কি এমন ইউনিক উপায়ে ঘনিষ্ঠ হয়েছিলো দিহান?

রাখী নাহিদ, নিউইয়র্ক

কি এমন ইউনিক উপায়ে ঘনিষ্ঠ হয়েছিলো দিহান?

নিউইয়র্ক শহর স্পেশালি নিউইয়র্ক এর সাবওয়ে ষ্টেশন হল হোমলেস, ড্রাগ এডিক্ট আর পাগলের আখড়া। সাবওয়ে দিয়ে চলতে ফিরতে অসংখ্য পাগল দেখা যায়। কোন এক বিশেষ কারনে এই পাগলদের নিরানব্বই দশমিক নয় নয় ভাগই কালো ভাই।

এই দুইমাসে আমি পিওর সাদা পাগল দেখেছি মাত্র একজন। সে আবার পাগল হলেও খুব ক্লাসি পাগল। অপেরা গেয়ে গেয়ে ট্রেন এর মধ্যে নিজের মনে নৃত্য পরিবেশন করছিলো। অন্য কোনদিকে তার উৎসাহ নাই। 

আর কালো পাগলদের আচরণ দেখলেই পিলে চমকে যায়। এদের পোশাক আশাক চাল চলন সবই ভয়ঙ্কর। এদের কেউ কেউ ড্রাগ এর নেশায় এমন বুদ হয়ে থাকে যে কিছু বোঝার আগেই চোখের সামনে ধরাম ধরাম করে মাটিতে পড়ে যায়।

তবে কিছুদিন এই পাগলদের দেখার পর আমি রিয়েলাইজ করেছি এইসব পাগলদের কর্মকাণ্ড যতই ভয়ঙ্কর হোক এরা মানুষকে এটাক করে না।

কিন্তু যত যাই হোক পাগল তো পাগলই। পাগলের কোন বিশ্বাস নাই। আগে কাউকে এটাক করে নাই বলে কোনদিন করবে না এর গ্যারান্টি কি? এদের দেখলেই আমার কলিজা শুকায়ে যায়। 

যাই হোক আসল ঘটনায় আসি, কথায় আছে যেখানে বাঘের ভয় সেখানেই রাত হয়। একটু আগে ট্রেনে করে বাসায় ফিরছিলাম। পথিমধ্যে একবার ট্রেন চেঞ্জ করে ভুল ট্রেনে উঠে গেলাম। উল্টা পথে এক ষ্টেশন যাওয়ার পরে নেমে দেখি ষ্টেশনে কাকপক্ষীও নাই। শুধু পাঁচ সাতজন পাগল আছে।
 
এদের মধ্যে দুইজন ড্রাগের নেশায় দুলছে, যেকোন মুহুর্তে মাটিতে চিতপটাং হয়ে যাবে। একজন প্রচণ্ড ভায়োলেন্ট, বিভিন্ন যায়গায় লাত্থি দিচ্ছে আর মুখ দিয়ে ভয়ংকর শব্দ করছে। বাকিরা অপেক্ষাকৃত ধিরস্থির হলেও চেহারা অতিশয় ভয়ংকর। 

এদের দেখে আমার শরীর অসাড় হয়ে গেল। কিন্তু করার কিছু নাই। বাসায় তো যেতে হবে। একমাত্র হাতিয়ার হাতের ফোনটা। বিপদ দেখলে ৯১১ কল করবো ডিসিশন নিয়ে ফেললাম।

ট্রেন আসতে তখনো দুইমিনিট বাকী। আমি যত সুরা জানি সব মনে মনে পড়তে শুরু করলাম। কিন্তু কাহিনী সেখানেই শেষ হল না। কিছুক্ষণ আগে একবার মেট্রোকার্ড সুয়াইপ করার কারনে এইবার আমি সেইম কার্ড আবার পাঞ্চ করে প্লাটফর্মেও ঢুকতে পারছিলাম না। 


ট্রাম্পের অভিশংসন: এরপর কী?

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তদন্ত দল চীনে পৌঁছেছেন


ভয়ে, নার্ভাসনেসে, কাজ হবে না জেনেও বার বার কার্ড সুয়াইপ করছি আর প্রতিবার রিজেক্টেড হচ্ছে। এত হেল্পলেস লাগছিলো মনে হচ্ছিলো চিৎকার করে কাঁদি। 

এমন সময় হঠাৎ সেই পাগলদের একজন আমার দিকে এগিয়ে এলো। আমার প্রায় হার্ট এটাক হবে এমন সময় সে নিজের নোংরা ঝোলা থেকে একটা মেট্রোকার্ড বের করে সুয়াইপ করে আমার দিকে তাকিয়ে বলল- যাও।

আমি তাকে ধন্যবাদ দিয়ে প্লাটফর্মে ঢোকার এক মুহূর্ত পরেই ট্রেন এলো। তবে এবার আমি ভয় না, একেবারে অন্য এক অনুভূতি নিয়ে ট্রেনে উঠলাম। মনে পড়লো, আমার ভালোবাসার বাংলাদেশে সমবয়সী বন্ধু তার কিশোরী বান্ধবীকে বাসায় ডেকে নিয়ে না জানি কি এমন ইউনিক উপায়ে ঘনিষ্ঠ হয়েছিলো, যে মেয়েটা মরেই গেলো। 

আর এই দূরদেশে একদল হোমলেস পাগল যাদের দেখে পটেনশিয়াল রেপিস্ট মনে হয়। তাদের একজন নিজের তিন ডলার খরচ করে আমাকে নিরাপদে বাড়ি ফিরতে প্লাটফর্মে ঢুকিয়ে দিলো। 

অবাক বিস্ময়ে ভাবি, পৃথিবীর কোথাও কোথাও পাগলেরও মানবিকতা আছে, পাগলেরাও মেয়েদের সম্মান দিতে জানে। অথচ সেই পৃথিবীর কোথাও তথাকথিত সুস্থ মানুষই মানুষের জন্য সবচেয়ে অনিরাপদ, বন্ধুও বন্ধুকে রেইপ করে মেরে ফেলে...

news24bd.tv আয়শা

 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

সকলের জন্য শ্রবণশক্তির যত্ন

সাদিয়া তাজ ঐশী

সকলের জন্য শ্রবণশক্তির যত্ন

যোগাযোগ একটি মানবাধিকার এবং এটি সামাজিক সম্পর্কের অন্যতম অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ। শ্রবণশক্তি ভালো যোগাযোগের জন্য অত্যন্ত গরুত্বপূর্ণ ভূমিকা বহন করে। শিশুদের জধ্যে শ্রবণশক্তি বিকশিত না হলে তারা অনেক সময় পরিপূর্ণভাবে মনের ভাব প্রকাশ করতে পারে না, যোগাযোগ ক্ষমতা ব্যাহত হয়।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে, ২০৫০ সাল নাগাদ প্রতি চারজনে একজন শবণশক্তির ঘাটতিতে আক্রান্ত হবে। প্রতি বছর ৩ মার্চ বিশ্ব শ্রবণ দিবস পালিত হয়। ২০২১ সালের প্রতিপাদ্য ‌সকলের জন্য শ্রবণশক্তি শ্রবণ যন্ত্রের পরীক্ষাকরণ- পুনবাসন- যোগাযোগ।


আবাসিক হোটেলে অনৈতিক কর্মকাণ্ড, ধরা ২০ নারী

চুমু দিয়ে নারীদের সব রোগ সারিয়ে দেন ‘চুমুবাবা’

বুবলিকে ধাক্কা দেওয়া গাড়িটি ছিল ব্ল্যাক পেপারে মোড়ানো, ছিল না নম্বর প্লেট

অস্ত্রের মুখে ছাত্রীকে বিবস্ত্র করে ভিডিও ধারণের পর দফায় দফায় ধর্ষণ


প্রবৃত্ত এবং অধির ফাউন্ডেশনের যৌথ প্রযোজনায় শব্দ দূষণ এবং শ্রবণ ক্ষমতার ঘাটতি এর উপর একটি ফিজিক্যাল সেমিনার সভা অনুষ্ঠিত হয়। এখানে শ্রবণশক্তির প্রতি কীভাবে যত্ন নেওয়া যায়, কীভাবে দূষণ প্রবণের ক্ষতিসাধন করে এসবই আলোচনা করা হয়। উক্ত সভাটি পরিচালনা করেন প্রবৃত্তির সভাপতি মুবাশশিরা বিনতে মাহবুব এবং এডমিন ও এইচআর লাবিবা মোর্শেদ।

এছাড়াও প্রবৃত্ত এবং অধীর ফাউন্ডেশন সম্মিলিতভাবে যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে ওয়েবিনার এর আয়োজন করে, এতে জনস্বাস্থ্য বিশেজ্ঞরা উপস্থিত ছিলেন। তারা শ্রবণ শক্তি বাংলাদেশ বধিরতার সামগ্রিক অবস্থা শ্রবণশক্তির সহায়ক যন্ত্র ও যন্ত্রের ব্যাপারে কথা বলেন। অডিয়েন্স থেকে প্রশ্নোত্তর এর একটি সেশন ছিলো যেখানে অতিথিরা উত্তর প্রদান করেন।

ওয়েবিনার এ শবণক্ষতির প্রতিরোধযোগ্য পদক্ষেপগুলো নিয়ে আলোচনা করা হয় এবং এ ব্যাপারে সাধারণ মানুষের সচেতনতা তৈরির জনসাধারণকে উদ্বুদ্ধ করা হয়ে থাকে।

সাদিয়া তাজ ঐশী, রিক্টর অফ পাবলিকেশন

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

যারা মনে করেন মুশতাক মারা গেছেন কিশোর বেঁচে ফিরেছেন- তাঁরা ভুল

আরিফ জেবতিক

যারা মনে করেন মুশতাক মারা গেছেন কিশোর বেঁচে ফিরেছেন- তাঁরা ভুল

কিশোরকে আমি চিনতাম অতল প্রাণোচ্ছল একজন দুর্দান্ত সাহসী মানুষ হিসেবে। খানিকটা খ্যাপা, কিন্তু আপাদমস্তক একজন ভালো মানুষ। তাঁরা দুই ভাইই মেধাবী মানুষ, এরা সরকারি ঊর্দির চাকরি কিংবা বুয়েটের পড়াশোনার পর্ব চুকিয়ে ছন্নছাড়া এক সাহসী জীবন-যাপন করে।


আবাসিক হোটেলে অনৈতিক কর্মকাণ্ড, ধরা ২০ নারী

চুমু দিয়ে নারীদের সব রোগ সারিয়ে দেন ‘চুমুবাবা’

বুবলিকে ধাক্কা দেওয়া গাড়িটি ছিল ব্ল্যাক পেপারে মোড়ানো, ছিল না নম্বর প্লেট

অস্ত্রের মুখে ছাত্রীকে বিবস্ত্র করে ভিডিও ধারণের পর দফায় দফায় ধর্ষণ


কিশোরের এই ছবি দেখে আমি চমকে গেছি। যারা মনে করেন মুশতাক মারা গেছেন আর কিশোর বেঁচে ফিরেছে- তাঁরা ভুল ভাবছেন।

কিশোরের ভেতরটাকে মেরে ফেলেছে সরকার, যা ফেরত দিয়েছে সেটা এক জীর্ণ লাশ মাত্র।

তবে শীতের শেষে বসন্ত এলে, এই কিশোরের জীর্ণ আঙুলে আবারও বিদ্রুপের ফুল ফুটবে, এই দৃঢ় বিশ্বাস আমার আছে। 
ভালো থাকুন কিশোর।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

বিসিএস এর প্রশ্নে নকলের অভিযোগ

আব্দুন নুর তুষার

বিসিএস এর প্রশ্নে নকলের অভিযোগ

৪২ তম বিসিএসের প্যাথলজি অংশের ২৫ টি প্রশ্নের মধ্যে ১৮ টি একই বই থেকে নেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব আব্দুন নুর তুষার। নিজের ফেইসবুক পেইজে তিনি এই অভিযোগ করেন। তার স্ট্যাটাসটি হুবহু পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো-


আবাসিক হোটেলে অনৈতিক কর্মকাণ্ড, ধরা ২০ নারী

চুমু দিয়ে নারীদের সব রোগ সারিয়ে দেন ‘চুমুবাবা’

বুবলিকে ধাক্কা দেওয়া গাড়িটি ছিল ব্ল্যাক পেপারে মোড়ানো, ছিল না নম্বর প্লেট

অস্ত্রের মুখে ছাত্রীকে বিবস্ত্র করে ভিডিও ধারণের পর দফায় দফায় ধর্ষণ


৪২তম বিসিএস এর মেডিকেল অংশে প‍্যাথলজির ২৫ টা প্রশ্নের ১৮ টি একটি এমসিকিউ বই থেকে হুবহু তুলে দেওয়া।
Smiddy Pathology Question bank বের করে নিচের পেইজগুলো খুলে দেখতে পারেন!!
নকল করতে গিয়েও বানান ভুল!!
control কে লিখেছে cortisol!!!
আমার বহু বন্ধু শিক্ষক। অনেকেই প্রশ্নপত্র প্রস্তুত করেন। এক জায়গা থেকে ১৮ টা প্রশ্ন টুকলি করাকে কি মডারেশন বলে? কেউ কি বলতে পারেন?
শুধু অযোগ্যতা না। এটা পরীক্ষা ও পরীক্ষার্থীদের মেধার অপমান।
smiddy
3 page  24.7
10 page 7.35
18 page 17.28
21 page 2.11
21 page 19.2
24 page 21.7
30 page 3.7
34 page 17.10
35 page 24.5
36 page 2.6
45 page 22.3
47 page 5.2
52 page 22.9
57 page 12.10
120page 7.3
203 page 14.10
245 page 17.27
301 page 24.7
মিলিয়ে দেখেন।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

বাচ্চাকে কী শেখাব, বুঝি না

কাজী তাহমিনা

বাচ্চাকে কী শেখাব, বুঝি না

ভালো মানুষ, সৎ মানুষ হয়ে এই দেশে থাকতে হলে সারাজীবন স্রোতের বিপরীতে চলতে হবে, মাঝেমাঝে চোর বাটপার ঘুষখোর লুটপাটকারী পাচারকারী ভোটচোরদের রমরমা অবস্থা দেখে দীর্ঘ নিঃশ্বাস ফেলা ছাড়া কোনো উপায় থাকবে না, বড়জোর ‌‘বাজারে মুরগির দাম, তেলের দাম বাড়ছে’ জাতীয় মিনমিনে প্রতিবাদ করতে হবে।

কোটি কোটি জিপিএ ফাইভের ভিড়ে পড়াশোনা হারিয়ে যাবে।


আবাসিক হোটেলে অনৈতিক কর্মকাণ্ড, ধরা ২০ নারী

চুমু দিয়ে নারীদের সব রোগ সারিয়ে দেন ‘চুমুবাবা’

বুবলিকে ধাক্কা দেওয়া গাড়িটি ছিল ব্ল্যাক পেপারে মোড়ানো, ছিল না নম্বর প্লেট

অস্ত্রের মুখে ছাত্রীকে বিবস্ত্র করে ভিডিও ধারণের পর দফায় দফায় ধর্ষণ


 

দূষিত বাতাস আর ভেজাল খাবার খেয়ে খেয়ে অর্ধমৃত অবস্থায় বাঁচতে হবে। আবার যুগের সাথে তাল মিলিয়ে বাটপারি শেখাবো যে সে এলেমও নাই। এরকম একটা ত্রিশঙ্কু অবস্থায় আছি।

কী শেখাব খুঁজে না পেয়ে, বড়টাকে বললাম, ১৫ টা বাংলা গল্পের বই আর ৫ টা ইংরেজি গল্পের বই (ছোট) পড়ে শেষ করতে পারলে সেপ্টেম্বর মাসে জন্মদিনে সে তার পছন্দমতো খেলনা ( রঙবেরঙ এর স্লাইম) আর উকুলেলে উপহার পাবে। এখন সকাল-বিকেল ‘মজার ভূত’ নিয়ে পড়ে আছে।

কাজী তাহমিনা, বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক। (ফেসবুক থেকে)

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

‘তুমি খু-উ-ব কাছে চলে আসছো’

শওগাত আলী সাগর

‘তুমি খু-উ-ব কাছে চলে আসছো’

‘hey, you’re getting a bit too close,’-‘হেই, তুমি খু-উ-ব কাছে চলে আসছো’। সহকর্মীর কাছাকাছি হতেই কেউ যেনো সতর্ক করে দিলো। হ্যাঁ, এটিই এখন টরন্টো পিয়ারসন ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্টে কর্মরত প্রায় এক হাজার কর্মীর জন্য বাস্তবতা।

অনেকটা পেজারের মতো ছোট্ট একটি ডিভাইস। ঠিক জামার সাথেই লাগিয়ে রাখা যায়।  কোভিডের সংক্রমণ থেকে এয়ারপোর্টে কর্মরত কর্মীদের রক্ষা করতে এই ডিভাইসের ব্যবহার শুরু করেছে এয়ারপোর্ট কর্তৃপক্ষ।

ডিভাইস সঙ্গে আছে এমন দুজন দুই মিটারের কাছাকাছি এলেই ডিভাইসটি স্বয়ংক্রিয়ভাবে সতর্ক করে দেয়- ‘hey, you’re getting a bit too close,’. পরষ্পরের কাছ থেকে দুই মিটার দূরে থাকাটা কোভিড প্রতিরোধে অনুসরণীয় স্বাস্থ্যবিধি।


আরও পড়ুনঃ


আমাকে ‘বলির পাঁঠা’ বানানো হয়েছে: সামিয়া রহমান

প্রথমবারের মতো দেশে পালিত হচ্ছে টাকা দিবস

ইয়ার্ড সেলে মিললো ৪ কোটি টাকার মূল্যবান চীনামাটির পাত্র!

এই নচিকেতা মানে কী? আমি তোমার ছোট? : মঞ্চে ভক্তকে নচিকেতার ধমক (ভিডিও)


এয়ারপোর্টের কর্মীরা কে কার কাছে গেছেন সেটা স্বয়ংক্রিয়ভাবে রেকর্ডেড হয়ে থাকে এই ডিভাইসে। কেউ কোভিডে আক্রান্ত হলে ডাটা দেখে সহজেই বের করে ফেলা যায় কার কার প্রতি মনোযোগ দিতে হবে।

news24bd.tv / নকিব

মন্তব্য

পরবর্তী খবর