ঠাকুরগাঁওয়ে চোর সন্দেহে দু’জনকে মধ্যযুগীয় নির্যাতন

অনলাইন ডেস্ক

প্রিন্ট করুন printer
ঠাকুরগাঁওয়ে চোর সন্দেহে দু’জনকে মধ্যযুগীয় নির্যাতন

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার রুহিয়ায় বাইসাইকেল চোর সন্দেহে দুই যুবককে মধ্যযুগীয় নির্যাতনের অভিযোগ ইউপি সদস্যরে বিরুদ্ধে।

বুধবার (১৩ জানুয়ারি) বিকালে উপজেলার রুহিয়া থানাধীন ঘুরনগাছ চারপুকুর ঈদগা মাঠে এঘটনা ঘটে। নির্যাতিত দুই ব্যক্তি হলেন, পাড়িয়া শিংহাড়ী গ্রামের ইউনুস আলীর ছেলে আমিনুল ইসলাম (২৭) ও হরিণমারী ভেলারহাট এলাকার কাবিল ইসলামের ছেলে নয়ন (২৬)।

স্থানীয়রা জানান, বাজারে ২জন যুবককে চোর সন্দেহে হাতেনাতে আটক করি। পরে ১নং রুহিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের কাছে নিয়ে যাওয়ার জন্য স্থানীয় ইউপি মেম্বার জয়নাল আবেদীন (সালোয়ার)’র হাতে তুলে দেয়। 


জামালপুরে ৭ বছরের শিশুকন্যা ধর্ষণের শিকার

কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে বালুর ওপর বসে সুনেরা

খুলনায় ভাড়া না পেয়ে ভাড়াটিয়াকে তালাবদ্ধ, শিশু সন্তানের মৃত্যু


কিন্তু ইউপি মেম্বার পরিষদে না নিয়ে তার ব্যক্তিগত হাস্কিং মিলের একট গোপন কক্ষে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্মম নির্যাতন চালায়। দুই যুবকের মারের চিৎকারে এলাকাবাসী ভীর জমাতে থাকে।

পরে সাংবাদিকরা খবর পেয়ে ঘটনা স্থলে গেলে ইউপি সদস্যের কিছু বখাটে ছেলে তাদেরকে ভিতরে প্রবেশ ও ছবি তুলতে বাধা দেয়। আর সংবাদ প্রকাশ করলে তদের খবর আছে বলে হুমকি দেয়। পরে ঠাকুরগাঁও রিপোর্টার্স ইউনিটির সদস্য আনোয়ার হোসেন রুহিয়া থানার ওসিকে মুঠোফোনে পুলিশ পাঠাতে বলেন। কিন্তু ২ ঘন্টা পুলিশ ঘটনা স্থলে উপস্থিত হতে পারেননি।

এ ব্যাপারে ইউপি সদস্য জয়নাল আবেদীন (সালোয়ার)’র যোগাযোগ করা হলে তিনি কথা বলতে রাজী হননি।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মনিরুল হক বাবু নির্যাতনের কথা অস্বীকার করে বলেন, তেমন কিছু না। ঘটনা স্থল থেকে আমি ঐ দুজনকে উদ্ধার করে পরিষদে নিয়ে এসেছি। পরে থানায় দিব।  

এ বিষয়ে রুহিয়া থানার ওসি চিত্ররঞ্জন কুমার রায় বলেন, আমাকে কেউ কিছু জানাইনি। কেউ অভিযোগ দিলে দেখব।

news24bd.tv / কামরুল 

মন্তব্য