও ছিল না। তুবাই প্রথম টেলিভিশনে দেখে আমার কাছে এসে গলা জড়িয়ে ধরে কান্নায় ভেঙে পড়ে আর বলে যে মা আবার বিয়ে করেছে।

তুবার দাদি বলেন, গত ২৬ আগস্ট ছিল তুবার জন্মদিন। সেদিন আমরা কেক কেটেছি, তুবা অনুষ্ঠানে নাচ করেছে। ভিডিও কলে তাম্মিকে সব দেখিয়েছি আমরা। সেও আনন্দ পাওয়ার অনেক ভান করেছে সেদিন। কিন্তু তখনও ঘূণাক্ষরেও বুঝতে পারিনি যে সে এরকম একটা কিছু করবে। তাম্মি নিজে থেকে ফোন করে কখনই তুবার কোনো খোঁজখবর নিত না। তুবা মাকে ফোন করে কথা বলতে চাইলেও নানা ব্যস্ততার অজুহাত দেখিয়ে লাইন কেটে দিত তাম্মি।

তিনি বলেন, মায়ের বিয়ের খবর টিভিতে দেখে মেয়েটা যে কত কষ্ট পেয়েছে তা বলে বোঝাতে পারব না। সারাদিন মনমরা হয়ে বসে থাকে। কারও সঙ্গে তেমন একটা কথাও বলে না। বাড়ির একটি মাদ্রাসায় পড়াশুনা করে তুবা। বন্ধুদের সঙ্গেও সে এখন আর খেলতে যায় না।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

রিতেশ আমাকে বিয়ে করতে চেয়ে আর আসেনি: রাখি

অনলাইন ডেস্ক

রিতেশ আমাকে বিয়ে করতে চেয়ে আর আসেনি: রাখি

ভারতীয় নৃত্যশিল্পী, মডেল, হিন্দি চলচ্চিত্র ও টেলিভিশন অভিনেত্রী ও উপস্থাপক রাখ সাওয়ান্ত। তিনি হিন্দি চলচ্চিত্রে অভিনয়ের পাশাপাশি বেশ কয়েকবার কন্নড়, মারাঠি, ওড়িয়া, তেলুগু এবং তামিল চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন। ‘বিগ বস’-এর চূড়ান্ত এপিসোডের পর এক সাক্ষাৎকারে রাখি বলেছেন জীবনের গল্প।

গল্পটা এমন- ‘বন্দুকের মুখে নায়িকা। তখনই নায়কের প্রবেশ। গুন্ডাদের কবল থেকে নায়ক বাঁচিয়ে আনল নায়িকাকে। তারপর ‘হ্যাপিলি এভার আফটার’।

আরও পড়ুন:


গণধর্ষণের চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে কলেজছাত্রীর গায়ে আগুন

বাবার সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে রাতধর ধর্ষণের শিকার মেয়ে

৩০-৩২ গার্লফ্রেন্ড থাকার পরও আমাকে ভালোবাসত নাসির: তামিমা

আমার সব প্রশ্নের জবাব ইসলামে পেয়েছি: কানাডিয়ান নারী


জানালেন, এক দল গুন্ডা বন্দুক দিয়ে ভয় দেখিয়ে একবার তাঁকে ‘কিডন্যাপ’ করার চেষ্টা করেছিল। তার পর খুব অস্বাভাবিক পরিস্থিতে রিতেশের সঙ্গে বিয়ে হয়েছিল রাখির।

রাখি জানান, সেই সময় খুবই খারাপ অবস্থায় ছিলেন তিনি। একজন ‘গুন্ডা’ নাজেহাল করে তুলেছিল তাঁকে। তার হাত থেকে মুক্তি পেতেই রিতেশকে বিয়ে করেছিলেন তিনি। এমনকি রাখির মা জয়া সাওয়ান্তও চিনতেন এই গুন্ডাকে।

বিয়ে করতে এসে রিতেশের পালিয়ে যাওয়ার গল্পও প্রকাশ্যে এনেছেন রাখি।

তিনি বললেন, রিতেশ আমাকে বিয়ে করার জন্য রাজি হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু শেষ মুহূর্তে ও বিয়ে করতে আসেনি। এরপর যখন রিতেশ বিয়ে করতে আসেন, কিছু সাংবাদিক তখন রাখির বিয়ের খবর জানতে পারেন।

সংবাদমাধ্যমের থেকে নিজেকে আড়ালে রাখার জন্য যে হোটেলে বিয়ের আসর বসেছিল, তার পেছনের দরজা দিয়ে চম্পট দিয়েছিলেন রিতেশ।

রাখি জানালেন, বিবাহিত অবস্থাতেই তাঁর সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়েছিলেন রিতেশ। প্রথম বিয়ে থেকে একটি সন্তানও ছিল তাঁর। কিন্তু সে কথা রাখির কাছে লুকিয়েছিলেন রিতেশ।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর